সাধারণত আমরা PDF ফরমেটের ফাইলগুলি এডিট করার জন্য বিভিন্ন ধরনের পিডিএফ এডিট করার প্রোগ্রাম ব্যবহার করে থাকি। বিশেষ করে Adobe Reader বা Acrobat নামক একটি অ্যাপের ব্যবহার করে থাকি। যেটিতে এডিট করতে প্রিমিয়াম অ্যাকাউন্ট থাকতে হয়। এছাড়াও আরো অন্যান্য অনেক অ্যাপ আছে যেগুলি দিয়ে আসলে ফ্রিতে পিডিএফ এডিট করা যায় না। যদিও বর্তমান সময়ে এই সমস্যাটা কোন বড় একটা সমস্যা না। তবে এর জন্য আগে খুব সমস্যায় পড়তে হতো। বর্তমান সময়ে পিডিএফ এডিট করার অনেক ফ্রি এবং প্রিমিয়াম সার্ভিস রয়েছে। আমাদের টপিকের টাইটেল অনুযায়ী আমরা তেমনি একটি সার্ভিস নিয়ে কথা বলব। সেটি হলো কম্পিউটারের জনপ্রিয় একটি প্রোগ্রাম Microsoft Word এর মাধ্যমে পিডিএফ ফরমেটের ফাইল এডিট করার বিষয় নিয়ে।

PDF এডিট করাঃ
PDF ফরমেটের ফাইল হচ্ছে ছবির কয়েকটি ফরমেটের মধ্যে একটি ফরমেট। যে ফরমেটে মূলত ডকুমেন্ট টাইপের ফাইল স্থির হয়ে থাকে। PDF এর পূর্ণরূপ হচ্ছে Portable Document File. অনেকসময় আমাদের পিডিএফ ফরমেটের ফাইল এডিট করার প্রয়োজন পড়ে অর্থাৎ ফাইলের লেখা বা কোন অবজেক্ট এর যদি কোন পরিবর্তন করার প্রয়োজন পড়ে তাহলে তা এডিট করতে হয়। সাধারণত পিডিএফ এডিট করার জন্য আমরা বিভিন্ন ধরনের অ্যাপস ব্যবহার করে থাকি যা উপরে বলেছি। আমরা আজকে এই টপিকের মাধ্যমে জানবো যে কিভাবে যেকোন পিডিএফ ফাইল মাইক্রোসফট ওয়ার্ডের মাধ্যমে এডিট করা যায়।

Microsoft Word_এ PDF ফাইল এডিট করাঃ
সাধারণত সকল কম্পিউটারেই মাইক্রোসফটের তৈরি করা Word নামক প্রোগ্রামটি ইনস্টল করা থাকে। কারণ কম্পিউটারের মধ্যে লেখালেখি করার জন্য এটি একটি জনপ্রিয় সফটওয়্যার। আগে এটির মাধ্যমে এটির ফাইলকে অর্থাৎ ডক ফাইলকে পিডিএফে রূপান্তর করা যেত। এখন আপডেট ভার্সনগুলিতে ডক ফাইলকে রূপান্তর করা ছাড়াও যেকোন পিডিএফ ফাইলগুলিকে এডিটও করা যায়। এখন আপনি যদি কোন পিডিএফ ফাইলকে এডিট করতে চান তাহলে আপনার কম্পিউটারের অ্যাপ লিস্ট থেকে Word নামক অ্যাপটি ওপেন করুন।

উপরোল্লিখিত পিডিএফ ফাইলটিকে আমরা ওয়ার্ডের মাধ্যমে এডিট করব। এই জন্য ফাইলটি যে লোকেশনে আছে সেটি দেখে নিন।

ওয়্যার্ড অ্যাপটি ওপেন করার পর যে পিডিএফ ফাইলটি এডিট করতে চান সেটিকে এই ওয়ার্ড অ্যাপের মধ্যে ওপেন করতে হবে। এর জন্য ওয়ার্ডের ফাইল অপশন থেকে Open বাটনে ক্লিক করুন। তারপর Browse বাটনে ক্লিক করুন।

তারপর যে ডায়ালগ বক্সটি আসবে সেটিতে আপনার পিডিএফ ফাইলটি কোথায় রয়েছে সে লোকেশনে গিয়ে সেটিকে সিলেক্ট করে উপরের স্ক্রিনশটের মত Open বাটনে ক্লিক করুন।

