আমরা সবাই জানি যে, আজকের দিনে অনলাইন ইনকাম করার অন্যতম একটি মাধ্যম হলো ব্লগিং। যেখানে আপনি একজন কন্টেন্ট ক্রিয়েটর হিসেবে লেখালেখি করে। প্রচুর টাকা Blogging থেকে আয় করে নিতে পারবেন।

ব্লগিং করে কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায় বিস্তারিত দেখুন

আর আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনি ব্লগিং রিলেটেড অনেক তথ্য সংক্ষিপ্ত আকারে জানতে পারবেন। যেমনঃ

  • ব্লগিং কাকে বলে? 
  • কেন আপনার ব্লগিং করা উচিত? 
  • কিভাবে ব্লগিং থেকে আয় করবেন? 

তো আপনি যদি উপরের বিষয় গুলো সহজ ভাষাতে জানতে চান। তাহলে এই লেখাটি পড়া শুরু করে দিন। অনথ্যায় আপনি এই Article থেকে লিভ নিতে পারেন। 

ব্লগিং কি? 

পেশাগত দিক থেকে Blogging হলো একটি মুক্ত পেশার নাম। যেখানে আপনি নিজের সময় ও সুবিধা মতো লেখালেখির কাজ করবেন। আর সেই কাজ এর বিনিময়ে বিশ্বের জনপ্রিয় কোম্পানি Google নিজে থেকে আপনাকে পেমেন্ট করবে।

যদি আপনার Content Writing ভালো লেগে থাকে। তবে আপনি খুব সহজেই ব্লগিং শুরু করতে পারবেন। এবং আপনিও অন্যান্য মানুষের মতো ব্লগ থেকে আয় করতে পারবেন। 

ব্লগিং করতে কি কি লাগবে?

বউ ছাড়া যেমন বিয়ে সম্পূর্ন হয়না। ঠিক তেমনিভাবে ব্লগিং করার জন্য আপনার বেশ কিছু জিনিসের দরকার হবে। কেননা, এই জিনিস গুলো Blogging এর সাথে গভীরভাবে সম্পর্কযুক্ত। তো চলুন এবার এ নিয়ে একটু ধারনা নেয়া যাক। 

০১| ডোমাইন হোস্টিং

Blogging যদি একটি অনলাইন প্লাটফর্ম হয়। তাহলে সেই প্লাটফর্ম এর দরজা হলে Domain এবং Hosting. কারন, অনলাইনে থাকা কোটি কোটি ব্লগ এর মধ্যে। আপনার ব্লগকে খুজে নেয়ার জন্য ডোমেইন এর নামটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকবে।

এর পাশাপাশি একটি ভালো মানের ব্লগ তৈরি করার জন্য অবশ্যই আপনার একটি মানসম্মত হোস্টিং থাকতে হবে। তবে আপনি চাইলে একটা ডোমেইন কিনে ফ্রি google blogger platfrom থেকে ব্লগ সাইট বানাতে পারবেন।

০২| মোবাইল বা পিসি 

আপনি যদি একটি ব্লগ তৈরি করতে চান। তাহলে অবশ্যই আপনার নিকট এক বা একাধিক মানসম্মত ডিভাইস থাকতে হবে। কেননা, আপনি যদি কোনো একটি ব্লগ কে পরিচালনা করতে চান।

তবে আপনার নিকট একটি ভালো মানের কম্পিউটার অথবা একটি ভালো মানের মোবাইল থাকতে হবে। যার মাধ্যমে আপনি আপনার তৈরি করা Blog কে পরিচালনা করতে পারবেন। 

০৩| লেখা লেখির উপায় জানা

আমি আর্টিকেল এর শুরুতেই একটা কথা বলেছি ৷ সেটি হলো যাদের লেখালেখি করার মতো অভ্যাস আছে। তাদের জন্য উপযুক্ত একটি প্লাটফর্ম হলো Blogging.

