আসসালামুয়ালাইকুম ! TrickBD তে সবাইকে স্বাগতম। কোনো ভুল হলে দয়া করে ক্ষমা করবেন। বেশি কথা না বলে শুরু করছি।

যদি আপনি একজন Android Phone ব্যবহারকারী হন, তাহলে আপনি কখনো না কখনো আপনার এন্ড্রয়েড ফোনে Encrypt Device অথবা Encrypt SD Card এর অপশন দেখেছেন।

(This Screenshot from another device)

কিন্তু আপনি কি আসলে জানেন যে এই অপশন কি কারণে দেওয়া হয়েছে ? এগুলোর Basically কি কারণে ব্যবহার হয় ? এবং এই অপশনগুলো আপনি কিভাবে আর কোন কাজে ব্যবহার করতে পারবেন?

এসব জানতে হলে এই পোস্ট শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ দিয়ে পড়ুন, হয়তো পারে আপনার উপকারে লাগতে পারে।

আমি এই পোস্টে আপনাদের বলবো Encrypt Device, Encrypt SD Card কি ? এসবের বেসিক্যালি কি কারণে ব্যবহার হয় ? এবং আপনি এগুলো কিভাবে ব্যবহার করবেন ?

Encrypt Device / Encrypt SD Card ফিচার আপনি প্রায় সব এন্ড্রয়েড ফোনে পেয়ে যাবেন। কিন্তু এই ফিচারের ব্যাপারে কম লোকই জানে। তো এই Encrypt Device, Encrypt SD Card কি ? এসবের বেসিক্যালি কি কারণে ব্যবহার হয় ? এবং আপনি এগুলো কিভাবে ব্যবহার করবেন ?

এসব জানার আগে আপনাকে আগে এটা জানতে হবে যে এই Encrypt আসলে কি ?

এটা জানলে আপনি বুঝতে পারবেন যে আসলে এই Encrypt Device, Encrypt SD Card কি।

তো Encryption বেসিক্যালি একটা প্রসেস যেটা মাধ্যমে আপনার ফোন বা মেমোরি কার্ড কে Encrypt করা হয়।

এখানে যেকোনো ডেটা হতে পারে। হতে পারে সেটা Photo, Video, Audio, APK, XAPK, APKS, ZIP, PDF, TXT ইত্যাদি। এসব ডেটাগুলো Encrypt করা হয়। যখন‌ই এগুলো Encrypt করা হয়, তখন ঐ ডেটা গুলোর যে কোড থাকে সেগুলো এমন কোড বা এমন টেক্সট এ কনভার্ট / রুপান্তর করা হয় যেটা পড়া বা এক্সেস করা প্রায় অসম্ভব হয়ে যায় একজন সাধারণ এন্ড্রয়েড ফোন ব্যবহারকারীর কাছে।

এমনকি এই ডেটা হ্যাকারের জন্য পড়া বা এক্সেস করাও মুশকিল হয়ে যায়। তো ঐ Encrypt করা ফাইল, ডেটা অন্য কেউ Access করার চেষ্টা করে, সে ঐ ফাইল কে Access করতে পারে না‌।

Encrypt করা ডেটা বা ফাইল Access করতে হলে Key বা চাবির প্রয়োজন হয়, হতে পারে সেটা Password, Pin তো আপনার কাছে যদি সেই Encrypt করা ফাইলের Key 🔐 থাকে তাহলে আপনি সেই Encrypt করা ফাইল কে Decrypt করে তা Access করতে পারবেন। সেটা পড়তে, ওপেন করতে, প্লে করতে, এডিট করতে পারবেন, ইত্যাদি।

এটা কিছুটা কমপ্লিকেটেড হয়ে গেল, আপনি আপনাকে একটা উদাহরণ দিয়ে দেখাচ্ছি।

মনে করুন, আপনার কাছে কোনো ফাইল আছে যাতে Photo, Video, Text File যাইহোক আছে। আর ঐ Text File এর মধ্যে কিছু লেখা আছে।

উদাহরণ হিসেবে: My name is Sohag আর যখন‌ই আপনি এই ফাইলকে Encrypt করে দেবেন তখন সেই ফাইল কিছুটা এরকম হাবিজাবি লেখায় পরিবর্তন হয়ে যাবে। (Wnb bcvmb Dcbdcbcdhc C121#$$&mnc)

এরকম অবস্থায় এই কোড বা ফাইলকে আপনি এবং অন্য কেউ এটার Access নিতে পারবে না। যদি এটাকে কেউ অ্যাক্সেস করতে চায় তাহলে তার জন্য Decryption করতে হবে, যার জন্য Key বা Password, Pin প্রয়োজন হবে। যদি তার কাছে Decryption করার Key থাকে তাহলে সে Decryption করতে পারবে না থাকলে পারবে না। এই প্রসেসটাকেই বলা হয় এনক্রিপ্ট এবং ডিক্রিপ্ট (Encrypt & Decrypt)

এখন হয়তো আপনি বুঝতে পেরেছেন Encrypt / Decrypt কি। এক‌ইরকম প্রসেস মোবাইলেও ব্যবহৃত হয়। মোবাইলে যে ফিচার দেওয়া থাকে Encrypt Device অথবা Encrypt SD card সেম এক‌ই প্রসেস ব্যবহৃত হয়।

যদি আপনি আপনার ফোনকে Encrypt করেন তো সেটা পুরোপুরি Encrypt হয়ে যাবে Secure হয়ে যাবে। একারণে অন্য কেউ অন্য কোনো ডিভাইস, অন্য কোনো সিস্টেম থেকে অ্যাক্সেস করতে পারবে না।

