বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় মোবাইল ফোন ভিত্তিক অর্থ স্থানান্তর সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান হচ্ছে বিকাশ। বিকাশ বাংলাদেশের সবচাইতে বড় অর্থায়ন প্রতিষ্ঠান। এটি একটি ব্র্যাক ব্যাংক এর প্রতিষ্ঠান এবং বিকাশ সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান ২০১১ সালে যাত্রা শুরু করে.!

*২৪৭ # ডায়াল করে এবং বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করে নগদ অর্থ জমা করা, নগদ অর্থ উত্তোলন করা, টাকা পাঠানো, টাকা যোগ করা, রেমিট্যান্স, মোবাইল রিচার্জ, মূল্য প্রদান ও বিল দেয়া ইত্যাদি সেবাগুলো নিতে পারেন বিকাশ গ্রাহকরা। এই সব সেভা ছাড়াও বিকাশ তাদের গ্রাহকদের জন্য চালু করেছে সেভিংস সেভা.! খুব সহজেই বিকাশ অ্যাপ এর মাধ্যমে টাকা জমাতে পারবেন তাও আবার এখন ইসলামিক শরিয়াহ মোতাবেক।

কাগজপত্রের ঝামেলা ছাড়াই বিকাশ অ্যাপের ‘সেভিংস’ সার্ভিস থেকে খুব সহজে দ্য সিটি ব্যাংক লিমিটেডের সাথে শুরু করতে পারবেন শরিয়াহ মোতাবেক ইসলামিক সেভিংস স্কিম। এই স্কিমের আওতায় প্রতিমাসে টাকা স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপনার বিকাশ একাউন্ট থেকে সিটি ব্যাংক ইসলামিকে জমা হবে এবং মেয়াদ শেষে মুনাফাসহ আসল টাকা চলে আসবে আপনার বিকাশ একাউন্টে! শুধু তাই নয়, এই টাকা ক্যাশ আউট করতে পারবেন কোনো খরচ ছাড়াই।

  • জমার পরিমাণ: প্রতিমাসে ৫০০/১,০০০/২,০০০/৩,০০০ টাকা
  • সেভিংস স্কিমের মেয়াদ: ২/৩/৪ বছর
  • মুনাফা: মাসশেষে দ্য সিটি ব্যাংক লিমিটেড দ্বারা ধার্য হবে
  • দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী এআইটি ও আবগারি শুল্ক প্রযোজ্য হবে।

১। বিকাশ অ্যাপের হোমস্ক্রিন থেকে ‘সেভিংস’ বাটনে ট্যাপ করে এগিয়ে যান

২। এখন ‘নতুন সেভিংস স্কিম খুলুন’-এ ট্যাপ করুন

৩। ইসলামিক সেভিংস বেছে নিন

৪। সেভিংস-এর মেয়াদ (২/৩/৪ বছর) ও জমার ধরন (মাসিক) নির্বাচন করুন

৫। প্রতিমাসে যে পরিমাণ টাকা জমাবেন (৫০০/১,০০০/২,০০০/৩,০০০) তা সিলেক্ট করুন

৬। সিটি ব্যাংক ইসলামিকের মোট জমার তথ্য দেখে এগিয়ে যান

৭। আপনার নমিনি সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে সেভিংস-এর উদ্দেশ্য নির্বাচন করুন

৮। সেভিংস এর সার-সংক্ষেপ দেখে নিশ্চিত করুন

৯। নিয়ম ও শর্তাবলি ভালোভাবে পড়ে, বুঝে আপনার সম্মতি দিন

১০। আপনার বিকাশ একাউন্টের পিন দিন

১১। সবশেষে – স্ক্রিনের নিচের অংশ ট্যাপ করে ধরে রাখুন

১২। সেভিংস-এর রিকোয়েস্টটি সম্পন্ন হলে, বিকাশ ও সিটি ব্যাংক থেকে কনফার্মেশন ম্যাসেজ পাবেন

১৩। ব্যাস! আপনি সফলভাবে ডিজিটাল পদ্ধতিতে খুলে ফেললেন আপনার ইসলামিক সেভিংস স্কিম। প্রতিমাসের নির্দিষ্ট তারিখে আপনার বিকাশ একাউন্টে পর্যাপ্ত ব্যালেন্স রাখুন এবং কোনো খরচ ছাড়াই মেয়াদশেষে মুনাফাসহ মোট পরিমাণ ক্যাশ আউট করুন!

