সেনাবাহিনীর বেতন কত ?

বা কোন পদবীর বেতন কত টাকা – এই একটি প্রশ্ন বেশির ভাগ মানুষের মাঝেই রয়েছে – হোক সে চাকরি করুক বা না করুক বেতন কত টাকা এটি নিয়ে সবার মাঝে একটি কৌতুহল বিরাজ করে ।

তবে আজকের পোষ্ট  টি দেখার পর আর কোন প্রশ্ন ও কৌতুহল থাকবে না –
কারণ আজকের পোষ্ট  এর মাধ্যমে সেনাবাহিনীর কোন পদবীর বেতন কত টাকা এই বিসয়ে আপনারা বিস্তারিত জানতে পারবেন ।

 

এবং আপনার যদি ডিফেন্স সংক্রান্ত আরো কোনো তথ্য জানার থাকে তাহলে ইউটিউব এর একমাত্র ব্যতিক্রমধর্মী চ্যানেল #CareerMessages থেকে ঘুরে আসতে পারেন – [ আশা করি আপনার কাক্ষিত প্রশ্নের উওর পেয়ে যাবেন ] 

 

আজকের পোস্টে কেবল মূল বেতন এবং মূল বেতন এর ইনক্রিমেন্ট নিয়ে আলোচনা করা হবে ।

  • মাঠে চাকরি হবার পর ট্রেনিং অবস্থায় সৈনিক দের Recruit বলা হয় ।
    একজন রিক্রুট এর মূল বেতন – ৯,০০০ টাকা । এটি একটি নির্ধারিত বেতন – যতদিন ট্রেনিং হবে এই বেতন পাবে ।

ট্রেনিং শেষে সৈনিক পদবীতে যোগদান করার পর – একজন সৈনিক এর বেতন হবে – ৯,০০০ টাকা – তবে ট্রেনিং যদি জুন – জুলাই মাস এর আগে শেষ হয় তাহলে তার বেতন ৯,৫০০ টাকা হবে । কারণ প্রতি বছর জুন /জুলাই এ বেতন বৃদ্ধি পায় বা ইনক্রিমেন্ট হয় ।
সৈনিক অবস্থায় একজন সৈনিক এর মূল বেতন সর্বোচ্চ ২২,০০০ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে ।
এবং সৈনিক অবস্থায় সর্বনিম্ন প্রতি বছর ৫০০ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ১,০০০ টাকা পর্যন্ত বেতন বৃদ্ধি পায় ।

  • ল্যান্স কর্পোরাল – সৈনিক অবস্থায় যে , যত টাকা বেতন এ থাকা অবস্থায় ল্যান্স কর্পোরাল পদবী পাবে তার মূল বেতন সৈনিক অবস্থায় যত টাকা ছিল সেখান থেকে শুরু হবে ।
    একজন ল্যান্স কর্পোরাল এর মূল বেতন সর্বোচ্চ ২৪,৫০০ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে ।
    এবং ল্যান্স কর্পোরাল অবস্থায় প্রতি বছর সর্বনিম্ন ৫২০ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ১২০০ টাকা পর্যন্ত বেতন বৃদ্ধি পায় ।

কর্পোরাল – ল্যান্স কর্পোরাল অবস্থায় যে , যত টাকা বেতন এ থাকা অবস্থায় কর্পোরাল পদবী পাবে তার মূল বেতন ল্যান্স কর্পোরাল অবস্থায় যত টাকা ছিল সেখান থেকে শুরু হবে । এছাড়াও সেনাবাহিনীর এন সি ও বা নন কমিশনড অফিসার এই পদবী থেকে শুরু হয়ে থাকে ।

একজন কর্পোরাল এর মূল বেতন সর্বোচ্চ ২৬,৫০০ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে ।
এবং কর্পোরাল অবস্থায় প্রতি বছর সর্বনিম্ন ৫৫০ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ১৩০০ টাকা পর্যন্ত বেতন বৃদ্ধি পায় ।

সার্জেন্ট – এটি সেনাবাহিনীর গুরুত্বপূর্ণ একটি পদবী – একজন সার্জেন্ট বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করে থাকেন ।
যেমন – কোন একটি কোম্পানির দায়িত্বে থাকা ইত্যাদি । এবং কর্পোরাল থেকে সার্জেন্ট যারা তাদের এন সি ই বলা হয় ।
কর্পোরাল অবস্থায় যে যত টাকা বেতন এ থাকা অবস্থায় সার্জেন্ট পদবী পাবে তার মূল বেতন কর্পোরাল অবস্থায় যত টাকা ছিল সেখান থেকে শুরু হবে ।
একজন সার্জেন্ট এর মূল বেতন সর্বোচ্চ ৩৮,৫০০ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে ।
এবং সার্জেন্ট অবস্থায় প্রতি বছর সর্বনিম্ন ৮০০ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ২,০০০ টাকা পর্যন্ত বেতন বৃদ্ধি পায় ।

 [ আলোচিত পদবী গুলো হলো- সেনাবাহিনীর নন কমিশন্ড অফিসার বা প্রথম পর্যায়ের সদস্য ।
এই বার জানা যাক জুনিয়র কমিশন্ড অফিসার – বা সেনাবাহিনীর মধ্যম পর্যায়ের অফিসার দের বেতন সম্পর্কে ।
এবং এই জুনিয়র কমিশনড অফিসার থেকে সেনাবাহিনীর অফিসার পদবী শুরু হয় ]

