রহস্য আর রূপকথা ভাবুন তো এই দুই যদি এক হতো তাহলে কি দারুন এক গল্প হতো? হ্যাঁ ছোটবেলায় হয়তো এ ধরনের গল্প অনেক শুনেছেন তবে এখন আর বেশি দিন অপেক্ষা করা লাগবে বলে আমার মনে হয় না। কারণ খুব ,দ্রুতই হয়তো আমার মনে হয়, বড় পর্দায় এমনই এক গল্প নিয়ে আসতে যাচ্ছে মিসবাহুর রহমান সুমন।


আপনার ইতোমধ্যেই হয়তো তার ট্রেলার এবং পোস্টার দেখেছেন , হাওয়ার কথাই বলছি চলুন আজ ট্রিক বিডিতে *হাওয়ার”ট্রেলার নিয়ে গল্প করা যাক।

টেইলারের শুরুতেই যেটা দেখা যায় সেটা হচ্ছে কয়েকজন মাঝি একজন রহস্যময় নারীকে ঘিরে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন। কে তিনি কোথা থেকে এলেন হয়তোবা এই রহস্যময় নারীকে নিয়েই গল্প এগোতে থাকে হাওয়ার।

এখন এই শুরুতেই সবথেকে বেশি যেটা আপনার নজর কাড়বে সেটা হচ্ছে অসাধারণ মেকআপ স্কেল। হ্যাঁ শুরোই ফ্রেমেই হয়তো দেখা যাচ্ছে চঞ্চল চৌধুরী, শরিফুল রাজ ,সোহেল মন্ডল, নাসির উদ্দিন খান ,সুমন আনোয়ার ,এই কয়েকজনকে যে সুন্দর মেকআপ দেওয়া হয়েছে তাদেরকে আর মঝি ভাবতে কোন বাধা থাকে না।

এরপরে আরও একটা জিনিস নজর কাড়বে সেটা হচ্ছে পুরো ট্রেলার জুড়ে আঞ্চলিক ভাষার খুব দারুণ ব্যবহার। সুমন আগেই গণমাধ্যমে বিভিন্ন ইন্টারভিউতে বলেছেন এটি একটি আঞ্চলিক চলচ্চিত্র হতে যাচ্ছে।

সেক্ষেত্রে খুব দারুণ ব্যবহার করা হবে ভাষার আঞ্চলিক ভাষার।

এবং যদি অভিনয়ের কথা বলতে চাই তাহলে চঞ্চল চৌধুরীর বোধহয় আরো একবার প্রমাণ করতে যাচ্ছেন, যে তিনি একজন জাত অভিনেতা তার যে পাত্রে রাখা হবে তিনি সেই পাত্রের আকারে ধারণ করবেন।

সেই সাথে তিনি ছাড়াও যারা অভিনয় করেছেন তার সঙ্গে তারা সবাই কিন্তু বিভিন্ন কাজে নিজ নিজ জায়গায় দক্ষতা প্রমাণ করেছেন। অর্থাৎ আমার মনে হয়েছে যে মেজবাহুর রহমান সুমন প্রমাণ করতে চাচ্ছেন হাওয়া দিয়ে যে তিনি নায়ক নায়িকা নয় তিনি অভিনয় শিল্পী দিয়ে সিনেমা বানিয়েছেন।

আলাদা করে একজনের কথা বলতে চাই তিনি হলেন নাজিফা তুসি, শুরুতেই এক রহস্যময় নারীর কথা বলছিলাম সেই চরিত্র কিন্তু নাজিফা তুসি কে দেখানো হয়েছে। এবং তিনি এক লুকেই কিন্তু কাবু করেছেন। শুরুতে তার যে একটা লুক দেখানো হয়েছে, কোন ডায়লগ নেই কিন্তু ভীত সন্ত্রস্ত একটা নির্বাক চোখে তার তাকিয়ে থাকাতেই যেন শত গল্প লুকানো আছে।

নাজিফা তুসি হয় তো সেই অসাধারণ একটি কাজ হয়তো আমাদের উপহার দিতে চাচ্ছেন।

এছাড়াও সিনেমায় দুটি বিষয় হিরোর মত কাজ করেছে, একটি হচ্ছে ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক আরেকটি হচ্ছে সিনেমাটোগ্রাফি।

বাংলা সিনেমা নিয়ে আমাদের যে শত বছরের আক্ষেপ এটা বোধ হয় এবার ঘুচতে চলেছে। কামরুল হাসানের অসাধারণ কিছু সমুদ্রের ফ্রেম কিন্তু আমাদের ট্রেলার এই দেখিয়েছেন।

