আপনি বা আপনার পরিবারের কেও ডিপ্রেশনে আছে কিনা বুঝতে হলে অবশ্যই পুরো পোস্টটি ভালভাবে পরতে হবে ।

ডিপ্রেশন কি?

ডিপ্রেশন এমন একটি অসুখ যার কারন আপনি নিজেই এবং এর ঔষধও আপনি নিজেই। আপনি চাইলেই এর থেকে মুক্তি পেতে পারেন। কিন্তু কিছু কিছু মানুষ এত খারাপ পর্যায়ে চলে গেছে যে তারা তাদের বিশ্বাসটাই হারিয়ে ফেলছে। ডিপ্রেশনকে সাধারনত মনের রোগ বলা হয়।

ডিপ্রেশনের লক্ষন গুলো কি কি?

ডিপ্রেশনের অনেক লক্ষন আছে। প্রথম দিকে খুব কম থাকলেও পরবর্তীতে বিভিন্ন সকস্যা দেখা দেয় যেমন –

১. সব সময় অসুস্থ লাগা

ডিপ্রেশনে আক্রান্ত ব্যক্তির সব সময় অসুস্থ লাগতে পারে মনে হবে এর মধ্যে অনেক বড় কোন অসুখ আছে। কিন্তু ডাক্তারের কাছে গিয়ে সব ধরনের টেস্ট করানোদ পরেও কোন রোগ ধরা পড়ে না। এমনকি আসেপাসের কেও অনেক কঠিন রোগে আক্রান্ত হয়েছে শুনলে ভয় পেয়ে যায় ভাবে তারো মনে হয় ওই রোগটা আছে।

২. সন্ধেহ

ডিপ্রেশনে ভোগা রোগির সব থেকে কম একটা বেপার হচ্ছে সন্ধেহ৷ কোন কিছুকেই বিশ্বাস করতে পারে না। যেমন ধরুন আপনার সব সময় মনে হতে পারে কেও আপনার ক্ষতি করতে চাচ্ছে। আপনার মনে হতে পারে আপনার প্রিয় মানুষটি আপনাকে ছেড়ে যাবে। অনেকের ক্ষেত্রে এমন হয় সে দরজা লাগানোর পরেও মনে হয় লাগায়নি এবং আবারো চেক করতে যায়।

৩. ভয়

এরা অল্পতেই ভয় পেয়ে যায়। গারি হর্ন হঠাৎ করে শুনলে ভয় পায় একা থাকতে ভয় পায়৷ এমনকি খারাপ সপ্ন দেখলেও ভয় পায় সেই সপ্ন নিয়ে উলটাপালটা ভাবতে থাকে। অল্প শব্দেও এদের বুক কেপে ওঠে। আত্তিয়সজন বিপদে পরতে পারে এটি নিয়েও তাদের টেনশনের শেষ নেই।

৪. রাগ

কেও একটু চিল্লাইয়া কথা বললে রাগ ওঠে, জোরে সব্দ করলে রাগ ওঠে, এক কথায় তারা অল্পতেই রেগে যায় মেজাজ সব সময় খিটখিটে থাকে।

৫. ইমোশনাল হয়ে যাওয়া

অল্পতেই কান্না আসা কেও কিছু বললে বা বকা দিলে কান্না পায়। বা একা একাই কিছু চিন্তা করে কান্না করা। সব সময় নিজে মরে যাবে বা মরে যেতে পারে বা নিজের ক্ষতি হতে পারে এসব নিয়ে ভাবতে থাকে অনেক সময় কান্নাও করে।

৬. অতিরিক্ত ঘুম বা একদমই ঘুম না হওয়া

ডিপ্রেশনে থাকলে আপনার অতিরিক্ত ঘুম পেতে পারে আপনি পর্যাপ্ত পরিমানে ঘুমানোর পরেও ঘুম ঘুম লাগতে পারে বা আপনার একদমই ঘুম না আসতে পারে। আবার এমনও হতে পারে আপনার অনেক ঘুম থাকা সত্তেও ঘুমাতে পারছেন না।