  • ওয়ারেন্ট অফিসার কোন প্রার্থী যদি সরাসরি ওয়ারেন্ট অফিসার এ যোগদান করে তাহলে তার মূল বেতন হবে – ২২,০০০ টাকা
    এবং কেও যদি সার্জেন্ট থেকে ওয়ারেন্ট অফিসার হয়ে থাকে তাহলে তার বেতন – সার্জেন্ট অবস্থায় যত টাকা ছিল সেখান থেকে শুরু হবে ।
    এক্ষেত্রে সরাসরি ওয়ারেন্ট অফিসার দের বেতন তুলামূলক কম থাকবে অন্যান্য ওয়ারেন্ট অফিসার দের থেকে ।
    একজন ওয়ারেন্ট অফিসার এর মূল বেতন সর্বোচ্চ ৪৮,০০০ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে ।
    এবং ওয়ারেন্ট অফিসার অবস্থায় প্রতি বছর সর্বনিম্ন ১১০০ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ২৩০০ টাকা পর্যন্ত বেতন বৃদ্ধি পায় ।
  • সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার – ওয়ারেন্ট অফিসার এ থাকা অবস্থায় যত টাকা বেতন থাকবে – সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার হবার পর সেখান থেকে শুরু হবে ।
    একজন সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার এর মূল বেতন সর্বোচ্চ ৫০,৫০০ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে ।
    এবং সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার অবস্থায় প্রতি বছর সর্বনিম্ন ১১১০ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ২৩০০ টাকা পর্যন্ত বেতন বৃদ্ধি পায় ।
  • মাস্টার ওয়ারেন্ট অফিসার – সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার এ থাকা অবস্থায় যত টাকা বেতন থাকবে –
    মাস্টার ওয়ারেন্ট অফিসার হবার পর সেখান থেকে শুরু হবে ।
    একজন মাস্টার ওয়ারেন্ট অফিসার এর মূল বেতন সর্বোচ্চ ৫৩,০০০ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে ।
    এবং মাস্টার অবস্থায় প্রতি বছর সর্বনিম্ন ১১৩০ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ২৩৫০ টাকা পর্যন্ত বেতন বৃদ্ধি পায় ।

এই পর্যন্ত হলো – জেসিও বা জুনিয়র কমিশনড অফিসার –

এক্ষেত্রে যারা সৈনিক থেকে ধাপে ধাপে জেসিও হয় তাদের যদি ভালো পারফর্মেন্স থাকে এবং চাকরি জীবনে কোন কম-প্লেন না থাকে তাহলে সেক্ষেত্রে খুবি অল্প সংখ্যক কয়েকজন জেসিও – কে মাস্টার ওয়ারেন্ট অফিসার এর পর ।
সম্মান জনক কমিশনড অফিসার এর ২ টি পদবীতে প্রদান করা হয় –
অনারারী – লেফটেন্যান্ট –
এবং অনারারী ক্যাপ্টেন –

  • অনারারী – লেফটেন্যান্ট – এবং অনারারী ক্যাপ্টেন – এর বেতন নির্ধারিত থাকে –

একজন অনারারী লেফটেন্যান্ট এর মুল বেতন – ৩৮,৫০০ টাকা
ও একজন অনারারী ক্যাপ্টেন এর মুল বেতন – ৪২,৯০০ টাকা

এই হলো – এন সি ও এবং জেসিও এর মাসিক মুল বেতন – বাকি থাকলো – কমিশন্ড অফিসার এর বেতন –
কমিশনড অফিসার এর বেতন এর ক্ষেত্রে কে কোন কোর এ রয়েছে সে কোরের উপর নির্ভর করে একই পদবীর অফিসার এর বেতন ভিন্ন হয়ে থাকে ।
কমিশনড অফিসার এর বেতন এবং সকল বেতন এর অ্যালাউন্স বা ভাতা নিয়ে বিস্তারিত ভিডিও দেখতে আমাদের চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করে সাথেই থাকুন –

www.Youtube.Com/CareerMessages
সবাই ভালো থাকবেন । আল্লাহ হাফে-য ।

4 thoughts on "সেনাবাহিনীর বেতন কত ? অর্থাৎ কোন পদবীর বেতন কত টাকা ? Bangladesh Army Salary"

  1. Tarek Tarek Contributor says:
    বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পর্কে আমি জানতে চাই?
    অর্থাৎ বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে কয়টি পদে নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় এবং কোন পদে নিয়োগ প্রাপ্ত হলে কোন পদ পর্যন্ত প্রমোশন হয়? কোন পদে নিয়োগের জন্য কতটুকু শিক্ষাগত যোগ্যতা লাগে?

    যেমন: বাংলাদেশ পুলিশে কনস্টেবল, SI, এবং ASP এই তিনটি পদে নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।



    1. Sïmplë sömrüt Sïmplë sömrüt Author says:
      বাংলাদেশ সেনাবাহিনিতে ৩ টি পর্যায়ের নিয়োগ প্রকৃয়া আছে সৈনিক পদ এ,, ওয়ারেন্ট অফিসার পদ বা “শিক্ষা জুনিয়র কমনশন্ড অফিসার” পদ এ,, এবং অফিসার বা কমিশন্ড অফিসার পদ এ।
      snk,, education jco,, কমিশন্ড officer
      Snk পদের জন্য ন্যুনতম ssc পাশ তবে hsc পাশে অগ্রাধিকার আছে।
      education jco পদের জন্য আপনাকে অনার্সে যে কোনো বিষয়ে ভাল রেজাল্ট থাকতে হবে।
      officers রা সাধারনত ক্যাডেড কলেজ থেকে আসে তবে আমাদের মত কলেজ পরুয়ারাও অফিসার্স হতে পারে। এজন্য ssc ও hsc তে ৫.০০ রেজাল্ট থাকতে হবে।
      ভুল ত্রুটি মার্জনীয়

Leave a Reply