গত পোস্ট এ আমরা মােটামুটি অনলাইনে আয় নিয়ে কিছু বেসিক আলােচনা করেছি। এখন আপনি ভাবতেই পারেন কাজ শিখবেন। তবে এক্ষেত্রে আপনাকে অনেক সর্তক হতে হবে। কাজ শেখার আগে আপনাকে অনেক কিছু বিবেচনায় আনতে হবে, যেমন, কি কাজ শিখবেন, কোথা থেকে শিখবেন, কিভাবে শিখবেন, আপনি পারবেন কি না ইত্যাদি ইত্যাদি।

ফ্রিল্যান্সিং শিখতে চাই

অনলাইনে আয় করতে হলে কাজ আপনাকে শিখতে হবেই। কাজ না শিখে আপনি আয় করতে পারবেন না। যদিও কিছু অল্প সাইট আছে যারা কাজ দেয় কিন্তু সেগুলাে পারমানেন্ট কোন সমাধান নয়, বরং ঐ সকল সাইটে কাজ করতে গিয়ে কিছুদিন পর আপনি বিরক্ত হয়ে যাবেন এবং আপনি ঐ সাইট ত্যাগ করবেন কিন্তু ডলার তুলতে পারবেন না। কারন ওদের মিনিমাম ১০ ডালার এর মত ক্যাশআউট লিমিট থাকে, কাজেই দশ ডলার হওয়ার আগেই আপনি ঐ সাইট ত্যাগ করবেন ফলে আপনার সময় বৃথাই নস্ট হবে। তাহলে এবার চলুন আসল আলােচনায়। কি কাজ শিখবেন তা ঠিক করতে গেলে আপনাকে আগে ভাবতে হবে যে, আপনি ঠিক কি কাজ শিখতে চান। আপনার জন্য কোন কাজটা শেখা ভাল এবং আপনি কোন দিকে বেশি ইন্টারেস্টেড। তবে এক্ষেত্রে কিছু টিপস ফলাে করা ভাল। সেগুলাে জানার আগে চলুন আমরা জেনে নেই অনলাইনে আয়ের জন্য কি কি কাজ রয়েছে।

ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসএ কি কি কাজ আছে?

অনলাইনে আয় করার জন্য রয়েছে নানা উপায়৷ তার মধ্যে সেরা উপায় হল ফ্রীল্যান্সিং করা। তবে ফ্রীল্যান্সিং কিন্তু কোন কাজের নাম নয়। এটা কাজের একটা সিস্টম বা কাজ করার একটা পদ্ধতি। সহজ কথায় বলতে গেলে, ফ্রীল্যান্সিং হল স্বাধীন কাজের পেশা। এখানে পৃথিবীর নানা প্রান্ত থেকে কাজ দাতা এবং কাজ গ্রহীতা থাকে। কাজ দাতারা কাজ দেয় এবং কাজ গ্রহীতারা কাজ নিয়ে কাজ করে। কাজ শেষ হলে ঐ কাজ দাতা টাকা পরিশােধ করে দেয়। এভাবেই চলে ফ্রীল্যান্সিং প্রসেস। আর এই কাজ দাতাদের পাওয়া যায় বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং সাইট যেমনঃ ওডেস্ক, ফ্রীল্যান্সার, ইল্যান্স ইত্যাদি ওয়েবসাইটে। এই সকল সাইটে কাজ করতে হলে আপনাদের কাজ গ্রহীতা হিসেবে অর্থাৎ একজন ওয়ার্কার হিসেবে অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে। তারপর বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে কাজের জন্য আবেদন করতে হবে। এখানে রয়েছে নানা ধরনের কাজ। তাে চলুন দেখে নেই কি কি ক্যাটাগরির কাজ রয়েছে এই ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটে।

  1. ডাটা এন্ট্রি (যেমনঃ আটিকেল রাইটিং, ভাষা অনুবাদ ইত্যাদি) এসইও (প্রচুর কাজ রয়েছে এসইও এর)
  2. ওয়েব ডেভলপমেন্ট (অনেক কাজ পাওয়া যায় তবে কাজ একটু জটিল) মার্কেটিং (এফিলিয়েট, ই-মেইল মার্কেটিং ইত্যাদি)
  3. ডিজাইন (গ্রাফিক্স ডিজাইন, লােগাে ডিজাইন ইত্যাদি)
  4. এডিটিং (ভিডিও এডিট, এনিমেশন, ৩ডি, ২ডি ইত্যাদি)
  5. এড পােস্টিং (ক্রেগলিস্ট সহ বিভিন্ন সাইটে বিজ্ঞাপনের কাজ)

উপরে মূলত ফ্রীল্যান্সিং  মারকেটপ্লেসের মেজর বা প্রধান অংশ সমূহ নিয়ে আলােচনা করা হয়েছে। এছাড়াও আরও টুকিটাকি অনেক কাজ থাকে ফ্রীল্যান্স মাকেটে।

