আসসালামু আলাইকুম। কেমন আছেন সবাই? আশা করি সবাই ভালো আছেন। ভালো থাকারই কথা কারণ যারা ট্রিকবিডির সাথে থাকেন তারা ভালোই থাকবেন। আপনাদের খুশি থাকার আরেকটি কারণ নিয়ে আসলাম আজ। আজকে আমার এই টিউনে দেখাবো ৫০হাজার টাকার বাজেট গ্যামিং কম্পিউটার। তাহলে আর বেশি বকবক না করে চলুন শুরু করি।

কিছু কথা

বর্তমানে কম্পিউটার মানুষের জীবনকে করে তুলেছে সহজ ও সুন্দর। আজকাল কম্পিউটার ছাড়া প্রযুক্তি জগতের কথা চিন্তাও করা যায় না। তাছাড়া ভিডিও গেমিং সব মানুষেরই একটি আনন্দদায়ক বিষয়। সেই সাথে কম্পিউটার দ্বারা আপনি ফ্রিল্যান্সিং করে টাকা কামাতে পারবেন। তাই কম্পিউটার একটি আয় এর মাধ্যম হয়ে উঠেছে। যে কোন ধরনের গ্রাফিক্স ডিজাইনিং এবং গেমিং করতে আপনার একটি ভালো মানের কম্পিউটার প্রয়োজন। কিন্তু অনেকেই ঠিক করতে পারেন না যে কি ধরনের কনফিগারেশনের পিসি তৈরি করবেন। তাই আপনাদের মাঝে কিছু সাজেশন নিয়ে এসেছি আজকের এই পোস্টে। এই পোস্টে আমি আপনাদের দেখাবো একটি সঠিক পিসি বিল্ড। তবে মনিটরের কোন কথা বলা হবে না শুধুমাত্র পিসি বিল্ড করা হবে। তাহলে চলুন আমাদের সব কম্পনেন্ট নিয়ে আলোচনা শুরু করি।

প্রসেসর

প্রসেসর কে বলা হয় একটি কম্পিউটারের মস্তিষ্ক। তাই ভালো মানের কম্পিউটারে একটি ভালো মানের প্রসেসর প্রয়োজন পড়ে। গেমিং এবং গ্রাফিক্স ডিজাইনের জন্য একটি ভালো মানের প্রসেসর এর কোন বিকল্প নেই। সেজন্য আমরা প্রসেসর হিসেবে নিয়েছিঃ Intel Core i5 9400F Processor

বর্তমানে বাজারে এর দাম পড়বেঃ ১৩,৮০০টাকা। ৫০হাজার টাকার পিসি বিল্ড এর জন্য এটি একটি সেরা প্রসেসর।

প্রসেসর কুলার

প্রসেসরকে ঠান্ডা রাখার জন্য প্রসেসর কুলার এর কোন বিকল্প নেই। কিন্তু আমরা সবাই প্রসেসর কুলারের দিকে নজর দেই না। যে কোন একটা প্রসেসর কুলার পেলেই সেটা লাগিয়ে দেই। কিন্তু সেটা বড় একটি ভুল। আমাদের উচিত একটি ভালো মানের প্রসেসর কুলার ব্যবহার করা যাতে প্রসেসরটি গেমিং অথবা গ্রাফিক্স ডিজাইনিং এর সময় ঠান্ডা থাকে। প্রসেসর কুলার হিসেবে আমার পছন্দঃ Antec A40 Pro CPU Cooler

বর্তমানে বাজারে এর দাম পড়বেঃ ১,৯৫০টাকা

এটি ছাড়াও আপনি যে কোনো ভালো মানের প্রসেসর কুলারও ব্যবহার করতে পারবেন।

মাদারবোর্ড

একটি কম্পিউটারের মূল অংশ হচ্ছে একটি সিপিইউ ও তার পাশাপাশি আরেকটি মূল অংশ হচ্ছে এর মাদারবোর্ড। এর মাদারবোর্ড যত ভাল হবে কম্পিউটার ততবেশি পারফরম্যান্স দিতে পারবে। বর্তমান বাজারের সেরা মাদারবোর্ড হিসেবে যে সব ব্র্যান্ডের স্থান রয়েছে সেগুলো হচ্ছে, আসুস, গিগাবাইট, এমএসআই ইত্যাদি। মাদারবোর্ড হিসেবে আমার পছন্দঃ Gigabyte H310M S2P 8th Gen Micro ATX Motherboard

বর্তমানে বাজারে এর দাম পড়বেঃ ৬,৮০০টাকা

আগেই বলে দিচ্ছি শুধুমাত্র 8th Gen লেখা দেখে খাবরাবেন না। এতে 9th Gen এর প্রসেসরও চলবে। এই মাদারবোর্ড এর অনেক বিশেষত্ব রয়েছে। তার মধ্যে M.2 Socket আমার সবচেয়ে বেশি পছন্দের তাছাড়াও আর সব বিশেষত্ব দেখতে তাদের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটি দেখে আসতে পারেন।

