আগে থেকে ধারণা না থাকায় অনেকেই স্মার্টফোন কিনতে গিয়ে বিপদে পড়ে যান।আমি নিজে দুইবার পড়েছি আবার স্বাদের ফোনটির জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ খরচ করলেও অনেক সময় এটি বেশি দিন টিকে না। তখন কপাল চাপড়ানো ছাড়া আর কোনো উপায় থাকে না। কাজেই নিজের পছন্দমতো সেটটি কিনতে যখন প্রয়োজনীয় অর্থ খরচ করছেন তখন ভালোটা কিনতে দোষ কোথায়?

স্মার্টফোন কেনার আগে করণীয় বিষয় সমূহ জেনে নিন :

ডিজাইন:

যে কোনো স্মার্টফোন কেনার ক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো এর ডিজাইন। তাই আগে থেকেই মনস্থির করুন কোন ডিজাইনের স্মার্টফোন ভালো লাগে। বাজারের সব স্মার্ট ফোনের নজরকাড়া ডিজাইন রয়েছে। কাজেই নিজের ব্যক্তিগত চাহিদা এবং রুচি অনুযায়ী ডিজাইন পছন্দ করাই ভালো।

ওজন :

স্মার্টফোন কিনতে যাওয়ার আগে কেমন ওজনের মোবাইল ফোনসেট কিনবেন তা একবার ভেবে নিবেন। কারণ মোবাইল ফোনসেট যত বড় হয় সাধারণত এর ওজনও তত বেশি হয়। তবে ফোনসেটে ব্যাটারি লাগানোর কারণেও সোবাইলের ওজন বেশি হয়।

পর্দার আকার:

বড় স্ক্রিনের মোবাইল বেশি জনপ্রিয় হলেও সহজে বহন করতে চাইলে ছোট পর্দার মোবাইল নেওয়া উচিত। এক্ষেত্রে চার ইঞ্চি বা সাড়ে চার ইঞ্চি বা পাঁচ ইঞ্চি পর্দার মোবাইল ফোনেরও বেশ চাহিদা রয়েছে।

ডিসপ্লের মান:

স্মার্টফোন কেনার সময় পর্দার গুণগত মান দেখে নেওয়াটা অনেক বেশি প্রয়োজনীয় । সবচেয়ে ভালো মানের ডিসপ্লে ১০৮০পি (১৯২০ x ১০৮০ পিক্সেলস) ফোনের দাম বেশ চড়া। এক্ষেত্রে কেনার আগে খেয়াল করে দেখতে হবে ভিন্ন ভিন্ন কোণ থেকে দেখলে ছবি পরিষ্কার দেখা যায় কিনা। তবে সাধারণ মানের মোবাইলের ডিসপ্লে ৭২০পি-এর কম হয়ে থাকে।

অপারেটিং সিস্টেম:

এখনকার সবচেয়ে জনপ্রিয় অপারেটিং সিস্টেমের মধ্যে অ্যান্ড্রয়েড, আইওএস ৭, উইন্ডোজ অন্যতম। এক্ষেত্রে স্মার্টফোন কেনার আগে পছন্দেরটি বেছে নিন। কারণ অপারেটিং সিস্টেমের ওপর ভিত্তি করেই গোটা ফোনের সব কার্যক্রম নির্ধারিত হয়।

দাম :

এমনিতেই মোবাইল ফোনসেটের দাম যত বেশি হবে, তার সবকিছুই তত ভালো হবে। তবে মোবাইল ফোনসেট কেনার আগে একই মডেলের অন্য কোনো সংস্করণ খুব শিগগিরই বাজারে আসলে তা থেকে কোনো সুবিধে পান কিনা কেনার আগে তা অবশ্যই ভেবে নিন।

ব্যাটারির শক্তি:

মোবাইল ফোনটি কেমন তার ওপর ভিত্তি করে ব্যাটারির শক্তি নির্ধারিত হয়। তবে বড় মাপের স্ক্রিনের জন্য শক্তিশালী ব্যাটারি প্রয়োজন হয়। আর এখন ৩০০০ এমএএইচ সবচেয়ে বেশি শক্তির ব্যাটারি হিসেবে বাজারে চালু রয়েছে।

ব্লু টুথ/LAN:

ব্লু টুথ/LAN  ছাড়া অন্য কোনো মোবাইলের সঙ্গে কিছুই লেনদেন করতে পারবেন না। তাই কেনার আগে এই সব আছে কিনা তা একবার যাচাই করে নিন।

র‌্যামের ক্ষমতা :

ফোনের কার্যক্রমে দ্রুততা এনে দেয় র‌্যাম। কাজেই ফোন কিনতে গেলে ২ জিবি র‌্যাম নেওয়ার চেষ্টা করা উচিত। তবে আধুনিক মোবাইলগুলো ৩ জিবি পর্যন্ত র‌্যাম নিয়ে বাজারে আসছে।

ওয়্যারলেস চার্জিং:

তার ছাড়া চার্জ দেওয়ার ব্যবস্থা অবশ্য খুব প্রয়োজনীয় কিছু নয়। তবে যেখানে সেখানে প্লাগ পয়েন্ট না থাকার সমস্যায় ওয়্যারলেস চার্জিং সিস্টেম বেশ ভালো।

থ্রি-জি নাকি ফোর-জি: 

