ডায়াবেটিসের ১০টি লক্ষনঃ

ডায়াবেটিস একটি অ-নিরাময় যোগ্য রোগ। বর্তমান সময়ে এই ডায়াবেটিস এ অনেকেই আক্রান্ত হচ্ছেন। এই রোগটা পুরোপুরি নিরাময় করা সম্ভব নয়। তবে আমরা যারা এই রোগে আক্রান্ত হয়েছি তারা একটু সচেতন থাকলে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রনে রাখা সম্ভব। তাই আমারা যারা এই রোগে আক্রান্ত তাদের সচেতন থাকতে হবে। অনেক অনিয়ম এর কারনে ডায়াবেটিস আমাদের শরীরে বাসা বাধে।

আজকে আপনাদের এমন কিছু লক্ষন শেয়ার করব, যে লক্ষন গুলো আপনার দেখা দিলে আপনি বুঝবেন আপনার ডায়াবেটিস বেড়ে গেছে অথবা ডায়াবেটিস আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা হয়েছে। এই লক্ষনগুলো দেখে ও বুঝে আপনি সাবধানতা অবলম্বন করতে পারবেন। আমাদের সকলের উচিৎ সাবধানতা অবলম্বন করে চলা,কারন ডায়াবেটিস অসাবধানতার কারনেই আমাদের শরীরে বাসা বাধে।লক্ষনগুলো দেখলে বা অনুভব করলে আপনি বুঝতে পারবেন যে আপনার ডায়াবেটিস বেড়ে গেছে বা আপনি ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হয়েছেন। ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার ১০টি লক্ষন নিম্নে বর্নিত হলো —-

১) খুব দ্রুত ওজন কমে যাওয়াঃ

খুব দ্রুত ওজন কমে যাওয়া ডায়াবেটিসের অন্যতম একটি লক্ষন। টাইপ -১ ডায়াবেটিসে যারা আক্রান্ত হয়ে থাকেন তাদের ওজন খুব দ্রুত কমে যায়। আপনার যদি দ্রুত ওজন কমে যায় তাহলে দ্রত একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের শরনাপন্ন হোন। দ্রুত ওজন কমে যাওয়া ডায়াবেটিস বেড়ে যাওয়ার বা ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার প্রথম লক্ষন।

২) ক্ষতস্থান শুকাতে দেরি হওয়াঃ

যদি দেখেন আপনার সামান্য ক্ষতস্থান শুকাতে অনেক দেরি হচ্ছে, তাহলে বুঝতে হবে আপনার শরীরের রক্তে শর্করার পরিমান অনেক বেশি রয়েছে। এটিও ডায়াবেটিসের একটি লক্ষনের মধ্য পড়ে। কোনো ক্ষতস্থান শুকাতে যদি অনেক দেরি হয় তাহলে এটাও ডায়াবেটিসের অন্যতম লক্ষন হিসাবে মনে করতে হবে।

৩) পায়ের তলায় ব্যাথা হওয়াঃ

পায়ের তলায় ব্যাথা হওয়া, পেশির টান পড়া, সাধারণত এই সমস্যা গুলো রক্তে সুগারের মাত্রা বেড়ে যাওয়ার কারনে হতে পারে। বেশিক্ষন দাঁড়িয়ে থাকা যায় না। পায়ের তালুর চারিপাশ ফেটে যায়। এছাড়াও পায়ের চামড়া মোটা হয়ে যায়। এগুলো রক্তে সুগার বাড়ার কারনে হয়ে থাকে। এগুলোও ডায়াবেটিসের অন্যতম লক্ষন।

৪) দৃষ্টিশক্তি কম হয়ে যাওয়াঃ

কোনো কিছু দেখতে ঘোলাটে লাগছে? ঠিকভাবে কোনো কিছু স্পষ্ট দেখতে পাচ্ছেন না? দৃষ্টিশক্তি পরিস্কার হচ্ছে না? এগুলো রক্তে সুগার বেড়ে যাওয়ার লক্ষন। সুগার বাড়লে প্রথম প্রভাবটা পড়ে চোখের উপর। চোশমা ছাড়া দেখতে অসুবিধা হয়। চোখ জ্বালা পোড়া করে। এগুলোও ডায়াবেটিসের প্রাথমিক লক্ষন।