আর ব্লগিং এর ভাষায় এই লেখালেখি করার কাজ কে বলা হয়, কন্টেন্ট রাইটিং। আর যেহুতু একটি ব্লগের মূল উপাদান হলো কন্টেন্ট। তাই অবশ্যই আপনার মধ্যে Content Writing করার মতো যথেষ্ট দক্ষতা থাকতে হবে। 

ব্লগিং করে কিভাবে টাকা ইনকাম করা যাবে? 

উপরের আলোচনা থেকে আপনি অনেক অজানা তথ্য সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। প্রথমত আপনি জেনেছেন ব্লগিং কি এবং আপনি যদি একজন নতুন মানুষ হয়ে থাকেন।

তবে Blogging করার জন্য আপনার কি কি জিনিসের দরকার হবে। তো এসব জানার পর আপনাকে আরও একটি বিষয় জেনে নিতে হবে। সেটি হলো, আপনি ব্লগিং করে কিভাবে টাকা আয় করবেন।

তো আপনি যদি একজন দক্ষ ব্লগার হয়ে থাকেন। তবে সচারাচর আপনার ব্লগে হিউজ পরিমানে ভিজিটর নিয়ে আসতে পারবেন। আর যখন আপনি আপনার ব্লগে প্রচুর পরিমানে Visitor নিয়ে আসতে পারবেন।

তখন আপনার ব্লগ থেকে ইনকাম করার অনেক গুলো রাস্তা খুলে যাবে। যেমনঃ

০১| গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয় 

যদি আপনি ব্লগ থেকে টাকা ইনকাম করতে চান ৷ তবে সবার প্রথমে যে নামটি আসবে৷ সেটি হলো, Google Adsense. কেননা, ব্লগ থেকে আয় করার জন্য এটি হলো অন্যতম একটি পদ্ধতি।

যে পদ্ধতিটি অনুসরন করে আপনার মতো লাখ লাখ মানুষ ব্লগ থেকে টাকা আয় করে আসছে।

বলে রাখা ভালো যে, গুগল এডসেন্স হলো বিশ্বের জনপ্রিয় অনলাইন ব্রান্ড Google এর নিজস্ব একটি প্রোডাক্ট। যেখানে আপনি একজন ব্লগ কন্টেন্ট ক্রিয়েটর হিসেবে কাজ করবেন।

আর আপনার সেই কাজের বিনিময়ে যে পরিমান টাকা ব্লগ থেকে আয় করবেন৷ সেই টাকা গুলো গুগল আপনাকে এডসেন্স এর মাধ্যমে প্রদান করবে। 

০২| অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং থেকে আয়

আজকের দিনে ব্লগ থেকে টাকা ইনকাম করার আরও একটি জনপ্রিয় উপায় হলো, এফিলিয়েট মার্কেটিং করা। আর বর্তমান সময়ে ব্লগিং করে টাকা আয় করার জন্য।

অধিকাংশ মানুষ গুগল এডসেন্স এর পাশাপাশি Affiliate Marketing করেও বিপুল পরিমান টাকা ব্লগ থেকে ইনকাম করে আসছে। 

মূলত এফিলিয়েট হলো অনলাইন থেকে টাকা আয় করার এমন একটি মাধ্যম। যেখানে আপনি পৃথিবীর বড় বড় অনলাইন শপের পন্য গুলোকে সেল করে দিবেন ৷ এবং আপনি তাদের পন্য সেল করে দেয়ার বিনিময়ে।

সেখান থেকে কিছু পরিমান টাকা কমিশন হিসেবে লাভ করবেন। মূলত এই পুরো প্রক্রিয়াকে বলা হয়, এফিলিয়েট মার্কেটিং। 

০৩| স্পন্সর থেকে আয় 

যখন আপনি আপনার সদ্য তৈরি করা নতুন ব্লগে প্রচুর পরিমানে ভিজিটর নিয়ে আসবেন। তখন আপনার জন্য ইনকাম করার আরও একটি নতুন রাস্তা খুলে যাবে। সেটি হলো, স্পন্সর থেকে টাকা আয় করা।

