হ্যালো বন্ধুরা আশা করি সকলে অনেক ভালো আছেন। আপনাদের কে আমাদের এই সাইটে আমার পক্ষ থেকে জানাই স্বাগতম। আজকের পোস্ট এ আমি আপনাদের সাথে একটি এসইও ফ্রেন্ডলি পোস্ট কিভাবে লিখা যায় এই বিষয় টি নিয়ে কথা বলবো। তো চলুন দেরি না করে পোস্ট টি শুরু করে দেওয়া যাক।

এসইও ফ্রেন্ডলি পোস্ট কিভাবে লিখতে হয় সেটা জানতে হলে আমাদের আগে যানতে হবে এসইও ফ্রেন্ডলি পোস্ট আসলে কী।

আসলে এসইও এর পূর্ণ রুপ হলো Serach Engine Optimization (SEO). আর ফেন্ডলি মানে তো বুঝতেই পাছেন সেটা কী। আর এসইও ফ্রেন্ডলি মানে হলো, এমন কিছু জিনিস যা খুব সহজেউ সার্চ ইঞ্জিনে অপটিমাইজ হতে পারবে। আর যদি আপনি একজন ব্লগার কিংবা আর্টিকেল রাইটার হন তো আপনাকে সব সময় খেয়াল রাখতে হবে আপনার পোস্ট গুলো যাতে এসইও ফ্রেন্ডলি হয়৷ নিচে পোস্ট এসইও ফ্রেন্ডলি করে লেখার কয়েকটি উপায় আপনাদের সাথে আমি শেয়ার করছি।

এসইও ফ্রেন্ডলি পোস্ট লিখার নিয়ম

নিচে কয়েকটি উপায় আছে যেগুলো ফলো করলে আপনারা এসইও ফ্রেন্ডলি আরেটিকেল খুব সহজে লিখতে পারবেন।

সঠিক কি-ওয়ার্ড নির্বাচন করুন

ব্লগ পোস্ট লিখবেন কিন্তু কোনো কি-ওয়ার্ড ছাড়াই, এর মানে হলো কারেন্ট নেই অথচ আপনি লাইট কেন জ্বলছে না সেটা চেক করছেন। একটি ভালো ও মানসম্মত পোস্ট লিখতে গেলে আগে আপনাকে ভাবতে হবে আপনি কোন বিষয়ের উপর লিখবেন। এর জন্য আপনাকে নানা কিওয়ার্ড রিসার্চ করতে হবে। আর কিওয়ার্ড একবার পেয়ে গেলে আপনার জন্য একটি পোস্ট লিখা কোনো ব্যাপারই হবে না।

সঠিক শিরোনাম নির্বাচন করুন

পোস্ট লিখা শুরু করার আগেই পোস্ট এর টাইটেল মানে শিরোনাম নির্বাচন করুন। আর খেয়াল রাখবেন টাইটেল এ যেনো আপনার বাছাই করা কিওয়ার্ড টি থাকে।

ইউনিক পোস্ট লিখুন

আপনি পোস্ট এর কি-ওয়ার্ড পেয়ে গেছেন। কিন্তু আপনি পোসট টি নিজের মতো করে না লিখে, অন্য কারো ওয়েবসাইট থেকে কপি করলেন! এটা কিন্তু একেবারেই ঠিক না। আপনার পোস্ট ও সাইটের সব ঠিক থাকলেও এই একটা সমস্যার জন্য নানা সমস্যা হতে পারে আপনার। সমস্যা টি এডসেন্স পর্যন্তও চলে যেতে পারে৷ তাই আমি বলবো, সব সময় নিজের মতো করে লিখবেন। কপি কখনো করবেন না। যদি আর্টিকেল ইউনিক হয় তো সেটা এসইও ফ্রেন্ডলি হতে অনেকটা সাহায্য করে।

পোস্ট এ হেডলাইন ব্যবহার করুন

পোস্ট লিখার সময় একটু জরুরি বিষয় হলো, হেডলাইন ব্যবহার করা। মানে একেকটি আলাদা আলাদা টপিকের প্যারার জন্য আলাদা আলাদা হেডিং সিলেক্ট করা। এই দেখুন আমি প্রতিটা আলাদা আলাদা টপিক নিয়ে কথা বলার জন্য আলাদা আলাদা হেডিং ব্যবহার করছি। আপনারো এমন হেডিং ব্যবহার করা উচিত।

হেডিং ব্যবহারে খেয়াল রাখবেন পোস্ট এ যেনো কমপক্ষে একটি হলে h2 হেডিং ব্যবহার করা হয়। তবে চেষ্টা করবেন ২-৩ টি h2 হেডিং এর ব্যবহার করার। আর চাইলে h1 হেডিং ও ব্যবহার করতে পারেন একবার। কিন্তু সেটা ব্যবহার না করলেও সমস্যা নেই। আর কমপক্ষে একটি হেডিং এ পোস্ট এর কিওয়ার্ড টি দিবেন।

আরো দেখুনঃ কিভাবে আপনার ওয়েবসাইটটি গুগলের প্রথম পেজে রেংক করবেন কয়েকটি কার্যকরী টিপস

