আসসালামু আলাইকুম সবাই কেমন আছেন…..? আশা করি সবাই ভালো আছেন । আমি আল্লাহর রহমতে ভালোই আছি ।আসলে কেউ ভালো না থাকলে TrickBD তে ভিজিট করেনা ।তাই আপনাকে TrickBD তে আসার জন্য ধন্যবাদ ।ভালো কিছু জানতে সবাই TrickBD এর সাথেই থাকুন ।

বেশির ভাগ মানুষ এটি জানে না।

দেখবেন সবাই একটা কথা বলবে টাকায় কিন্তু সব সুখ নয় বা টাকায় কিন্তু সব সুখ এনে দিতে পারবে না। কিন্তু বাস্তবতা বলে অন্য কথা যাদের কাছে টাকা নেই তারাই বুঝতেছেন এই পৃথিবীতে টাকা প্রয়োজন কতটা টাকা না থাকলে যে এই পৃথিবীটা কতটা ভয়ঙ্কর জায়গা সেটি যারা এই পরিস্থিতিতে পড়েছেন তাদের অবস্থান না গেলে কেউই বুঝতে পারবে না। যাইহোক এখন বিষয় হলো টাকা কিভাবে ইনকাম করা যায় বা টাকাকে কাজে লাগিয়ে কিভাবে আরো বেশি ধনী হওয়া যায়।

আর আরেকটি বিষয় হলো আপনারা অনেকেই ভাবতেছেন ভাই আমি তো অনেক চেষ্টা করছি কিন্তু কোন টাকা ইনকাম করার ওয়ে তো খুঁজে পাচ্ছি না আমার ভুলটা কোথায় সেটা বুঝতে পারছি না আর দিন যেতে যেতে আমার মানসিক অবস্থা অনেক খারাপ হয়ে যাচ্ছে আগের মত এখন আর ব্রেনকে খাটিয়ে কোন কিছু চিন্তা করতে পারছি না। তাহলে এখন বিষয় হলো কি করা যায়। চলুন এই বিষয়টি step-by-step আপনাদের সাথে আলোচনা করা যাক। আর আর্টিকেলের সবার শেষে আমি আপনাদের একটি প্রো টিপস শেয়ার করবো তো চলুন আর্টিকেলটি শুরু করা যাক।

১. সবার প্রথমে আপনাকে একটি ছোট ইনকামের ব্যবস্থা করতে হবে। সেটি টিউশন পড়ানোর থেকে শুরু করে যেকোনো ছোট ইনকাম হলেই হবে। আর অবশ্যই মনে রাখতে হবে সেটি যেন পার্ট টাইমের মত কোন জব হয় অন্য কোন কিছু নয়। এটির কারণ হলো আপনার যে মেইন লক্ষ্যে পৌঁছাতে হবে সেটির জন্য যেন টাকা এবং সময় দুটি পর্যাপ্ত থাকে আপনার হাতে। এরপর step-2 এবার ধরুন আপনার টার্গেট হলো একটি রেস্টুরেন্ট বিজনেস খোলা বা আপনি যেই সাবজেক্ট এ পড়াশোনা করেছেন সেই সাবজেক্ট রিলেটেড একটি টপ জব সার্চ করা।

এখন এর জন্য আমি এখন যেই ওয়েগুলো আপনাদেরকে বলবো সেটি যেই ক্যারিয়ারের থাকেন না কেন এগুলো ফলো করলেই আপনি আপনার কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছে যেতে পাবেন হানডেট পারসেন্ট গ্যারান্টি।আর্টিকেলের এক্সাম্পলস হিসেবে ধরুন আপনি একটি রেস্টুরেন্ট বিজনেস করতে চান। পরবর্তীতে ভালো হলে আপনি আপনার বিজনেস করার ইচ্ছা রয়েছে। প্রথমটি করতে হবে এটি জানতে হবে রেস্টুরেন্ট বিজনেসে লস কেন হয়।

