আসসালামু আলাইকুম সবাই কেমন আছেন…..? আশা করি সবাই ভালো আছেন । আমি আল্লাহর রহমতে ভালোই আছি ।আসলে কেউ ভালো না থাকলে TrickBD তে ভিজিট করেনা ।তাই আপনাকে TrickBD তে আসার জন্য ধন্যবাদ ।ভালো কিছু জানতে সবাই TrickBD এর সাথেই থাকুন ।

Burning Desire তৈরি করুন।

ধরুন আমি একটা নতুন ইউটিউব চ্যানেল খুলেছি এবং আমি চাই যেন এক মাসের মধ্যেই আমার চ্যানেলে 1000 সাবস্ক্রাইবার হয়ে যায় ।কিন্তু যদি আমি শুধু এমনটা চেয়ে বসে থাকি এবং কোন ধরনের এফুর্ট না দেই তবে কি আমার এই স্বপ্ন আদৌ কখনো পূরণ হওয়া সম্ভব। আমি যা কিছুই করতে চাই না কেন আমাকে তার জন্য কিছু একশনস নিতে হবে। কিছু ডেফিনিট প্লান অনুযায়ী চলতে হবে তখনই কেবল আমার স্বপ্নপূরণের একটা পসিবিলিটি দেখা দেবে।

তো ধরে নিলাম আমি একটা প্ল্যান করেছি এবং সেই প্ল্যান অনুযায়ী কাজ করতে লাগলাম। তবে কি আমি কোন ধরনের বাধার সম্মুখীন না হই আমি যা চাই তা পেয়ে যাব। না এমনটা কখনোই পসিবল না যে চলার পথে কোন ধরনের বাধা আসবে না। ইনফ্যাক্ট এটাই তো বাস্তব যে আমাদের প্ল্যান যত বড় হবে আমাদের বাধাগুলো ততই পর হবে। থমাস এডিশন চেয়েছিলেন তিনি এমন একটা বাতি বানাবেন যেটা ইলেকট্রিসিটি সাহায্যে আলো দেবে। হাজার বার ব্যর্থ হওয়ার পরই তিনি সফল হয়েছিলেন।

মার্কিনী চেয়েছিলে তিনি এমন একটি মাধ্যম আবিষ্কার করবেন যার মাধ্যমে একজন মানুষের কথা কয়েক হাজার কিলোমিটার দূর থেকেও অন্য আরেকজন মানুষ শুনতে পাবে। এবং যখন তিনি দাবি করে বসলেন যে তিনি সেই উপায় পেয়ে গেছে। তখন মার্কিনী বন্ধুরা তাকে পাগল ভেবে সবাই মিলে টাকা যোগাড় করে তাকে নিয়ে পাগলের ডাক্তারের কাছে ছুটে গিয়েছিল। অর্থাৎ আমাদের স্বপ্ন যত বড় হবে আমাদের সামনে ততই বেশি বাধা আসবে।

আর এই বাধাগুলো ওভারকাম করতে আমাদের যে শক্তিটা প্রয়োজন সেই শক্তিটা আমরা পেতে পারি কেবল ভার্নিং ডিজায়ার থেকে। সাধারণ ইচ্ছা প্রকাশ করার মাধ্যমে নয়। ভানিং ডিজায়ার এতটাই শক্তি থাকে যে এর ধরুন একজন ব্যক্তি হাজারবার কোন কাজে ফেল হওয়া সত্বেও সেই কাজে লেগে থাকার মত মোটিভেশন তার মধ্যে অবশিষ্ট থাকে। একজন ব্যক্তি অন্যদের কাছে আপাতদৃষ্টিতে ইম্পসিবল এমনকি অভাবনীয় কাজকেও সম্ভব করে দেখায়।

তো আমরা যদি আমাদের সেসব ইম্পসিবেল দিনগুলোকে ভানিং ডিজায়ার কনভার্ট করতে পারি তবে সেই পাওয়ার যেটা কিনা এডিসন কিংবা মার্কিনীকে তাদের যুগান্তকারী আবিষ্কারের পথ বাতলে দিয়েছিল। সেই পাওয়ার যা আজ পর্যন্ত পৃথিবীর সকল এক্সট্রাঅরডিনারি এচিভমেন্টের পেছনে ছিল সেই একই পাওয়ারি আমাদের মধ্যে দিয়েও কাজ করতে শুরু করবে। এখন প্রশ্ন হলো আমরা কিভাবে আমাদের সেসব হুইচ গুলোকে বলুন ভানিং ডিজায়ারে কনভার্ট করতে পারি। এর জন্য কিছু সিম্পুল স্টেপস।

প্রথম স্টেপঃ আপনাকে আগে ক্লিয়ার হতে হবে আপনি যা চান তা কেন চান অর্থাৎ আপনার Why কে একদম ক্লিয়ার করে ফেলতে হবে ।যেমন ধরুন আমি যেই কাজটা করি এর কারণ আমার অন্যদের সাথে নলেজ শেয়ার করতে খুবই ভালো লাগে। আমার খুবই ভালো লাগে যখন আমি যে কারো লাইফে যে কোন সমস্যার সমাধানে একটু হলেও সাহায্য করতে পারি। এবং এই লেখা থেকে কিছু টাকা তো ইনকাম হয়।

