এসইও (SEO) হলো সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন। যখন আমরা কোন সার্চ ইঞ্জিনে (Google, Bing) কোন কিছু লিখে সার্চ করি তখন ঐ সার্চ ইঞ্জিন সেই সম্পর্কিত অনেক ওয়েবসাইট আমাদের সামনে নিয়ে আসে। যেই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে এই ওয়েবসাইট গুলো সার্চ ইঞ্জিনের সার্চ রেজাল্টে আসে সেই প্রক্রিয়ায় হলো এসইও। অর্থাৎ আপনার ওয়েবসাইটটি যেই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে গুগল বা অন্য কোন সার্চ ইঞ্জিনের সার্চ রেজাল্টে শো করবে সেটিই এসইও (Search Engine Optimization)

 

আমি আজকের এই আর্টিকেলে এসইও সম্পর্কে সম্পুর্ন টিউটোরিয়াল দেবার চেষ্টা করব আর সাথে একটা পেইড কোর্স ও দিয়ে দিব ফ্রিতে। আপনারা চাইলে এর মাধ্যমে আপনাদের ওয়েবসাইট বা ইউটিউব চ্যানেল খুব সহজেই র‍্যাংক করাতে পারবেন।

 

এসইও’র প্রকারভেদঃ

এসইও হলো দুই প্রকারঃ

  1. On Page SEO (অন পেজ এসইও)
  2. Off Page শেও (অফ পেজ এসইও)

এখানে, অন পেজ এসইও হলো আপনার ওয়েবসাইট সম্পর্কিত ও অল্প সময়েই করা যায় আর অফ পেজ এসইও হলো আপনার এসইও রেডি ওয়েবসাইট টি সার্চ ইঞ্জিনের কাছে গ্রহনযোগ্য করে তোলার প্রক্রিয়া যা একটি দীর্ঘ সময়ের ব্যাপার। আমি এখানে অন পেজ এসইও ও অফ পেজ এসইও কিভাবে করবেন সে ব্যাপারে বিস্তারিত বলার চেষ্টা করছি।

 

অন পেজ এসইওঃ

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি থেকে শুরু করে আর্টিকেল লিখা পর্যন্ত সকল কাজিই হলো অন পেজ এসইও। অর্থাৎ অন পেজ এসইওর ক্ষেত্রে সকল কাজ আপনার নিজের ওয়েবসাইটেই সীমাবদ্ধ। অন পেজ এসইও করার জন্য যে বিষয়গুলো লক্ষ রাখতে হবে সেগুলো হলোঃ

 

১. ওয়েব ডিজাইনঃ প্রথমেই কথা বলব আপনার ওয়েবসাইট এর ডিজাইন নিয়ে। আমরা যারা নতুন ব্লগিং বা ওয়েবসাইট শুরু করি, তারা প্রথমেই যে ভূল করি সেটি হলো ভূল থিম নির্বাচন। আমরা শুধু দেখি কোন থিম বেশি স্টাইলিশ আর বেশি ফাংশন রয়েছে।

অথচ, সার্চ ইঞ্জিন গুলো চায় একদম সাদাসিধা, সিম্পল ও হালকা থিম। আপনার থিম যতো বেশি স্টাইলিশ হবে ও যতো বেশি ফাংশন থাকবে আপনার থিমে ততো বেশি জাভাস্ক্রিপ্ট ও অন্যান্য ভারি কোডিং থাকবে, যার ফলে আপনার থিমের সাইজ ভারি হয়ে যাবে ও লোডিং এ অনেক বেশি সময় নিবে যা এসইও এর জন্য খুব খারাপ প্রভাব সৃষ্টি করে। তাই প্রথমেই আপনার কাজ হবে একটা লাইটওয়েট সিম্পল থিম সিলেক্ট করা।

এক্ষেত্রে আপনি Generatepress থিম ব্যবহার করতে পারেন। এটি এখন পর্যন্ত সব চাইতে লাইটওয়েট থিম যেটি ২ সেকেন্ডের ও কম সময়ে পুরো সাইটটি লোড করতে সক্ষম। আপনি চাইলে এই থিমের পেইড অথবা ফ্রি দুই ভার্শনিই ব্যবহার করতে পারেন। আর আপনার সাইট তৈরির পর Google Page Speed Insight টুল দিয়ে সাইটের স্পীড চেক করতে পারেন। এই থিমের প্রিমিয়াম ভার্শন দিয়ে আমি আমার নিজের ওয়েবসাইট তৈরি করেছি চাইলে স্পীড দেখে আসতে পারেন।