৭. খাওয়ায় পরিবর্তন

খাওয়া একদম বন্ধ হয়ে যেতে পারে বা শুকিয়ে যাবে ভেবে অতিরিক্ত খেতে পারে। ৩ বেলার যায়গাতে ৪ বেলা খেতে পারে বা অতিরিক্ত খেতে পারে।

৮. নিজেকে সব সময় সবার কাছ থেকে দূরে রাখে

সবার সাথে মিশতে পছন্দ করে না। দিন দিন সবার থেকে দূরে থাকতে পছন্দ করে এবং নিজেকে গুটিয়ে নেয়। বেশি দিন হয়ে গেলে এরা আত্তহত্যা নিয়েও ভেবে থাকে।

৯. বুক ধরফর করা বা বুকে ব্যাথা হওয়া

দীর্ঘদিন ডিপ্রেশনে থাকা একজন ব্যক্তির বুকে ব্যাথা হতে পারে বা বুকে চাপ অনুভব হতে পারে এবং বুক ধরফর করবে।

১০. নিজেকে অযোগ্য লাগা

দিন দিন নিজেকে অযোগ্য মনে হয় ভাবে আমাকে দিয়ে কিছু হবে না আমি কিছু পারি না আর পারবো না ইত্যাদি।


এগুলো একদম কমন কিছু লক্ষন এমন যদি হয় তাহলে অবশ্যই আপনার ভয়ের কিছু নয় কারন এটি আপনি চাইলেই পরিবর্তন করতে পারেন। মনে রাখবেন আপনি মানে আপনি আপনি বসতে চাইলে যেমন বসতে পারেন তেমন দারাতে চাইলেও দারাতে পারেন তাই আপনি চাইলেই আপনার এমন অভ্যাসগুলো পরিবর্তন করতে পারেন। আর সব বেপারগুলো সহজ ভাবে নিবেন। এবং বেশি সমস্যায় পরলে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিবেন।

ডিপ্রেশন নিয়ে আরো পোস্ট করব নাকি সেটি আপনাদের কমেন্টের উপর নির্ভর করে। ধন্যবাদ সবাইকে

আমার ওয়েবসাইট – www.mohinbd24.com
ফেসবুক –Facebook

5 thoughts on "আপনি বা আপনার পরিবারের কেও ডিপ্রেশনে আছে কিনা কিভাবে বুঝবেন? ডিপ্রেশন কি? এর লক্ষন কি?"

  1. SplitGeoduck313 SplitGeoduck313 Contributor says:
    Nice


    1. Mohin Mohin Author Post Creator says:
      Thanks
  2. Dark_Superman (Mr. Merciless) Dark_Superman (Mr. Merciless) Contributor says:
    নম্বর ৪,৮,১০ লক্ষণগুলো আছে আমার মধ্যে, তাহলে আমিও কি ডিপ্রেশনে আছি?
    আমি তো ছোট থেকেই সবার সাথে অত মিশতাম না আর লেউ একটা ফাউল কথা বললেই রাগ লাগে।
    1. Mohin Mohin Author Post Creator says:
      ফাউল কথা বললে রাগ সবারই উঠে এটা সাভাবিক। আর অনেকে একটু লাজুক টাইপের আপনি হয়তো এমন। যারা একসময় সবার সাথে মিসত কিন্তু আস্তে আস্তে আর মিসে না তাদের টা সমস্যা। আপনি তো আগে থেকেই মিসেন না৷ আর নিজেকে অযোগ্য লাগার কারন আপনি হয়তো অনেক নার্বাস সব কিছু নিয়ে আর একটু ভিতু টাইপের
    2. Dark_Superman (Mr. Merciless) Dark_Superman (Mr. Merciless) Contributor says:
      অনেক ভালো করে বুঝিয়ে দিলেন বলে ধন্যবাদ।
      আর আমি মোটেও লাজুক নই, ছিলামও না কোনোদিন আর ভীতু কোনোদিনই ছিলাম না। আমি আমার কাজ নির্দিধায় আর নির্ভয়ে করে এসেছি।
      পরিশেষে বলবো, সাইকোলজি বিষয়ে আপনি দারুণ লিখেন আর আশা রাখবো, ভবিষ্যতেও লিখবেন।

Leave a Reply