আসসালামুয়ালাইকুম ! TrickBD তে সবাইকে স্বাগতম। কোনো ভুল হলে দয়া করে ক্ষমা করবেন। বেশি কথা না বলে শুরু করছি।

আমি সোহাগ ! আবারো হাজির হলাম আপনাদের মাঝে অন্য একটি পোষ্টে, আজকের পোস্ট শুরু করা যাক !

তাড়াহুড়ো করে পড়ে অযথা নিজের সময় নষ্ট করবেন না ! অনেক সময় নিয়ে একটি পোস্ট লিখতে হয় যেন আপনার বুঝতে সুবিধা হয়, তাই পড়তে হলে ধৈর্য্য সহকারে পুরো পোস্ট পড়ুন।

DCIM নাম তো অবশ্যই শুনেছেন এবং দেখেছেন আপনার স্মার্টফোন ফোন এবং ডিজিটাল ক্যামেরার SD Card বা Memory Card এ ! যদি আপনি আপনার স্মার্টফোনের ক্যামেরাতে অথবা যেকোনো ডিজিটাল ক্যামেরা থেকে কোনো ফটো ক্যাপচার করেছেন, ভিডিও রেকর্ড করেছেন আর সেগুলো আপনি আপনার ফোনের ফাইল ম্যানেজারে গিয়ে চেক করেছেন অথবা সেটা আপনি কম্পিউটার সিস্টেমে কপি করার চেষ্টা করেছেন তো আমি নিশ্চিত যে আপনি কখনো না কখনো এই DCIM ফোল্ডার অবশ্যই দেখেছেন।

কিন্তু আপনি কি কখনো এটা ভেবেছেন যে আসলে এই DCIM ফোল্ডার কি ? এর পুরো নাম কি ? আর স্মার্টফোনে ব্যবহৃত প্রত্যেক মেমোরি কার্ডে এবং ডিজিটাল ক্যামেরায় ব্যবহৃত প্রত্যেক মেমোরি কার্ডে এই DCIM নামের ফোল্ডার‌ই কেন থাকে? অন্য কোনো নামে কেন থাকে না ? এর আসল কাহিনী কি ? এসব জানা আপনার প্রয়োজনীয়। এসব জানতে হলে আপনাকে বেশি কিছু করতে হবে না, শুধু এই পোস্ট মনোযোগ দিয়ে শেষ পর্যন্ত পড়তে হবে।

DCIM এর পুরো নাম হলো: DCIM – Digital Camera Images

এটা এক ধরনের ডিরেক্টরি বা সহজ ভাষায় বলতে গেলে একটি ফেল্ডার যেটা সব ধরনের স্মার্টফোনের ইন্টারনাল স্টোরেজ, এক্সটার্নাল মেমোরি কার্ড এবং প্রত্যেক ডিজিটাল ক্যামেরার এসডি কার্ডে এই DCIM নামের ফোল্ডার নিজে থেকেই তৈরি হয়ে যায়।

যদি আপনি আপনার স্মার্টফোনের ফাইল ম্যানেজারে গিয়ে Internal Storage এবং External Memory Card এ চেক করলে আপনি অবশ্যই এই DCIM নামের ফোল্ডার দেখতে পাবেন। এছাড়াও যতগুলো ডিজিটাল ক্যামেরা (DSLR) আছে সেগুলোতে যেসব মেমোরি কার্ড ব্যবহার করা হয় সেটা যদি আপনি আপনার কম্পিউটারে ঢুকিয়ে চেক করলে সেখানেও এই DCIM নামের ফোল্ডার অবশ্যই দেখতে পাবেন।

এখন যদি আপনি বলেন যে কি হবে যদি আমি এই DCIM ফোল্ডার Delete করে দিই ?

তাহলে বলছি বেশি কিছুই হবে না। এই ফোল্ডার যদি আপনি ডিলিট করেন তাহলে এই ফোল্ডারে যেসকল ডেটা, ফটো, ভিডিও, যেসব আপনি ক্যাপচার করেছেন, ভিডিও রেকর্ড করেছেন নিজের স্মার্টফোন থেকে অথবা ডিজিটাল ক্যামেরা থেকে তখন ঐ সব কিছু ডিলিট হয়ে যাবে।

এর যখন আপনি আবার স্মার্টফোনে বা ডিজিটাল ক্যামেরাতে কোনো ফটো ক্যাপচার করবেন, ভিডিও রেকর্ড করবেন তখন এই DCIM নামের ফোল্ডার আবার নিজে থেকেই তৈরি হয়ে যাবে। মানে যখন‌ই আপনি এই ফোল্ডার ডিলিট করবেন এবং তারপর যদি আপনি স্মার্টফোনের ক্যামেরা এবং ডিজিটাল ক্যামেরা ব্যবহার করবেন তো তখন এই DCIM নামের ফোল্ডার Automatic Create হয়ে যাবে এবং সেখানে আপনার Data Store হতে শুরু করবে। এবং এখানে আপনি কিছু Sub Folders ও পেতে পারেন। (.trash .data .tmp etc. যদি Show hidden files অপশন চালু করা থাকে)

