ঘরের মধ্যে থাকা মডেম ও
রাউটারগুলি থেকে বেরুনো
রেডিয়েশন ঘরের বাতাসকে দূষিত
করে তুলছে।



আসুন জেনে নিই কিভাবে ওয়াই-
ফাই এর বিকিরণ আমাদের ক্ষতি
করছেঃ

.
.

গর্ভবতী মহিলা ও শিশুদের
ক্ষেত্রেঃ


গর্ভবতী মহিলাদের এই সম্পর্কে অত্যন্ত
সচেতন হওয়া উচিত। এই ধরনের
বিকিরণ ভয়ঙ্কর প্রভাব ফেলে
গর্ভবতীদের উপরে। একইসঙ্গে
বাড়িতে যদি ছোট শিশু থাকে
তাহলে অবশ্যই ওয়াই-ফাই প্রযুক্তিকে
এড়িয়ে চলা উচিত।

.
.

নিদ্রাহীনতাঃ


দিনের মধ্যে বেশিরভাগ সময় ওয়াই-
ফাই রেডিয়েশনের মধ্যে থাকলে
নিদ্রাহীনতার সমস্যা হতে পারে
অবশ্যই। ঘুমের সময়ে অবশ্যই ওয়াই-ফাই
বন্ধ করে ঘুমানো উচিত।

.

এনার্জি লেভেলঃ


বিশেষ করে মহিলাদের ক্ষেত্রে
দেখা গেছে, যারা ওয়াই-ফাই
বিকিরণের মধ্যে থাকেন, তাদের
এনার্জির মাত্রা অনেক কম থাকে।

.
.

মস্তিষ্কের ক্ষমতাঃ


বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, স্কুলে
পড়া বাচ্চাদের ক্ষেত্রে ওয়াই-
ফাইয়ের মারাত্মক প্রভাব পড়ে।
বড়দের ক্ষেত্রে মনসংযোগের অভাব
দেখা দেয় সবচেয়ে বেশি।

.
.

প্রজননে অক্ষমতাঃ


এক্ষেত্রে পুরুষদের উপরে ওয়াই-ফাই
এর প্রভাব পড়ে সবচেয়ে বেশি। শুধু
স্পার্ম নয়, ডিএনএ-তেও প্রভাব পড়ে
এর।

.
.

বৃদ্ধিঃ


কোষের বৃদ্ধিতে প্রতিবন্ধক হয়ে
দাঁড়ায় ওয়াই-ফাই বিকিরণ। একইসঙ্গে
মোবাইলের বিকিরণও সমানভাবে
ক্ষতি করে। তাই বিজ্ঞানীদের
পরামর্শ, যতটা পারা যায় ততটা
কমানো উচিত প্রযুক্তির ব্যবহার।

.
.

হৃদকম্পন বৃদ্ধিঃ


ওয়াই-ফাই চালু করলেই এর ক্ষতিকর
বিকিরণের ফলে হৃদকম্পন বেড়ে
যেতে পারে অনেকের। হার্টের
দুর্বলতা থাকলে এর প্রভাব সবচেয়ে
বেশি পড়তে পারে।

.
.

মাথা ব্যথাঃ


মাত্রাতিরিক্ত বিকিরণের মধ্যে
থাকলে মাথা ব্যথা হওয়া খুব
স্বাভাবিক। প্রথমে বোঝা না
গেলেও পরের দিকে এর মাত্রা
অনেক বেড়ে যায়।

ধন্যবাদ

ফেসবুকে আমি

তথ্য প্রযুক্তি সেবায় আপনাদের পাশে

One thought on "সাবধানঃ জেনে নিন ‘ওয়াই-ফাই’ রেডিয়েশনের মারাত্নক স্বাস্থ্য ঝুঁকি সম্পর্কে"

  1. rrana5491 rrana5491 Contributor says:
    [Rana Vai] রানা ভাই আমি ভালো কয়েকটি post করেছি। আমার post গুলো published করেন।পোস্ট publish করলে আরো ভাল post করতে পারব।আশা করি post published করে আমাকে আরো ভালো post করার সুযোগ দিবেন।Thanks Brother.


Leave a Reply