এসইও‘র জন্য ব্যাকলিংক যে কতোটা গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় তা ঠিক বলে শেষ করার মতো নয়। একটি ওয়েবসাইটে অধিকাংশ ট্রাফিক-ই আসে ঐ ওয়েবসাইটের জন্য তৈরি কৃত ব্যাকলিংকের হাত ধরে।বলতে গেলে অফ-পেজ এসইও‘র মূল হাতিয়ার হচ্ছে ব্যাকলিংক। এইজন্য আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি

ব্যাকলিংক কি এবং এর সম্পর্কে জানা কয়েকটি ভুল সিদ্ধান্ত।

 

ব্যাকলিংক কি?

ব্যাকলিংক হচ্ছে আপনার সাইটের একটা লিঙ্ক যা কিনা আপনার সাইটের প্রতিনিধি হিসেবে অন্য কোন সাইটে প্রকাশ বা স্থাপন করা হয় এবং এর দ্বারা ঐ সাইটের সাথে আপনার সাইটের একটি যোগ সূত্র স্থাপন হয়, ফলে ঐ লিঙ্কটি ব্যাবহার করে খুব সহজে ঐ সাইটের ভিসিটর আপনার সাইটে ভিসিট করতে পারে!

ব্যাকলিংক সাধারণত ২ প্রকার-

 

১) ডু-ফলো ব্যাকলিংক

২) নো-ফলো ব্যাকলিংক

বিঃদ্রঃ ফলাফলের দিকে বিবেচনা করলে নো-ফলো ব্যাকলিংক এর থেকে ডু-ফলো ব্যাকলিং বেশি কারজকরি।

কোয়ালিটি ব্যাকলিংক এবং সঠিক রাস্তায় চলা

যেকোনো সাইটে আপনার সাইটের ব্যাকলিংক স্থাপন করলেই যে আপনার সাইটের ভিসিটর বারবে বা কাঙ্ক্ষিত ভিসিটর পেয়ে জাবেন এটা সম্পূর্ণ ভুল তথ্য। যারা সাধারনত ব্যাকলিংক স্থাপন কেই এসইও মনে করেন তারাই সাধারণত এই ভুল তথ্যটির বাহক। সাধারন কথায় বলতে গেলে এটি একটি এসইও বিধ্বংসী কাজ যা কিনা আপনার সাইটের মানকে একেবারে নামিয়ে দিতে পারে।

এখন আমার লিখাটি পরে নতুনদের মনে একটি প্রশ্ন জাগতে পারে, আর তা হোল-”অন্য সাইটে যদি আমার সাইটের ব্যাকলিংক স্থাপন নাই করতে পারলাম তাহলে আমরা ঐ নিদ্রিস্ট পরিমান ভিসিটর পাবো কোথা থেকে?”

তাদের জন্য আমার উত্তর হচ্ছে-

ভাই, আপনাদের তো কেও ব্যাকলিঙ্ক করতে নিশেধ করেনাই। তবে কথা হচ্ছে আপনি যখন ব্যাকলিঙ্ক স্থাপন করবেন তখন আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে যে আপনার তৈরি করা ব্যাকলিঙ্কটির মান সঠিক বা কোয়ালিটি ব্যাকলিঙ্ক হচ্ছে কিনা!

কোয়ালিটি ব্যাকলিংক কি?

সাধারণ ভাবে বলতে গেলে, যে সাইটে আপনি আপনার সাইটের জন্য ব্যাকলিংক তৈরি করবেন সেই সাইট টি আপনার সাইট সম্পর্কিত হয় তাহলে সেটা হবে মান সম্পন্ন বা কোয়ালিটি ব্যাকলিংক। উদাহরন দিয়ে বলতে গেলে-

ধরুন আপনার একটি আইনি বিষয় বস্তু সম্পরক্রিত একটি সাইট আছে। এখন আপনি যদি আপনার সাইটের জন্য কোন ব্যাকলিংক করতে চান তাহলে অবশ্যই আইনি সংক্রান্ত কোন ব্লগ,ফোরাম,ওয়েবসাইট ইত্যাদি জায়গায় করবেন। কারন আইনি সংক্রান্ত ব্যাপারে মানুষ জানতে আসলে আইনি সংক্রান্ত সাইটেই ভিসিট করবে এটাই সাভাবিক। তখন ঐ সাইটে আপনার ব্যাকলিংক থাকলে আপনার সাইটে ভিসিটর আসার সম্ভাবনা আছে। এটাকেই বলে মানসম্মত ব্যাকলিংক বা কোয়ালিটি ব্যাকলিংক। এখন আপনি ভাবুন, আপনি যদি আপনার সাইটের জন্য এমন কোন সাইটে ব্যাকলিংক করতেন যেখানে কিনা আইনি সম্পর্কিত কোন কিছুই নেই তাহলে কি আপনি আপনার সাইটের জন্য সম্ভাব্য ভিসিটর পেতেন? উত্তর কিন্তু এখন আপনার কাছেই। ১০০ সাধারন ব্যাকলিংকের থেকে ১টি কোয়ালিটি ব্যাকলিংক উত্তম।