কিন্তু আপনি যেসব ফটো ক্যাপচার করবেন, সেই সব এই DCIM ফোল্ডারেই পেয়ে যাবেন। এটা এক ধরনের Default Directory যেটা একটা Standard Rules কে Follow করে। আর প্রায় সবধরনের Digital Camera এবং Smartphone Camera এই Standard Rules কেই Follow করে যেন যেকোনো Photo, Video হোক সেটা Smartphone এর Camera তো তোলা বা Digital Camera তে তোলা হোক সেই সব যেন একটা নির্দিষ্ট ফোল্ডার যেটা DCIM এই ফোল্ডারেই Save হয়।

যেন কোনো Software এবং যে কোনো ব্যক্তি সহজেই এই Photo এবং Video গুলো Import/Export করার প্রয়োজন হলে যেন সহজেই Identify করতে পারে। এই কারণেই এই DCIM ফোল্ডার ব্যবহৃত হয়, যেটা আমার ব্যক্তিগত দিক দিয়ে উপকার করেছে।

এখন প্রশ্ন আসতে পারে যে ভাই এই Standard Rules কি এবং কেন এটা প্রায় সবধরনের ক্যামেরাতে Apply করা হয় ?

তো এটা জানতে হলে আগে আপনাকে জানতে হবে যে,

DCF কি ?

লে অলসঃ ওহ্ ! এখন আবার এই DCF এ কোথা থেকে এলো ? এর‌ও কি কোনো বিশেষ কাজ রয়েছে নাকি অযথা DCIM ফোল্ডারের সাথে যুক্ত হয়েছে ?

তো এই DCF এর পুরো নাম হলোঃ Design rule for Camera File system

এটা এক ধরনের Standard, একধরনের Rule যেটাতে বলা হয় যে যেকোনো ক্যামেরা থেকে নেয়া ফটো কিভাবে Optimize করতে হবে, কিভাবে Manage করতে হবে, সেটার File System কেমন হবে, সেটা কোন Folder এ Save হবে, সেটার Name কেমন হবে ইত্যাদি এই সমস্ত Rule আসে এই DCF এর মধ্যে।

তো এই DCF তৈরিকারী Organization এর নাম JEITA যেটা Japan এর একটি Tread Organization যেটা Electronic এবং IT Industry তে।

তো এটাতে বলা হয়েছে যে যেকোনো Digital Camera থেকে হতে পারে সেটা DSLR Camera হতে পারে Smartphone/Android Phone এর Camera এগুলো থেকে যেসকল Photo/Video নেয়া হয় সেগুলোর File Structure কেমন হবে, Name, Rename, Added Name, Numberic Name কেমন এবং কি হবে, File Format কি হবে, File Type কেমন হবে, File Short By কেমন হবে ইত্যাদি Rule এটাতে Command করা আছে।

আর এই Rules গুলোই বেশিরভাগ Electronic Company যারা Camera তৈরি করে হোক সেটা Smartphone এর বা Digital Camera তারা এই DCF Rules কেই Follow করে। একারণেই DCIM – DCF নিজেদের মধ্যে Connected !

তো এই হলো DCIM ফোল্ডারের কিছু প্রয়োজনীয় তথ্য। আশা করছি এই পোস্টের মাধ্যমে আপনি কিছুটা হলেও জানতে পেরেছেন।

আরও পড়ুনঃ Bkash Live Chat করার সহজ উপায় | Bkash Account খোলার নিয়ম — 2022

আরও পড়ুনঃ Facebook Status Bangla – 2022

এই পোষ্ট এতটুকুই ! এতক্ষণ সময় নিয়ে পোস্ট পড়ার জন্য ধন্যবাদ। ভালো থাকবেন সবাই, আল্লাহ হাফেজ। 🙂

কোনো সমস্যা অথবা কোনো প্রয়োজন হলে আমার Facebook I’d

20 thoughts on "DCIM কি ? এটার কি দরকার? কেন Android Phone এবং Digital Camera তে এটার ব্যবহার বেশি হয় ?"

  1. Mahbub Pathan Author says:
    সুন্দর বিশ্লেষণ
    1. Sohag21 Author Post Creator says:
      Thank you
  2. Levi Author says:
    ভালো।
    1. Sohag21 Author Post Creator says:
      Thanks 👍🏻
    2. Levi Author says:
      You’re welcome.
  3. Minhaj sakib Author says:
    DCMI bhavlam onno kisu function kintu dekhi aita folder niye lekhsen 📁
    1. Sohag21 Author Post Creator says:
      This is business 😁
    2. Shakib Author says:
      😷 opps
  4. TAHER Author says:
    আমি ত ভাবলাম DCIM দিয়ে অন্য কিছু বুঝাতো 😃
    যাক নতুন কিছু জানা হলো
    🤩
    1. Sohag21 Author Post Creator says:
      Hmm 🍌👀
  5. 4HS4N Author says:
    নতুন কিছু জানলাম। ধন্যবাদ।
    1. Sohag21 Author Post Creator says:
      পোস্ট পড়ার জন্য এবং কমেন্ট করার জন্য ধন্যবাদ 💚
    1. Sohag21 Author Post Creator says:
      Thank you ✅
    1. Sohag21 Author Post Creator says:
      Welcome
  6. abrno34 Author says:
    যদিও আগে জানা ছিলো তারপর ও ধন্যবাদ।
    1. Sohag21 Author Post Creator says:
      আপনাকেও ধন্যবাদ 💚
    2. Sohag21 Author Post Creator says:
      জানার পরও আগ্রহ নিয়ে পোস্ট পড়ার জন্য ধন্যবাদ 💚
    3. abir Author says:
      Welcome

Leave a Reply