আসসালামুআলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহি ওয়াবারাকাতুহ। কিয়ামতের পূর্বে ইমাম মাহদীর আগমন ঘটবে। কিয়ামতের সবচেয়ে বড় আলামত এর সর্বপ্রথম আলামত হলো খলীফাতুল্লাহ আল মাহাদী আলাই সাল্লাম এর আগমন। আমরা অনেকেই বলি ইমাম মাহদীর আগমন ঘটবে কিয়ামতের পূর্বে। হ্যাঁ সেটা অবশ্য ঠিক তবে তার নাম ইমাম মাহাদী হবে না। সে আল্লাহর খলিফা মাহাদী। তবে আমরা অনেকেই মনে করি তার নাম ইমাম মাহাদী।

তাই আগে আমরা এই নামের সঠিক তথ্য জেনে নিন। মাহাদী অর্থ নেতা আর খলিফা হেদায়েত প্রাপ্ত। অর্থাৎ ইমাম মাহাদী অর্থ হেদায়েত প্রাপ্ত নেতা। কিয়ামতের পূর্বে মুসলমানরা একত্রিত থাকবে না। এবং অনেক অন্যায় কাজের সাথে লিপ্ত থাকবে এইজন্যই মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীন খলীফাতুল্লাহ আল মাহদী আলাইহিস সাল্লাম কে পৃথিবীতে পাঠাবেন ।

খলীফাতুল্লাহ আল মাহাদী আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর পরিচয়?

খলীফাতুল্লাহ আল মাহাদী আলাই সাল্লাম আমাদের মত একজন মানুষ। তবে তিনি হবেন আল্লাহর খলিফা। তিনি আল্লাহর পথকে আরও সহজভাবে পৃথিবীতে প্রচার করবেন। এবং মানুষদের ভুলগুলো ধরিয়ে সঠিক পথ দেখিয়ে দিবেন। হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন খলীফাতুল্লাহ আল মাহাদী আমার বংশ থেকে জন্মগ্রহণ করবে।

খলীফাতুল্লাহ আল মাহদী আলাইহিস সাল্লাম এর নাম হবে মোহাম্মদ। অথবা মোহাম্মদ সাঃ এর নামের সাথে একটি নাম নিয়ে দুনিয়াতে আগমন করবে। তার বাবার নাম হবে আব্দুল্লাহ।অর্থাৎ আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর বাবার নাম এর সাথে মিল রেখেই,, খলীফাতুল্লাহ আলমাহাদীর বাবার নাম হবে। যেটা আমরা সরাসরি হাদিস থেকে জানতে পারি।

খলীফাতুল্লাহ আল মাহাদী কে: তিনি হলেন আল্লাহর প্রেরিত খলিফা। তিনি পৃথিবীতে 40 বছর পর্যন্ত বুঝতে পারবে না সে আল্লাহর খলিফা। খলীফাতুল্লাহ আল মাহাদী পৃথিবীতে আসবে ইসলামকে প্রতিষ্ঠা করার জন্য। যদিও হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আমাদের প্রিয়নবী ইসলামকে সঠিকভাবে প্রতিষ্ঠা করে গিয়েছেন। তবে এখানে উদ্দেশ্য হয়েছে কিয়ামতের পূর্বে মুসলমানদের হাতে কোন ক্ষমতা থাকবে না।

এমনকি মানুষের মধ্যে নানারকম ভুল ধারণা থাকবে, এগুলো থেকে হেফাজত এবং আল্লাহর পথকে সঠিকভাবে দেখানোর জন্যই খলীফাতুল্লাহ আল মাহদীর আগমন ঘটবে। বিভিন্ন হাদিস থেকে জানা যায় তিনি পৃথিবীতে আগমন করে এই পৃথিবীর ক্ষমতা তার কাছে থাকবে। এবং এই পৃথিবীতে তিনি সাত বছর অথবা নয় বছর শাসন করবে। খলীফাতুল্লাহ আল মাহাদী আলাই সাল্লাম আসার পূর্বে পৃথিবীতে অন্যায় কাজে ভরপুর থাকবে।

এমন খারাপ অবস্থা হবে যেগুলো মুসলমান হিসেবে খুবই খারাপ। এমন খারাপ অবস্থা পৃথিবীতে থাকবে যেখানে মানুষ মানুষকে বিনা কারণে হত্যা করবে। নারীরা পর্দা করবে কিন্তু উলঙ্গ মনে হবে। ভালো লোক প্রতারিত হতে থাকবে। মানুষ অন্যায় কাজের সাথে লিপ্ত থাকবে। মানুষের কাজকর্ম সব নিজের ইচ্ছামত করতে থাকবে আল্লাহর আদেশ এর কথা ভুলে যাবে। মানুষ বিভ্রান্তিতে হবে এবং অন্যায় কাজ করতেই থাকবে। মানুষের এলেম কম হতে থাকবে। এলেম ওয়ালা লোকেরা পৃথিবী থেকে বিদায় নিবে।এককথায় দুনিয়ার অবস্থা সম্পূর্ণ মুসলমানদের বিপরীত হতে থাকবে এবং মুসলমানদের হাতে কোন ক্ষমতা থাকবে না।

