Be a Trainer! Share your knowledge.
Home » Uncategorized » আপনার মোবাইল আসল নাকি নকল সহজে চিনার উপায়

আপনার মোবাইল আসল নাকি নকল সহজে চিনার উপায়

ইউটিউবে ট্রিকবিডিকে সাবস্ক্রাইব করুন

হ্যালো বন্ধুরা সবাই কেমন আছেন।
আশা করি সবাই অনেক অনেক ভালো আছেন।

আপনি যে মোবাইল-ফোন ব্যবহার করেন সেটা আসল নাকি নকল আপনি কি সেটা জানেন।
আজকের এই পোষ্টে সমস্ত কিছু তুলে ধরার চেষ্টা করবো ততোখন পোষ্টা পড়তে থাকুন।

তো বন্ধুরা যখন একটি স্মাট-ফোন কোম্পানি তার মোবাইল – ফোন মার্কটে লন্স করে সেটা বাংলাদেশ বা ইন্ডয়া বা অনন্য দেশ হোক তখন কিন্তু ঐ কোম্পানি বা আমদানিকারি আমাদের যে সরকার রয়েছে তাকে কিছু কর দেয় তখন সরকার কর পেয়ে গেলে,তখন সরকার ঐ মোবাইল টার যে IMEI রয়েছে সেটা সরকারের যে ডেটাবেজ রয়েছে সেখানে রেজিষ্টার করে রাখে।যে দেশে যে সরকার রয়েছে সেটা সেভ করে রাখে।যেমন :বাংলাদেশ।
এক্ষেত্রে কি হয় আপনার ফোনটা অফিসিয়ালি থাকে এবং আপনার ফোনটা সার্ভস সেন্টার বা অন্য ক্ষেত্রে সাপোর্ট পাওয়া যায় এবং অফিসিয়ালি ব্যবহার করতে পারবেন।

এবার আনঅফিসিয়াল হচ্ছে কর/ট্যাক্স ফাকি দেওয়া মানে যে দেশে মোবাইল টা লন্স করা হয়েছে বা আমদানিকারীরা সরকার কে কোন কর/ট্যাক্স দেয়নি এবং তার কোন IMEI রেজিস্টারি করা নেই।
মানে ফোনটা আনঅফিসিয়াল এক্ষেত্রে কি হয় ১/২ হাজার টাকা কম হয় কারণ সরকার কে তো কোন কর/ট্যাক্স দেওয়া লাগেনি এজন্য কম টাকায় বিক্রয় করা হয় এবং আমরা কিনে নেই কারণ মোবাইল তো একই।

তো এখানে আমি সামনে বলছি আনঅফিসিয়াল এবং অফিসিয়াল ফোন কি ভাবে চিনবেন।

তার আগে আপনি কি ভাবে আসল এবং নকল ফোন চিনবেন।

এবার কথা হচ্ছে নকল ফোন কোনটা যখন বিভিন্ন কোম্পানি ফোন লন্স করে না তখন কিছু অসাধু কোম্পানি তার সেম কোয়ালিটি ফোন তৈরি করে যা আপনার হাতে দিলে আপনি বুঝতে ও পারবেন না কোন টা আসল নাকি নকল।

এখন ফোন আসল নাকি নকল চেনার জন্য ফোনের ডায়েল প্যাডে গিয়ে লিখবেন *#06#

দেখবেন যে একটা IMEI চলে আসছে তো এটা দিয়ে আমরা আসল নকল ফোন চিনতে পারবো।
স্কিনসট দেখুন।
প্রথমে IMEI টা লিখে নিন।

তারপর যে কোন একটা ব্রাউজারে গিয়ে গুগলে যান এবং IMEI Chacker লিখে সার্চ করুন।
তারপর এমন আসবে।
এখানে কপিকৃত IEMI পেষ্ট করুন।এবং I m not robot captcha টা পূরণ করুন।
এখন Chack ক্লিক করুন।

তারপর দেখুন আপনার মোবাইল চলে আসছে।




যদি আসে তাহলে বুঝবেন আপনার মোবাইল টি আসল এবং অফিসিয়াল।এভাবে আপনার সব কিছু চলে আসবে।আর যদি কিছু না আসে তাহলে বুঝবেন মোবাইল টি কপি ভার্সন।এটা কিন্তু আপনি কিনবেন না কারণ ঠকে যাবেন।

আর আনঅফিসিয়াল বলতে গেলে সরকার বিভিন্ন সময় বলে আনঅফিসিয়াল ফোন বন্ধ করে দেওয়া হবে তো বন্ধ করে দিলে আপনি শুধু কথাবার্তা ও নেট চালাতে পারবেন না আর বাদবাকি কাজ গুলো করতে পারবেন যেমন গান শোনা,ছবি তোলা, গেমস খেলা ইত্যাদি সব করতে পারবেন।

আশা করি আপনাদের খুব ভালো লেগেছে এমন পোষ্ট পেতে আমাদের ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন।

এই পোষ্টি সর্বপ্রথম আমাদের ব্লগওয়েব সাইটে প্রকাশিত হয়েছে।নতুন কিছু জানতে ও শিখতে আমাদের সাইটে ভিজিট করুন।

2 weeks ago (Mar 24, 2020)

About Author (58)

Biswas Biswas
author

(শেখো) নয় তো(শিখাও) ফ্রিনেট ও হ্যাকিং টিউটিরিয়াল ও অনলাইন আরনিং বিষয়ে টিউটিরিয়াল পেতে আমাদের চ্যানেলটি এখনইSUBSCRIBEকরুন।((নতুন কিছু দেখুন)) ((নতুন কিছু শিখুন)) দিন বদলের চেষ্টায় (((Joydeb Tech))) এছাড়াও আপনি আমাদের ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন নিত্য নতুন টিপস পেতে ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন পাগল রাতদিন খোজাখুজি করে বেড়ায় সবাই কে ভালো কিছু উপহার দেওয়ার জন্য।

8 responses to “আপনার মোবাইল আসল নাকি নকল সহজে চিনার উপায়”

  1. Valo



  2. Mehedi+Hasan Contributor says:

    Aki post regular chai

  3. Prince Prince Contributor says:

    Tnx. for info.

  4. Biswas Biswas Author Post Creator says:

    👍

Leave a Reply

Switch To Desktop Version