আসসালামুয়ালাইকুম


আমরা অনেক সময় ভাবি, আমার মাথায় তেমন বুদ্ধি নেই, অন্যরা আমার থেকে মেধাবী।
আবার কোনো কাজ করার সময় ভাবি, আমি এ কাজের উপযুক্ত নই।
অনেকেই অন্যের সফলতা দেখে নিজেকে ব্যর্থ মানুষ ভাবতে শুরু করে।

কেউ কেউ নিজের চেহারা কিংবা সাজসজ্জা হলিউড-বলিউডের নায়ক-নায়িকাদের মতো করার চেষ্টা করে!
এভাবে নিজেদের অজান্তেই যে আমরা নিজেকে ছোট করে তুলি, তা আমরা উপলব্ধি করতে পারি না।

একটু ভাবুন তো, আপনার নিজের মতই হুবহু অন্য কাউকে কি আপনি খুঁজে পাবেন!!
বিধাতা আপনাকে কি নিপুণভাবে তৈরি করেছেন তা কি আপনি কখনও লক্ষ্য করেছেন?
কখনও কি চিন্তা করেছেন, আপনাকে সৃষ্টিকর্তা নাও সৃষ্টি করতে পারতো- তবু তিনি আপনাকে সৃষ্টি করেছেন। কিন্তু কেন?
কারণ- আপনাকে সৃষ্টি না করলে জগতের একটা অসম্পূর্ণতা রয়ে যেত।
আপনাকে সৃষ্টি করা হয়েছে সবার থেকে আলাদা করে- কিন্তু কেন?
কারণ আপনি সবার থেকে আলাদা ভাবে বিশেষ একজন।
সুতরাং নিজের প্রতি নিজের সম্মানবোধ আনুন। নিজের শক্তি তাৎপর্যের সাথে অন্য কারও তুলনা করবেন না।
সবার থেকে আলাদা- এই আপনি হচ্ছেন জগতের বুকে বিশেষ এক ব্যক্তিত্ব। নিজেকে নিজে ছোট করে সৃষ্টিকর্তাকে অপমান করবেন না।
সৃষ্টিকর্তা আপনাকে তেমনই বানিয়েছেন যেমনটা আপনাকে মানায়।

তাই কখনোই বলবেন না, সৃষ্টিকর্তা আপনার ভিতরে তেমন জ্ঞান-বুদ্ধি-চেহারা দেন নি। বরং সবসময় বলুন, ‘আল্লাহ আমাকে একজন পরিপূর্ণ-স্বয়ংসম্পূর্ণ মানুষ হিসেবে তৈরি করেছেন। আমার ভিতরে যে জ্ঞান দান করেছেন তা সবার থেকে আলাদা। কারণ আমি সবকিছু ভিন্নভাবে চিন্তা করতে পারি।’

বিশ্বাস করুন, এই চিন্তাধারাগুলো যদি আপনি সত্যিকার অর্থেই হৃদয়ে লালন করতে পারেন, তবে কিছুদিন পর দেখবেন আপনার ভিতরে এক অন্যরকম পরিবর্তন এসেছে। যে পরিবর্তন আপনাকে এনে দেবে মানবজীবনের সত্যিকারের সফলতা।

2 thoughts on "জীবনে সফলতার উপায় ও ব্যাক্তিগত চিন্তা ধারা"

    1. MD Nayem Bokhtiar Author Post Creator says:
      thanks

Leave a Reply