  • আমার সাইটঃ https://penmanbd.com

ভাল থিমের পাশাপাশি অবশ্যই আপনার হোস্টিং এর মান ভাল হতে হবে। যদি আপনার ওয়েবসাইটের কন্টেন্ট বাংলা হয় তবে অবশ্যই BDIX সার্ভার এর হোস্টিং ব্যবহার করবেন যেকোন প্রতিষ্ঠানের। আর হ্যা, ওয়েব সাইটের পারফরম্যান্স এর জন্য শেষ আরেকটি বিষয় অবশ্যই ক্যাচিং প্লাগিন ব্যবহার করতে হবে। এক্ষেত্রে ফ্রি ব্যবহার করতে চাইলে আমি রিকমেন্ড করব Autoptimize প্লাগিন আর পেইড ব্যবহার করলে Wp rocket প্লাগিন। আমি আমার ওয়েবসাইটে Wp rocket প্লাগিন টা ব্যবহার করেছি। আমার সাইটের স্পীড টা দেখে নিন।

Penmanbd.com on Google page speed insight

Penmanbd.com on Google page speed insight

 

২. কিওয়ার্ড রিচার্সঃ ওয়েব ডিজাইনের পরেই আপনার কাজ হলো আপনার ওয়েবসাইটের জন্য ইউনিক কন্টেন্ট লিখা। কিন্তু আপনি কোন বিষয়ের উপর কন্টেন্ট লিখবেন? যে বিষয় নিয়ে লিখবেন সেই বিষয়ে কেউ গুগলে সার্চ করে কিনা কিভাবে জানবেন? এইসব বিষয়ে জানার জন্য আপনাকে কিওয়ার্ড রিচার্স করতে হবে।

ফ্রিতে কিওয়ার্ড রিচার্স করার জন্য আপনারা এই সাইটটি (Ahref Keyword research tool) ব্যবহার করতে পারেন। আমিও নিজেও এই টুল ব্যবহার করি।

 

৩. ফোকাস কিওয়ার্ডঃ কিওয়ার্ড রিচার্স করার পর আপনাকে একটা ফোকাস কিওয়ার্ড নির্বাচন করতে হবে এক বা দুই শব্দের। যেমন আমার এই পোস্টের জন্য আমি ফোকাস কিওয়ার্ড নির্বাচন করেছি “এসইও”। এখন আপনি কন্টেন্ট লিখার সময় আপনার কন্টেন্টের প্রথম প্যারাগ্রাফ সহ পুরো কন্টেন্ট, হেডলাইন ট্যাগ, ইমেজ alt ট্যাগ, ট্যাগ সব জায়গায়  এই ফোকাস কিওয়ার্ড থাকতে হবে।

 

৪. টাইটেলঃ টাইটেল নির্বাচনের ক্ষেত্রে অবশ্যই সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। আপনি যদি আকর্ষণীয় টাইটেল না দেন তাহলে দেখা যাবে যে আপনি গুগল থেকে শুধু ইমপ্রেশনস পাচ্ছেন কিন্তু আপনার সাইটে কোন ভিজিটর আসছে না। তাই আকর্ষণীয় ও ছোট আকারের টাইটেল দেবার চেষ্টা করবেন।

 

৫. কন্টেন্টঃ আপনাা কন্টেন্ট অবশ্যই শতভাগ ইউনিক ও তথ্যবহুল হতে হবে যা থেকে ভিজিটর গন উপকৃত হবেন। মনে রাখবেন ভিজিটর যদি আপনার কন্টেন্ট পরে খুশি হয় তবে গুগল আপনার কন্টেন্ট নিজ দায়িত্বে র‍্যাংক করিয়ে দিবে। আর ভূলেও কোন কপি কন্টেন্ট সামান্য পরিবর্তন করে নিজের বলে চালিয়ে দিবেন না। গুগল বট এটি ঠিকিই ধরে ফেলবে।

 

৬. হেডিংঃ আপনার কন্টেন্ট গুগলে র‍্যাংক করার জন্য আপনার ফোকাস কিওয়ার্ড এবং টাইটেল অবশ্যই পোস্টের অভ্যন্তরীণ হেডিং (H1, H2, H3) এ ব্যবহার করতে হবে। এছাড়া টাইটেল ছাড়াও বোল্ড আকারেও টাইটেল ও ফোকাস কিওয়ার্ড ব্যবহার করতে পারেন। আর এইসব এমনভাবে করবেজ যাতে গুগলের কাছে মনে হয় আপনি ভিজিটর দের সুবিধার জন্য এমনটা করেছেন গুগলের কাছে র‍্যাংক পাবার জন্য না।

