হ্যালো ভিউয়ার্স, কিভাবে আনলিমিটেড ফ্রি কল করবেন? কিভাবে অন্যের ফেসবুক আইডি হ্যাক করবেন? আর কীভাবেই বা আনলিমিটেড মেগাবাইট হ্যাক করবেন? এরকম জটক তোর পোস্ট চাইলেই আমি করতে পারতাম, আর ভালো কোন একটা স্পনসর্শিপ নিয়ে টাকা কামিয়ে নেয়া ব্যাপার ছিল না।

কিন্তু সময়টা বড্ড খারাপ, এখন প্রতিটা মিনিট গুরুত্বপূর্ণ, ভিশন মূল্যবান, মানুষের জীবনের দাম সবচেয়ে বেশি তাই করোনার এই ক্রান্তিকালে অবশ্য করণীয় সম্পর্কে আপনাদের বলবো।
শেয়ার করব এমন কিছু তথ্য যে গুলো মেনে চললে নিজেতো নিরাপদ থাকবেনই নিজের পরিবারের বাকিদেরও নিরাপদে রাখতে সক্ষম হবেন, চলুন তাহলে শুরু করা যাক!


করোনা বা কভিড-১৯ থেকে দূরে থাকার প্রথম এবং প্রধান শর্ত হচ্ছে জনসমাগম এড়িয়ে চলা , দেশ এখন একরকম অবরুদ্ধ হয়ে আছে!
যানবাহন বন্ধ পুলিশ রাস্তায় নেমেছে তবুও আমরা ঘরে বসে থাকতে রাজি হচ্ছি না,

কেনরে ভাই জানের মায়া নেই? নাকি করোনা আপনাকে ধরতে পারবে না! নিজের প্রাণের মায়া না করুন বাসায় বয়স্ক বাবা-মা কিংবা ছোট ভাই বোন বাচ্চারা তো আছে,
করোনার ধাক্কা আপনি না হয় কোন মতে সামলাতে পারলেন ওরা কি পারবে? প্রিয় মানুষগুলোর কথা ভেবে হলেও ঘরে থাকুন প্লিজ।

সেদে সেদে ঘরে ভাইরাস ডেকে আনবেন না, সময়টা কেটে গেলে যতখুশি বাইরে যেতে পারবেন ফুর্তি করতে পারবেন কোন সমস্যা নেই! এই কটা দিন নিজেকে একটু বন্দী রাখুন, অনেকেই টানা ছুটি পেয়ে সেটাকে ফ্যামিলী গেট টুগেদার বানিয়ে ফেলেছেন ভাইরে এটা আনন্দের সময় নয়।
আমেরিকা, স্পেন, ইতালি, বা ফ্রান্সের অবস্থা দেখেছেন লাশের মিছিল চলছে এসব দেশে এখন, বাংলাদেশেও এমন কিছু হোক সেটা নিশ্চয়ই চান না আপনি? পরিচিত কেউ মরে গেলেও তার জানাজায় যাওয়ার দরকার নেই এই মুহূর্তে কারণ নিজেকে নিরাপদে রাখার দায়িত্ব আপনার!

আপনার কিছু হলে ভুগবে আপনার পরিবার আপনার প্রিয়জন অন্য কারো কিন্তু কিছুই আসবে যাবে না, করোনা কোন ফাজলামির বিষয় নয় এটাকে হালকা ভাবে নেবেন না দয়াকরে


করোনা মূলত ছড়ায় হাচি- কাশির এবং স্পর্শের মাধ্যমে তাই হ্যান্ডশেক কোলাকুলি এসব ভবিষ্যতের জন্য তুলে রাখুন, জরুরী কাজে বাইরে বেরোতে হয় অনেকেই দয়া করে মাক্স হ্যান্ড গ্লাভস ব্যবহার করুন! কারণ টাকা পয়সা থেকে শুরু করে লিফটের বাটন সবখানেই থাকতে পারে ভাইরাস।

আপনি হয়তো ব্যাংকে গিয়েছেন চেক সাইন করবেন টেবিলে রাখা কলমটা তুলে নিলেন কিন্তু সেই কলমে কোন করোনা রোগী স্পর্শ করেনি তার কোন গ্যারান্টি দিতে পারবেন?
হ্যান্ড স্যানিটাইজার সঙ্গে রাখুন হাত পরিষ্কার করুন বারবার বাড়িঘর পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখুন সম্ভব হলে বাসার কাজের বুয়াকে এখনো ছুটি না দিয়ে থাকলে এক মাসের বেতন দিয়ে ছুটি দিয়ে দিন।