র‍্যাম

আমরা ভাবি কম্পিউটারে যত বেশি র‍্যাম হয় তত বেশি পারফরম্যান্স পাওয়া যায় আসলে সেটি সম্পূর্ণ ভুল ধারণা। র‍্যাম কতোটা পারফরমেন্স দিতে পারবে তা নির্ভর করে র‍্যাম এর মেমোরি টাইপ এবং বাস স্পিড এর উপর। র‍্যাম এর Memory Type হওয়া উচিত DDR4 এবং BUS Speed হওয়া উচিত সর্বনিম্ন 2133 MHz. তবে তাই বলেযে ২জিবির র‍্যামেই কম্পিউটার চলবে সেটা খুব একটা সঠিক নয়। আর আমি সবসময় রেকমেন্ট করি ডুয়েল চ্যানেল মেমোরি বা দুইটি র‍্যাম ব্যাবহার করতে। যার দরুন আপনি রেমের শেষ ফোটা অবধি পারফরম্যান্স লুফে নিতে পারবেন। দুইটা র‍্যাম একসাথে কিনতে গেলে প্রাইস একটু বেশি হতে পারে কিন্তু যে পারফরমেনস পাবেন তা খুবই সন্তোষজনক। র‍্যাম হিসেবে আমার পছন্দ (দুইটি): Geil Evo Spear 4GB DDR4 2666 MHz Ram

বর্তমানে বাজারে এর একটির দাম পড়বেঃ ২,৫০০টাকা

আপনি যেহেতু দুটি র‍্যাম নিবেন তাই আপনার কম্পিউটারে পেয়ে যাবেন ৮ জিবি মেমোরি। যা গেমিং এবং গ্রাফিক্স ডিজাইনের জন্য যথেষ্ট।

স্টোরেজ

গেমিং এবং গ্রাফিক্স ডিজাইনের জন্য M.2 এসএসডি এর কোন বিকল্প নেই। তাই কম্পিউটারের পারফরম্যান্স বাড়ানোর জন্য অবশ্যই M.2 SSD ব্যবহার করবেন আপনারা। M.2 SSD হিসাবে আমার পছন্দ হলোঃ Western Digital Green 120GB M.2 SSD

বর্তমানে বাজারে এর দাম পড়বেঃ ২,৩০০টাকা

বাকি সব পার্সোনাল ইউজ এর জন্য আপনি ব্যবহার করতে পারেন 1TB স্টোরেজ বিশিষ্ট একটি HDD: Seagate Internal 1TB SATA Barracuda HDD

বর্তমানে বাজারে এর দাম পড়বেঃ ৩,৭০০টাকা

বিভিন্ন প্রকার ফাইল স্টোর করে রাখার জন্য এই সিগেটের ১টিবি এইচডিডি যথেষ্ট। তাছারা এর বিল্ড কোয়ালিটি আর সব HDD হতে অনেক গুন ভালো।

গ্রাফিক্স কার্ড

গেমিং এর জন্য মোস্ট ইম্পরট্যান্ট পার্ট হচ্ছে গ্রাফিক্স কার্ড। গ্রাফিক্স কার্ড যত উন্নত মানের হবে ততটাই ভালো হবে আপনার গেমিং এক্সপেরিয়েন্স। গেমিং এর জন্য আপনি যদি গ্রাফিক্স কার্ড ছাড়া পৃথিবীর সবচেয়ে দামি প্রসেসর ব্যবহার করেন তাহলেও আপনি ভালো গেমিং এক্সপেরিয়েন্স পাবেন না। তাই কম্পিউটারের একটি মূল্যবান অংশ গ্রাফিক্স কার্ড। গ্যামিং এর পাশাপাশি যেকোনো ধরনের গ্রাফিক্স এর কাজ এবং হাই রেজুলেশন ভিডিও দেখতেও গ্রাফিক্স কার্ড এর কোন বিকল্প নেই। গ্রাফিক্স কার্ড হিসাবে আমার পছন্দ হলোঃ GALAX GeForce GTX 1650 EX 4GB GDDR5 Graphics Card

বর্তমানে বাজারে এর দাম পড়বেঃ ১৫,০০০টাকা

এটি নিয়ে বেশি কিছু বলার নেই। এক কথায় যাস্ট ওসাম। বর্তমানের লো-বাজেট এর বেস্ট জিপিইউ হচ্ছে এটি। এর বিল্ড কোয়ালিটিও আর সব জিপিইউ থেকে ভালো। আর আপনারা হয়তো জেনেই থাকবেন এনভিডিয়ার জিপিইউ গুলো কতো ভালো হয়ে থাকে। তাই নিঃসন্দেহে বেছে নিতে পারেন এই গ্রাফিক্স কার্ডটি।

