সবাই কেমন অাছেন?
অাশা করি সবাই অনেক ভালো অাছেন।
তো অাপনারা হয়তো ইতিমধ্যে বুঝেই গিয়েছেন যে অামি অাজকে কি নিয়ে পোষ্ট করব।
অাসলে বর্তমান সময় প্রাই মানুষই ইউটিউব থেখে অার্ন করার জন্য ইউটিউবে চ্যানেল খুলে কাজ করছেন।
অনেকেই অনেক সাফল্যও পাচ্ছেন।
কিন্তু অনেকেই অনেক সময় একটা সমস্যার সম্মুখীন হোন।
সেটা হলো “কপিরাইট ইস্যু”।
তাই অাজকের পোষ্টে অামি কপিরাইট ইস্যু নিয়ে বিস্তারিত ভাবে লেখার চেস্টা করেছি।
অাশা করি অাপনাদের কাছে পোষ্টটি ভালো লাগবে।
অার একটি কথা, এই পোষ্টটা সকল নতুন ইউটিউবাররা মনোযোগ সহকারে পড়বেন।তো চলুন শুরু করা যাক….

কপিরাইট ইস্যু: কনটেন্ট আইডি ক্লেইম মানে কি?

  • যদি আপনি এমন কোন কিছু ইউটিউবে আপলোড করে থাকেন যাতে অন্য কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের কপিরাইট প্রোটেকটেড উপাদান থাকে তাহলে আপলোড শেষ হওয়ার পর কপিরাইট ক্লেইম পেতে পারেন।কপিরাইট ক্লেইমের ধরণ কি হবে তা মুলত, কপিরাইটে সেট করা কনটেন্টের মালিকের উপর ইচ্ছা করে। মালিক ইচ্ছে করলে তার কনটেন্টকে ইউটিউবের যে কোন মাধ্যমে আপলোড করতে বাধা দিতে পারেন, চাইলে রেভিনিউ সব নিজে গ্রহণ করতে পারেন অথবা শেয়ার করতে পারেন। আবার চাইলে কোন নিদিষ্ট কোন ডিভাইসের উপর নিষেধাজ্ঞা দিতে পারেন অথবা কোন দেশের দশকদের উপরও নিষেধাজ্ঞা সেট করতে পারেন।
  • ক্লেইমে কি আমার কোন সমস্যা হবে বা চ্যানেল সাসপেন্ড হবে?

  • সম্ভবত না, বেশীর ভাগ ক্ষেত্রেই ক্লেইম আপনার চ্যানেলের জন্য খারাপ কোন কিছু নয়। এর মানে হচ্ছে “ভাই আপনার চ্যানেলে কিছু অন্যের জিনিস পাওয়া গেছে” বলে জানিয়ে দেয়া। কনটেন্ট আইডি ক্লেইমের জন্য কি ব্যবস্থা গৃহীত হবে তা ইউটিউব নির্ধারণ করেনা, বরং এর মালিক করে থাকে। অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় মালিক আপনার চ্যানেলে বিজ্ঞাপণ দিয়ে টাকা কামিয়ে নিচ্ছে।
  • যাই হোক ভিডিওর মালিক তার ভিডিওকে যে যে অবস্থায় রাখতে পারে তার একটু ধারনা নিচে দেওয়া হলো

  • ভিডিও ব্লকঃ মালিক যদি চাই তবে সে তার ভিডিও ব্লক রাখতে পারেন। ব্লকের সীমা সারা বিশ্বও হতে পারে আবার কোন বিশেষ দেশও হতে পারে। এতে করে আপলোডকারী ছাড়া আর অন্য কেউ ভিডিওটি দেখতে পাবেনা।
  • শব্দহীন ভিডিওঃ যদি মালিক তার মিউজিকটিকে অনেক গুরুত্বপূর্ণ মনে করে থাকেন তাহলে তিনি ভিডিওটিকে শব্দহীন করে দিতে পারেন। মানে দর্শকরা শুধু চলমান চিত্র দেখতে পাবেন কিন্তু কোন শব্দ পাবেন না।
  • প্লাটফর্মে ব্লকঃ কিছু ক্ষেত্রে কপিরাইট আইটেমের মালিক ডিভাইস, এপস বা ওয়েবসাইট কে টার্গেটে করে ভিডিও ব্লক করাতে পারেন। তবে এই রেষ্ট্রিকশন ইউটিউবের উপর কোন প্রভাব রাখেনা।
  • ক্লেইম হলে আমি কি করতে পারি?