এখন স্বাভাবিকভাবে আমার মাথায় এই মুহূর্তে যে কারণগুলো আসছে সেগুলো হতে পারে একটি লঞ্চে যাওয়ার রেস্টুরেন্টের ঘটনা এমন। রেস্টুরেন্টে ভালো লোকেশনে ছিল না। মানে এমন একটা জায়গায় রেস্টুরেন্টে দেওয়া হয়েছে যেখানে সচরাচর মানুষ খাবার খেতে যায় না বা সেই জায়গায় গেলে মানুষের ফাস্টফুড খাওয়ার কোন মোড আসে না। এরপর এমনটি হতে পারে সেই রেস্টুরেন্ট খাবার ভালো ছিল না আর এর জন্য তাদের খাবারের টেস্ট ভাল ছিলনা তাই কাস্টমার যাওয়ার ছিল তাও এখন আর আসে না।

২. এরপর যেটি হতে পারে রেস্টুরেন্টে প্রোপার মার্কেটিং করা হয়নি। মার্কেটিং তো আর মসজিদে বা মন্দিরের সামনে গিয়ে করলে হবে না সেটি করতে হবে স্কুল বা কলেজের সামনে গিয়ে মানে আমি বোঝাতে চাচ্ছি টার্গেট লোকের কাছে গিয়েই মার্কেটিং করতে হবে তা না হলে মার্কেটিং হবেই না। সুতরাং প্রোপার মার্কেটিং না করতে পারলেও আপনার যে কোন বিজনেস লোসে চলে যেতে পারে। এরপর সেই ভুলটি হতে পারে সেই রেস্টুরেন্ট ডেকোরেশন ভালো ছিল না মানে রেস্টুরেন্টে খাবার খাওয়ার জন্য সুইটেবল না।

যেমন ধরুন চেয়ারগুলো অনেকটা চাপা চাপা ঠিকমতো বসা যায় না বা রেস্টুরেন্টে দেখতে কিছুটা নোংরা মনে হয় বা যারা খাবার পরিবেশন করছে তাদেরকে দেখলেও কিছুটা নোংরা নোংরা লাগে এই রকম আরো হাজারো কারণ থাকতে পারে একটি বিজনেস লোসে চলে যাওয়ার জন্য।যাইহোক এরকম আরো অনেক রকম কারণ থাকতে পারে আর্টিকেলটি বড় হয়ে যাবে তাই আমি আর নতুন কোন এক্সাম্পল দিলাম না।

মোটকথা আপনি যে বিষয়ে ইন্টারেস্টেড মানে আপনার বিজনেস বা আপনার কাজ এ বিষয়ে যারা আগের ফেল করেছে তাদেরকে দেখে খুঁজে বের করতে হবে তারা কেন ফেল করেছিল আর তারপরে গুলোকে নোট ডাউন করে ফেলতে হবে আর অবশ্যই এগুলো আপনি আপনার বিজনেস বা কাজে নামার আগেই করতেই হবে।

এই পর্যন্ত আমরা দুটি বিষয়ে জানলাম। এক ছোট একটি ইনকামের ব্যবস্থা করতে হবে আগেই। আর দুই আপনার বিজনেসে বা যেই কাজটিতে আপনি ইন্টারেস্টেড সেই কাজে অন্যরা কেন ফেল করেছে সেই বিষয়গুলোকে আপনাকে খুঁজে বের করে নোট ডাউন করে ফেলতে হবে। এরপর step-3 আপনার কাজটি সম্পর্কে ধরুন আপনি রেস্টুরেন্ট বিজনেস করবেন সেই বিজনেস সম্পর্কে প্রচুর পরিমাণ নলেজ নিতে হবে আর অবশ্যই ইউটিউব বা গুগোল এই বিষয়গুলোকে নিয়ে হাজারো ভিডিও এবং বিভিন্ন আর্টিকেল রয়েছে সেই বিষয়গুলো থেকে প্রচুর পরিমাণ নলেজ আপনি নিতে পারেন।