কয়েকটা দিন না হয় বিলাসিতা থেকে একটু দূরেই থাকলে, বাইরে থেকে এলে হাত মুখ ভালোভাবে পরিষ্কার করুন পরনের কাপড় ধুতে দিন, বাড়ির বাইরে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করতে পারলে খুবই ভালো। যাতে করে অপরিষ্কার হাত নিয়ে বাসায় ঢুকতে না হয় ঘরে বসে থাকতে থাকতে বিরক্ত হয়ে যাওয়াটা স্বাভাবিক কিন্তু মনে রাখবেন বেঁচে থাকাটা সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ বাইরে যাওয়ার চেয়েও!


এই মৌসুমে সিজনাল ঠান্ডা জ্বরে আক্রান্ত হন অনেকেই, স্বাভাবিক জ্বরকে করোনা ভেবে আতঙ্কিত হবেন না তবুও জ্বর হলে সঙ্গে সঙ্গে নিজেকে আলাদা করে ফেলুন , বা যার জ্বর হয়েছে তাকে বিচ্ছিন্ন করে রাখুন সিজনাল জ্বর হলে দুই দিনেই সেরে যাবে।
করোনা হলে জ্বর বাড়তে থাকবে সেক্ষেত্রে যোগাযোগ করুন আইইডিসিআরের সঙ্গে, অবশ্যই অবশ্যই অবশ্যই
মাথায় রাখবেন রোগী যেন বিচ্ছিন্ন অবস্থায় থাকেন, কারো সংস্পর্শে যেন আসতে না পারে নইলে একজনের জন্য পুরো পরিবার এমনকি পুরো এলাকার মানুষকে ভুগতে হতে পারে, তবে রোগীকে আলাদা করতে গিয়ে আবার তার খাবার-দাবার বন্ধ করে দেবেন না।


সরকার মসজিদে নামাজ পড়তে নিষেধ করেছে যাতে করোনা না ছড়ায় অনেকে তবুও কথা শুনছেন না, আপনারা প্লিজ ঘরে নামাজ পড়ুন নামাজ পড়ে আল্লাহর কাছে সাহায্য চান! ভাইরাস তো আর হিন্দু-মুসলমান বা মন্দির – মসজিদ চেনে না তাই সাবধানে থাকুন!


গুজবে একদম কান দেবেন না, থানকুনি পাতা বা রসুন খেলে করনা থেকে বাচা যায়, বেশি বেশি গরম পানি খেলে করোনা ধরবে না এটাও ডাহা মিথ্যা কথা, গরমে করোনা ভাইরাস আক্রমণ করতে পারে না এই কথারও কোন প্রমাণিত ভিত্তি নাই।

বাংলাদেশ এখন জ্যামিতিক হারে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা এই তালিকায় আপনার নামটা থাকুক সেটা আমরা চায়না,

শেষ করার আগে একটা অনুরোধ করি, দেশে এরকম লকডাউন হয়ে আছে শ্রমজীবী মানুষেরাও খুব কষ্টে আছে, তাদের পকেটে টাকা নেই, বাড়িতে খাবার নেই, একটু খোঁজ নিন আপনার কোন প্রতিবেশী এই ভাইরাসের কারণে কষ্টে আছে কিনা, একটু তাদের পাশে দাঁড়ান, সাহায্য করুন এই মানুষগুলোকে!

এই দুর্যোগের সময় মানুষের পাশে মানুষ না দাঁড়ালে আর কে দাঁড়াবে বলুন? আজ বিদায় নিচ্ছি ঘরে থাকুন ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন, থাকুন নিরাপদে, মতামত জানান কমেন্ট বক্সে!

freefire, pubg mobile, সহ যে কোন গেম কার্ড, অথবা গুগোল গিফট কার্ড পাওয়া যাচ্ছে, এই ফেসবুক পেজে!

আর অনুরোধ রইল পোস্টটি শেয়ার করে সবার মধ্যে ছড়িয়ে দেয়ার জন্য।

4 thoughts on "দেশে বেড়েই চলেছে করোনা আক্রান্তদের সংখ্যা, এই মুহূর্তে করোনায় কি করনীয়? সর্বনাশ ডেকে আনবেন না!!"

  1. MD Shakib Hasan MD Shakib Hasan Author says:
    Thanks For Share


    1. Yash Nirab Hossain Subscriber Post Creator says:
      ওয়েলকাম ভাই!
    1. Yash Nirab Hossain Subscriber Post Creator says:
      ধন্যবাদ!

Leave a Reply