যা থেকে আপনি বেশ ভালো পরিমান টাকা ব্লগ থেকে আয় করে নিতে পারবেন। মূলত যখন আপনার ব্লগে অনেক ভিজিটর থাকবে৷ তখন বিভিন্ন অনলাইন কিংবা অনলাইন কোম্পানি গুলো আপনার কাছে স্পন্সর করার জন্য আসবে।

আর আপনি আপনার ব্লগের ভিজিটর অনুযায়ী সেই কোম্পানির স্পন্সর করার বিনিময়ে টাকা আয় করতে পারবেন। 

০৪| অন্য বিজ্ঞাপন থেকে

আপনার একটি ভালো মানের ব্লগ থাকলে। আপনি সেই ব্লগে গুগল এডসেন্স এর বিজ্ঞাপন দেখিয়ে টাকা আয় করতে পারবেন। কিন্তুু আপনার গুগলের ব্লগে গুগলের বিজ্ঞাপন দেখানোর পাশাপাশি আরও অন্যান্য Local Ad থেকেও টাকা আয় করতে পারবেন। 

তবে আপনি যদি লোকাল বিজ্ঞাপন থেকে ব্লগিং এর মাধ্যমে আয় করতে চান। তবে আপনার সেই ব্লগে অনেক বেশি পরিমানে ভিজিটর থাকতে হবে। তখন অন্যান্য কোম্পানিরা তাদের বিজ্ঞাপন গুলো আপনার ব্লগে দেখানোর জন্য রিকুয়েষ্ট করবে।

আর আপনি তাদের বিজ্ঞাপন গুলো আপনার ব্লগে দেখিয়ে টাকা আয় করতে পারবেন। 

ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায়?

ব্লগিং শুরু করার আগে আপনার মনে যে প্রশ্নটি বারবার ঘুরপাক খাবে। সেটি হলো, একজন নতুন মানুষ যদি ব্লগিংয়ে কাজ করে। তাহলে সেই ব্যক্তি মোট কত টাকা Blog থেকে আয় করতে পারবে।

তো চলুন এবার এ বিষয়ে স্বল্প আকারে ধারনা নেয়া যাক। তাহলে আপনার মধ্যে একটা ক্লিয়ার ধারনা চলে আসবে।

দেখুন, Blogging হলো এমন একটি প্লাটফর্ম। যাকে আপনি সঠিকভাবে ব্যবহার করতে পারলে। আপনি এই প্লাটফর্ম থেকে লাখ লাখ টাকা অনলাইন ইনকাম করতে পারবেন।

আর আপনি যদি এই প্লাটফর্ম কে সঠিকভাবে ব্যবহার করতে না পারেন ৷ তাহলে আপনি লাখ টাকা তো দুরের কথা। আপনার জন্য ব্লগ থেকে টাকা আয় করাটাই অনেক কঠিন হয়ে দাঁড়াবে।

আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ আছেন। যারা শুধুমাএ টাকা আয় করাকে ফোকাস রেখে ব্লগিং শুরু করেন। কিন্তুু এ বিষয়টাকে যতোটা সহজ মনে হয়। আসলে বিষয়টা এতোটা সহজ নয়।

বরং Blogging এ আপনাকে যথেষ্ট ধৈর্য্য এবং বুদ্ধি খাটিয়ে কাজ করতে হবে। আপনাকে ব্লগিংয়ের প্রতিটা খুটিনাটি জেনে নিতে হবে।

আর যখন আপনি ব্লগিংয়ের স্ট্রাটেজিকে ধরতে পারবেন। আপনি বুঝতে পারবেন যে, কিভাবে একটি ব্লগ থেকে সফলতা অর্জন করতে হয়। ঠিক তখন থেকে আপনি ব্লগ থেকে লাখ লাখ টাকা আয় করে নিতে পারবেন ৷

কিন্তুু সেই টাকার জন্য আপনাকে অনেকটা সময় ধৈর্য্য ধরতে হবে। মন দিয়ে ব্লগিং রিলেটেড কাজ গুলো শিখতে হবে। অন্যথায় আপনাকেও ব্যর্থতার গ্লানি নিয়ে বসে থাকতে হবে। 