ভুল , সবই ভুল

আপনার ধারনাটাই সবটাই ভুল

এসইও‘র জগতে পুরাতন আর নতুন প্রায় সবাই যে একটি সাধারন কিন্তু সাঙ্ঘাতিক ভুল করে থাকে তা হচ্ছে কোয়ালিটি ব্যাকলিংক না করে যেখানে সেখানে নিজের ইচ্ছামতো লিঙ্ক বিল্ডিং করতে থাকে, এতে করে লিঙ্ক এর পাহার তৈরি হয়েযায় কিন্তু ফলাফল জিরো। যদি ফলাফল জিরো হয়েও ক্ষান্ত থাকত তাহলেও একটা কথা ছিল, কারন ব্যাপার টা তখন এমন হয়ে যায় যে আপনার একুল ও গেলো ঐ কুল ও গেলো। কথাটা পরে মনে প্রশ্ন জাগতে পারে যে – “রহস্য টা কি? ফলাফল জিরো হবে বুঝলাম কিন্তু একুল ওকুল যাবে কেন ?”

আসলে বেপার টা হচ্ছে আপনি যখন উরাধুরা(খাটি বাংলায়) লিঙ্কিং করবেন , তখন আপনার কাঙ্ক্ষিত ভিসিটর পাবেন্না এটা তো ১০০% সাভাবিক এবং এই উরাধুরা লিঙ্কিং করার কারনে আপনার লিঙ্ক গুলো গুগলের কাছে স্পামিং হয়ে ধরা পরবে এবং এতে করে গুগল প্লানটি হিসেবে আপনার সাইটিকে গুগল ইংডেক্সিং এর আওতা থেকে বের করে দিতে পারে, ফলাফল আপনার সাইটিকে আর গুগল সার্চ ইঞ্জিনের মদ্ধে খুজে পাওয়া জাবেনা। এখন বুঝেছেন , কেন ২ কুল-ই যাবে?

একটি অসাধারণ ভুল

“অসাধারণ ভুল” বোল্লাম এইকারনে যে, উপরের আলোচ্য ভুল গুলো সাধারণত পুরাতন রা বেশি করে থাকেন আর এখনকার যে আলোচ্য বিষয় তা পুরাতনরা তো করেই বরং পুরাতনদের থেকে নতুনরা বেশি করে থাকে, এমনকি কিছু কিছু দাবীকৃত এসইও এক্সপার্ট রাও এই ভুল অনায়েসে করে থাকে। এতক্ষন উপরে যা আলোচনা করা হয়েছে তা সুধু এই ভুলটাকে তুলে ধরতে এবং আপনাদের বুঝতে সুবিধা হয় তার জন্যই।

সাধারণত ব্যাকলিংক স্থাপন ও লিঙ্ক বিল্ডিং কেম্পেইং এর সময় প্রথমে যেটা করা হয় তা হচ্ছে কম্পিটিটর এর ব্যাকলিংক বিশ্লেষণ। এটা করার পর আমরা ২টা ধারনা পাই আর তা হোল-

১)আমার সব কম্পিটিটরের কার্যবিধি কি।

২)আমার কাজ কেমন হবে।

এই ২টা ধারনা নেওয়ার সময় আমাদের মনে কখনো কখনো চারা দিয়ে উঠে যে-

“কম্পিটিটর যখন তার সাইটের ব্যাকলিংক স্থাপনের জন্য কেম্পেইং করেই নেমেছে সেহেতু আমরা তাদের পথ সরাসরি অনুশরন করলেইতো হয় তাহলে তো আর আমাদেরকে কষ্ট করে অ্যানালায়সিস করতে হয়না। কারন তারাতো অবশ্যই আশানুরুপ ফলাফল পাবার জন্যই ওভাবে কাজ করেছে, এখন আমি যদি তাদের কাজকে সম্পূর্ণ নকল করে কাজ করি তাহলে আমাকে আর ঠেকায় কে, ফলাফল তো নিশ্চিত ভাল।”

যদি এমন কথা মনের মদ্ধে এসে থাকে তো যেনে রাখুন আপনি সেই অসাধারণ ভুল পথের পথিক হতে যাচ্ছেন। এখন আবারো আপনার মনের মধ্যে প্রশ্ন জাগতে পারে, আর তা হোল-”কম্পিটিশনে টিকে থাকতে হলে কম্পিটিটরদের অনুসরন করবো নাতো অনন্যদের কম্পিটিটরদের অনুশরন করব?”

