প্রশ্নঃ আমাদের সৃষ্টিকর্তা বা রব কে?
উত্তরঃ আল্লাহ্।

প্রশ্নঃ আমাদের সৃষ্টিকর্তা আল্লাহ্ কোথায় আছেন?
উত্তরঃ সপ্তাকাশের উপর আরশে আযীমে। (সূরা ত্বাহাঃ ৫)

প্রশ্নঃ আল্লাহর আরশ কোথায় আছে?
উত্তরঃ সাত আসমানের উপর।

প্রশ্নঃ আল্লাহ কি সর্বস্থানে বিরাজমান?
উত্তরঃ না। আল্লাহ্ সব জায়গায় বিরাজমান নন। তিনি সপ্তকাশের উপর সুমহান আরশে সমুন্নত। (সূরা ত্বাহাঃ ৫)

প্রশ্নঃ একথা সঠিক যে আল্লাহ সর্বস্থানের খবর জানেন।

উত্তরঃ অবশ্যই। আল্লাহ্ সব জায়গায় বিরাজমান নন। তিনি সপ্তকাশের উপর সুমহান আরশে থেকেই সব জায়গা পর্যবেক্ষণ, নিয়ন্ত্রণ ও শাষণ করেন। তাই এবিষয়েও কেউ তার সমকক্ষ নয়।

প্রশ্নঃ তাওহীদ কাকে বলে?
উত্তরঃ তাওহীদ অর্থ একত্ববাদ। শরীয়তের পরিভাষায়- ইবাদতের ক্ষেত্রে আল্লাহকে একক নির্দিষ্ট করার নাম তাওহীদ।

প্রশ্নঃ তাওহীদ কত প্রকার?
উত্তরঃ তাওহীদ ৩ প্রকার।

প্রশ্নঃ তিন প্রকার তাওহীদ কি কি?
উত্তরঃ
(১) তাওহীদে রুবূবিয়্যাহ্ বা কর্ম ও পরিচালনার একত্ববাদ
(২) তাওহীদে উলূহিয়্যাহ্ বা দাসত্বের একত্ববাদ
(৩) তাওহীদে আসমা ওয়া সিফাত বা নাম ও গুণাবলীর একত্ববাদ।

প্রশ্নঃ তাওহীদে রুবূবিয়্যাহ্ কাকে বলে?
উত্তরঃ আল্লাহ্ তাঁর কর্ম সমূহে একক- তাঁর কোন শরীক নেই, একথা মেনে নেয়ার নাম তাওহীদে রুবূবিয়্যাহ্।

প্রশ্নঃ তাওহীদে উলূহিয়্যাহ্ কাকে বলে?
উত্তরঃ বান্দার ইবাদত-বন্দেগী ও দাসত্ব এককভাবে আল্লাহর জন্যে নির্দিষ্ট করার নাম তাওহীদে উলূহিয়্যাহ্।

প্রশ্নঃ তাওহীদে আসমা ওয়াস সিফাত কাকে বলে?
উত্তরঃ কুরআন ও হাদীসে আল্লাহর অনেক সুন্দর সুন্দর নাম ও গুণাবলী উল্লেখ রয়েছে, যা তাঁর শ্রেষ্ঠত্ব ও পরিপূর্ণতার প্রমাণ বহন করে, সেগুলোকে কোন প্রকার ধরণ-গঠন নির্ধারণ না করে বা অস্বীকার না করে সেভাবেই মেনে নেয়ার নাম তাওহীদে আসমা ওয়াস সিফাত।

11 thoughts on "ইসলামী আক্বীদা বিষয়ক গুরুত্বপূর্ণ কিছু প্রশ্ন-উত্তর:"

  1. Mahbub Mahbub Contributor says:
    Nice post…
    1. Md Khalid Md Khalid Author Post Creator says:
      thank you
  2. ট্রিকবিডি পাগলা PipulBD Contributor says:
    very nice post
    1. Md Khalid Md Khalid Author Post Creator says:
      thank you
  3. Md Khalid Md Khalid Author Post Creator says:
    kichu manush ache jara 3 number question dekhle ekhane jhor uthe jeto, tader bissash je – Allah shorbotro birajman….. problem hoilo alem ra ja bolen tader dolil Quran o hadith, ar era ja bole tader dolil Bissash ar babar kotha.
  4. 111111 Contributor says:
    তোমার টিউনার পদ বাতিল চাই। তুমি এর আগে অনেক ভুল পোস্ট করছো! এটাও আমি চেক করে দেখছি। ওয়েট
    1. Md Khalid Md Khalid Author Post Creator says:
      dekho vai ————- তুমি গত ৫০ বছরের আলেম দের নাম বলেছ, আমি গত ১৫০০ বছরের আলেম দের নাম বলেছি। তাদের কথা ঠিক আর বর্তমান দের কথা ভুল ই হবে। কারন তোমার আলেম রা সাহাবীদের কথার বিপরীত কথা বলে। 111111
  5. apatani Contributor says:
    গুড পোস্ট
  6. kawsar kawsar Contributor says:
    Khalid vai allah ke niye gobeshona korle gumrah hoye jai…tai allah ke chinte hole allahr toiri krito jinis niya chinta korte hobe…… Apnar lekha shob kotha thik ase but allah holen Alimul gayeb….Allah shokol jaigai biraj man karon hadiser bhitore apni khujle paben je prottek muminer ontor allahr aroshvar shekjanei aalh thaken
    1. Md Khalid Md Khalid Author Post Creator says:
      kawsar vai thank you…………… important point bolar jonno ——-
      na vai. Allah ek jayga theke shorbotro porjobekkhon koren, alemul gayeb hote sob jaygate nije upostit thakte hoyna, ejonnei tini ek o ekok. ALLAH SOB KHANE eta bola akida birudhi kotha. ALLAH KI MOYLA BORJONATEO ACHEN? naujubillah. —
      ——-
      apnar kotha thik ache je – Allahke niye noy, Allahr sristi niye chinta korte hobe, kintu Allah jeta bolechen nijer shomporke ta niye thik vabna bavte hobe- jemon -Allah rahim, Allah rahman, Allah rajjak, rahman o rahim ki? rajjak ki? ettadi. Allah ke niye eshoob vabtei hobe o bissaassh korte hobe .

Leave a Reply