আসসালামুআলাইকুম।আশা করি সবাই অনেক ভাল আছেন।প্রতিবারের মতো আবারো আপনাদের মাঝে আরেকটি আর্টিক্যাল নিয়ে হাজির হলাম।টাইটেল দেখে অনেকে হয়তো বুঝে গেছেন, আজকে কোন বিষয় আপনাদের মাঝে লিখতে যাচ্ছি। আজকের বিষয় হলো,মেসওয়াক করার উপকারিতা, ইসলামের আলোকে। মেসওয়াক শুধু দাঁত পরিস্কার করার জন্য করা হয় না। মেসওয়াক করার অনেক উপকারিতা আছে। আজকের আর্টিক্যাল পড়লে খুব সহজে জানতে পারবেন মেসওয়াক করার উপকার গুলো।মাসওয়াক করা ইসলামের একটি বিধান।এই মেসওয়াক করার মাঝে দুনিয়া ও আখিরাতের অনেক কল্যান নিহিত রয়েছে। দাত পরিস্কার ছাড়াও এই মেসওয়াক এর ব্যাপক উপকারীতা আজিকে আপনাদের মাঝে শেয়ার করব। চলছে রমযান মাস,তাই সেহরির সময় বা ইফতার এর আগে আমাদের মেসওয়াক করতে হয়। মেসওয়াক করার উপকারীতা গুলো আজকে জানলে,আশা করি সবাই মেসওয়াক করবেন। কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাকঃ

১) মেসওয়াক করলে, মৃত্যুর যন্ত্রনা সহজ হয়ে যায়।

২)জান্নাতের মর্যাদা বেড়ে যায়।

৩) তাড়াতাড়ি আত্না বের হয়।

৪) মৃত্যুর সময় কালিকা শাহাদাৎ মনে হয়।

৫) শয়তন সন্তুষ্ট হয় না।

৬) আমাদের প্রভু সন্তুষ্ট হয়।

৭) ফেরেস্তারা প্রসংশা করে।

৮) ইবাদাত এর শক্তি বৃদ্ধি পায়।

৯) চোখের দৃষ্টি বেড়ে যায়।

১০) দাঁত সাদা ও উজ্জ্বল হয়।

১১) চেহারা অনেক সুন্দর হয়।

১২) ক্ষুদা দূর হয়ে যায়।

১৩) শরীর এর রঙ উজ্জল হয়ে যায়।

১৪) যাদের শরীরে পশম ও চুল নেই, মেসওয়াক করার ফলে গজায়।

১৫) কাশি দূর হয়ে যায়।

১৬) যৌনশক্তি বৃদ্ধি হয়।

১৭) মুখের জড়তা দূর হয়।

১৮) চুলের গোড়া শক্ত হয়ে যায়।

১৯) যুদ্ধে জয় হয়।

২০) দুনিয়া থেকে পাক -পবিত্র অবস্থায় বিদায় হয়।

২১) ফেরেস্তা বলতে থাকে, তারা নবীদের অনুসারী। যারা মেসওয়াক করেন।

২২) সন্তান নেক হয়।

২৩) স্বামী ও স্ত্রী একে অপরের প্রতি সন্তুষ্ট থাকে।

২৪)যারা মেসওয়াক করে, তাদের জন্য বেশি নেকী লেখা হয়।

২৫) সহজে প্রয়োজন মেটে।

২৬) মাল বৃদ্ধি পায়।

২৭) শরীরের আদ্রতা দূর হয়ে যায়।

২৮) চাহিদা পরিচ্ছন্ন হয়ে যায়।

২৯) কন্ঠ অনেক সুন্দর হয়।

৩০) দাঁতের মাড়ি অনেক শক্ত হয়।

৩১) পাকিস্থলি ঠিক থাকে।

৩২) পিঠ মজবুত হয়।

৩৩) জ্ব্রর থাকলে কমে।

৩৪) সব ব্যাথা দূর হয়।

৩৫) শরীর ইবাদাত এর দিকে শক্তিশালী হয়।

৩৬) শয়তান দূর হয়।

৩৭) জ্ঞান বাড়ে।

৩৮) স্মৃতিশক্তি বাড়ে।

৩৯) অন্তর পরিস্কার হয়।

৪০) বাকশক্তি সুন্দর হয়।

৪১) মস্তিষ্ক ঠান্ডা থাকে।

৪২) মুখের দুর্গন্ধ দূর হয়।

৪৩) মাথা ব্যাথা দূর হয়।

৪৪) দাঁতের পীড়া ব্যাথা দুর হয়।

৪৫) সচ্ছলতা বয়ে আনে।

মেসওয়াক করার ইসলামের আলোকে উপকারীতা গুলো জানলেন। সবার উচিৎ নিয়মিত মেসওয়াক করা।

টেকনিক্যাল বিষয়ে যাবতীয় ভিডিও ও সমাধান পেতে আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুনঃ

Youtube Channel

আজ এ পযন্ত,
ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র জ্ঞান আপনাদের মাঝে তুলে ধরার চেস্টা করি।
পরবর্তী আর্টিক্যাল এর জন্য অপেক্ষা করুন, আবারো ভাল কিছু নিয়ে হাজির হবো।
সে পযন্ত ভাল থাকুন,সুস্থ থাকুন।

যে কোনো প্রয়োজনে আমার সাথে ফেসবুকে যোগাযোগ করতে চাইলেঃ- Sk Shipon

ধন্যবাদ

7 thoughts on "মেসওয়াক করার উপকারিতা, ইসলামের আলোকে জেনে নিন।"

  1. aushihab aushihab Contributor says:
    ভাই এই তথ্য গুলো কোথায় পেলেন সেটার রেফারেন্স দিলে খুশি হতাম।


    1. Sk Shipon Sk Shipon Author Post Creator says:
      প্রথম আলো পত্রিকা থেকে কিছু কালেক্ট করা।
  2. sagor Contributor says:
    মাশাআল্লাহ অনেক সুন্দর পোষ্ট ।
    মেসওয়াক করার নিয়ম + মেসওয়াক কেমন হওয়া চাই সেই বিষয়ে লেখলে ভালো হতো . . . . ।।।
    1. Sk Shipon Sk Shipon Author Post Creator says:
      ধন্যবাদ।
  3. S Contributor says:
    Onek gula point banano.kono reference paben na ai gulaor
    1. Sk Shipon Sk Shipon Author Post Creator says:
      সব গুলো রেফারেন্স অনুযায়ী দেয়া হয়েছে, ধন্যবাদ
    2. S Contributor says:
      1,3,4,9,12,16 sobo aro ase apadotto aigular sothik reference dakhan.

Leave a Reply