গভীর নীল জলরাশি আর অন্ধকার সমুদ্রের যে মিল বন্ধন তা কিন্তু দুর্দান্ত কিছু ক্যামেরার কার সাজিতে তিনি ট্রেলারে ফুটিয়ে তুলেছেন।

সেই সাথে অসাধারণ কাজ করেছেন হচ্ছে যিনি ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক করেছেন, তিনি রহস্যময় একটি ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক তৈরি করেছেন তার নামটি আমি বলতে চাই রাশেদ শরীফ।

তিনি খুব সুন্দর একটি ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক করেছেন চরিত্রগুলোর ডায়লগ চলছে ।এবং সেই সাথে খুব নিচু ভাবে একটা সুর কিন্তু চলতে থাকে যেটা একই সাথে রহস্যময় এবং খুব একটা শান্তি শান্তি দিচ্ছে।

আবার মনে হচ্ছে অশুভ কিছু রং হয়তো আভাস দিচ্ছে, এখানেই একটা দুর্দান্ত কম্বিনেশন আমার কাছে মনে হয়েছে।

এবার এসে কাহিনী প্রেডিকশনে।

যেমন আমরা বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাক্ষাৎকারে দেখেছি নির্মাতা বলেছেন যে আটজন মাঝি গভীর সমুদ্রে আটকা পড়েন, এবং তাদেরকে ঘিরে এবং আরো একজন রহস্যময় নারী বেদেনি কে ঘিরে সিনেমার গল্পটা গড়ে ওঠে।

সুমন আরও একটা কথা বলেছেন সমুদ্র পানির সম্পর্ক প্রতিশোধের গল্প হচ্ছে “হাওয়া” বুঝতেই পারছেন বাংলা সিনেমার ইতিহাসে আমরা ভিন্ন কিছু পেতে যাচ্ছি।

আমাদের ঐতিহ্য আমাদের সংস্কৃতি কেউ আলাদাভাবে তুলে ধরবেন সুমন এমনটাই আমাদের প্রত্যাশা।

সিনেমার গান নিয়ে কিন্তু আলাদা করে প্রশংসা করতে হয় সাদা সাদা কালা কালা গানটি কিন্তু মুক্তির পরেই অভাবনীয় সাড়া ফেলে দিয়েছে, এই গানের লিরিক্স এবং কম্পোজিশন করেছেন হাসি মাহমুদ।
গানটি নিচে দেয়া হলো দেখে নিন।—-

এই গান থেকে কিন্তু আমরা এক্সপেক্ট করতেই পারি হয়তো আরো কিছু সুন্দর সুন্দর গান আসতে যাচ্ছে *হাওয়াতে* যদিও মেঘদল হাওয়াকে ডেডিকেট করে একটি গান ইতোমধ্যে মুক্তি দিয়েছে।

এ হাওয়া নামে যে গানটি এটিও দর্শক প্রিয়তা অর্জন করেছে। যেহেতু এই গানের গান চিত্র ও কিন্তু হাওয়ার ছবি ব্যবহার করা হয়েছে।

তো এরপরের গানগুলো আরো সুন্দরভাবে বলে আমরা আশা করতেই পারি।

সবশেষ বলতে চাই **হাওয়ার** ট্রেলার মুক্তির অনেকদিন হয়ে গেল এফেক্ট কিন্তু কমে যায়নি, তাই আজকের এই আলোচনা আমি খুবই এক্সাইটেড আশা করছি । আমার মত আপনারাও ফাস্টে ফার্স্ট শো দেখতে যাবেন। ২৯ জুলাই কিন্তু সিনেমা হলে মুক্তি পেতে যাচ্ছে হাওয়া।

তোর দুইটি টেইলার অলরেডি মুক্তি পেয়েছে নিচে দেখে নিন।



এবং এখনকার মত হাওয়ার টিমকে শুভকামনা জানিয়ে, আজকের এপিসোড শেষ করছি আশা করছি আমি ফার্স্টে ফার্স্ট শো দেখে আপনাদের সঙ্গে আবারো *হাওয়া* নিয়ে আলোচনা চলে আসবো।


YouTube Monetization Offer
৪০০০ ঘন্টা ওয়াচ টাইম এবং ১০০০ সাবস্ক্রাইবার নিন মাত্র ৩০৯০ টাকায়। ১০০% সেভ ওয়ে।✅
Contract Facebook: profile.php?id=100082805889874
আপনারা অবশ্যই বাংলা সিনেমা হলে গিয়ে দেখবেন এবং আমাদেরকে জানাবেন আপনাদের কেমন লাগলো। পরবর্তী এপিসোডে দেখা হচ্ছে সে পর্যন্ত সঙ্গেই থাকুন TrickBD এর ধন্যবাদ।

One thought on "°হাওয়া°ট্রেলারেই বাজিমাত? | Hawa Trailer Review"

Leave a Reply