 

৭. মিডিয়াঃ আপনার কন্টেন্ট এর মধ্যে অবশ্যই মিডিয়া ফাইল (ছবি, ভিডিও) থাকতে হবে। ছবি আপলোড করার ক্ষেত্রে আগেই ছবিটির নাম চেঞ্জ করে সেখানে ফোকাস কিওয়ার্ড দিয়ে দিবেন। এবং ছবি অবশ্যই কমপ্রেস করে সাইজ কমিয়ে নিবেন। অরিজিনাল ছবি বা স্ক্রিনশট আপলোড দিলে সেটির সাইজ অনেও বেশি থাকে ও লোড হতে অনেক টাইম লাগে। দ্রুত লোড হবার জন্য Image lazy loading ব্যবহার করতে পারেন। আর হ্যা, ইমেজ এর ক্যাপশন এবং alt tag এ টাইটেল অথবা ফোকাস কিওয়ার্ড রাখবেন। আর অবশ্যই পোস্টের সাথে একটি ইউনিক ফিচার্ড ইমেজ যুক্ত করে দিবেন।

 

৮. ট্যাগঃ ট্যাগ আপনার কন্টেন্ট এর জন্য অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। ট্যাগ নির্বাচনের ক্ষেত্রে খেয়াল রাখবেন যে বিষয়গুলো নিয়ে মানুষ গুগলে বেশি সার্চ করতে পারে সেই বিষয় গুলো ট্যাগ এ দিবেন। আর ফোকাস কিওয়ার্ড ও টাইটেল ও ট্যাগে দিবেন। ট্যাগে সর্বোচ্চ ৫/৬ টার বেশি ট্যাগ ব্যবহার না করায় ভাল।

 

অফ পেজ এসইওঃ

ধরে নিচ্ছি উপরের সবগুলো স্টেপ ফলো করেছেন আপনি অর্থাৎ আপনার অন পেজ এসইও শেষ। এখন আপনার কাজ হলো আপনার এসইও রেডি কন্টেন্ট টি গুগলে সাবমিট দেয়া। আপনি যদি গুগল কে না জানান যে আপনার একটি ওয়েবসাইট আছে আর সেখানে কি কি বিষয়ের আর্টিকেল আছে, তাহলে গুগল কিভাবে আপনার সাইট সার্চ রেজাল্টে শো করাবে? সেজন্যই এখন আপনার কাজ হলো গুগলে আপনার সাইট টি সাবমিট দেওয়া। অফ পেজ এসইওর জন্য যে কাজগুলো করতে হবেঃ

 

১. প্রোপার্টি ভেরিফাইঃ প্রথমেই আপনার সার্চ কোনসলে একাউন্ট করে সেখানে আপনার ওয়েবসাইট টি সাবমিট দিতে হবে ও ভেরিফাই করতে হবে যে আপনিই এই ওয়েবসাইটের মালিক।

 

২. সাইটম্যাপ তৈরিঃ সার্চ কোনসলে ওয়েবসাইট এড করার পর আপনার ওয়েবসাইটে কি কি কন্টেন্ট আছে সেটা গুগলকে জানানোর জন্য একটা xml ফাইলে আপনার ওয়েবসাইটে থাকা সকল পোস্ট, পেইজ ও ক্যাটেগরির একটা লিস্ট করে সেটি গুগলে সাবমিট দিতে হবে। আপনার সাইটের জন্য অটোমেটিক সাইটম্যাপ তৈরি করতে পারেন এখান থেকে

 

৩. ডোমেইন অথোরিটিঃ ডোমেইন অথোরিটি নির্ভর করে আপনার ডোমেইন এর বয়সের উপর। আপনার ডোমেইন যতো পুরোনো হবে ও স্পাম স্কোর যতো কম হবে, আপনার ডোমেইন অথোরিটি ও বেশি হবে। আর আপনার ডোমেইন অথোরিটি যতো বেশি হবে আপনার সাইটের গ্রহনযোগ্যতাও ততো বেশি হবে গুগলের নিকটে।

 

