আমাদের কাজ না থাকলে আমরা অনেক সময় বসে থাকি, যার ফলে অনেক বিরক্ত বোধ করি। আমরা এই বিরক্তকর সময়গুলোকে বিভিন্ন বিনোদনমূলক কাজের মধ্যে ব্যস্ত রাখার চেষ্টা করি। আপনারা চাইলে আপনার এন্ড্রয়েড মোবাইল দিয়েও সে বিরক্তকর মুহূর্তগুলো উপভোগ করতে পারবেন।

চলুন তাহলে কথা না বাড়িয়ে শুরু করি…

১. পার্সোনালাইজেশন ও কাস্টমাইজেশন: অন্যান্য অপারেটিং সিস্টেমের তুলনায় আপনি সবচেয়ে বেশি কাস্টমাইজ করার অপশন পাবেন অ্যান্ড্রয়েডে। তাই আপনার অবসর সময়গুলোতে আপনি অ্যান্ড্রয়েডের বিভিন্ন ধরনের সফটওয়্যার কাস্টমাইজ করে আপনার ফোনকে আরো আকর্ষণীয় করে ফেলতে পারবেন। এছাড়া এন্ড্রয়েড ফোনকে কাস্টমাইজ করে আপনার মোবাইল কোম্পানি আপনাকে যে সুবিধা দিচ্ছে তার থেকে অধিক সুবিধা গ্রহণ করতে পারবেন। তাই বোরিং সময়গুলোকে এই কাজে ব্যবহার করতে পারেন। এতে আপনার সময়টা নষ্ট হবে না এবং আপনি মোবাইলের বিভিন্ন খুঁটিনাটিও শিখতে পারবেন।

২. google assistant এর ব্যবহার: আপনি চাইলে অলস সময় গুলোকে গুগল এসিস্টেন্ট এর সাথে গল্প করে কাটাতে পারেন। আপনি গুগল এসিস্টেন্ট কে যা বলবেন তার উত্তর সে দিবে। এছাড়া পৃথিবীর যেকোন প্রশ্নের উত্তর গুগল এসিস্ট্যান্ট দিতে সক্ষম হওয়ায় আপনি আপনার অজানা বিভিন্ন মজার মজার তথ্যগুলো খুব সহজে জানতে পারবেন। গুগল এসিস্টেন্ট এর আরও একটি বড় সুবিধা হল আপনি google assistant এর সাথে বিভিন্ন ধরনের কথাবার্তার মাধ্যমে গল্প করতে পারবেন। এছাড়া গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট এর মাধ্যমে আপনি বিভিন্ন অ্যাপস কে সুন্দরভাবে কমান্ড দিয়ে সেগুলো ব্যবহার করতে পারবেন। অলস সময় গুলোকে কাটানোর জন্য এটা একটি সুন্দর মাধ্যম হতে পারে।

৩. অপ্রয়োজনীয় ফাইল বা ছবি ডিলিট করা: আমাদের মোবাইল ফোন গুলোতে অনেক অপ্রয়োজনীয় ফাইল বা ছবি থাকে, যেগুলো আমরা ডিলিট করতে সময় পাইনা। আপনি চাইলে আপনার অবসর সময় গুলোতে এই ছবি এবং ফাইলগুলো ডিলিট করে সময় কাটাতে পারেন। এতে করে আপনার সময়টাও উপভোগ করা হবে এবং আপনার ফোনের স্টোরেজও খালি হবে।

৪. মেইল আনসাবস্ক্রাইব করা: প্রতিদিন আমাদের ইমেইলে অসংখ্য অপ্রয়োজনীয় email আসে। আপনি চাইলে অবসর সময়ে সেই ইমেইল গুলো আনসাবস্ক্রাইব করে ফেলতে পারেন। এতে করে আপনার ইমেইল পরিষ্কার হবে এবং আপনার সময়টাও অযথা নষ্ট হবে না। অযথা মেইলগুলো আনসাবস্ক্রাইব করলে পরবর্তীতে সেই মেইল এড্রেস থেকে আর কোন ইমেইল আসবে না।

৫. নতুন গেম ট্রাই করুন: অবসর সময় কাটানোর সবচেয়ে ভালো উপায় হল গেম খেলা। আপনি অবসর সময়ে বিভিন্ন ধরনের নতুন গেম প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করে সেগুলো ট্রাই করতে পারেন। অবশ্যই আপনার মোবাইলের কনফিগারেশন এর উপর ভিত্তি করে গেম ডাউনলোড করবেন। কারণ লোকনফিকেশনের মোবাইলে কখনো হাই ডেফিনেশন এর গেম ডাউনলোড দিবেন না। এতে করে মোবাইলের প্রসেসর এর উপরে অনেক বেশি চাপ পড়বে। এই গেম খেলার মাধ্যমে আপনি আপনার সময় কে অনেক সুন্দর ভাবে উপভোগ করতে পারবেন।

৬. নতুন অ্যাপ ট্রাই করুন: প্লে স্টোর সহ বিভিন্ন ধরনের ওয়েবসাইটে অনেক সুন্দর সুন্দর এবং কাজের অ্যাপ পাওয়া যায়। সেই অ্যাপগুলো বিভিন্ন টুলস হিসেবেও কাজ করে। আপনি চাইলে আপনার অপসর সময়ে সেই অ্যাপস গুলো ট্রাই করতে পারেন। অবসর সময় কাটানোর একটি ভালো উপায় হল নতুন নতুন অ্যাপস নিয়ে ঘাটাঘাটি করা। এতে করে যেমনি আপনার অবসর সময়টা কেটে যাবে, ঠিক তেমনি আপনি আপনার মোবাইলের বিভিন্ন খুঁটিনাটি ও জানতে পারবেন।

