ঋতু পরিবর্তনের এই
সময়ে আবহাওয়ার কারণেই
চুলে খুশকির উপদ্রব অনেক বেড়ে যায়।
বিশেষ
করে শীতকালে কমবেশি সকলেই
খুশকির যন্ত্রণায় ভুগে থাকেন। এর মূল
কারণ হচ্ছে রুক্ষ
আবহাওয়া এবং পরিবেশের
ধুলোবালি যা মাথার ত্বকে খুশকির
উপদ্রব বাড়ায়।
তবে খুশকির উপদ্রব দ্রুত দূর করার
রয়েছে বেশ কিছু
কার্যকরী ঘরোয়া উপায়। একটু সময় বের
করে নিয়ে এই পদ্ধতিগুলো ব্যবহার
করলে মুক্তি পাবেন যন্ত্রণাদায়ক
খুশকির হাত থেকে।
১) বেকিং সোডার ব্যবহার
মাথা ভালো করে পানি দিয়ে
ভিজিয়ে নিন। এরপর
বেকিং সোডা আঙুলের ডগায়
লাগিয়ে পুরো মাথার
ত্বকে ঘষে ঘষে লাগিয়ে নিন। ১০
মিনিট পর চুল
পানি দিয়ে ভালো করে ধুয়ে ফেলুন।
শ্যাম্পু দেবেন না। পরের দিন শ্যাম্পু
করে চুল ধুয়ে ফেলবেন। সপ্তাহে ১ বার
ব্যবহারে ভালো ফল পাবেন।

২) নারকেল তেল ও লেবুর রসের
ব্যবহার
৩ টেবিল চামচ নারকেল তেল ও ২
টেবিল চামচ লেবুর রস
একসাথে ভালো করে মিশিয়ে নিন।
এই মিশ্রণটি চুলের গোঁড়ায়, মাথার
ত্বকে ভালো করে ঘষে লাগিয়ে
ম্যাসাজ করে নিন। ২০-২৫ মিনিট
চুলে রেখে সাধারণভাবে চুল
ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ২/৩ বার
ব্যবহারে দ্রুত খুশকির হাত
থেকে মুক্তি পাবেন।
৩) সাদা ভিনেগারের ব্যবহার
সাদা ভিনেগার পুরো চুলে ও মাথাত
ত্বকে তেলের
মতো করে লাগিয়ে নিন। একটু
বেশি করে লাগিয়ে নেবেন
মাথায়।
একটি তোয়ালে দিয়ে পুরো মাথা
পেঁচিয়ে সারারাত রাখুন। পরের দিন
সকালে চুল ধুয়ে ফেলুন শ্যাম্পু করে।
সপ্তাহে ২ বার করুন, খুশকি দ্রুত দূর হবে।
৪) অ্যাসপিরিন ট্যাবলেটের ব্যবহার
৩ টি অ্যাসপিরিন ট্যাবলেট
গুঁড়ো করে নিন। ১ টেবিল চামচ
ভিনেগারে এই ট্যাবলেট
গুঁড়ো গুলিয়ে নিয়ে মাথার
ত্বকে ঘষে লাগিয়ে নিন। দেড়
ঘণ্টা মাথায়
রেখে মিশ্রণটি ধুয়ে ফেলুন
পানি দিয়ে। খুশকির সমস্যা দ্রুত
গায়েব হয়ে যাবে।
৫) মারাত্মক খুশকির সমস্যার জন্য
মেথির ব্যবহার
মেথি সারারাত
পানিতে ভিজিয়ে রেখে সকালে
ছেঁকে নিয়ে বেটে নিন
ভালো করে।
ছেঁকে নেয়া পানি ফেলে দেবেন
না। এবার বেটে নেয়া মেথি চুলের
গোঁড়ায় মাথার
ত্বকে ভালো করে লাগিয়ে নিন। ৩-৪
ঘণ্টা রেখে চুল
ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। চুল ধোয়ার
পর
মেথি ভিজিয়ে রাখা পানি দিয়ে
সব শেষে চুল ধুয়ে নিন।
এভাবে সপ্তাহে ২ বার করুন। অনেক
বেশি খুশকির সমস্যা থাকলেও তা দূর
হয়ে যাবে।

One thought on "হেলথ টিপস – জেনে নিন , খুশকি দূর করারকার্যকরী ৫ টি ঘরোয়া উপায়"

  1. rakibraiyan Contributor says:
    dhonnojog:)


Leave a Reply