দেশে সবেমাত্র থ্রি-জি কানেকশন চালু হয়েছে। ডাটা কানেকশনের গতি নির্ভর করে এর ওপর। আরো দ্রুত কানেকশন দেয় ফোর-জি। এ যুগের স্মার্টফোনের জন্য থ্রি-জি কানেকশন নিতে পারে এমন মোবাইল সাধারণত বেশি ভালো।

পপুলার রিভিউ ও রেটিং সাইট ব্যবহার করুন: ইন্টারনেট থাকলে নানা সাইটে ঢুঁ মারতেই হয়। তবে ম্যালওয়্যারের আক্রমণ থেকে বাঁচতে পপুলার রিভিউ ও রেটিং সাইটে ঘোরাফেরা করবেন।

অ্যাক্সেসরিজ:

অ্যাক্সেসরিজ সব মোবাইলের সঙ্গেই দেওয়া হয়। তবে অ্যাক্সেসরিজ দেখে ফোন পছন্দ করার দরকার নেই। স্মার্ট অ্যাক্সেসরিজ বেশ আকর্ষণীয় দেখায়। আর ভালো মানের ফোনের অ্যাক্সেসরিজও বেশ ভালো হয়।

সফটওয়্যার আপডেট রাখা:

ফোনের সফটওয়্যার প্রতিনিয়ত আপডেট হচ্ছে। যদি নিজের ফোনের সফটওয়্যারগুলো আপডেট রাখেন তাহলে যন্ত্রটি সুন্দরমতো কাজ করবে। একইসঙ্গে ফোনটিও আরো অনেক দিন পর্যন্ত ভালো থাকবে।

কন্ট্রাক্ট ফোন নেওয়ার জন্য: ইউরোপ-আমেরিকাতে অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে বিভিন্ন শর্তের ভিত্তিতে মোবাইল ফোনসেট কেনার ব্যবস্থা রয়েছে। আমাদের দেশেও অপারেটর প্রতিষ্ঠানগুলো এমন অফার দিয়ে থাকে। সেক্ষেত্রে কোন প্রতিষ্ঠান সবচেয়ে বেশি সুবিধা দিচ্ছে এবং মোবাইলগুলোর মডেলের সঙ্গে দাম ও সুবিধাগুলোর তুলনা করে নিজের পছন্দ অনুযায়ী নেবেন।

অ্যাপ্লিকেশন:

মোবাইল ফোনসেটটি যেসব অ্যাপস সাপোর্ট করে তাই ব্যবহার করুন। আর যেসব অ্যাপস মোবাইলের জন্য নয় তা অবশ্যই কাজে লাগানোর চেষ্টা করবেন না। তা ছাড়া মোবাইল ফোনসেট অনুযায়ী আলাদাভাবে অ্যাপসের কালেকশন ইন্টারনেটে দেওয়া থাকে। সেখান থেকেই ফোনটির জন্য অ্যাপস বাছাই করে নেওয়া উচিত।

শক্তপোক্ত ফোন:

পর্দাতে সহজে দাগ যেন না পড়ে কিংবা হাত থেকে পড়ে গেলেও যেন ভেঙে বা ফেটে যাবে না এমন শক্তপোক্ত ফোনই বাছাই করা উচিত।

যাচাইকরণ:

মোবাইল কেনার সময় অবশ্যই সিম,মেমোরি সংযুক্ত করে কথা বলে নিবেন এবং ইয়ারফোন,চার্জার ইত্যাদি সব দেখে নিবেন।

যে কোন মোবাইল আসল নকল জানতে https://www.imei.info/?imei=এই সাইটে গিয়ে IMEI নম্বার দিন।নিম্ম মানের ব্রান্ডে কাজ নাও করতে পারে কিন্তু আমি winmax দিয়েও ট্রাই করছি এবং সফল হইছি।

পোস্টের মাধ্যমে যদি সামান্য উপকৃত ও কিছু জানতেশিখতে পারেন তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন ধন্যবাদ

 

12 thoughts on "[Mobile] মোবাইল কিনতে চাইলে দেখুন"

  1. সবমিলিয়ে ভালোই লাগলো
  2. তবে এইসব সাধারণ বিষয় সবাই খেয়াল রাখে
  3. Mr.Badal Contributor says:
    gd post nd imeI ar link ta diya ki sob phn ar imei test kora jaba ar link amaka reply ta din plz
    1. Hasan420 Hasan420 Contributor Post Creator says:
      Vaiya,
      post a paben
  4. Tashfikal Sami Shadin Subscriber says:
    যদিও এগুলো সাধারণ বিষয়।
    তবুও ভালোই লিখছেন।
    সাধারণ মানুষের উপকারে আসবে।
    1. Hasan420 Hasan420 Contributor Post Creator says:
      thanks
  5. ভালো কিছু আশা করি…
  6. M.Alam M.Alam Contributor says:
    valo but nekami hoye gelo
  7. Azad ali Azad ali Contributor says:
    খুব ভালো ধন্যবাদ আপনাকে
    1. Hasan420 Hasan420 Contributor Post Creator says:
      Thanks Vaiya
  8. Md Akash Md Akash Subscriber says:
    Earn unlimited Dollars!!
    Every click 0.04$
    https://www.bestchange.com/?p=76474

Leave a Reply