৫) ক্লান্তি বোধ করাঃ

ডায়াবেটিস বাড়লে বা প্রাথমিক ভাবে আক্রান্ত হলে শরীর অতিরিক্ত ক্লান্ত লাগে। অনেক ক্লান্তিসহ ঘুম পায়। পরিশ্রম ক্ষমতা কমে যায়। অনেক সময় ধরে ঘুমালেও ঘুমের চাহিদা মেটে না। অনেক ঘুমালেও আবার ঘুমাইতে ইচ্ছা হয়। তাহলে বুঝতে হবে এটা ডায়াবেটিস এর প্রাথমিক লক্ষন।

৬) ক্ষুধা বৃদ্ধি পাওয়াঃ

ডায়াবেটিস বাড়ে যাওয়া বা আক্রান্ত হওয়ার আরেকটি লক্ষন হলো ক্ষুধা বৃদ্ধি পাওয়া। আপনি অনেক খাবেন, কিন্তু অনুভব করবেন যে আপনার পেট ভরেনি। শরীর যখন খাবার হজম করায় তখন শক্তি উৎপন্ন করে এবং গ্লুকোজ ভেঙ্গে সেই শক্তি আসে। আর খাবার খেলেও ক্ষুধা থেকে যায়। যা ডায়াবেটিসের প্রাথমিক লক্ষন।

৭) সব সময় পানি পিপাসা লাগাঃ

আপনি ১০ মিনিট আগে পানি পান করছেন, কিন্তু মনে হবে আবার গলা শুকিয়া যাচ্ছে। মুখ ও আপনার গলার চারপাশ শুকনো থাকে। আপনার যে টুকু পানি প্রয়োজন, তার থেকে বেশি পানি খেয়েও পানি পিপাসা মিটছে না। এরকম সমস্যা হলে একবার সুগার পরিক্ষা করে নিন। এটা ডায়াবেটিস বেড়ে যাওয়া ও ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার প্রাথমিক লক্ষন।

৮) ত্বক খসখসে হয়ে যাওয়াঃ

আপনার মুখ এবং ত্বক খসখসে হয়ে যাচ্ছে। আপনার গায়ের চামড়া প্রায় সময় শুস্ক থাকে। গায়ের চামড়া শুস্ক থাকায় সব সময় চুলকায়। পা এর তলা জ্বলা পোড়া এগুলা ডায়াবেটিস এর প্রাথমিক লক্ষন।

৯) ঘন ঘন প্রসাব হওয়াঃ

সাধারন সময়ের থেকে ডায়াবেটিস বেড়ে গেলে বা প্রাথমিক ভাকে আক্রান্ত হলে ঘন ঘন প্রসাব হয়ে থাকে। এটিও কিন্তু ডায়াবেটিস এর লক্ষন।

১০) ঘন ঘন টয়লেটে যাওয়াঃ

বার বার টয়লেট ব্যবহার করাও ডায়াবেটিস এর লক্ষন। সুস্থ মানুষ দিনে যে কয়বার বাথরুমে যায়, ডায়াবেটিস রোগী তার থেকে বেশি টয়লেট ব্যবহার করে। তাই এটিও ডায়াবেটিসের প্রাথমিক লক্ষন।

ডায়াবেটিস এমনই একটি রোগ যা পুরোপুরি নিয়ন্ত্রন করা সম্ভব না। আর সে কারনে নিয়ম অনুযায়ী চলুন। নিয়মিত হাটুন এবং শারিরীক পরিশ্রম করুন। এবং অবশ্যই একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী চলার চেষ্টা করুন। ডায়াবেটিসকে ভয় নয় নিয়ন্ত্রন করে চলার চেষ্টা করুন।

আমার ওয়েবসাইটে সবাইকে ভিজিট করার অনুরোধ রইলো আমার ওয়েবসাইট – healthtule.com

One thought on "ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার ১০টি লক্ষন"

Leave a Reply