ডোমেইন অথোরোটি এমন একটি বিষয় যেটার উপর আপনার ওয়েবসাইটের সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন স্কোর নির্ভর করে। এই ডোমেইন অথোরিটি মুলত MozRank দিয়ে থাকে। এটা ওয়েবসাইট মালিককে তার ওয়েবসাইটটি কোন পর্যায়ে আছে সেটা জানাতে সাহায্য করে। যদিও ডোমেইন অথোরিটি গুগলের এসইও এর কোন অংশ নয় কিন্তু তারপরেও এটা ব্লগারদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারন একটা ওয়েবসাইট রেংক করার জন্য অনেকগুলো বিষয় রয়েছে।

যদি আপনার ওয়েবসাইটের ডোমেইন অথোরিটি বেশি হয় তাহলে এটা দ্বারা বুঝা যায় আপনার ওয়েবসাইট গুগলে রেংক করার সম্ভাবনা বেশি রয়েছে। উদাহরন হিসেবে যদি বলি একই কিওয়ার্ড নিয়ে যদি ৩ ও ১০ ডোমেইন অথোরিটি ওয়েবসাইট আর্টিকেল লেখে তাহলে ৩ ডোমেইন অথোরিটি সাইটের চেয়ে ১০ ডোমেইন অথোরিটি সাইটের আর্টিকেলটি রেংক করার সম্ভাবনা বেশি থাকবে। যদিও আর্টিকেল রেংক করার জন্য অনেকগুলো বিষয়বস্তু রয়েছে কিন্তু ডোমেইন অথোরিটি মুটামুটি কম গুরুত্বপূর্ণ নয়।

ডোমেইন অথোরোটি একটি এসইও রেংকিং সিস্টেম যেটা বিভিন্ন বিষয়ের উপর নির্ভর করে দেয়া হয়। যদি আপনার সাইটের ভালো ব্যাকলিংক প্রোফাইল, অনেক সোশ্যাল মিডিয়া সাইটে শেয়ার, ভালো সাইট থেকে সঠিক ব্যাকলিংক এবং নিশ রিলেটেড আর্টিকেল ইত্যাদি থাকে তাহলে আপনার ডোমেইন অথোরিটি অবশ্যই বেশি হবে। উপরে বলা বিষয় গুলো যদি আপনার ওয়েবসাইটে না থাকে তাহলে আপনি কখনোই ডোমেইন অথোরিটি স্কোর বাড়াতে পারবেন না।

মাঝে মাঝে Search Engine Result Page (SERP) আপনার ডিএ স্কোরের উপর নির্ভর করে। যদি আপনার লিংক প্রোফাইল ভালো না থাকে কিন্তু আপনার ওয়েবসাইট ভালো পরিমান রেংকিং থাকে তাহলে ও আপনার ডিএ বাড়বে। প্রতি মাসে এক থেকে দুই বার ডিএ স্কোর আপটেড হয়। ডিএ স্কোর আপটেড হওয়ার মাধ্যমে আপনি জানতে পারবেন আপনার ওয়েবসাইট কোন ব্যাকলিংক হারিয়েছে নাকি।

ভাল ডোমেইন অথোরিটি কত?

Moz দ্বারা সর্বোচ্চ ডোমেইন অথোরিটি ধরা হয় ১০০. অর্থাৎ ১০০ সবচেয়ে ভালো ডোমেইন অথোরিটি এবং ০ হচ্ছে সবচেয়ে খারাপ ডোমেইন অথোরিটি। যদি আপনার ডোমেইন অথোরিটি ২০ এর চেয়ে কম হয় এটি আপনার ওয়েবসাইট রেংকিং এর ক্ষেত্রে তেমন খারাপ প্রভাব ফেলবে না কিন্তু ডোমেইন অথোরিটি ২০ এর বেশি থাকা ভালো।

কিভাবে ডোমেইন অথোরিটি চেক করা যায়?

