সব স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান যখন তদের নতুন ৫জি ফোন তৈরি করতে আগ্রহী তখন নোকিয়া কেন নয়?

বর্তমানে কিছু ৫জি স্মার্টফোন বাজারে রয়েছে এবং গ্রাহকরা কিনতে পারবে, যদি আপনার কাছে প্রচুর অর্থ থাকে তাহলে। ৫জি ফোন বর্তমানে বেশ ব্যয়বহুল ফোন।

নোকিয়ার স্মার্টফোন তৈরিকারী প্রতিষ্ঠান এইচএমডি গ্লোবাল হল এমন একটি ব্র্যান্ড যা বাজাতে সাশ্রয়ী মূল্যে ৫জি ফোন আনতে যাচ্ছে। এইচএমডি এর চিফ প্রোডাক্ট অফিসার জুহো সারভিকাস নিশ্চিত করেছেন যে ২০২০ সালে নোকিয়ার পক্ষ থেকে একটি ৫জি ফোন চালু করা হবে যা বর্তমান ৫জি স্মার্টফোনের প্রায় অর্ধেক দামে পাওয়া যাবে।

ডিজিটাল ট্রেন্ডস কে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে সারভিকাস বলেন, “আমরা সাশ্রয়ী মূল্যের ৫জি স্মার্টফোন তৈরি করছি যা ২০২০ সালে চালু করা হবে”। সংস্থাটি বলছে এই ফোনটি সবচেয়ে সাশ্রয়ী ৫জি ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন হবে।

এইচএমডি এর প্রধান বলেছেন, স্মার্টফোনটি বর্তমান ৫জি স্মার্টফোনের অর্ধেক দামে পাওয়া যাবে।

সারভিকাস এর এই কথা নিশ্চিত যে নোকিয়া’র এই ৫জি ফোন মোটামোটি বাজেট লেভেল এর ফোন হবে যা সাধারণ মানুষের কেনার সামর্থ্য হতে পারে।

আমেরিকার মতো বাজারে স্যামসাং ও এলজি-র মতো ব্র্যান্ডগুলি থেকে পাওয়া ৫জি ফোনগুলির ফাম প্রায় $১০০০ মার্কিন ডলার যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৳৮৪,০০০ টাকা।

এমনকি ওয়ানপ্লাস ৭ প্রো ৫জি, যার দামও প্রায় $৮০০-$৯০০ ডলার যা বাংলাদেশি টাকায় ৳৬৭,০০০-৳৭৬,০০০ টাকা। সুতরাং এইচএমডি গ্লোবালের আসন্ন অর্ধেক মূল্যের ৫জি ফ্ল্যাগশিপ ফোনটি সবার জন্য বেশ আকর্ষণীয় হবে।

আর শুধু এইচএমডি গ্লোবাল একা সাশ্রয়ী মূল্যের ৫জি ফোন আনার লক্ষ্যে নয়, আরও সংস্থা রয়েছে সাশ্রয়ী মূল্যের ৫জি ফোন এনে ৫জি বাজার দখল করতে।

সৌজন্যে: TechRho.Com

Leave a Reply