ঠিক এই সময়েই খলীফাতুল্লাহ আল মাহাদী আলাই সাল্লাম এর আগমন ঘটবে। তিনি কিছুদিনের ভিতরেই দুনিয়ার সবকিছু বিপরীত করে দিবেন। মানুষের ভুলগুলো ধরিয়ে আলোর পথ দেখাতে থাকবে। তিনি আসার পরে ভয়ঙ্কর ভয়ঙ্কর যুদ্ধ হবে। এই যুদ্ধে মুসলমানরা বিজয় হয়ে মুসলমানদের হাতে ক্ষমতা থাকবে।এবং খলীফাতুল্লাহ আল মাহদী আলাইহিস সাল্লাম পৃথিবীতে সাত বছর অথবা 9 বছর শাসন করবে।

তারপর তিনি মারা যাবেন এবং ক্ষমতা থাকবে হযরত ঈসা আলাইহিস সাল্লাম এর কাছে। ঈসা আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর পূর্বে আগমন ঘটবে দাজ্জালের।দাজ্জাল পৃথিবীতে আগমন করবে খলীফাতুল্লাহ আল মাহাদী আলাই সাল্লাম এর পরে। দাজ্জাল নিজেকে নবী এবং খোদা দাবী করবে। দাজ্জালের কাছে অনেক অলৌকিক ক্ষমতা থাকবে যেটা সাধারণ মানুষের থাকবে না। দাজ্জাল যখন যা বলবে তখন তাই হবে। সে ইচ্ছামত পৃথিবী নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে। দাজ্জাল এসে খলীফাতুল্লাহ আল মাহাদী আলাই সাল্লাম এর ক্ষমতা নিয়ে নিবে।

তবে খলীফাতুল্লাহ আল মাহদী আলাইহিস সাল্লাম জীবিত থাকতে থাকতেই আগমন করবে ঈসা আলাইহি ওয়াসাল্লাম। মুসলমানদের বিজয় আরো অনেক বেড়ে গেল। কারণ ঈসা আলাইহি ওয়াসাল্লাম দাজ্জালকে হত্যা করবে এবং মুসলমানদের বিজয় আরো বৃদ্ধি পাবে। সকল মুসলমান কাফের লোকেরা বিশাল যুদ্ধ করবে তখন। এমনকি গাছপালা পশুপাখি মানুষের সাথে কথা বলবে এবং মুসলমানদেরকে বলতে থাকবে আমার পিছনে এক কাফের রয়েছে শীঘ্রই তাকে হত্যা করো।

যদিও এই তথ্যগুলো সরাসরি হাদিস দ্বারা প্রমাণিত তাই লুকানোর কিছু নেই। তাছাড়া আরও অনেক রকম ঘটনা ঘটবে কিয়ামতের পূর্বে । যদিও একটি আর্টিকেলে বিস্তারিত জানানো খুবই মুশকিল। তবে আপনাদের চাহিদা থাকলে এই সম্পর্কে অথবা কিয়ামতের পূর্বের ঘটনা সমূহ অলৌকিক কি কি হবে। এ সম্পর্কে জানার আগ্রহ থাকলে অবশ্যই কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন। আপনাদের চাহিদা থাকলে অবশ্যই এ ধরনের আর্টিকেল খুব শীঘ্রই পাবলিশ করব।

আর্টিকেল এর শেষ কথা


পরিশেষে আর্টিকেলটি এখানেই শেষ করছি তবে আর্টিকেলের চাহিদা যদি আপনাদের থাকে তাহলে বিস্তারিত এ ধরনের আর্টিকেল পাবলিশ করা হবে আরো। তাছাড়া আপনাদের ইসলামিক সম্পর্কে কোন আর্টিকেল প্রয়োজন হলে কমেন্ট করে জানাবেন। ইনশাআল্লাহ ইসলামিক তথ্যগুলো খুব শীঘ্রই এই ওয়েবসাইটে আমরা পাবলিশ করব। সবাই ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন এবং নিরাপদে থাকুন। আসসালামুআলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহি ওয়াবারাকাতুহ।

6 thoughts on "ইমাম মাহাদী আ: কে?"

  1. Solayman Solayman Contributor says:
    ধন্যবাদ.☺️
    খুবই সুন্দর কিছু তথ্য দেওয়ার জন্য।☺️☺️
  2. Adriannayeem Adriannayeem Contributor says:
    thanks 😊😊😊😊😊
    1. Md Mahamudul Hasan Author Post Creator says:
      Welcome!
    1. Md Mahamudul Hasan Author Post Creator says:
      Welcome!

Leave a Reply