যেহেতু ডোমেইন অথোরিটি Moz ওয়েবসাইট দিয়ে দেয়া হয় তাই ডোমেইন অথোরিটি এই ওয়েবসাইট দিয়া চেক করা ভালো। গুগল ক্রোম মোজ এক্সটেনশন ব্যবহার করে আপনি সহজেই আপনার ওয়েবসাইটের ডোমেইন অথোরিটি দেখতে পারবেন তাছাড়া মোজ ওয়েবসাইটের মাধ্যমেও আপনি আপনার ওয়েবসাইটের ডোমেইন অথোরিটি দেখতে পারবেন। আপনি চাইলে Site explorer অনলাইন টুলস দিয়েও ডোমেইন অথোরিটি দেখতে পারেন। এটি মোজ বার ব্যবহার করে আপনার সাইটের ডোমেইন অথোরিটি কত সেটা দেখাবে।

তাই আপনি আপনার সাইটের সঠিক এবং আপটেডেড ডোমেইন অথোরিটি কত সেটা জানার জন্য site explorer সাইটটিও ব্যবহার করতে পারেন। সাইট এক্সপোলার ওয়েবসাইট দিয়ে ডোমেইন অথোরিটি চেক করার অনেকগুলো সুবিধা রয়েছে। আপনি এই টুলস দিয়ে আপনার ডোমেইনের জন্য থাকা ব্যাকলিংক গুলোর বয়স, কোন পেজ থেকে লিংক করেছেন, কোন শব্দ ব্যবহার করে ব্যাকলিংক পেয়েছেন ইত্যাদি বিষয়ে জেনে নিতে পারবেন।

কিভাবে ডোমেইন অথোরিটি স্কোর বাড়ানো যায়?

যদিও এস ইও এর ক্ষেত্রে ডোমেইন অথোরিটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় কিন্তু এটা কোন গুগল অফিশিয়ালি বলা  এলগরিদম নয়। মোজ কতৃক আপনার সাইটের লিংকিং প্রোফাইল, অ্যানচর টেক্সট, ইন্টারনাললিংক, গুরুত্বপূর্ণ অথোরিটি সাইটে লিংক আছে কিনা ইত্যাদি বিবেচনা করে আপনার ডোমেইন অথোরিটি স্কোর দিয়ে থাকে। আর একটি আর্টিকেল রেংক করার ক্ষেত্রে মোজ এর রিসার্চ এর বিষয় গুলো গুরুত্বপূর্ণ তাই ডোমেইন অথোরিটি একটি গুরুত্বপূর্ণ এস ইও বিধয় ভালো যায়। আপনি যদি সার্চ কনসোল থেকে ভালঝ পরিমান ভিজিটর পাওয়ার চিন্তা করছেন তাহলে আপনার সাইটের ডোমেইন অথোরিটি স্কোর বাড়ানোর দিকে নজর দিন।

এতক্ষন ডোমেইন অথোরিটি কী? কেন ডোমেইন অথোরিটি গুরুত্বপূর্ণ? ইত্যাদি বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছি। আপনি ডোমেইন অথোরিটি কি এবং কেন জরুরি এটা জানার পর অবশ্যই আপনার মনে প্রশ্ন জাগছে যে ডোমেইন অথোরিটি কিভাবে বাড়ানো যায়? সমস্যা এটা নিয়েও আলোচনা করব। ডোমেইন অথোরোটি বাড়ানোর জন্য নিচের বিষয়গুলো খেয়াল করে আপনার সাইটে কাজে লাগেন।

  • কোয়ালিটি আর্টিকেল লেখা।
  • হাই-কোয়ালিটি ইন্টারলিংক করুন।
  • হাই-কোয়ালিটি ওয়েবসাইটে আপনার সাইট লিংক যুক্ত করুন।
  • অন পেজ এসইও ঠিক করুন।
  • অথোরিটি সাইট থেকে ব্যাকলিংক নিন।
  • ব্রোকেন লিংক ঠিক করুন।