পোস্টে ইমেজ/ভিডিও ব্যবহার করুন

পোস্ট লিখার সময় আপনি যদি পোস্ট এ ইমেজ ব্যবহার করেন তাহলে পোস্ট ও আরো সুন্দর দেখাবে৷ তবে ইমেজ অবশ্যই পোস্ট এর উপর নির্ভর করবে। কিছু কিছু পোস্ট আছে যে গুলো তে ইমেজ/ভিডিও ব্যবহার না করাই ভালো। আবার কয়েক ধরণের পোস্ট আছে যে গুলোতে ইমেজ ব্যবহার না করলে পোস্ট টি একেবারে খারাপ হয়ে যায়। তো পোস্ট এ, পোস্ট অনুযায়ী ইমেজ ব্যবহার করবেন।

আর একটি কথা সেটা হলো ইমেজ / ভিডিও ব্যবহারের সময় লক্ষ রাখবেন, সেগুলো যেনো অন্য সাইট থেকে কপি করা না থাকে৷ এর জন্য হালকা এডিট করতে পারেন সেটা। আর ইমেজ / ভিডিও ব্যবহারের সময় সেগুলোতে Alt Text ও Caption এ আপনার কিওয়ার্ড দিবেন।

পোস্ট এ লিংজ ব্যবহার করুন

সব সময় পোস্ট এ কমপক্ষে নিজের ওয়েব সাইটের যে কোনো পেজের একটি লিংক ও একটি আউটবাউন্ড লিংক ব্যবহার করবেন। তো এখন প্রশ্ন হলো নিজের সাইটের লিংক কেন ব্যবহার করবো এতে তো পোস্ট খারাপ দেখাবে।

হ্যা এটি একটি অনেক ভালো প্রশ্ন। আমাদের এসইও ফ্রেন্ডলি পোস্ট লিখার সাথে সাথে পোস্ট কেমন হচ্ছে সেটা খেয়াল রাখা উচিত। তো এর জন্য আপনারা পোস্ট এর মাঝে “আরো পড়ুনঃ” এই রকম কিছু একটা দিয়ে সেখানে আপনার সাইটে লিখা আছে এমন যে কোনো পোস্ট এর লিংক দিয়ে দিন।

আর আউটবাউন্ড লিংক এ আপনারা পোস্ট সম্পর্কিত যে কোনো ওয়েবসাইটের লিংক দিবেন। তবে আউটবাউন্ড লিংক কম দেওয়ার চেষ্টা করবেন। বেশি দিলে ভিজিটর রা অন্য সাইটেও চলে যেতে পারে।

বিস্তারিত লিখতে হবে

একটি এসইও ফ্রেন্ডলি পোস্ট লিখতে গেলে আপনাকে অবশ্যই পোস্ট এর মান ও কোয়ালিটি ঠিক রেখে পোস্ট টি কে বড় করে বিস্তারিত ভাবে লিখতে হবে। আর পোস্ট টি কমপক্ষে ৬০০ ওয়ার্ড এর লিখার চেষ্টা করবেন। আর কত বড় লিখবেন সেটা আপনার ব্যাপার। পোস্ট কত বড় হবে সেটা আপনার উপর নির্ভর করবে৷ যত বড় পোস্ট ততই ভালো আপনার জন্য। তবে পোস্ট ২৫০০ ওয়ার্ড এর মধ্য লিখতে পারলে সেটা সুন্দর ও ভালো হয়। বেশি বড় আর্টিকেল পড়তেও আবার ভিজিটরেরা বিরক্ত হয়।

পোস্ট এ কিওয়ার্ড ব্যবহার করুন

আপনি পোস্ট লিখার শুরুতেই যে কিওয়ার্ড বাছাই করেছিলেন পোস্ট লিখতে গেলে সেই কিওয়ার্ড টা কিন্তু আপনাকে মাঝে মাঝেই ব্যবহার করতে হবে। কিওয়ার্ড সর্বনিম্ন ১০ বার ব্যবহার করবেন। আর বেশিও ব্যবহার করবেন না। সর্বোচ্চ ২০ বার ব্যবহার করবেন। এত পোস্ট এর মান ঠিক থাকে।

তো এই বিষয় গুলো যদি ঠিক রাখতে পারেন তো আমি গ্যারান্টি দিলাম আপনার পোস্ট এর এসইও স্কোর কম করে হলেও ৭০-৮৫ এর মধ্য হবে। আর যদি আপনি আরো ভালো করতে পারেন তো ৮০ থেকে ৯২ এর মধ্য হবে। আর একটি পোস্ট এর এসইও স্কোর ৬০ এর উপরে গেলে অনেকটা ভালো হয়।

তো বন্ধুরা আশা করি পোস্ট টি আপনাদের কাছে ভালো লেগেছে। ভালো লেগে থাকলে কিন্তু অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। এই আরটিকেলটি সর্বপ্রথম প্রকাশ করা হয়েছে TempNmail.com আর এরকম পোস্ট পেতে প্রতিদিন ভিজিট  আমার ওয়েবসাইটে। আবার দেখা হবে পরবর্তী কোনো পোস্ট এ। সে পর্যন্ত সকলে ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন। আল্লাহ হাফেয।

Leave a Reply