ডাটা এন্ট্রি উপরে আলােচিত কাজ গুলাের মধ্যে সবচেয়ে সােজা হল ডাটা এন্ট্রি এর কাজ। নতুন অবস্থায় আপনি এটি করতে পারেন কিন্তু এতে রয়েছে অনেক সমস্যা। যেমনঃ এটার কাজ সহজ বিধায় আপনার আর আমার মত যারা সহজেই আয় করতে চায় তারা সবাই ডাটা এন্ট্রি করতে যায়। ফলে দেখা গেছে এই সেক্টরে কম্পিটিশান অনেক অনেক হাই। ফলে নতুনদের জন্য কাজ পাওয়া অনেক কঠিন হয়ে দাড়ায়। আবার এই সেক্টরে পুরাতনরা তাে আছেনই। কাজেই নতুন অবস্থায় আপনার কাজ পাওয়ার সম্ভাবনা প্রায় ১৫%। ফলে নতুন অবস্থায় এই খাতে হাত না দেয়াই ভাল।

  • এসইও:  ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসের এক অতি বিশাল অংশ জুড়ে রয়েছে এসইও। এর প্রায় ১০-১২ হাজার কাজ(ওডেস্ক+ফ্রীল্যান্সার+ইল্যান্স) সবসময়ই থাকে। আর এসইও এর সবচেয়ে বড় যেই প্লাস পয়েন্ট সেটা হল- এর কাজ গুলাে অনেকটা সােজা এবং মানসম্মত। মানে এর কাজ শিখতে আপনার ১৫-২০ দিন সময় লাগতে পারে অপর দিকে আপনি সহজেই একটু ট্রিক খাটিয়ে কাজ পেয়ে যেতে পারেন। এখানে নতুনদের উপযােগী অনেক কাজ রয়েছে। নিজে একবার ফ্রীল্যান্সিং সাইটসমূহ ভিজিট করলেই দেখতে পারবেন।
  • ওয়েব ডেভলপমেন্ট: অনলাইনের আরেকটি বিশাল দুনিয়া জুড়ে রয়েছে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট। ওয়েবসাইট ডিজাইন, পিএসডি টু এইচটিএমএল, এইচটিএমএল, সিএসএস, জাভা, পিএইচপি, স্লাইডার ইত্যাদি বিভিন্ন কাজ রয়েছে এই সেক্টরে। নতুনরা চাইলে এই কাজ শিখতে পারেন। কিন্তু অনেকেই শুরুতে বুঝতে পারবেন না। কারন এসইও এর তুলনায় এই কাজগুলাে অপেক্ষাকৃত কঠিন। তবে এক চেষ্টা করলে অস্মভব নয়।
  • মার্কেটিং: নতুনদের জন্য আমি এটা এডভাইস করি না। কারন আপা নিজে নিজে এই খাতে কখনােই ভাল করতে পারবেন না আপনার সাথে যদি কারাে পরিচয় না থাকে যিনি মারকেটিং এর করেন। আর যদি কারও সাথে ভাল সম্পক থাকে তাহলে তার হেল্প নিয়ে শুরু করতে পারেন। আবার অনেক কোম্পানি কাজ শেখায় তাদের কাছ থেকে কাজ শিখে নিতে পারেন। তবে তারা এক্ষত্রে ১৫-২০ হাজার টাকা নিতে পারে কাজ শেখাতে। আমার মতে নতুন অবস্থায় এত টাকা দিয়ে কাজ না শেখাই হবে বুদ্ধিমানের কাজ।
  • ডিজাইন: অনলাইনে তথা ফ্রীল্যান্সিং মারকেটপ্লেসে বিভিন্ন ডিজাইন যেমন- লােগাে ডিজাইন, গ্রাফিক্স ডিজাইন, বিজনেস কার্ড ডিজাইন, পিএসডি ডিজাইন তৈরি ইত্যাদি এর অনেক কাজ পাওয়া যায়। তবে আপনার যদি বিশেষ ক্রিয়েটিভিটি না থাকে তবে এই খাতে কাজ না করাই উত্তম। কারন আকাআকি করার ক্রিয়েটিভিটি কিন্তু অনেকটা আল্লাহ্ প্রদত্ত জিনিস। তবে কঠোর সাধনা করলে এটা অসম্ভব কিছুই নয়। আপনিও হয়ে উঠতে পারেন অন্যতম সেরা ডিজাইনার।

এছাড়াও রয়েছে নানা ধরনের কাজ যেমনঃ এড পােস্টিং এর কাজ। তবে এই সব কাজে চেনা কারাে সহায়তা থাকলে অনেক ভাল হয়।

