ইমার্জেন্সী ব্যালেন্স ও সুদ

ইমার্জেন্সী ব্যালেন্স ১০ টাকার বিনিময়ে ১২+টাকা কিংবা ২০ টাকার বিনিময়ে ২২+ টাকা কেটে রাখা সুদ হবে কিনা? সম্প্রতি অনেকে এমন প্রশ্ন করছেন ইনবক্সে। সবার উপকারার্থে নিম্নে উত্তরটা দেয়া হলো:-

মুদ্রার বিনিময়ে মুদ্রার কম বেশি আদান প্রদান করা রিবা বা সুদ। সুতরাং যদি দশ টাকার বিনিময়ে বারো টাকা চাওয়া হয়, তাহলে তা সুদ হবে। এবং এটা সম্পূর্ণ হারাম। এই হলো উভয়দিকে মুদ্রা থাকা।

এখন জানার বিষয় হলো, বিভিন্ন সিম কোম্পানি থেকে যে টকটাইম দেয়া হয় বা যে ইমার্জেন্সী ব্যালেন্স দেয়া হয় তা মুদ্রা কিনা, এটা আগে যাঁচাই করা জরুরী।

আমরা জানি, মুদ্রা বা কারেন্সি হলো:-

ক. এটা কোনো কিছুর মূল্য হতে পারে।

খ. এটা দিয়ে কোনো কিছু ক্রয় করা যায়।

গ. ভবিষ্যত প্রয়োজনের স্বার্থে সঞ্চয় করে রাখা যায়।

ঘ. একস্থান থেকে অন্যত্র টান্সফার করা যায়।

কিন্তু মোবাইলে যে টকটাইম ও ইমার্জেন্সী ব্যালেন্স আসে তাতে উপরিউক্ত বৈশিষ্ট্যসমুহ বিদ্যমান নেই।কারণ,

১. ইমার্জেন্সী ব্যালেন্স ও টকটাইমের বিনিময়ে কিছু ক্রয় করা যায় না।

২. ইমার্জেন্সী ব্যালেন্স ও টকটাইম অন্যত্র স্থানান্তরিত করা যায় না। যদিও ব্যালেন্স টান্সফার করা যায়।

৩. ইমার্জেন্সী ব্যালেন্স ও টকটাইম দ্বারা ঋণ পরিশোধ করা যায় না।

৪. এবং প্রয়োজনের স্বার্থে মুদ্রার ন্যায় টকটাইম ও ইমার্জেন্সী ব্যালেন্স সঞ্চয় করে রাখা হয় না, যেহেতু এর মূল্যমানে স্থিতি নেই।

মোটকথা, মুদ্রার কোন বৈশিষ্ট্য-ই এর মাঝে নেই।

অতএব ইমার্জেন্সি ব্যালেন্স ও টকটাইম (কথা বলার সময়) কোন মুদ্রা নয়। এটাকে আমরা সেবা প্রদান বা ডিজিটাল পণ্য বলতে পারি, যা ধরা-ছোঁয়া যায় না, তবে এর মাধ্যমে সেবার সুযোগ ও অধিকার দেয়া হয়।

তাই মাসআলা পরিস্কার, এই ইমার্জেন্সি ব্যালেন্স বা টকটাইমের বিনিময়ে টাকা সমমূল্য বা কম-বেশি করা হলে তা কোরানে বর্ণিত রিবা কিংবা সুদ হবে না। অবশ্য কম্পানিগুলো ১.৫ থেকে ২+ টাকা ইমার্জেন্সি ব্যালেন্সের জন্য কেটে নেয় সেটা জুলুম হবে, তবে সুদ নয়।

আবার অনেক সময় দেখা যায় কোন অপারেটর ৪০ টাকার বিনিময়ে ১২০ টাকার পর্যন্ত টকটাইম অফার দিয়ে থাকে। অর্থাত ৪০ টাকা দিয়ে ১২০ মিনিটের টকটাইম কিনে নিয়েছি। এটাও রিবা নয়।

