এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল কিভাবে লিখবেন? (সিক্রেট টিপস)

প্রিয় বন্ধুরা এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার জন্য আমরা গত পর্বে একে আর্টিকেল পাবলিশ করেছিলাম। সেখানে আমরা সাধারণত এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার পাঁচটি পয়েন্ট নিয়ে বিস্তারিত জেনেছিলাম। সুতরাং আজকে আমরা আর পাঁচটি পয়েন্ট নিয়ে আলোচনা করব। এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার জন্য।

আপনারা যদি আগের আর্টিকেলটি দেখে থাকেন তাহলে এই আর্টিকেলটি বুঝতে আরো বেশি সুবিধা হবে। এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার জন্য, সাধারণত নিয়ম-নীতির কোন অবদান নেই। সঠিক নিয়মে আপনি যদি সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন ভালোভাবে কাজ করতে পারেন নিয়ম-নীতি মেনে,

তাহলে আপনার আর্টিকেলটি অবশ্যই এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল হবে। সুতরাং বন্ধুরা কথা না বাড়িয়ে চলুন আজকে আমরা মূল পাঁচটি পয়েন্ট নিয়ে বিস্তারিত জানার চেষ্টা করি এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার জন্য। আজকের এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার পাঁচটি পয়েন্ট খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

6. এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল এর জন্য Post Keyword

পোস্ট কীওয়ার্ডস এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনার কাঙ্খিত টার্গেট কিওয়ার্ড পোস্ট এর ভিতরে অবশ্যই আর্টিকেলে থাকতে হবে। এবং সেটি আপনার আর্টিকেল প্রফেশনাল এবং রেংকিং করার জন্য সাহায্য করবে।

এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল তৈরি করতে আপনার আর্টিকেলটি টাইটেলে যা দিবেন আপনার ফোকাস কিওয়ার্ড যেটি থাকবে। ঠিক সেটি আপনার পোস্টে ইনক্লুড করে দিবেন। তবে একই শব্দ বার বার দিল এ ভিজিটর বিরক্ত হবে তাই বিষয়টি অবশ্যই খেয়াল রাখবেন।

7. এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার জন্য Post Heading

এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখারঃ পোস্ট হিডিং খুবই গুরুত্বপূর্ণ এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার জন্য। আপনার আর্টিকেল এর টাইটেল অনুযায়ী কিছু কিওয়ার্ড হিডিং ব্যবহার করতে হবে। ওয়ার্ডপ্রেস প্লাটফর্ম কিংবা ব্লগার প্লাটফর্মে হিডিং অন,হিডিং টু, হিডিং থ্রি এই অনুপাতে কয়েকটি হিডিং থাকে।

এবং গুগল আপনার এই হিডিং গুলো কেউ গুগলে অনুসন্ধান করলে সেটি খুঁজে থাকে। বেশি ইনফরমেটিভ তথ্য যুক্ত আর্টিকেলটি তখন গুগল তার সামনে শো করাই। সুতরাং ইনফরমেটিভ এবং হিডিং আপনার আর্টিকেলে রাখার চেষ্টা করবেন অবশ্যই। তবে হিডিং অন ব্যবহার না করাই ভালো, তার জন্য আপনারা হিডিং টু এবং পরবর্তী গুলো ব্যবহার করতে পারেন।

8. এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার জন্য অবশ্যই Post Sharing

এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেলঃ মূলত শুরুর দিকে হয়তোবা আপনার আর্টিকেল গুলো মানুষের কাছে পৌঁছবে না। তার জন্য আপনি একটু কষ্ট করে আপনার আর্টিকেল বা পোস্ট শেয়ার করবেন। যদিও শেয়ার করা উচিত নয় তবে শুরুর দিকে পোস্ট শেয়ার করলে কোন সমস্যা হবে না। তবে অতিরিক্ত শেয়ার থেকে বিরত থাকবেন।

আপনার আর্টিকেল ভিজিটর বেশি আসলে গুগল ভাববে আর্টিকেল অবশ্যই ইনফরমেটিভ। এবং এর জন্য সাধারণত আপনার আর্টিকেলটি এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল হিসেবে গণ্য হবে। এবং গুগলে আপনার আর্টিকেল রেংকিং করতে পারে। এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার জন্য অবশ্যই তাই শুরুর দিকে একটু শেয়ার করবেন। তবে অতিরিক্ত শেয়ার থেকে বিরত থাকা ভালো।

9. এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার জন্য Post URL

এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখারঃ জন্য সাধারণত আপনি যখন কোন পোস্ট পাবলিশ করবেন তখন অটোমেটিক্যালি একটি ইউআরএল হয়ে যাবে পোস্টের। আপনাকে এই ইউআরএল চেঞ্জ করে আপনার টাইটেল এর কিওয়ার্ড ইনক্লুড করতে হবে। যেটা আপনার এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল হওয়ার দিক দিয়ে অনেক ভূমিকা পালন করবে।

আর এদিকে আপনার আর্টিকেল গুগোল খুব সহজে ক্রাউড করে বুঝতে পারবে আর্টিকেল গুরুত্বপূর্ণ। কেউ কি অর্থে লিখে সার্চ করলেই অবশ্যই আপনার আর্টিকেলটি শুরুর দিকে আসার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই আপনাকে অবশ্যই আপনার আর্টিকেলটি এসইও ফ্রেন্ডলি করার জন্য, পোষ্টের ইউআরএল চেঞ্জ করে টাইটেলের সাথে মিল করে আপডেট করে নিবেন।

10. এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার জন্য Post Content Length

এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেলঃ গুগোল সবসময় বড় আর্টিকেলস দেখতে পছন্দ করে। এবং আর্টিকেল এর লেন্ত যত বড় হবে ততো গুগলের পছন্দ হবে আর্টিকেলটি। সুতরাং আপনারা সব সময় 500 শব্দ থেকে শুরু করে যত বেশি পারেন ততো বেশি দেওয়ার চেষ্টা করবেন।

আপনার আর্টিকেল যত ইনফরমেটিভ এবং বড় হবে ততই গুগোল সেটির প্রতি গুরুত্ব দিবে। এবং আপনার আর্টিকেল কেউ অনুসন্ধান করার সঙ্গে সঙ্গে প্রথমের দিকে শো করানো হবে। যেটা আপনার এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার জন্য অনেক বেশি ভূমিকা পালন করবে। আশা করি বিষয়টি এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার নিয়ম নীতি সম্পর্কে বিস্তারিত বুঝতে পেরেছেন।

আর্টিকেল সম্পর্কিত ও গুরুত্বপূর্ণ কিছু শেষ কথা?

বন্ধুরা আমরা এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লেখার জন্য দুইটা আর্টিকেল পাবলিশ করেছি। আজকের আর্টিকেলে আমরা পাঁচটি পয়েন্ট নিয়ে এসে ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল এর জন্য বিস্তারিত শেয়ার করার চেষ্টা করেছি। এবং গত আর্টিকেলে আমরা প্রথম পাঁচটি পয়েন্ট নিয়ে আলোচনা করেছিলাম।

আর আজকের এই পাঁচটি পয়েন্ট মন দিয়ে আপনারা যদি পড়েন তাহলে, আশা করি আপনারা যে কেউ এসে ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লিখতে পারবেন। এবং পাবলিশ করলে আপনার আর্টিকেলটি এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল এ রূপান্তর করা হবে। আর্টিকেলটি ভালো লাগলে অবশ্যই লাইক দিয়ে উৎসাহ বাড়িয়ে দিবেন আশা করি।

বরাবরের মত সবাই ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন এবং নিরাপদে থাকুন। আজকের আর্টিকেলটি পর্যন্ত আশা করি আবার অন্য কোন আর্টিকেলে দেখা হবে। আর্টিকেল সম্পর্কিত কোন প্রশ্ন থাকে মন্তব্য থাকলে সেটি কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে ভুলবেন না। আজকের আর্টিকেল পড়ার জন্য সবাইকে অসংখ্য অসংখ্য ধন্যবাদ।

6 thoughts on "এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল কিভাবে লিখবেন? (সিক্রেট টিপস)"

  1. Levi Author says:
    সুন্দর।
    1. Md Manik Contributor Post Creator says:
      Thanks
  2. Noyon Contributor says:
    Nice erokom aro post chai kibabe wapka tha adsence pabo ei bissoy niye

Leave a Reply