  • কিছুই নাঃ যদি আপনি স্বীকার করে থাকেন যে ভিডিওটির মালিক আপনি নন এবং এ ব্যাপারে ইউটিউবের সাথে একমত তাহলে আপনাকে কিছুই করতে হবেনা। জাষ্ট চুপচাপ থাকুন।সঠিক সময় পর ক্লেমটি অটোমেটিক উঠে যাবে।তবে একবার ক্লেম খেলে ২য় বার যেনো তা না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।কারন ৩বার ক্লেম খেলে চ্যানেল সাসপেন্ড হয়ে যাবে।
  • অাপিল করুনঃ যদি অাপনি মনে করেন যে এই ভিডিও সম্পূর্ন অাপনার নিজের তৈরী তারপরেও ইউটিউব অাপনাকে ক্লেম দিছে তাহলে অাপনি চাইলে অাপিল করতে পারেন।অনেকেই অাপিল করার সময় কি লিখে পাঠাবেন সেটা বুঝতে পারেন না।যার ফলে অামি লিখে দিচ্ছি সেটা অাপনারা লিখে পাঠিয়ে দিতে পারেন। যা লিখবেনঃ There are lots of videos on YouTube which shows similar content so why was only my video removed? I believe that my video did not contain any misleading data.Please check it অার কিছু করতে হবেনা।তবে অাপনি যদি চান তবে অারো বিস্তারিত ভাবে লিখে পাঠাতে পারেন।
  • চ্যানেল ফিরে পেতে অাবেদন করুনঃ অনেকেই নিজের তৈরী ভিডিও দেন।তারপরেও অাপনার চ্যানেলে কোনো নোটিশ বা ক্লেম বা Strike না দিয়েই চ্যানেল সরাসরি সাসপেন্ড করে দেওয়া হয়।তখন অাপনি তাদের কাছে অাবেদন করতে পারেন।তবে অাপনার চ্যানেলে যদি কোনো কপিরাইট ভিডিও না থাখে & Sexual কনটেন্ট না থাখে তবেই অাপনি চ্যানেলটা ফিরে পেতে পারবেন।এরজন্য অাপনি নিচের লেখাটা তাদের কাছে অাবদন করার সময় লিখে পাঠাতে পারেন।অাপনি চাইলে অারো সুন্দর ভাবেও লিখতে পারবেন। যা লিখবেনঃ
    Dear YouTube,
    i think that my channel should have not been terminated because I have followed the YouTube community guidelines very carefully, can you please check my channel again to see, if people have wrongly flagged my videos.
    Sincerely
    (Your name)
  • সামান্য ভিডিও বাদ দিনঃ যদি আপনার অনেক বড় একটি ভিডিওর অল্প কিছু অংশবিশেষ কপিরাইট ক্লেইমের আওতায় পড়ে তাহলে শুধুমাত্র ঐ অংশটুকু ইউটিউব থেকেই বাদ দিতে পারেন। তাতে করে নুতন করে এক্সপোর্ট এবং আপলোড না করেই ইউটিউবে থাকা অবস্থায়ই সম্ভব।
  • মিউজিক বদলে দিনঃ অাপনার ভিডিওর মধ্যে থাখা মিউজিকটা যদি কপিরাইট এ পড়ে তাহলে অাপনি ইউটিউবের নিজস্ব লাইব্রেরী থেকে কপিরাইট ফ্রি মিউজিক দিয়ে ক্লেইমড মিউজিক এর সাথে বদলে নিতে পারেন।
  • রেভিনিউ শেয়ার করতে পারেনঃ আপনি যদি ইউটিউবের পার্টনার প্রোগ্রামের সাথে যুক্ত থাকেন তাহলে আপনি রেভিনিউ শেয়ার করতে পারেন।অামি চেস্টা করবো এই রেভিনিউ শেয়ার নিয়ে অারো একটি পোষ্ট করার।তাই ঐ পোষ্টটি পেতে অবশ্যই ট্রিকবিডি সাইটের উপর নজর রাখবেন 🙂
  • ক্লেইমের ডিসপুট দিনঃ যদি আপনি মনে করেন আপনার আপলোড করা মিউজিক ইউটিউব ভুলভাবে ক্লেইম করেছে অথবা এটি আপনার কেনা লাইসেন্স করা মিউজিক তখন আপনি ডিসপুট করবেন। তবে ডিসপুট করার আগে অবশ্যই ফেয়ার ইউজ ভালো করে জেনে নিবেন। মনে রাখবেন ডিসপুটকে ইউটিউব অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে দেখে, ভুল হলে চ্যানেলের সর্বনাশ। পুরো ক্লেইম পদ্ধতিতে শুধু এই অংশেই সবচেয়ে বেশী সাবধানী হতে হবে। ডিসপুট একটি বিশাল বড় আলোচ্য বিষয়।অাসলে ডিসপুট টা অামি অারো একটু ভালো ভাবে বুঝিয়ে দিচ্ছি, ধরুন অাপনি এমন একটি জিনিস তৈরী করেছেন যেটা অাপনার নিজের,মানে অাপনার কাছে সকল তথ্য অাছে।যেমন ধরুন অাপনি একটি মিউজিক তৈরী করছেন যেটা একদম অাপনার নিজের তৈরী এবং তার প্রমানও অাছে অাপনার কাছে এমতাবস্থায় যদি অাপনার তৈরী করা মিউজিকটা ইউটিউবে অাপলোড করলে কপিরাইট ধরে বা স্ট্রাইক দেই তখন অাপনি অাপনার সকল প্রমান দিয়ে ইউটিউবে অাপিল করতে পারবেন।কিন্তু তখনও যদি প্রমানিত হয় যে সেটা কপি করা মানে অাগে থেখে তৈরী করে কেও অাপলোড করছে তবে অাপনার চ্যানেলের ক্ষতি হতে পারে & এটাই হচ্ছে ডিসপুট।অাশা করি বুঝতে পারছেন।না বুঝলে কমেন্ট করে জানাবেন।
  • নিজের কনটেন্ট আইডি কিভাবে পাবো?