পাশাপাশি যারা সারা ওয়ার্ল্ডে আপনার নিজের দেশে রেস্টুরেন্ট বিজনেসে সফল তাদেরকে সোশ্যাল মিডিয়ায় আপনি ফলো করতে পারেন। আর খুব গুরুত্বপূর্ণ হলো তাদের বিজনেস এর শুরুটা কেমন ছিল তারা কি পরিমাণ পরিশ্রম করেছে বিজনেস এর শুরুতে এই বিষয়গুলোকে পুরোপুরি মুখস্ত করে ফেলতে হবে মানে তাদের সেই শুরুর কষ্টগুলো আপনার মাথায় রাখতে হবে। তাহলে আপনি আপনার এই সাকসেস জার্নিতে কখনোই হাঁপিয়ে উঠবেন না বা বিরক্ত হয়ে যাবেন না।

এখন অনেকেই ভাবতেছেন আমি কি এগুলো পারবো বা আমি তো খুব একটা ব্রিলিয়ান্ট না। আমি কি এত কিছু বুঝবো বা অনেকেই ভাবতেছেন ভাই আপনি যেভাবে করে বোঝেম আমি কি সেভাবে করে বুঝে উঠতে পারব। আর যদি না বুঝতে পারি তাহলে তো আমি তোর জীবনে কিছুই করতে পারবোনা।আমাকে দিয়ে কিছু হবে না। হ্যা এমনটি ভাবার কোন কারণ নেই আপনাকে দিয়ে অবশ্যই হবে তবে কেন এই মুহূর্তে হচ্ছে না সেটি আপনাদের আমি বলছি।

দেখুন আমি গত প্রায় পাঁচ বছরেরও বেশি সময় হয়ে যাচ্ছে আমি এই অনলাইন মারকেটিং, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এই বিষয়গুলোকে নিয়ে প্রচুর পরিমাণ ঘাটাঘাটি করে যাচ্ছি মানে আপনি বলতে পারেন আমার ফ্যাশন এবং ভীষণ এগুলোই আমি প্রতিদিন কিছু না কিছু নতুন শিখছে সেগুলো কে নিয়ে কিন্তু আসল বাস্তবতা হলো আমি কি পাঁচ বছর আগে এই বিষয়গুলোকে নিয়ে এতটা জানতাম এত পরিমান বুঝতাম সব বিষয় গুলোকে নিয়ে এগুলো কখনোই সম্ভব ছিল না তাই আপনার ক্ষেত্রেও এটি বাস্তব আপনি এখন হয়তো বা খুব একটা বুঝে উঠতে পারবেন না বিষয়গুলো।

কিন্তু আপনি এই আর্টকেলের স্টেপগুলোকে ফলো করে ছয় মাস প্র্যাকটিস করে যান আর এই ধরনের মোটিভেশনাল আর্টকেল সবসময় পড়তে থাকুন। আমি গ্যারান্টি দিয়ে বলছি আপনিও আমাকে কমেন্ট করে একসময় গিয়ে বলবেন ভাই আমি কিন্তু আর সেই আগের মতো এখন আর নেই। আর আর্টকেল শুরুতেই আমি আপনাদের একটি কথা বলেছিলাম আর্টকেলের শেষে আমি একটি প্রো টিপস আপনাদের সাথে শেয়ার করবো আর এটি হলো সেই প্রো টিপস।

আশা করি সবাই সবকিছু বুঝতে পেরেছেন। কোথাও সমস্যা হলে কমেন্ট করে জানাবেন অথবা ফেসবুকে জানাতে পারেন ফেসবুকে আমি

2 thoughts on "বেশির ভাগ মানুষ এটি জানে না। তাই সারা জীবন গরিব থেকে যায়।"

  1. Jakir Hossain Jakir Hossain Contributor says:
    😂😂😂


    1. MD Shakib Hasan MD Shakib Hasan Author Post Creator says:
      👍

Leave a Reply