ঠিক একই ভাবে যদি আপনি আপনার ফোনের মেমোরি কার্ড বা SD Card কে কোনো এন্ড্রয়েড ফোন থেকে Encrypt করেন, তখন আপনার মেমোরি কার্ডে যে ডেটা, ফাইল আছে সেগুলো পুরোপুরি Encrypted হয়ে যাবে।

এর ফলে আপনি মেমোরি কার্ডের সেই ডেটা শুধুমাত্র সেই ফোনেই ব্যবহার করতে পারবেন যে ফোন থেকে আপনি মেমোরি কার্ড Encrypt করেছিলেন। যদি কেউ অন্য কোনো ফোন বা ডিভাইসে সেই Encrypt করা মেমোরি কার্ড লাগায় বা ব্যবহার করতে যায়, তো তখন সে ঐ মেমোরি কার্ডে কোনো ডেটা পাবে না, কোনো অ্যাক্সেস পাবে না। অ্যাক্সেস করার জন্য Decryption Key প্রয়োজন হবে যেটা শুধুমাত্র আপনি জানেন।

ফোনকে Encrypt করার পর যখন‌ই আপনার ফোন Restart বা Reboot করবেন তখন Decrypt করার জন্য সেই Key প্রয়োজন হবে যেটা আপনি Encrypt করার সময় সেট করেছিলেন।

এখানে আরেকটা কথা বলতে চাই যে, যদি আপনি আপনার ফোন Encrypt করেন আর আপনার ফোনের প্রসেসর যদি দূর্বল হয় তখন আপনার সামান্য স্লো হতে পারে, কিন্তু খুব বেশি না।

এবার দেখুন এই ফিচার কিভাবে আপনার ফোনে ব্যবহার করবেন।

প্রথমে আপনি আপনার স্মার্টফোনের Settings এ যাবেন, তারপর Encrypt লিখে সার্চ করবেন। যাদের ফোনে সেটিংসে সার্চের অপশন নেই তারা Secure অপশনে Encrypt করার অপশন পেয়ে যাবেন। আমার ফোনে শুধু Encrypt SD Card এর অপশন রয়েছে 😕

আরেকটা কথা বলে রাখি, কিছু ফোনে শুধু Encrypt Device এর অপশন দেয়, কিছু ফোনে শুধু Encrypt SD Card এর অপশন দেয় আবার কিছু ফোনে দুটোই একসাথে দেয়।

যদি আপনি আপনার ফোনকে Encrypt করতে চান তাহলে আপনি Encrypt Device এ ক্লিক করবেন। এই প্রসেস কমপ্লিট হতে সময় লাগবে। ১৫ মিনিট, ২০ মিনিট, অথবা ১ ঘন্টাও সময় লাগতে পারে। এই সময় কম বেশি নির্ভর করে আপনার ফোনে কতখানি ডেটা আছে তার ওপর। Encrypt করার জন্য আপনার ফোনে সর্বনিম্ন ৮০% চার্জ থাকতে হবে। তাহলেই আপনি Encrypt করতে পারবেন।

যদি আপনি Encryption বন্ধ করতে চান তাহলে যেভাবে Encrypt করেছিলেন ঠিক সেভাবেই আপনি আপনার ফোনের Encrypt বন্ধ করতে পারবেন।

যদি আপনি আপনার স্মার্টফোনের মেমোরি কার্ড Encrypt করতে চান, তাহলে Encrypt SD Card এ ক্লিক করে Encrypt করতে পারবেন। যদি আপনি মেমোরি কার্ডের Encryption বন্ধ করতে চান তাহলে আপনি যেভাবে মেমোরি কার্ড Encrypt করেছিলেন ঠিক সেভাবেই আবার Encryption বন্ধ করতে পারবেন।

তো এভাবেই আপনি আপনার স্মার্টফোনে Encrypt ফিচারের ব্যবহার করতে পারবেন। যদি আপনার স্মার্টফোনে কোনো Sensitive Data অথবা Important Data থাকে আর আপনি যদি চান যে এগুলো অন্য কেউ না জানুক, হ্যাক যেন না হয় তাহলে আপনি এই Encrypt ফিচার ব্যবহার করতে পারেন।

আর যদি আপনি একজন সাধারণ এন্ড্রয়েড ফোন ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন, আর আপনার ফোনে বা মেমোরি কার্ডে কোনো গুরুত্বপূর্ণ, গোপন কোনো ফাইল নেই তাহলে আমি ব্যক্তিগত ভাবে বলবে যে আপনার Encrypt ফিচার ব্যবহার না করাই ভালো।

এই পোষ্ট এতটুকুই ! এতক্ষণ সময় নিয়ে পোস্ট পড়ার জন্য ধন্যবাদ। আল্লাহ হাফেজ। 🙂

কোনো সমস্যা অথবা কোনো প্রয়োজন হলে আমার ফেসবুক আইডি

9 thoughts on "Encrypt SD Card এবং Encrypt Device কি ? কেন এন্ড্রয়েড ফোনে এগুলো ব্যবহার করা প্রয়োজন ?"

    1. Sohag21 Author Post Creator says:
      Thank you
    1. Sohag21 Author Post Creator says:
      Thanks 👍
    2. abir Author says:
      Wlc
    3. Shakib Author says:
      Vai title er english part gula remove kore den, Title too much long hoye gese😅
  1. Sohag21 Author Post Creator says:
    Done ✅
  2. Black-Charm Contributor says:
    Phone encrypted thaka obosthai performance drop kore onek tai, ja SD card er khetre face korte hoyna…
    1. Sohag21 Author Post Creator says:
      Hmm..

Leave a Reply