নতুন বছরের Sms (2016) সকল পেতে এখানে

.
.

বর্তমানে দেশে এফএম রেডিওর
জন্য ৮৭.৫ থেকে ১০৮ মেগাহার্জ পর্যন্ত
তরঙ্গ বরাদ্ধ দেয়া আছে। কিন্তু
বাংলাদেশে যেসব গাড়ি আমদানি করা
হয় সেগুলোর ৮০ শতাংশ গাড়িতে ৯০
মেগাহার্জের উপরের ফ্রিকোয়েন্সির
এফএম রেডিওগুলো শোনা যায় না।

ফলে
৯০ মেগাহার্জ এর ওপরের ফ্রিকোয়েন্সির
রেডিও স্টেশনগুলো ঠিক মতো বিজ্ঞাপন
পাচ্ছে না, এতে উদ্যোক্তারা নিয়মিত
লোকসান গুণছে। এজন্য এফএম রেডিও’র
তরঙ্গ (ফ্রিকোয়েন্সি) নতুন করে বরাদ্ধের
দাবি জানিয়েছে রেডিও’র মালিকদের
সংগঠন প্রাইভেট রেডিও ওনার্স
এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (প্রাওব) এর
নেতারা। ডাক ডাক ও টেলিযোগাযোগ
প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিমের কাছে এ
দাবি জানান তারা।

বুধবার সচিবালয়ে টেলিযোগাযোগ
প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে এক বৈঠকে তারা
বলেন, ‘তরঙ্গ বরাদ্ধের বৈষম্যের কারণে
ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে অধিকাংশ এফএম
রেডিওর উদ্যোক্তারা।’

সংগঠনটির নেতারা প্রতিমন্ত্রীর কাছে
দাবি করেন, ৮৭.৫ থেকে ৯০ মেগাহার্জ
পর্যন্ত ফ্রিকোয়েন্সি শুধু মাত্র
বাংলাদেশ বেতার ও অন্য সরকারি
সংস্থা বা সশস্ত্র বহিনীর জন্য বরাদ্দ
দেওয়ার হোক। অন্যদিকে বেসরকারি
এফ.এম রেডিওর জন্য ৯০.৪ থেকে ১০৮
মেগাহার্জ পর্যন্ত ফ্রিকোয়েন্সি নতুন

করে দেয়া হোক। অন্যথায় আমদানি করা
সব গাড়িতে সব বেসরকারি এফ. এম
রেডিও শোনা যায় সে ব্যবস্থার দাবি
জানিয়েছে সংগঠনটি।

বর্তমানে অনুমোদন প্রাপ্ত ২৮টি
বেসরকারি এফ.এম রেডিওর মধ্যে চালু
আছে ১৮টি । এর মধ্যে ৮৭.৫ থেকে ৯০
মেগাহার্জ ফ্রিকোয়েন্সিতে একটি
সরকারি ও চারটি বেসরকারি রেডিওর
তরঙ্গ বরাদ্ধ আছে। যেগুলো প্রায় সব
গাড়িতে শোনা যায় । এ সুবিধাভোগী
বেসরকারি চার এফ.এম রেডিও হলো
রেডিও এবিসি, রেডিও ফূর্তি, রেডিও
আমার ও রেডিও টুডে ।

প্রাওবের দাবির বিষয়ে তারানা হালিম
বলেন, বিষয়টি নিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতু
মন্ত্রণালয় এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের
সমন্বয়ে একটি আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা করা
হবে। এছাড়া সব ফ্রিকোয়েন্সির রেডিও
শোনা যায় এমন সুবিধাযুক্ত গাড়ি
আমদানির বিষয়টি বিবেচনা করতে সড়ক
পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়কে চিঠি দেবে
বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ
কমিশন (বিটিআরসি)।

বেসরকারি রেডিও মালিকদের পক্ষ
থেকে আরও দুটি দাবি জানানো হয়। এর
একটি হলো বার্ষিক ফি কমানো। তারা
জানিয়েছে, বর্তমান লাইসেন্স
নীতিমালা অনুসারে, একটি বেসরকারি
রেডিও মোট ১০ টি রিলে কেন্দ্র স্থাপন
করতে পারে। প্রতি রিলে স্টেশনের জন্য
বিটিআরসিকে বছরে দুই লাখ ৩০ হাজার
টাকা ফি দিতে হয়। অর্থাৎ ১০টি রিলে
কেন্দ্র থাকলে ২৩ লাখ টাকা পরিশোধ
করতে হয়। প্রাওব বলছে, যেহেতু একটি
স্টেশন একটি তরঙ্গ ব্যবহার করে কার্যক্রম
পরিচালনা করে, তাই একাধিক রিলে
কেন্দ্র থাকলেও বার্ষিক ফি একটাই (দুই
লাখ ৩০ হাজার টাকা) হওয়া উচিত। অর্থাৎ
বার্ষিক ফি রিলে স্টেশনের বিপরীতে না

হয়ে তরঙ্গে বিপরীতে ধার্য করার দাবি
জানিয়েছে বেসরকারি রেডিও মালিকরা

প্রাওবের আরেকটি দাবি হলো, বর্তমানে
প্রতি রিলে স্টেশনের জন্য একটি করে
এন্টেনা বসাতে হয়। এর বিপরীতে অধিক
ক্ষমতা সম্পন্ন মাল্টিপল ফ্রিকোয়েন্সি
এন্টেনা স্থাপন করলে এক এন্টেনা তে ৮
টি রিলে কেদ্রের কার্যক্রম সম্পন্ন হবে।
এতে নতুন এফএম রেডিওগুলোর ১২০ কোটির
বিনিয়োগ সাশ্রয় হবে। তাই মাল্টিপল
ফ্রিকোয়েন্সি এন্টেনা বসানোর অনুমতি
চেয়েছে সংগঠনটি ।

সভায় ডাক ও টেলিযোগ বিভাগের সচিব
ফায়জুর রহমান চৌধুরী, বিটিআরসি
চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদসহ
টেলিযোগাযোগ বিভাগের ঊর্ধ্বতন
কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন বেসরকারি
রেডিও’র মালিক-প্রতিনিধিরা উপস্থিত
ছিলেন।
.
.
সবার প্রথমে এই পোস্টটি এখানে শেয়ার হয়ে ছিল
.
.
নতুন নতুন টিপস পেতে সময় পেলে ঘুরে আসবেন
.
.
LikeSmsBD.Ga
.

One thought on "এফএম রেডিও’র তরঙ্গ নতুন করে বরাদ্ধের দাবি!!"

  1. omio omio Contributor says:
    Amar nokia 2700 classic mobiletar password vule gesi…ekhon restore dite parchi na.kibabe flash dibo kew janle please bolen…


Leave a Reply