কোয়ালিটি আর্টিকেল লেখাঃ আমরা সবাই জানি কোয়ালিটি আর্টিকেল খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি সাইটের জন্য। যদি আপনার সাইটে খারাপ কোয়ালিটি আর্টিকেল থাকে তাহলে রিমোভ করে দিন অথবা পরবির্তন এস ইও ফ্রেন্ডলি হাই কোয়ালিটি আর্টিকেলে পরিবর্তন করুন। এটা আপনার সাইটের ভিজিটর বাড়াতে সাহায্য করবে। যদি আপনার সাইটে ৫০০ ওয়ার্ডের নিচে আর্টিকেল থাকে তাহলে সেগুলোতে নতুন শব্দ যুক্ত করে ৫০০-১০০০ ওয়ার্ড আর্টিকেলে রুপান্তরিত করুন। আরেকটি বিষয় খুবই গুরুত্বপূর্ণ কপি-পেস্ট আর্টিকেল দেখা থেকে বিরত থাকুন এতে আপনার ওয়েবসাইট প্যানলাইজ হয়ে যেতে পারে।

হাই-কোয়ালিটি ইন্টারলিংক করুনঃ একটি আর্টিকেল লেখার সময় অবশ্যই হাই কোয়ালিটি ইন্টারলিংক ব্যবহার করুন।  ইন্টারলিংকিং করার ক্ষেত্রে অবশ্যই অবশ্যই হাই কোয়ালিটি সাইটকে পাধান্য দিবেন। যেমন আপনি যদি কম দামে ভালো ফোন 2022 বাংলাদেশ নিয়ে আর্টিকেল লেখেন সেক্ষেতে মোবাইল সম্পর্কিত কোন আর্টিকেল ওইকিপিডিয়া বা এরকম হাই অথোরিটি সাইটে পাবলিশ করা থাকলে সেখান থেকে লিংক নিয়ে আপনার আর্টিকলের মোবাইল টেক্সটের মধ্যে ঐ অথোরিটি সাইটের লিংক যুকৃত করে দিন। এটা করার ফলে গুগল সহ অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিনে রেংক করার পাশাপাশি আপনার সাইটের ডোমেইন অথোরিটিও বাড়াতে পারবেন।

হাই-কোয়ালিটি ওয়েবসাইটে আপনার সাইট লিংক যুক্ত করুনঃ একটা আর্টিকেল পাবলিশ করা হলে সেই আর্টিকেল লিংক অন্য ভালো ডোমেইন অথোরিটি স্কোর যু্ক্ত সাইটে এড করতে পারলে আপনার সাইটের ডিএ অনেক বেড়ে যাবে এমনকি আপনার আর্টিকেলটি রেংক করার সম্ভাবনা ও বেশি থাকবে। অন্য সাইটে আপনার ওয়েবসাইট লিংক যুক্ত করার অনেক গুলো উপায় আছে এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য কয়েকটি উপায় হচ্ছেঃ গেস্ট পোস্ট করা, কমেন্টের মাধ্যমে ইত্যাদি অনেক মাধ্যম আছে আপনার সাইটের লিংক অন্য সাইটে যুক্ত করার তবে এর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হচ্ছে গেস্ট পোস্টিং। আপনার সাইটের অন্য হাই অথোরিটি সাইটে যুক্ত করার কারনে গুগল বুঝবে আপনার সাইট ভালো আর্টিকেল প্রকাশ করে থাকেন। তবে অন্য সাইট থেকে লিংক করার ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে আপনার সাইটটি যেই নিশ রিলেটেড ঠিক আপনিও ঐ রিলেটেড ওয়েবসাইট থেকে ব্যাকলিংক নিবেন তাহলেই আপনার ডোমেইন অথোরিটি বাড়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে।

