যৌবন ধরে রাখতে আমরা কত কি না করে থাকি। সকলেই চায় যৌবন ধরে রাখতে। যৌবন ধরে রাখতে হলে পুষ্টিকর খাবার ছাড়া কোনো বিকল্প পথ নেই।

নিজেদেরকে সুস্থ রাখতে পুষ্টিকর খাবারের দিকে ভালো ভাবে নজর দিতে হবে। চলুন জেনে নিই কী কী খাবার খেলে যৌবন অনেক সময় ধরে রাখা যাবে।

সামুদ্রিক মাছ:

যৌবন ধরে রাখতে হলে সামুদ্রিক মাছে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। দীর্ঘ সময় যৌবন ধরে রাখতে হলে আমাদের প্রতিদিনের খাবার তালিকায় লাল মাংস পরিবর্তে সামুদ্রিক মাছ রাখা উচিত। সামুদ্রিক মাছ খাওয়ার ফলে শরীরে প্রয়োজনীয় প্রোটিনের অভাব পূরণ হয়।

কলা:

কলা তে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-এ, বি, সি এবং পটাশিয়াম রয়েছে। পটাশিয়ামের অভাবে ত্বক রুক্ষ হয়ে যায়, কলা আমাদের দেহে পটাশিয়ামের অভাব পূরণ করে এবং ত্বকের রুক্ষতা দূর কর।

আবার কলার ভিটামিন-বি এবং পটাশিয়াম মানবদেহের যৌন রস উৎপাদন বৃদ্ধি করে। একই সাথে কলাতে আছে ব্রোমেলিয়ান যা শরীরের টেস্টোস্টেরনের মাত্রা বাড়াতে সাহায্য করে।

দই:

দই আমাদের প্রায় সকলেরই পছন্দের একটি খাবার। দই আমাদের ভুড়ি ও কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে। সেই সাথে যারা যৌবন ধরে রাখতে চাই তাদের নিয়মিত দই খাওয়া উচিত। দই এর মধ্যে থাকে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম ও প্রোটিন। যা আমাদের শরীরের গঠন ভালো রাখে। হাড়ের ক্ষয় রোধ করতে সাহায্য করে।

তাছাড়াও দই আমাদের বয়সজনিত রোগগুলো প্রতিরোধে অনেক সাহায্য করে।একই সাথে দই ত্বককে দাগমুক্ত রাখে।

পালং শাক:

পালং শাক মধ্যে প্রচুর পরিমাণে লুটেইন থাকে , যা যৌবন ধরে রাখতে অনেক সাহায্য করে। প্রায় প্রতিদিন পালং শাক খাওয়ার ফলে ত্বকের এবং চোখের বয়সজনিত সমস্যা কমে আসে। পাশাপাশি পালং শাকে থাকে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন। যা শরীরের নানা রকম অসুবিধা দূর করে এবং আমাদের শরীরে পুষ্টি ও শক্তির যোগান দেয়।

ফলমূল:

ফলমুলে থাকে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন, ফাইবার ও অ্যান্টি অক্সিডেন্ট। এই উপাদান গুলো শরীরে পুষ্টি জোগায় ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়। যৌবন ধরে রাখার জন্য নিয়মিত ফলমুল খাওয়া অনেক গুরুত্বপূর্ণ ।

সবুজ শাক-সবজি:

সবুজ শাক সবজিতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন থাকে যা শরীরের চাহিদা মেটানোর পাশাপাশি শরীরকে সুস্থ সবল রাখে।

আমলা:

আয়ুর্বেদিক চিকিৎসায় আমলাকে পুরুষের শারীরিক সক্ষমতা মূল মন্ত্র হিসেবে বলা হয়। পুরুষের শরীরের তাপমাত্রা বজায় রাখার জন্য আমলা অনেক কার্যকর।

কমলালেবু:

আমাদের শরীরের জন্য কমলা অনেক উপকারী একটা ফল। কারণ কমলালেবুতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি আছে। যেটি আমাদের ত্বক টানটান ও উজ্জ্বল রাখতলতে সহায়তা করে।

রসুন:

রসুনে এলিসিন নামক এক উপাদান আছে যা ইন্দ্রিয় গুলোতে রক্তের প্রবাহের মাত্রা বাড়িয়ে তোলে এবং দেহে যদি দৈহিক কোনো সমস্যা থাকে তাহলে রসুন খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে।

গাজর ও টমেটো:

টমেটো এবং গাজর ত্বক ও শরীরের জন্য খুবই উপকারী উপাদান। এগুলো বিশেষত যৌবন ধরে রাখার জন্য অনেক উপকারি। গাজর ও টমেটো তে প্রচুর পরিমাণে ফাইটো নিউট্রিয়েন্ট ও অ্যান্টি অক্সিডেন্ট থাকে। তাছাড়াও বিটা ক্যারোটিন ও লুটেইন থাকে।

ডার্ক চকলেট:

ডার্ক চকলেটে আছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট। যা আমাদের শরীরের জন্য পুষ্টি জোগাতে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।

মিষ্টি কুমড়ার বিচি:

মিষ্টি কুমড়ার বিচিতে প্রচুর পরিমাণে সাইটোস্টেরোল আছে। মিষ্টি কুমড়ার বিচি পুরুষ দেহের ভিতর টেসটোস্টেরন হরমোনের ভারসাম্যতা রক্ষার জন্য কাজ করে। এটিতে থাকা অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ও ফ্যাটি এসিড পুরুষ দেহের শক্তি বাড়ায়। পুরুষদের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে কুমড়ার বিচি সহায়ক ভূমিকা পালন করে।

মিষ্টি কুমড়ার বেগুনি খাইয়েন না আবার 😁

অলিভ অয়েল:

রান্নার জন্য অলিভ অয়েল তৈল ব্যবহার করলে শরীরের মধ্যে থাকা ক্ষতিকর কোলেস্টেরলের পরিমাণ কমে যায় তাছাড়াও শরীরে মেদ জমে না। পাশাপাশি ঘুমানোর আগে দৈনিক ত্বকে অলিভ অয়েল লাগালে ত্বকে সহজে বলিরেখা পরে না।

আঙ্গুর:

যৌবন ধরে রাখতে হলে আঙ্গুরের কোনো জুড়ি নেই। আঙ্গুরে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট থাকে। আঙ্গুর ফল প্রতিদিন খেলে ত্বক এবং দেহ সুন্দর ও সুস্থ থাকে।

তাই আমাদের যৌবন ধরে রাখাতে হলে পুষ্টিকর খাবার ছাড়া কোনো বিকল্প রাস্তা নাই।

 

লিখার মধ্যে কোনো ভুল হয়ে থাকলে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন।

আল্লাহ হাফেজ।

3 thoughts on "যৌবন ধরে রাখতে কোন কোন খাবার গুলো খাওয়া দরকার"

  1. Aubdulla Al Muhit Author says:
    দুঃখিত ভাই আপনার এই পোস্টের প্রতি সম্মত হতে পারলাম না । কারণ সময় মানুষ ধরে রাখতে পারে না । যৌবন কিভাবে ধরে রাখবে??
  2. Habib Contributor says:
    সুন্দর পোস্ট। এবং সুন্দর করে উপস্থাপন করেছেন।
    1. From Fahad Contributor Post Creator says:
      ধন্যবাদ ভাই 😊

Leave a Reply