ফ্রীল্যান্সিং এর জন্য C কি খুবই জরুরী? আমি মনে করি সি জানলে PHP সহজ লাগবে। এছাড়া সি এর  দরকার নাই। তবে ব্যাসিক PHP জানলেই হবে। আমি অনেক বাঘা বাঘা ওয়েব ডেভলপার দেখেছি যারা সি এর কম্পাইলার ইনিস্টলই করতে পারে না। সো তারা কি পারতেছে না? যারা ফ্রীল্যান্সিং কে ক্যারিয়ার হিসাবে নিতে চান তারা নিচের ল্যাংগুয়েজ গুলা শিখতে পারেন বা নিচের যে কোন একদিকে যেতে পারেন। সব গুলো একসাথে শিখতে যাবেন না। যে কোন একটা গ্রুপ শিখুন তাহলেই হবে। মনে রাখবেন যে ডাক্টার মাথার চিকিৎসা জানে আবার হার্টের চিকিৎসা জানে তার কাছে বেশি রুগি হয় না কারন মানুষ মনে করে সে ২ টার একটাও ভালো পারে না। তবে শুধু হার্ট স্পেশালিস্ট এর কাছে রুগির অভাব হয় না বা মাথা স্পেশালিস্ট যাক ডাক্টারি বাদ দিয়ে আমারা পোগ্রামিং এ ফিরে আসি।

HTML+CSS+JavaScripts+PHP+MySQL= ভালো ওয়েব ডেভলপার হোয়ার জন্য/ ওয়ার্ড প্রেস শেখার জন্য। (মার্কেট হট, প্রচুর কাজ, আগামী ৫০ বছরেও কাজ শেষ করতে পারবেন না, দেশে প্রচুর কোম্পানি আছে যেখানে ইন্টার্নি করতে পারবেন)

C#+ASP.NET= মাইক্রোসফট এর প্রডাক্ট বানানোর জন্য। (কাজ অল্প বাট বাজেট বেশি থাকে, সীমিত কিছু কোম্পানি ইন্টার্নি করায়)

Objective C+iOS development= iPhone apps and apple products বানানোর জন্য। (কাজ খুবই কম দেশে ২ থেকে ৪ টা কোম্পানি আছে সেখানে ইন্টারনি করার চান্স খুবই কম। বাট পরিচিত থাকলে হয়েযায়)

Java+Android development= অ্যান্ডোয়েড ডিভাইস অ্যাপ্স ডেভ্লপমেন্ট এর জন্য। (দেশে মোটামোটি অনেক কোম্পনিই আছে যারা এখন অ্যান্ড্রোয়েডের অ্যাপ্স বানাই। সো ইন্টার্নি করতে পারবেন)

Oracol DBA= ফ্রীল্যান্সিং এর তুলনায় জব হয়ে যাওয়ার চান্স বেশি। ব্যাংকিং সফটওয়্যার এর জন্য খুবই জরুরী।

এছারা ডিজাইনে অনেক কাজ আছে। লগো ডিজাইন, ওয়েব ব্যানার ডিজাইন, ওয়েব লেয়াঊট ডিজাইন, প্রিন্ট ডিজাইন। (ইন্টারনির প্রচুর সুযোগ। দেশে ভালো ডিজাইনার এর প্রচুর অভাব)

এছারা SEO+SMM+SEM+YTM+IM= এ অনেক কাজ আছে। এইগুলো শিখেও আপনার টাকার অভাব হবে না।

তাছারা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং ও অ্যাডসেন্স করে অনেক টাকা ইঙ্কাম করতে পারবেন।

এছারা প্রফেশনাল রাইটার হিসাবে শুরু করতে পারবেন। ইংলিশে ভালো জ্ঞান থাকতে হবে। প্রচুর কাজ।

মনে রাখবেন থিউরি শেখাই মেইন জিনিস না। অনেকে অনেক থিউরি পারে বাট রিয়েল টাইম কিছুই পারেনা। আমি মনে করি ফ্রী হলেও কোথাও ৬ থেকে ১২ মাস ইন্টার্নি করেন। কিছু রিয়েল টাইম কাজ করেন। এর পর সারা জীবন শুধু টাকা গুনবেন। ১২ মাস এর ফ্রী খাটুনি আর ৬ মাসের থিউরি শেখার ফল ভোগ করবেন। ডিজাইনার দের জন্য ইস্পেশাল কথা হল ফটোশপ বা ইলাস্ট্রেটর এর টুল শেখাই ডিজাইন শেখা না। ডিজাইন শেখা হল ক্লাইন্টের রিকোয়ারমেন্ট বুঝে তাকে সুন্দর কিছু দেওয়া এবং ডিজাইন সেন্স। যা দেখে সে WOW বলেব। এই জন্য একজন ভালো ডিজাইনার এর সাথে থেকে কম পক্ষে ১২ মাস ইন্টার্নি করা উচিত।

যারা নতুন এই লাইনে আসতে চাচ্ছেন এই পোস্টটি যদি একটুও উপকারে আসে তাহলেই আমি সার্থক।

আমি ফেসবুকে রয়েছি ********

3 thoughts on "ফ্রীল্যান্সিং সম্পর্কে জানুন।কিভাবে ফ্রীল্যান্সিং করে টাকা আয় করা যায়"

  1. SM MoniR SM MoniR Contributor says:
    রানা ভাই plz Make Me টিউনার। আমার টিউনগুলো একবার দেখুন ভাই।


    1. MH SUNNY MH SUNNY Contributor says:
      vay apnay ato chikar… par ta can ka….admin vay dar gody apnar post valo laga ta hola tara… apna ka nig issai tunner ship dibe
    2. Farhan Monsur Md Fahim Author Post Creator says:
      monir valo post koren.rana vai ar valo lagle tunership paben

Leave a Reply