সেকেন্ড স্টেপঃ আপনাকে একটা Exact Amount আর Exact Date Fix করতে হবে। যে তারিখে মধ্যে আপনি আপনার ফিস্ক এমাউন্ট কমপ্লিট করবেন। এতে করে আপনার মাইন্ড ফোকাস থাকবে। কারণ আমাদের মাইন্ড কোন অনির্দিষ্ট কিছুর উপর ফোকাস করতে পারে না। ফোকাশ করার জন্য তার সবসময়ই একটা নির্দিষ্ট অবজেক্ট এর প্রয়োজন হয়। যেমন ধরুন নেক্সট 5 বছরে 10 লক্ষ টাকা জমানো কিংবা আপনার ইউটিউব চ্যানেলের নেক্সট ৬ মাসের মধ্যে ১০০০ সাবস্ক্রাইবার বানানো। এমন যেকোন কিছুই আপনার টার্গেট হতে পারে।

থার্ড স্টেপঃ এবার আপনাকে ডিসাইড করতে হবে আপনি যা চান সেটার জন্য আপনি এগজ্যাক্টলি কতটুকু দিতে প্রস্তুত আছেন। কারন কিছু পেতে হলে কিছু না কিছু দিতে হয়। যেমন ধরুন আপনি যদি ছয় মাসের মধ্যে আপনার নতুন চ্যানেলে 1000 সাবস্ক্রাইবার চান তবে আপনাকে রোজ আপনার চ্যানেলের পেছনে চার ঘণ্টা করে সময় দিতে হবে।

ফর্থ স্টেপঃ আপনাকে একটা নির্দিষ্ট প্ল্যান মুতাবেক চলতে হবে। এমন প্ল্যান যেই প্ল্যানের উপর আপনার যথেষ্ট বিশ্বাস রয়েছে এই প্ল্যান ফলো করে চললে নিশ্চয়ই সফলতা আসবে। যেমন ধরুন প্রতি সপ্তাহে অন্তত একটা করে ভিডিও আপলোড দেওয়া

লাস্ট স্টেপঃ এবার সময় হলো আপনি কি চান সেখান থেকে আপনার ফোকাশ সরিয়ে আপনাকে সেটা পেতে হলে কাজ কি করতে হবে সে দিকে ফোকাস করা। কারণ আমরা জীবনে কি পাব না পাব সেটা আমাদের হাতে না কিন্তু আমাদের সেটা পাওয়ার জন্য যা করতে হবে তা অনেকাংশেই আমাদের হাতেই থাকে। এজন্যই আপনি কি চান তার থেকে আপনার পুরো ফোকাশ সরিয়ে আপনার কাজের দিকে ফোকাস করা উচিত।

তাই দিনে যতবার সম্ভব ততোবারই আপনার কাজগুলো নিয়ে চিন্তা করুন সবচেয়ে ভালো হয় যদি রাতে ঘুমানোর আগে অথবা সকালে ওঠার পর আপনার প্ল্যান গুলো একবার করে হলেও মনে মনে পড়ে ফেলতে পারেন অথবা জোরে জোরে মুখে বলতে পারেন। এর দরুন আপনার মাইন্ড সব সময় আপনার কাজের উপর ফোকাস থাকবে আর সবচেয়ে বড় কথা একটা প্ল্যান নিয়ে আপনি যত বেশি ভাববেন ততই আপনি সেই প্লান বাস্তবায়ন করার নতুন নতুন রাস্তা খুঁজে পাবেন।

এই পাঁচটা স্টেপ আপনার থেকে কোন হার্ডওয়ার ডিমান্ড করে না শুধুমাত্র স্টেপগুলো ফলো করাটা জরুরী। এই স্টেপ গুলো ফলো করার মাধ্যমে আপনি আপনার যেকোন ইচ্ছেকে ভার্নিং ডিজায়ার কনভার্ট করতে পারবেন আর যদি তা সঠিকভাবে মেইনটেইন করতে পারেন তাহলে জীবনের যেকোনো স্বপ্ন আপনি পূরণ করতে পারবেন।

আপনার ওয়েবসাইটের জন্য আর্টিকেল প্রয়োজন হলে আমার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন ফেসবুকে আমি

ভালো লাগলে আমার সাইটের পোস্ট গুলি দেখে আসতে পারেন এখানে আমি প্রতিদিন নতুন নতুন আপডেট দিয়ে থাকি আজকের আপডেট
link:

রবিতে দারুন কিছু সাপ্তাহিক ও মাসিক ইন্টারনেট এবং মিনিট অফার দেখে নিন সবাই 2021

4 thoughts on "কিভাবে নিজের মধ্যে মরিয়া ইচ্ছা গড়ে তোলা সম্ভব। Burning Desire তৈরি করুন।"

  1. Rakib Hasan Subscriber says:
    নতুন কিছু পেতে চোখ রাখুন
    Techhouse71.Xyz


    1. MD Shakib Hasan MD Shakib Hasan Author Post Creator says:
      ধন্যবাদ 🙂
    1. MD Shakib Hasan MD Shakib Hasan Author Post Creator says:
      ধন্যবাদ

Leave a Reply