আরো বিস্তারিত জানতে বিকাশ এর অফিশিয়াল ভিডিও টি দেখুন https://youtu.be/461pgcTwau8

 

এই বিষয়গুলো অবশ্যই জেনে নিন

১) আপনার বিকাশ অ্যাপ থেকে আপনি একাধিক সেভিংস স্কিম খুলতে পারবেন

২) সেভিংস স্কিমে নমিনির তথ্য প্রয়োজন অনুযায়ী পরিবর্তন করতে পারবেন

৩) আয়কর রিটার্ন জমাদানের প্রমাণ ঢাকা ব্যাংকে জমা দেয়া থাকলে মুনাফার উপর ১০% কর উৎসে কাটা হবে, অন্যথায় ১৫% কর উৎসে কাটা হবে

৪) ৩ মাস পূর্ণ হবার আগে দ্য সিটি ব্যাংক লিমিটেডের সাথে কোনো সেভিংস স্কিম বাতিল করা সম্ভব নয়। তবে আপনি ৩ মাস শেষে যেকোনো সময় এনক্যাশমেন্টের জন্য রিকোয়েস্ট করতে পারবেন

৫) আপনি যদি মেয়াদ শেষ হওয়ার পূর্বেই আপনার সেভিংস স্কিম বন্ধ করতে চান, তবে আপনি আপনার নির্বাচিত সেভিংস স্কিম অনুযায়ী সম্পূর্ণ মুনাফা নাও পেতে পারেন।

৬) বিকাশ নির্ধারিত তারিখে গ্রাহকদের আমানত/কিস্তির পরিমাণ সংগ্রহের অধিকার সংরক্ষণ করে। আপনার বিকাশ গ্রাহক একাউন্টে পর্যাপ্ত ব্যালান্স/অর্থ না থাকলে বা কিস্তির টাকা একাউন্ট থেকে কেটে নেওয়ার সময় আপনার একাউন্ট সক্রিয় না থাকলে লেনদেন ব্যর্থ হবে এবং এক্ষেত্রে পরবর্তী সাত দিন বিকাশ আপনার একাউন্ট থেকে টাকা কেটে নেওয়ার চেষ্টা করবে। যদি আপনার বিকাশ একাউন্টে অপর্যাপ্ত ব্যালেন্স/একাউন্ট স্থিতি থাকার কারণে অথবা একাউন্ট সক্রিয় না থাকার কারণে কিস্তির টাকা কেটে নেওয়া সম্ভব না হয়, তবে আপনি উক্ত দিনের মুনাফা পাবেননা

 

যেকোনো প্রয়োজনে Facebook এ আমি..!!

বাংলালিংক সিমে ফ্রি 1.5GB নিয়ে নিন

 

ধন্যবাদ

15 thoughts on "ইসলামিক শরিয়াহ মোতাবেক এবার টাকা জমান বিকাশ এ.!"

  1. MD Zakaria Contributor says:
    এটা আসলে কতটা ইসলামিক?
    1. Abir Contributor says:
      ০%
  2. Najmul Nazu Author says:
    ইসলামিক কীভাবে হয়?
    যাহাই সুদ তাহাই তো মুনাফা 😂
  3. MD FAYSAL Contributor says:
    একই idlc আল্লাহ আমাদের হেফাজত করুন।।😓😥
    1. ZyanAhmed153 Contributor says:
      বিকাশের এইটা তো সিটি ইসলামিক এর সেবা। সিটি ব্যাংকের এই সার্ভিস দীর্ঘদিনের। আর শরীয়াহ বোর্ড মেনেই হয়। তাই এইটা অবশ্যই শরীয়াহ মোতাবেক
  4. MD FAYSAL Contributor says:
    একই idlc আল্লাহ আমাদের হেফাজত করুন।।😓😥
  5. Amit Baidya Author says:
    সুদ বললে খারাপ হবে না
    1. asif shahriar Contributor says:
      ব্যাংকের আয়ের খাত যদি হালাল হয় তবে অবশ্যই এটা শরীয়াহ সম্মত। শরীয়াহ বলে ৩ ভাবে মুনাফা করা যায় হালাল ভাবে। তাই এটা জায়েজ আছে
  6. MD Musabbir Kabir Ovi Author says:
    পরবর্তীতে ক্যাশ আউট চার্জ লাগবে না?
    1. Uzzal Mahamud Author Post Creator says:
      সেটা তো পোস্ট এ ভালো ভাবেই বলা আছে.!
    2. MD Musabbir Kabir Ovi Author says:
      খেয়াল করি নী
  7. Abir Contributor says:
    নিঃসন্দেহে শয়তানি ফাঁদ, ইসলামিক শরিয়াহ মোতাবেক সূদ খাওয়া হারাম। এরা হারাম কে হালাল বানাচ্ছে।
  8. Mohammad Ariful Islam Contributor says:
    যাহা লাউ তাহাই কদু 🙂
  9. saadmanrafi9 Contributor says:
    বাংলাদেশ ব্যাংক আর ইসলামী শরীয়াহ বোর্ড দুইটাই এই ব্যাংকিং দেখভাল করতেসে। সিটি ব্যাংক দেশের টপ ৫ টা ব্যাংকের একটা। বিকাশও দেশের ১ নম্বর মোবাইল ব্যাংক। তাই জিনিসটা সহীহ আর নিয়মমাফিক হচ্ছে। আপনি চাইলে তাদের শরীয়াহ বোর্ড ও দেখে নিতে পারেন। সন্দেহের আর অবকাশ থাকবেনা।
    1. mdsohag Contributor says:
      😅😅

Leave a Reply