সময়টা এখন ২০২২, এর মধ্যে প্রযুক্তিগত দিক থেকে আমরা অনেকটাই এগিয়ে গেছি। প্রযুক্তির বদৌলতে আমরাও নিজেকে অনেকখানি পরিবর্তন করতে পেরেছি। আর উন্নত প্রযুক্তির ছোঁয়া থেকে বাদ পড়েনি বিশ্বের অনলাইন প্লাটফর্ম গুলো।

২০২২ সালে অনলাইনে বেশি ইনকাম করার জন্য যে কাজের চাহিদা অনেক দেখে নিন

অনলাইনে বেশি ইনকাম করার জন্য যে কাজের চাহিদা

বরং পূর্বের তুলনায় এখন অনলাইন ইনকাম সেক্টর গুলোতে এসেছে অভাবনীয় পরিবর্তন। আর সেই পরিবর্তন কে বিবেচনা করে বেড়ে উঠছে অনলাইনে কাজ করার চাহিদা।

এই ২০২২ সালে অনলাইনে ইনকাম করা যায়। এমন কাজের সংখ্যাটাও ক্রমাগত ভাবে বেড়ে চলেছে। আগের তুলনায় অনেক নতুন নতুন সেক্টর যুক্ত হয়েছে। যেগুলোতে কাজ করে আপনিও প্রচুর পরিমান টাকা অনলাইন থেকে আয় করে নিতে পারবেন ৷

আর ইতিমধ্যেই আপনার মতো এমন অনেক মানুষ আছেন। যারা দীর্ঘদিন থেকে এসব অনলাইন প্লাটফর্মে কাজ করে। অনলাইন থেকে টাকা আয় করে আসছেন ৷

আজকে আমি এমন কিছু জনপ্রিয়ত অনলাইন ইনকাম সেক্টর নিয়ে কথা বলবো। যেগুলো ২০২২ সালে বিপুল জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। আর আপনি যদি  এগুলোর মধ্যে কোনো একটি সেক্টরে নিজেকে দক্ষ হিসেবে গড়ে তুলতে পারেন ৷

তবে আপনিও অন্যান্য মানুষের মতো বিপুল পরিমান টাকা অনলাইন থেকে আয় করে নিতে পারবেন।

তো আপনি যদি ২০২২ সালে জনপ্রিয়তার শীর্ষে থাকা। অনলাইন ইনকাম সেক্টর গুলো সম্পর্কে জেনে নিতে চান। তবে আজকের পুরো লেখাটি মন দিয়ে পড়বেন। আর যদি আপনার অনলাইন ইনকাম করার খুব বেশি ইচ্ছে না থাকে।

তবে আপনি আজকের এই লেখাটি স্কিপ করে যেতে পারেন। 

২০২২ সালে কোন অনলাইন কাজের চাহিদা বেশি ? 

এবার আমি আপনাকে বেশ কিছু অনলাইন জব এর কথা বলবো। যেগুলো ২০২২ সালে ব্যাপক হারে জনপ্রিয় হয়ে আছে। আর আপনি যদি অনলাইন থেকে টাকা আয় করতে চান। তবে নিচে উল্লেখিত যে কোনো একটি কাজে নিজেকে দক্ষ করতে হবে।

আর যদি আপনি নিচের যেকোনো একটি কাজে নিজেকে দক্ষ হিসেবে গড়ে তুলতে পারেন। তবে আপনার জন্য অনলাইন থেকে আয় করার কাজটা অনেক বেশি সহজ হয়ে যাবে। তাহলে আর দেরী কেন, চলুন মূল আলোচনা তে ফিরে যাওয়া যাক। 

০১| ওয়েব ডিজাইন এবং ওয়েব ডেভলপমেন্ট

বর্তমানে এই প্রযুক্তির যুগে নিজের একটা ওয়েবসাইট থাকা বেশ কমন একটা বিষয় হয়ে দাড়িয়েছে। যার কারনে ওয়েবসাইট তৈরির চাহিদা পূর্বের তুলনায় অনেক বেশি পরিমানে বৃদ্ধি পেয়েছে। কিন্তুু একটি Website কিন্তুু এমনি এমনি তৈরি হয়না। বরং সবার আগে আপনাকে সেই ওয়েবসাইট এর ডিজাইন করতে হবে।