কাজ শেখার ব্যাপারে আমার কিছু পরামর্শঃ

নতুনদের জন্য আমি আপনাদের এসইও দিয়ে শুরু করার পরামর্শ দিতে চাই। কারন এটি সােজা এবং অনলাইনের উপর খুব অল্প জ্ঞান নিয়ে যে কেউ এসইও এর কাজ করে আয় করতে পারে। এর মধ্যে রয়েছে, অনপেজ অপটিমাইজেশন, ব্যাকলিঙ্ক, বিভিন্ন কাঙ্ক্ষিত ফলাফল অর্জন সহ আরও বিভিন্ন ধরনের কাজ। এই কাজ গুলাে আপনারা সহজেই রপ্ত করতে পারেন এবং আয় করতে পারেন। নতুনরা কাজও পাবেন তাড়াতাড়ি। আর সবচেয়ে বড় যে সুবিধাটি রয়েছে এই সেক্টরে, এখানে পার্সােনাল হেল্প সংক্রান্ত অনেক কাজ থাকে যা আপনি অল্প জ্ঞান নিয়েও করতে পারবেন মনে রাখবেন, এসইও হচ্ছে গুগল নিয়ে কাজ, আর তাই গুগল কে বাদ দিয়ে আপনি অন্য যে সেক্টরেই কাজ করেন না কেন একটু আধটু সমস্যা হতেই পারে। কাজেই আমি সব সময় আপনাদের উপদেশ দিতে চাই, এসইও শেখার। এটি আপনি চাইলে বিভিন্ন ব্লগ পড়েই শিখতে ফেলতে পারবেন।

এবার সিদ্ধান্ত আপনার। নিজেকে নিজে প্রশ্ন করুন, আপনি কি সত্যিই পারবেন কাজ করতে? যদি পারেন, তাহলে জিজ্ঞেস করুন আপনি ঠিক কি শিখতে পারবেন। কোন কাজটি আপনার জন্য শ্রেয় হবে। এরপর কাজ শিখুন। ধীরে ধীরে একটু একটু করে আগান। ধৈৰ্য্য হারাবেন না। দেখবেন সফলতা পাবেন ইনশা-আল্লাহ্।

ফ্রিল্যান্সিং শিখে কোথায় কাজ পাবো??

দেখেছেন কি বােকা আমি, কাজ সম্পর্কে ধারনা দিলাম অথচ বলাই হয় নি, কোথায় পাবেন এই কাজ?? হ্যা, ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটে পাবেন কাজ। মনে প্রশ্ন আসতে পারে এই মার্কেট আবার কোথায়?? না ভাই এই মার্কেট আপনার ঘরেই আছে। শুধু কম্পিউটার এ ইন্টারনেটে গিয়ে নিচের ওয়েবসাইটে যান, তাহলেই পাবেন। আসলে এগুলাে হল বিভিন্ন ওয়েবসাইট যেখানে আপনি কাজ পাবেন। আপনাকে কাজ দেয়ার জন্য অনেক ক্লাইন্ট আছেন সেখানে আর কাজ

করার জন্যও অনেক ওয়ার্কার আছেন সেখানে।

নিচে কিছু বিশ্ব সেরা ফ্রিল্যান্সিং সাইটের লিস্ট দেয়া হল-

http://odesk.com http://freelancer.com http://elance.com

উপরের সাইট গুলােতে গিয়ে browse work এ গেলেই দেখতে পারবেন কি কি কাজ আছে পুরাে ফ্রীল্যান্সিং প্রসেসটা কিভাবে ঘটে তা নিয়ে ইনশা-আল্লাহ্ আমাদের পরবর্তী ই-বুক এ আলােচনা করা হবে।

“অনলাইনে আয়ে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ, আপনি আছেন কোথায়??

আমি তাে একদমই নতুন? তাতে কি হয়েছে? চেষ্টা করলে কিছুই অসম্ভব নয় এখনও কিছুই হয় নি আগামী দুই বছরে নেট ইউজার সংখ্যা হবে প্রায় ৪ গুন, তথ্য সূত্র- বাংলাদেশ প্রতিদিন কাজেই এখনও রয়েছে কাজের বিশাল সুযােগ এখনই প্লাগ ইন হােন আমাদের দুনিয়ায় সমৃদ্ধ দেশ গড়ুন, নিজেকে পাল্টান”

আমার ওয়েব সাইট থেকে ঘুরে আসার দাওয়াত রইলো

 

7 thoughts on "অনলাইন ইনকাম ২০২১: ফ্রিল্যান্সিং করে যে কাজে বেশি টাকা আয় করতে পারবেন"

  1. Rony Rony Contributor says:
    apnar blog theme tar nam ki?


    1. Sᴋ᭄Sᴀʙɪʀ Author Post Creator says:
      Seo Pro bro….
  2. Rony Rony Contributor says:
    tnq bro…
    r apni new registration korlen kivabe?registration to off…kindly ektu bolben
    1. Sᴋ᭄Sᴀʙɪʀ Author Post Creator says:
      ট্রিকবিডি এপস এর মাধ্যমে রেজিষ্ট্রেশন করতে পারবেন।

      ধন্যবাদ।

  3. Rony Rony Contributor says:
    tysm bro🥰😇
  4. Chondon Paul Contributor says:
    অনেক সুন্দর লিখেছেন, কিন্তু ভাই অনেকে বলে “ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ একদিন শেষ হয়ে যাবে, তখন আর কোনো কাজ পাওয়া যাবে না।”
    এই কথাটি কতটুকু সঠিক???
    1. Sᴋ᭄Sᴀʙɪʀ Author Post Creator says:
      শেষ হবে না ভাইজান।… আপনার আগ্রহ থাকলে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে পারেন। আশা করি একদিন সফলতা পাবেন।

      ধন্যবাদ।

Leave a Reply