ব্যাপারটা আসলে এমন না। ধরুন, আপনি এন্টি-সেফটিক সাবান তৈরি করেন। এখেত্রে আপনার কম্পিটিটর হবে অন্য সাবানমেনুফেকচারিং কম্পানি। এখন হতে পারে আপনার কম্পিটিটররা এন্টি-সেফটিক বা বিউটি সোপ বা অন্য কোন ধাচের সাবান তৈরি করেন। এক্ষেত্রে আপনি যখন আপনার সাবানের প্রচারে জাবেন তখন কি আপনার কম্পিটিটরের মতো করে হুবাহু একি ভাবে প্রচারে নামবেন? যদি আপনি আপনার কম্পিটিটরের মতো করে প্রচারে নামেন তাহলে ১০০% সিউর থাকুন যে আপনার কাস্টমার আপনার প্রচার গ্রহন করবেনা কারন মানুষ সবসময় নতুন কিছু চায় আর তাছারা কাস্টমাররা ঐ রকম প্রচারে আগে থেকে অভ্যস্ত এবং কোন কোন ক্ষেত্রে আশাহত বা বিরক্ত। এখন আপনি যদি আপনার সাবানকে সেই সব কম্পিটিটরদের মাঝে টিকে থাকার জন্য তাদের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে নতুন আঙ্গিকে প্রচারে নামেন তাহলে অবশ্যই সেটা সর্বজন গ্রহণযোগ্য ও বাজারে টিকে থাকার মতো যোগ্যতা রাখবে এবং আপনি অবশ্যই এখান থেকে লাভবান হবেন।

বিঃদ্রঃ একটা কথা মনে রাখবেন , আপনার সাইট আর আপনার কম্পিটিটরের সাইট এক ক্যাটাগরির হলেও কিন্তু একনা। দুটি সাইটের ভিতরে অবশ্যই যথেষ্ট পার্থক্য বিদ্যমান থাকবে যাআপনাকে মনে রেখে কাজ করতে হবে!

আমরা কম্পিটিটরদের অনুসরন করবো সুধু তাদের কাজ সম্পর্কে ধারনা নিয়ে নিজের মতো করে নতুন আঙ্গিকে কাজ করার জন্য, তাদের নকল করার জন্য নয়। আমরা কম্পিটিটরদের কাছ থেকে যে যে সুবিধা গুলো নিতে পারি তা হোল-

  • নতুন ডিরেক্টরি খুজে পেতে পারি যা আগে আমাদের লিসটিং এ ছিলনা।
  • নতুন অথরিটিভ সাইট খুজে পেতে পারি নিজের মতো করে আর্টিকেল লিখা এবং লিঙ্ক বিল্ডিং এর জন্য।
  • বিভিন্ন রিসরসেস পেজ খুজে পেতে পারি আমাদের সাইটের সাথে লিঙ্ক বা অ্যাড করার জন্য।
  • লিঙ্কিং এর বৈষম্য খুজে পেতে পারি।
  • কম্পিটিটরদের ভুল গুলো খুজে পেতে পারি।

সর্বোপরি আমরা কম্পিটিটরের সাইট থেকে যে তত্ত্বই খুজে পাইনা কেনো তা থেকে কেবল কতোগুলো ধারনাই পেতে পারি, নির্দেশনা নয়!

তাই SEO ক্ষেত্রে এমন কোনো কাজ করবেন না যেটা  আপনার সময় নষ্ট করছে। 

পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

4 thoughts on "ব্যাকলিংক কি এবং এর সম্পর্কে জানা কয়েকটি ভুল সিদ্ধান্ত।"

  1. Dead_Sowrov JoEℹ DeNLY☝ Author says:
    Good


  2. Abdus Sobhan Abdus Sobhan Author says:
    2 tir besi baktigoto link share kora rule ar baire
    reported
  3. Abdus Sobhan Abdus Sobhan Author says:
    post edit korechen kintu tobuo 2tir besi link ache (3) 1 ta backlink ar power amrao bujhi bro tai post abar edit kore sundor moto 2 ti backlink rakhun tar besi noi
  4. MD Shakib Hasan MD Shakib Hasan Contributor says:
    অসাধারণ

Leave a Reply