আপনি যদি না জেনে থাকেন যে কি কারনে ওয়েবসাইটের ইউআরএল ব্লক করে দেয় ফেসবুক থেকে তাহলে আপনার ওয়েবসাইট টি ব্লক হতে পারে ফেসবুক হতে।

আপনার যদি একটি ওয়েবসাইট থাকে তাহলে আপনার জানা উচিৎ কি কারনে ওয়েবসাইটের ইউআরএল ব্লক করে দেয়।

আমি এ পোস্টে বিস্তারিত জানানোর চেষ্টা করবো, মনোযোগ সহকারে পোস্ট টি পড়ে শেষ করবেন তাহলেই ক্লিয়ার বুঝতে পারবেন যে কি কারনে ইউআরএল ব্লক করে ফেসবুক।

তো চলুন শুরু করা যাক,

(১) একই লিঙ্ক বার বার শেয়ার করলে।

আপনি যদি ফেসবুকে একটি পোস্টের লিংক, নিজের টাইমলাইনে, পেজে, নানান গ্রুপে সোজাকথায় বার বার শেয়ার করেন তাহলে ফেসবুক টিম ধরে নেয় আপনি স্পামিং করছেন।

ফেসবুকের মতে আপনার আর্টিকেল টি যদি মানসম্মত ইউজার ফ্রেন্ডলি হয় তাহলে এক দুই জায়গায় শেয়ার করলেই লোকজন এমনিতেই ভাইরাল করে ফেলবে পোস্টটিকে সুতরাং একাধিক বার এক লিঙ্ক শেয়ার করা যাবেনা।

(২) ফেসবুকে স্পাম করলে ইউআরএল ব্লক করে দেয়

আপনার ওয়েবসাইটের ইউআরএল টি যদি লোকজনের পোস্টের কমেন্ট বক্সে প্রবেশ করে আপনার সাইটের ইউআরএল কমেন্ট করেন বা ফেসবুকের বন্ধুদেরকে বা লোকজনকে মেসেজ করেন তাহলে ফেসবুক টিম আপনার ইউআরএল টিকে স্পাম ইউআরএল ভেবে ব্লক করে দেয় ফেসবুক থেকে।

(৩) ফেসবুকে শেয়ার করা লিংকে একাধিক বার রিপোর্ট খেলে

আপনি যদি লোকজনের পোস্টের কমেন্ট বক্সে গিয়ে আপনার সাইটের ইউআরএল কমেন্ট করে আসেন, আর তখন একাধিক লোক যদি ইউআরএলটিকে স্পাম লিংক বলে রিপোর্ট করে তাহলে আপনার ওয়েবসাইটের ডোমেইন টি ব্লক হয়ে যাবে ফেসবুক থেকে।

(৪) মিথ্যা বা ভুয়া তথ্য ফেসবুকে শেয়ার করলে

আপনি যদি আপনার সাইটে মিথ্যা বা ভুয়া কোনো পোস্ট লিখে সেটাকে ফেসবুকে শেয়ার করেন, আর তখন ফেসবুক টিম পোস্টটি যে মিথ্যা বা ভুয়া তথ্যে ভরপুর জানলে, আপনার সাইটের ইউআরএল ব্লক করে দেয় ফেসবুক থেকে।

(৫) ফেসবুকে কপিরাইট কন্টেন্ট শেয়ার করলে

ধরুন আপনি ফেসবুকে কোনো পেজে বা কারো টাইমলাইনে একটা ভালো আর্টিকেল দেখে কপি করে আপনার সাইটে পাবলিশ করলেন এবং সেই আর্টিকেলটির ইউআরএল টি ফেসবুকে শেয়ার করলেন তাহলে আপনার ইউআরএল ফেসবুক ব্লক করে দিবে ফেসবুক থেকে।

এগুলো যদি এড়িয়ে চলেন তাহলে আর আপনার সাইটের ইউআরএল ফেসবুক ব্লক করে রাখবেনা।

পোস্টটি সর্বপ্রথম প্রকাশিত হয়েছে

DreamAcademy24

আমার সাথে যুক্ত হতে পারেন ফেসবুকে আমি Md Rhidoy

ভালো থাকুন, ধন্যবাদ।

One thought on "ফেসবুকে ওয়েবসাইটের ইউআরএল ব্লক খাওয়ার কারন গুলো জেনে নিন"

  1. MD Shakib Hasan MD Shakib Hasan Author says:
    Nice


Leave a Reply