মূলকথায় ফিরে যাই, ইমার্জেন্সি ব্যালেন্স যেটা দেওয়া হয়, সেটা টাকা নয়। আর পরে যেটা আমাদের থেকে নেওয়া হয় সেটা টাকা। তাই এক জিনসের না হওয়ায় কম বেশির কারণে সুদ হবে না। কারণ আপনি যে টাকাটা মোবাইল কোম্পানীকে দিচ্ছেন, সেটা মুদ্রা বা করেন্সি। সেটা তাদের না দিয়ে অন্য কিছুই কিনতে পারবেন। আর তারা যে টকটাইম বা ইমাজেন্সি ব্যালেন্স দিচ্ছে, সেটা টাকা বা মুদ্রা কিছুই নয়। জিনস ভিন্ন। তাই সুদ হবে না।

উল্লেখ্য, আপনি যদি ইমার্জেন্সী ব্যালেন্সকে টাকাও ধরেন তবুও কোম্পানিগুলো আপনার থেকে অতিরিক্ত টাকা কাটার কারণেও তা সুদ বা রিবা হবেনা। কারণ অতিরিক্ত যে টাকাটা নিচ্ছে তা আপনার বিপদের মুহূর্ত ঝটপট সেবা দানের জন্য নিচ্ছে। টাকার বিনিময়ে নয়।অথবা বলা যায়, আপনি ২২+টাকা দিয়ে ২০ টাকার টকটাইম কিনে নিচ্ছেন। টকটাইম যেহেতু টাকা নয় তাই বৈধ।

কিংবা বলা যায় অতিরিক্ত টাকাটা কোম্পানি এই ঝটপট সেবা তথা VAT+SD+SC এর জন্য কেটে নেয়। এটাও বৈধ। কারণ ঋণ প্রদানের ক্ষেত্রে ঋণদাতা তার বাস্তবিক রিয়েল কস্ট নিতে পারে। দেখুন নিচে বাংলালিংকের একটা SMS তুলে ধরছি:-

Hi Tawhid , Ekhon theke banglalink advance-er maddhome jekono poriman taka loan nile grahok-ke sms notification fee 1.50 taka (Including 15% VAT+ 5% SD+ 1% SC) dite hobe.Grahok ke loan deyar shomoy ei fee niye neya hobe. Jemon apni Jodi loan 12 taka nen tahole apni paben 10.50 taka ebong podpukroborti-te recharge korle apnar 12 taka kata hobe.

এছাড়া কেই যদি একেবারেই অতিরিক্ত টাকা দিতে না চান তাহলে *৮৭৪*১০# ডায়াল করে দশ টাকা নিতে পারেন। এতে অতিরিক্ত কোনো টাকা কাটবেনা। বাংলালিংকের একটা SMS তুলে ধরছি:-

Hi Tawhid, Apnar account-e jodi 5tk ba tar kom thake tahole *874*10# dial kore 10tk advance nile extra kono charge hobe na.

অন্যান্য সিম ব্যবহারকারীগণ ‘গুগলের’ সাহয্য নিতে পারেন।

উত্তর প্রদানে: মুহাম্মদ তাওহীদুল ইসলাম
 মারকাযু শাইখিল ইসলাম আল মাদানি ঢাকা। Email:[email protected]

6 thoughts on "ইমার্জেন্সী ব্যালেন্স কি সুদ?"

    1. M.Rubel Author Post Creator says:
      ধন্যবাদ ভাই
  1. Asif5 Contributor says:
    আপনার প্রত্যেকটি পোষ্ট আমার অনেক ভালো লাগে।
    1. M.Rubel Author Post Creator says:
      ভাই নিয়মিত তো পোস্ট করতে পারিনা।
      তবে দোয়া করবেন নিয়মিত পোস্ট করার চেষ্টা করবো
  2. Asif5 Contributor says:
    আচ্ছা

Leave a Reply