⇒∇: Premium Tips: কন্টেন্ট রাইটিং করে কিভাবে টাকা ইনকাম করতে হয় জানতে এই লেখাটি পড়তে পারেন।  কন্টেন্ট লিখে টাকা আয় করার উপায়। 

আমাদের শেষকথা 

ব্লগ থেকে টাকা আয় করার জন্য কি কি উপায় আছে। সেই উপায় গুলোকে এই লেখার মাধ্যমে সহজভাবে বুঝিয়ে দেয়ার চেস্টা করেছি। আশা করি আপনি সেগুলো বেশ ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন।

তবে এরপরও যদি আপনার ব্লগ নিয়ে আরও কোনো প্রশ্ন থেকে থাকে। তবে নিচে কমেন্ট করে তা জানিয়ে দিবেন। আমি আপনার সমস্যার সমাধানের জন্য সর্বদা প্রস্তুত আছি।

নতুন কিছু জানার জন্য Trickbd এর সাথে থাকুন৷ ধন্যবাদ। আর সময় করে আমার আমার বাংলা ভাষায় বানানো ব্লগসাইটি ভিসিট করে আসতে পারেন। আমার ব্লগসাইট Banglaitblog.com – ব্লগিং শিখে আয় করুন… 

10 thoughts on "ব্লগিং করে কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায় বিস্তারিত দেখুন"

  1. Noyon Contributor says:
    ভাই আমি ওয়েবসাইট ডিজাইন নিয়ে ইংরেজিতে ব্লগ লিখতে চাই কিন্তু ওয়েব ডিজাইন নিয়ে লিখলে তো আর্টিকেল বেশি বড় হবে না করণ ওখানে আমি শুধু কোডগুলে আর কিভাবে কোথায় বসাতে হবে ওটায় শুধু বলব আর সম্পূর্ণ ইউনিক কন্টেন্ট লিখব এখন এভাবে লিখলে কি এডসেন্স পাব
    1. MrAlam Author Post Creator says:
      প্রথমত এডসেন্স পাওয়ার জন্য আপনাকে ইউনিক এবং তথ্য বহুল লেখা থাকতে হবে। আর চেষ্টা করবেন ১০০০ হাজার ওয়ার্ড এর উপরে লেখা রাখতে । কোড দিয়ে কিভাবে এবং কোথায় বসাতে হবে বিস্তারিত লিখে পোস্ট করবেন।
  2. ভাই আপনিও ট্রিকবিডিতে আছেন?
    আমি তো আপনার ব্লগের নিয়মিত ভিজিটর।
    1. MrAlam Author Post Creator says:
      ধন্যবাদ আপনাকে
  3. Md Alamin Khan Contributor says:
    আমাকে কেউ সাহায্য করুন। আমার সাইটটিতে এডসেন্স রিজেক্টেড করেছে কি কারনে ?https://www.TechnologyTechNews24.xyz
    1. TAHER Author says:
      Hmm
      Contact
      Fb.com/tahercox05
  4. MrAlam Author Post Creator says:
    কি জন্য রিজেক্ট করেছে তার কারণ মেইলে বলে দিয়েছে … আপনি মেইলে দেখেন এডসেন্স কি বলে রিজেক্ট করেছে …
    1. Noyon Contributor says:
      Kinto onekei matro wapmash.xyz ei site thi tho choto post korei adsence+visitor paise
  5. Noyon Contributor says:
    wapmash.xyz eai site tho onek choto post korei adsense paise
    1. MrAlam Author Post Creator says:
      এটা গুগলের ব্যাপার.. অনেক সময় ১০ টা ছোট পোস্ট করেই পেয়ে যায় আবার অনেকেই ৩০ টা করে পাইনা। তবে বাংলা সাইটের জন্য ৩০ টা ইউনিক বাংলা আর্টিকেল লিখলে আর সব গুলা কোয়ালিটি ভালো থাকলে এডসেন্স পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে..

Leave a Reply