৭. মোবাইলে বই পড়া: অবসর সময় কাটানোর আরও একটি সুন্দর উপায় হলো মোবাইলে বিভিন্ন বই ডাউনলোড করে পড়া। অনলাইনে আপনি অনেক ধরনের বইয়ের পিডিএফ ফাইল পেয়ে যাবেন। সেগুলো ডাউনলোড করে আপনি স্মার্ট ফোনে ওপেন করে পড়তে পারবেন। এতে করে আপনার অবসর সময়টা কেটে যাবে এবং বই পড়ে আপনি নতুন নতুন অনেক কিছু সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন করতে পারবেন।

৮. নতুন ভাষা শিখা: আপনি চাইলে স্মার্ট ফোনের মাধ্যমে নতুন ভাষা শিখতে পারবেন। আপনার অবসর সময় টা অযথা নষ্ট না করে বিভিন্ন দেশের ভাষা শিখলে আপনার ভবিষ্যতে এটা কাজে লাগতে পারে। তাই অবসর সময়ে স্মার্টফোন ব্যবহার করে বিভিন্ন অ্যাপস এর সাহায্য নিয়ে আপনি একটি দেশের ভাষা খুব সহজে শিখতে পারবেন।

৯. গুগল আর্থ এর ব্যবহার: গুগল আর্থ ব্যবহার করে আপনি বিভিন্ন দেশের এবং জায়গার স্যাটেলাইট ম্যাপ দেখতে পারবেন। এছাড়া সেসব জায়গার লাইভ ছবি দেখতে পারবেন। আপনি আপনার বাসায় বসে স্মার্টফোনের মাধ্যমে পুরো দুনিয়া ঘুরে আসতে পারবেন। আপনার অবসর সময়ে গুগল আর্থ ব্যবহার করতে পারেন। অবসর সময় কাটানোর জন্য এটা সুন্দর একটি মাধ্যম।

১০. সোশ্যাল মিডিয়া আপডেট: অবসর সময় কাটানোর আরও একটি মাধ্যম হলো সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার। বর্তমানে বেশিরভাগ মানুষ অবসর সময় কাটানোর জন্য সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে। তবে অবসর সময় কাটানোর জন্য আমি সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারে পরামর্শ দিব না। কারণ সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের ফলে এটা আপনার অনেকটা নেশার মতো হয়ে যাবে। পরবর্তীতে এ সোশ্যাল মিডিয়ার কারণে আপনি অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন। তবে আপনি চাইলে মাঝে মাঝে আপনার সোশ্যাল মিডি একাউন্ট গুলো আপডেট করে রাখতে পারেন।

বন্ধুরা আশা করি আজকের পোস্টটি আপনাদের কাজে আসবে। আজকের পোস্টের মাধ্যমে আমি জানানোর চেষ্টা করেছি একটি স্মার্ট ফোনের মাধ্যমে কিভাবে আপনার অবসর সময় কি উপভোগ করতে পারবেন।

যে কোন প্রয়োজনে আমার ফেসবুক প্রোফাইলের মাধ্যমে যোগাযোগ করতে পারেন। এছাড়া আমার ফেসবুক পেজটি ফলো করে রাখতে পারেন, সেখানে আমি বিভিন্ন ধরনের টেকনোলজি নিউজ এবং পোস্ট শেয়ার করে থাকি।

আমার ফেসবুক প্রোফাইল
আমার ফেসবুক পেজ (NTS TREND)

10 thoughts on "এন্ড্রয়েড মোবাইল দিয়ে যেভাবে বিরক্তিকর সময়গুলোকে উপভোগ করবেন"

  1. Mohammad Rakib Hasan Author says:
    ইনফরমেটিভ পোস্ট, শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ।
    পোস্টের নিচের দিকে একটু বানানে সমস্যা আছে (পশ্চিম/পোস্টের) ।
    1. Nuhu Topoder Author Post Creator says:
      ok thanks
  2. tajbir23 Author says:
    এসিস্ট্যান্ট সাপোর্ট করে না (এন্ড্রোয়েড ভার্সন ১০)
    1. Nuhu Topoder Author Post Creator says:
      অবশ্যই করবে
    2. tajbir23 Author says:
      Assistant go support kore, assistant install korte gele google install korte bole r google app install hoy na
  3. Monirul Contributor says:
    Obosor somoy katanor aro akta upay holo trickbd te aishe amon shundor vabe faul akta post kora🌚
  4. Sohag21 Author says:
    Oh acha thik ache, try kore dekhte hobe 🙂
    1. Nuhu Topoder Author Post Creator says:
      ok thanks
  5. MD Tamim Ahmed Author says:
    আপনি যেগুলোর কথা বললেন তাতে অধিকাংশটাই এক সময় নেশায় পরিনত হতে পারে। আর এই টিপস গুলোর অধিকাংশটাই অবসর সময় কাটানোর পরও অনেক বাড়তি সময় নষ্ট করবে। এর থেকে অবসর সময়ই ভালো। আর এই গুলোতে মাথার উপর অনেক চাপ ফেলবে। অবসর মানেই দেহের সব অঙ্গকে বিশ্রাম দেওয়া।
  6. MD Musabbir Kabir Ovi Author says:
    এটা তো আগে ভেবে দেখি নী। ভালই হলো

Leave a Reply