তারপর দেখবেনে কম্পিউটার স্ক্রিনে উপরের স্ক্রিনশটের মত একটি সতর্কতামূলক বার্তা বা ম্যাসেজ চলে আসবে। এখানে আপনি শুধু Ok বাটনে ক্লিক করবেন।

কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন আর দেখুন আপনার কাঙ্ক্ষিত পিডিএফ ফরমেটের ফাইলটি ওয়ার্ড অ্যাপের মধ্যে ওপেন হয়ে গিয়েছে। এইবার আপনি চাইলে আপনার মত করে পিডিএফ ফাইলটি এডিট করে নিতে পারেন।

এডিট করা সম্পন্ন হয়ে গেলে এইবার এটিকে চাইলে ডক অর্থাৎ ওয়্যার্ড ফরমেটের সংরক্ষণ বা সেভ করতে পারেন। আবার চাইলে আগের মত পিডিএফ ফরমেটেও সংরক্ষণ বা সেভ করতে পারেন। এর জন্য File মেন্যুতে ক্লিক করে Save বাটনে ক্লিক করুন। সংরক্ষণ করার লোকেশন সেট করা হয়ে গেলে এটিকে যে নামে সংরক্ষণ করতে চান সে নাম দিয়ে এইবার স্ক্রিনশটে উল্লেখিত বা চিহ্নিত Save as type ড্রপ ডাউনে ক্লিক করে PDF লেখাটি সিলেক্ট করে Save বাটনে ক্লিক করুন৷ তাহলে আপনার ফাইলটি আগের মত পিডিএফ ফরমেটে তৈরি হয়ে যাবে।

Word এর মধ্যে PDF নিয়ে কিছু কথাঃ
এখানে আপনি টেক্সট সম্বলিত পিডিএফ ফরমেটের ফাইল এডিট করতে পারবেন।
এখানে আপনি ছবি যুক্ত পিডিএফ ফরমেটের ফাইল এডিট করতে পারবেন।
এখানে আপনি গ্রাফ বা চার্ট আকারের পিডিএফ এডিট করতে পারবেন।
যেকোনো পিডিএফ ফরমেটের ফাইল ওয়্যার্ডে ওপেন করার এর ফরমেটিং এর দিকে ভালো করে লক্ষ্য রাখবেন। কারণ অনেক সময় পিডিএফ ফাইলে যে ফর্মেটিং বা সজ্জা করা থাকে তা উলটপালট হয়ে যেতে পারে।
এই পদ্ধতি অনুসরণ করে OCR এর কাজও করতে পারেন।

যেকোনো Word ভার্সনে পিডিএফ এডিট করা যাবে কিনা?
আমরা সকলেই জানি Microsoft Word এর এই পর্যন্ত অনেক ভার্সন রিলিজ হয়েছে। যার বর্তমান সর্বশেষ ভার্সন হচ্ছে ২০২১ এর ভার্সন যা নিয়ে আমি ইতিমধ্যে একটি পোস্ট করেছি আপনি চাইলে দেখে নিতে পারেন – Microsoft Office Program এর সর্বশেষ ভার্সন ২০২১ সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিন। মূলত এই কাজটি আপনি মাইক্রোসফট এর ২০১৩ ভার্সন থেকে শুরু করে এর পরবর্তী ভার্সনগুলি দিয়ে করতে পারবেন। এই কাজটি স্মুথলি করতে চাইলে চেষ্টা করবেন মাইক্রোসফট ওয়্যার্ডের সর্বশেষ ভার্সনটি ব্যবহার করতে। তাহলে আপনি এর একটি ভালো ফলাফল পাবেন।

অবশেষে বলতে হয় আজকের টপিকের মূল বিষয়টি তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। এখন আপনি শুধু বিষয়টি একটু ভালো করে লক্ষ্য করলেই হয়। তাহলে আপনাকে আর ওয়্যার্ডের মধ্যে পিডিএফ ফাইলকে এডিট করতে আর কোনো সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে না।

আপনাদের সুবিধার্থে আমি আমার টিপস এন্ড ট্রিকসগুলি ভিডিও আকারে শেয়ার করার জন্য একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করেছি। আশা করি চ্যানেলটি Subscribe করবেন।

সৌজন্যে : বাংলাদেশের জনপ্রিয় এবং বর্তমান সময়ের বাংলা ভাষায় সকল গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ক টিউটোরিয়াল সাইট – www.TutorialBD71.blogspot.com নিত্যনতুন বিভিন্ন বিষয়ে টিউটোরিয়াল পেতে সাইটটিতে সবসময় ভিজিট করুন।

Leave a Reply