পাওয়ার সাপ্লায়ার

কম্পিউটারের আরেকটি ইম্পর্ট্যান্ট পার্ট হচ্ছে পাওয়ার সাপ্লায়ার। পাওয়ার সাপ্লাই মূলত সম্পূর্ণ সিপিইউকে পাওয়ার আপ করে। তাই পাওয়ার সাপ্লাই যদি আপনার পিসি তে ঠিকমতো পাওয়ার না দিতে পারে তাহলে আপনার পকেট থেকেই টাকা খসবে অর্থাৎ আপনার পিসি টি কোন না কোনভাবে ড্যামেজ হয়ে যাবে। তাই একটি ভালো মানের পাওয়ার সাপ্লাই ব্যবহার করা উচিত আপনাদের। পাওয়ার সাপ্লাই হিসেবে আমার পছন্দ: Antec Atom 550W 550 Watt Power Supply

বর্তমানে বাজারে এর দাম পড়বেঃ ২,৬০০টাকা

অ্যানটেক ব্র্যান্ড এর লেটেস্ট একটি পাওয়ার সাপ্লাই হচ্ছে এটি। এটি আপনার প্রিয় কম্পিউটারটি কে সঠিকভাবে পাওয়ার আপ করতে পারবে।

কেসিং

উপরের কম্পোনেন্টগুলোর জেলখানা বা কেসিং আপনার কম্পিউটারকে করে তোলে আকর্ষণীয় এবং শ্রী মধুর। একটি কেসিং এর ডিজাইন যত বেশি ভালো হবে ততো বেশি গেমিং গেমিং ফিল হবে। আর সেই কেসিং টি যদি RGB লাইট বিশিষ্ট হয় তাহলে তো কোন কথাই নেই। তাই সবদিক বিবেচনা করে কেসিং হিসেবে আমার পছন্দ: Golden Field 6013B Semi Window Side Panel Casing

বর্তমানে বাজারে এর দাম পড়বেঃ ২,৭০০টাকা

এই ক্যাসিংটি RGB না হলেও এতে রয়েছে একটি রেড লাইট যা প্রায় RGB ফিলিংস দেয়। তাছাড়া এর ডিজাইন সম্পূর্ণ গেমিং কেসিং এর ন্যায়। তাই ডিজাইন এর দিক বিবেচনা করে এই কেসিং টি আপনার জন্য হবে বেস্ট।

পরিশেষে

এই বিল্ডটি করতে আপনাদের মোট খরচ পড়বে: ৫৩,৮৫০টাকা। আপনার বার্গেনিং স্কিল যদি ভালো হয়ে থাকে তাহলে আপনি খুব সহজে উপরন্ত ৩,৮৫০ টাকা খুব সহজে কমিয়ে নিতে পারবেন আশাকরি।

তাহলে এই ছিল আজকের বিল্ড। এ রকম আরো বিল্ড পেতে চাইলে অবশ্যই আপনাদের মতামত জানাবেন এবং পোস্টটি পড়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। পরের কোন পোস্টে আবার দেখা হবে। সেই পর্যন্ত সুস্থ থাকুন, সুন্দর থাকুন অবশ্যই ট্রিকবিডির সঙ্গেই থাকুন।

সময় হলে ঘুরে আসতে পারেন আমার পার্সোনাল ওয়েবসাইটটিতে: A Techy Tutor

ধন্যবাদ

8 thoughts on "৫০ হাজার টাকা বাজেটের গেমিং কম্পিউটার বিল্ড"

  1. Astonnoor Subscriber says:
    Nice Post Vai. Thank You So Much ❤️
    1. Emon Author Post Creator says:
      আপনার সুন্দর কমেন্ট করার জন্য আপনাকেও ধন্যবাদ।😄
  2. Masum Ahmad Kafil Contributor says:
    অস্বাভাবিক সুন্দর আর্টিকেল।

    AMD প্রসেসর আপনার কাছে কেমন লাগে?

    1. Emon Author Post Creator says:
      ধন্যবাদ। AMD প্রসেসর ভালো। তবে ইনটেল এর চেয়ে বেশি পারফরমেন্স দিতে পারেনা। তাই ইনটেল প্রসেসর ব্যবহার করা উচিৎ।
    2. Md Naimur Rahman Contributor says:
      😂😂
  3. Arafatkhan Contributor says:
    Rx 570 is better then gtx 1650
    1. Emon Author Post Creator says:
      GTX 1650 er build quality rx 570 er theke beshi.
  4. Md Naimur Rahman Contributor says:
    processor:ryzen 5 2600
    mobo:msi bazooka plus
    ram:8gb 3200 mhz
    gpu:rx 570 8gb
    psu:550 watt
    hdd:1 tb

Leave a Reply