৪. ব্যাকলিংকঃ অফ পেজ এসইওর সব চাইতে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো ব্যাকলিংক। অন্য কোন ওয়েবসাইটে যখন আপনার ওয়েবসাইটের লিংক উল্লেখ করা হবে ও সেটি গুগলে ইনডেক্স করা হবে তখন আপনি একটি ব্যাকলিংক পাবেন। আর এই ব্যাকলিংক আপনার সাইট র‍্যাংকিং এর ক্ষেত্রে খুবিই গুরুত্বপূর্ণ। তবে ব্যাকলিংক নিতে হবে অবশ্যই মানসম্মত ও সেইম ক্যাটেগরির ওয়েবসাইট থেকে।

ব্যাকলিংক পাবার জন্য আপনি যে বিষয়গুলো করতে পারেনঃ

  • আপনার সেম ক্যাটেগরির অন্য ব্লগে আপনি কন্টেন্ট লিখে সেখানে আপনার কন্টেন্ট এর লিংক যুক্ত করে দিতে পারেন।
  • বিভিন্ন প্রশ্ন-উত্তর সাইটে সম্পর্কিত প্রশ্নের উত্তর দিয়ে শেষে আপনার ব্লগের লিংক দিতে পারেন রেফারেন্স হিসেবে।
  • যেকোনো ভাল মানের ওয়েবসাইট থেকে পেইড ব্যাকলিংক বা পেইড টুল থেকে অটো ব্যাকলিংক ও নিতে পারেন।

 

এসইও পেইড কোর্সঃ

আপনি প্রফেশনাল ভাবে এসইও শিখতে চাইলে সেক্ষেত্রে অবশ্যই আপনার প্রয়োজন হবে একটি পেইড কোর্সের। কারন এইসব বিষয় আপনাকে কেউই ফ্রিতে শিখাতে চাইবে না (যদিও আমি ফ্রি শেখাচ্ছি 😁)। আর পেইড কোর্স নিতে গেলে প্রয়োজন হবে টাকার আর যদি আপনারা আমার মতো গরিব মানুষ হয়ে থাকেন তবে তো টাকা খরচ করে কোর্স কেনা সম্ভব না। তাই আপনাদের জন্য এখানে একটা পেইড বাংলা কোর্স সম্পুর্ন ফ্রিতে দিয়ে দিচ্ছি।

কোর্সটি আমার গুগল ড্রাইভে আপলোড করা রয়েছে, যাদের প্রয়োজন অবশ্যই ডাউনলোড করে রেখে দিবেন। কারন যেকোনো সময় ডিলেট ও হয়ে যেতে পারে।

কোর্স লিংক- Download from Google drive

এছাড়াও ওয়েব ডিজাইন, অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট, ইথিক্যাল হ্যাকিং বা যেকোনো বাংলা পেইড কোর্স ফ্রিতে ডাউনলোড করার জন্য আমার লিখা এই আর্টিকেল টি পড়তে পারেন।

 

এই ছিল আজকের এসইও বাংলা টিউটোরিয়াল। কেমন লাগলো অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। আর এসইও বিষয়ে বিস্তারিত জানতে আমার লিখা এই আর্টিকেল টি পড়তে পারেন।

10 thoughts on "এসইও বাংলা টিউটোরিয়াল সম্পুর্ন সাথে এসইও পেইড কোর্স ফ্রি!"

    1. Abdus Sobhan Author says:
      Stop spamming
      Otherwise, your ID will be banned
  1. sumonAhmed Contributor says:
    ট্রিকবিডি তে একাউন্ট তৈরী করা ছিল অনেক আগেই কিন্তু এতদিন লগইন করা হয়নি আজ লগইন করলাম শুধুমাত্র আপনার জন্য অনেক ধন্যবাদ ভাই আপনাকে অনেক ধন্যবাদ এত সুন্দর একটি পোষ্ট করার জন্য শুধুমাত্র এই কমেন্ট করার জন্য আমি আজ ট্রিকবিডি তে লগইন করেছিলাম
    1. Abdus Salam Author Post Creator says:
      ধন্যবাদ ভাই, এতোটা ভালবাসার জন্য।
  2. AJFahad Contributor says:
    Valo post…
  3. AJFahad Contributor says:
    Good post…
  4. Shaheen Uddoula Author says:
    ভালো লিখেছেন
  5. sohag sarker Contributor says:
    Vaiya seo somporke ja ja janar silo sob valo vabe bujiye diyesen ar jonno thank amar ai site tar seo korate chai dekhen to kmn ki hbe
    https//www.Technologysohag.com
  6. sohag sarker Contributor says:
    Vaiya seo somporke ja ja janar silo sob valo vabe bujiye diyesen ar jonno thank amar ai site tar seo korate chai dekhen to kmn ki hbe

    http://Technologysohag.com

Leave a Reply