এবং তারপর সেই সাইটকে ডেভলপ করতে হবে। তবে এই কাজ গুলো করার জন্য প্রচুর পরিমানে কোডিং/প্রোগামিং ধারনা থাকতে হয়। যা সব ধরনের মানুষ এই ধরনের কোডিং গুলোকে নিজের আয়ত্বে নিতে পারে না।

এখন আপনি যদি একজন দক্ষ ওয়েব ডিজাইনার হতে পারেন। আপনার কোডিং দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে আপনি যদি আর্কষনীয় ডিজাইনের ওয়েব সাইট তৈরি করতে পারেন। তবে আপনি আপনার সেই ওয়েব ডিজাইনের দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে।

অনেক টাকা অনলাইন থেকে আয় করে নিতে পারবেন। এর পাশাপাশি আপনি যদি ওয়েব ডেভলপ কে ভালোভাবে রপ্ত করতে পারেন। তাহলে আপনার অনলাইন ইনকাম এর পরিমান আরও বেশি বৃদ্ধি পাবে। 

০২| ডিজিটাল মার্কেটিং

ইন্টারনেট ব্যবহার এর চাহিদা পূর্বের তুলনায় অনেক বেশি পরিমানে বৃদ্ধি পেয়েছে। যার কারনে কোনো কিছুর প্রচার করার জন্য। অনলাইন প্লাটফর্ম একটি উপযুক্ত মাধ্যম হয়ে দাড়িয়েছে। কেননা, আজকের দিনের অনলাইন প্লাটফর্ম গুলোতে।

প্রচুর পরিমানে একটিভ ইউজার পাওয়া সম্ভব। যার কারনে এখন বেশিরভাগ কোম্পানি গুলো তাদের পন্য প্রচার ও প্রসারের জন্য অনলাইন প্লাটফর্ম কে বেছে নিয়েছে। আর অনলাইনের মাধ্যমে কোনো পন্যের প্রচার করার জন্য প্রয়োজন হবে একজন দক্ষ ডিজিটাল মার্কেটার।

যিনি নিপুন ভাবে কোনো কোম্পানির পন্যকে অনলাইন প্লাটফর্মে প্রচার করতে পারবে। তো আপনার জন্য ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে পূর্নাঙ্গ ধারনা থাকে। তবে আপনি অনলাইনে এই মার্কেটিং সার্ভিস প্রদান করে।

অন্যান্য কোম্পানির পন্যকে প্রচার করে অনেক টাকা অনলাইন থেকে আয় করে নিতে পারবেন। কারন সময়ের সাথে সাথে একজন দক্ষ ডিজিটাল মার্কেটার এর চাহিদা ক্রমাগত ভাবে বেড়েই চলেছে। 

০৩| গ্রাফিক ডিজাইনার

বর্তমান সময়ে আমাদের দেশে যারা নতুন ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরে পা রাখছে। তাদের প্রায় বেশিরভাগ মানুষ ই গ্রাফিক ডিজাইন দিয়েই শুরু করছে। এর প্রধান কারন হলো, বর্তমান সময়ে Graphic Design এর চাহিদা একেবারে তুঙ্গে রয়েছে।

কারন প্রায় সব কাজেই ডিজাইন এর দরকার হয়ে থাকে। আপনি যদি কোনো একটি কোম্পানি তৈরি করতে যান। তবে প্রথমত সেই কোম্পানির লোগো থেকে শুরু করে বিভিন্ন অনলাইন মূলক কাজের জন্য।