অন পেজ এসইও ঠিক করুনঃ আপনার ওয়েবসাইটের অন পেজ এসইও ঠিক না থাকলে ডোমেইন অথোরিটি বাঢ়াতে পারবেন না। আপনার সাইটের অন পেজ এসইও স্কোর সম্পুর্ন করলে আপনার ডিএ বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাছাড়া এটি আপনার ওয়েবসাইট রেংক করার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

অথোরিটি সাইট থেকে ব্যাকলিংক নিনঃ ডোমেইন অথোরিটি বাড়ানোর জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যেই বিষয়টি সেটা হচ্ছে অথোরিটি সাইট থেকে ব্যাকলিংক নেয়া। মনে করুন আপনি টাকা ইনকাম করার সহজ উপায় বাংলাদেশে নিয়ে আর্টিকেল লেখেছেন এখন আপনি এই লেখাটাই ব্যবহার করে অন্য ওয়েবসাইট থেকে ব্যাকলিংক নিতে পারলে আপনার ওয়েবসাইটের ডোমেইন অথোরিটি স্কোর বাড়ার সম্ভাবনা খুব বেশি থাকবে। আর এটি আপনার আর্টিকেল রেংক করার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখবে। গেস্ট পোষ্ট করার মাধ্যমে সহজেই একটি হাই কোয়ালিটি ব্যাকলিংক নিতে পারেন আপনার সাইটের জন্য।

ব্রোকেন লিংক ঠিক করুনঃ অনেক সময় আপনার ওয়েবসাইটের ইন্টারনাল লিংক গুলো ডেমেজ হয়ে যেতে পারে সেগুলো আপটেড করতে হবে। মনে করুন আপনি আপনার একটি আর্টিকেলে ডোমেইন কি কিওয়ার্ডে ইন্টারলিংক করেছিলেন কিন্তু সেই লিংকটি এখন সচল নাই তাহলে ঐ লিংকে ক্লিক করলে ইরোর আসবে এটা সার্চ ইঞ্জিন পছন্দ করেনা। তাই আপনার উচিত হবে সেই গুলো লিংক ব্রোকেন ওয়েবসাইট দিয়ে চেক করে ডিলেট করে দেয়া।

শেষ কথা

ডোমেইন অথোরোটি সম্পর্কে গুগল দ্বারা অফিশিয়ালি কোন নোটিশ না দিলেও ডোমেইন অথোরিটি যেইসব বিষয়ের উপর ভিত্তি করে দেয়া হয় তার মধ্যে যেই বিষয়গুলো রয়েছে এগুলোতে ভালো করতে পারলে আপনার সাইটের রেংক অনেকটা বেড়ে যাবে। আশাকরি ডোমেইন অথোরিটি কী? কেন গুরুত্বপূর্ণ এই সব বিষয়গুলো সম্পর্কে সম্পূর্ণ জানতে পেরেছেন।

আসা করি আরটিকেলটি আপনাদের ভালো লেগেছে। ভালো লাগলে বন্ধুদের সাথে সেয়ার করতে ভুলবেন না।এমন আরো আরটিকেল পেতে ভিজিট করুন আমাদের ShopTips24.CoM ওয়েবসাইটে। ধন্যবাদ।

6 thoughts on "ডোমেইন অথোরোটি কী? কেন ডোমেইন অথোরিটি গুরুত্বপূর্ণ?"

  1. SagorSrkian Author says:
    Moz ব্যবহারের সস্পূর্ণ নিয়মকানুন নিয়ে কেউ পোস্ট করলে ভালো হতো।
    1. max niloy Author Post Creator says:
      জী ঠিক আছে।
      Moz pro একাউন্ট পেলে তারপর সব কিছু খুটিনাটি নিয়ে একটা আরটিকেল খুব শিগ্রি করা হবে।
  2. Fahim Author says:
    Nice Post Bro <3
    1. max niloy Author Post Creator says:
      ধন্যবাদ ভাইয়া
  3. MD Shakib Hasan Author says:
    অনেক সুন্দর লিখেছেন 🥀

Leave a Reply