একজন ভালো গ্রাফিক ডিজাইনার এর প্রয়োজন হয়ে থাকে।

আর সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে, আপনি যদি নিজেকে একজন দক্ষ ডিজইনার হিসেবে গড়ে তুলতে পারেন। এবং আপনার ডিজাইনশৈলী দিয়ে মানুষকে আর্কষিত করতে পারেন। তাহলে আপনি Graphic Design করেই প্রচুর টাকা অনলাইন থেকে আয় করে নিতে পারবেন। 

০৪| কন্টেন্ট রাইটার

বর্তমানে আপনি যে লেখাটি পড়ছেন। মূলত এটি হলো এক ধরনের কন্টেন্ট। যাকে সহজ ভাষায় বলা হয়, Text Content. আর আপনি যদি এই ধরনের কন্টেন্ট লিখতে পারেন। তবে ক্যারিয়ার গড়ার জন্য আপনাকে আর পেছনে ফিরে তাকাতে হবেনা।

কারন বর্তমান সময়ে একজন দক্ষ কন্টেন্ট রাইটার এর ব্যাপক পরিমানে চাহিদা রয়েছে। কারন, আপনি যদি বর্তমান সময়ের ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোতে একটু নজর রাখেন। তাহলে আপনি দেখতে পারবেন যে। একেকটি কন্টেন্ট রাইটার তাদের একটি কন্টেন্ট এর জন্য অনেক বেশি টাকা ডিমান্ড করে থাকে।

আর এই ধরনের কন্টেন্ট গুলো মূলত Per Word হিসেবে দাম নির্ধারন করা হয়ে থাকে। তাহলে চিন্তা করে দেখুন, একজন কন্টেন্ট রাইটার এর ইনকাম কি পরিমান হতে পারে। 

০৫| অ্যাপ ডেভলপমেন্ট

আমরা যেসব এন্ড্রয়েড মোবাইল ব্যবহার করছি। সেই ফোন গুলো আজ এতো বেশি জনপ্রিয়তা অর্জন করতে পারতোনা। যদি আমাদের ফোন গুলোর জন্য কোনো ধরনের অ্যাপ না থাকতো। কারন আমরা আমাদের ফোনে থাকা এই Android Apps গুলোর মাধ্যমে অনেক বড় বড় কাজ গুলোকে।

অনেক কম সময়ের মধ্যে সম্পন্ন করতে পারি। যেমন ধরুন, আমাদের ফোনে থাকা ক্যালকুলেটর অ্যাপ এর কথা। কত বড় বড় অংক গুলোকে খুব কম সময়ের মধ্যেই সম্পন্ন করতে পারছি।

কিন্তুু একটা কথা মাথায় রাখতে হবে। সেটি হলো এই মোবাইল অ্যাপ গুলো কিন্তুু কেউ না কেউ তৈরি করেছে। আর তারপর আমরা সেগুলো কে ব্যবহার করতে পারছি।

এখন আপনার মধ্যে যদি অ্যাপ ডেভলপ করার মতো দক্ষতা থাকে। তবে আপনি এই Apps Development সার্ভিস প্রদান করে। অনলাইন থেকে বিপুল পরিমান টাকা আয় করে নিতে পারবেন। 

০৬| ভিডিও এডিটর

আমরা সবাই ভিডিও দেখতে পছন্দ করি। যার কারনে ইউটিউবে আপলোড করা ভিডিও গুলোতে মিলিয়ন মিলিয়ন ভিউ হয়ে থাকে। আর একটি ভিডিও তে আসলে কেমন ভিউ আসবে। মানুষ কোন ভিডিও গুলো বেশি দেখবে।

তার প্রায় অনেকটাই নির্ভর করে। সেই ভিডিওটি কিভাবে এডিটিং করা হয়েছে, তার উপর৷ কারন আপনার ভিডিও টি যদি ভালোভাবে এডিট করা না হয়। তবে মানুষ আপনার ভিডিওটি দেখতে তেমন একটা আগ্রহ প্রকাশ করবে না।

তাই মানুষের যেন পছন্দ হয়, সেই দিকটা বিবেচনা করেই ভিডিও এডিট করতে হবে।

কিন্তুু সবাই কি আর্কষনীয় ভাবে ভিডিও এডিট করতে পারবে? -না! বরং ভিডিও এডিট করার জন্যও আপনার মধ্যে বিশেষ কিছু গুনাবলি থাকতে হবে।

আর আপনি যদি Video Editing করার সেই দক্ষতা কে রপ্ত করতে পারেন। তাহলে আজকের দিনে আপনি এই ভিডিও এডিটিং সার্ভিস প্রদান করে। বিপুল পরিমান টাকা অনলাইন থেকে ইনকাম করে নিতে পারবেন।

⇒Free Note for Trickbd Visitor: উপরের কাজ গুলা ছাড়াও আপনি সিপিএ মার্কেটিং করে অনলাইনে আয় করতে পারবেন। আপনি যদি জানতে চান সিপিএ মার্কেটিং কি ? কিভাবে Cpa marketing করে আয় করবেন তাহলে পাশে থাকা আমার দেওয়া নীল লেখা থেকে পড়ে নিতে পারেন।

কিভাবে অনলাইনে এই কাজ গুলা করে আয় করা যাবে?

২০২২ সালে কোন ধরনের অনলাইন কাজের চাহিদা বেশি রয়েছে। এতোক্ষন ধরে আপনি উপরের আলোচনা থেকে। সেই বিষয় গুলো সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। তো এখন আপনার মনে আরও একটি প্রশ্ন জেগে থাকতে পারে। সেটি হলো, আপনি যদি অনলাইনে এই ধরনের কাজ গুলো করে টাকা আয় করতে চান।

তাহলে আপনাকে কি কি কাজ করতে হবে। অর্থ্যাৎ, আপনি এই কাজ গুলোকে কিভাবে খুজে পাবেন। চলুন এবার এ নিয়ে একটু ধারনা নেয়া যাক।

তো আপনি যদি অনলাইনে এই ধরনের কাজ গুলো করতে চান। তবে সবার আগে আপনাকে বিভিন্ন ধরনের ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোতে যেতে হবে। আজকের দিনে এমন অনেক মার্কেটপ্লেস আছে।

যেমন, Freelancer, fiverr, Upwork, People per hour ইত্যাদি। আপনি যদি এই মার্কেটপ্লেস গুলোতে রেগুলার একটিভ থাকেন। তবে আপনি খুব সহজে এই ধরনের অনলাইন জব গুলোকে খুজে পাবেন।

এবং সেগুলোর সার্ভিস প্রদান করে আপনিও অনলাইন থেকে টাকা আয় করতে পারবেন। 

আমাদের শেষকথা 

২০২২ সালে অনলাইন ইনকাম করার জন্য। কোন কাজ গুলোর চাহিদা রয়েছে। আজকে সেই কাজ গুলোর সাথে আপনাকে পরিচয় করিয়ে দিয়েছি। আশা করি আজকের এই আলোচনা টি আপনি বেশ ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন। 

আর আমি প্রতিনিয়ত আমার বাংলা ব্লগ সাইটে অনলাইন থেকে ইনকাম করার নতুন নতুন লেখা প্রকাশ করি চাইলে আমার ব্লগসাইট ভিসিট করে আসতে পারেন।

এছাড়াও আপনি যদি জানতে চান আউটসোর্সিং কি ? কিভাবে আউটসোর্সিং করে অনলাইন থেকে পড়া লেখা বা চাকরির পাশা-পাশী করতে চান তাহলে উপরের লাইনের নীল লেখাতে আমার ব্লগে সম্পূর্ণ গাইড দেওয়া আছে।

আর এমন সব হেল্পফুল তথ্য সবার আগে পাওয়ার জন্য অবশ্যই Trickbd এর সাথে থাকবেন। আর আমার ব্লগসাইট WWW.Banglaitblog.Com ভিসিট করে দেখুন। 

আপনার মূল্যবান কমেন্টের অপেক্ষায় থাকলাম।

Leave a Reply