  • কনটেন্ট আইডি মুলত, কোন চ্যানেলের প্রয়োজনীয়তার উপর ভিত্তি করে ইউটিউব পর্যবেক্ষণ ও পর্যালোচনার পর আবেদনের উপর ভিত্তি করে প্রদান করে থাকে। শুধুমাত্র কোন চ্যানেলের কনটেন্টের ১০০ ভাগ নিজস্ব হলে তবেই মাত্র কনটেন্ট আইডি পাওয়া যেতে পারে। তারপরেও কিছু আইটেম আছে যার উপর ইউটিউব কখনো কনটেন্ট আইডি দেয়না যেমন : রিমেক, বেষ্ট অফ অমুক, অন্য কোন চ্যানেলের সামান্য অংশও থাকলে, ভিডিও গেমপ্লের চ্যানেলে, কপি করা টিউটোরিয়াল সংক্রান্ত চ্যানেলে, ট্রেইলার, চোরাই মিউজিক বা ভিডিও, কনসার্ট, ইভেন্ট, বক্তব্য, কোন শো ইত্যাদির উপর কনটেন্ট আইডি পাওয়া যাবেনা।।
  • তো এই ছিলো অাজকের পোষ্ট।অাশা করি অাজকের পোষ্টটি অাপনাদের ভালো লাগছে।যদি পোষ্টের কোনো জাইগাতে কোনো কিছু বুঝতে সমস্যা হয় তবে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।অার একটি কথা দয়াকরে কেও খারাপ কোনো কমেন্ট করবেন না।
    ধন্যবাদ…

    5 thoughts on "Content অাইডি ক্লেম কি? প্লাটফর্ম Block কি? ভিডিও ডিসপুট করা মানে কি সহ অারো অনেক কিছু | নতুন ইউটিউবার দের জন্য।"

    1. Power ✔ Power ✔ Author says:
      কিছুই বুজি নাই ভাই


      1. Rezwan Rezu Rezwan Rezu Contributor Post Creator says:
        দয়া করে আবার সবটা পোষ্ট পড়ুন
    2. Shadin Shadin Subscriber says:
      ভাল পোস্ট।
      1. Rezwan Rezu Rezwan Rezu Contributor Post Creator says:
        Thanks boos
    3. Next Page Mehedi Hasan Ariyan Author says:
      অাপনাকে থাপরাবো বুঝলেন। নিজের যোগ্যতা দিয়ে পোষ্ট করেন। মানুষের পোষ্ট কপি করেন কেন। সবকিছু কপি করলেন অার নিচে চ্যানেলের লিংকটা রিমুভ করে দিয়ে নিজের নামে চালিয়ে দিলেন পোষ্টটা হা?

    Leave a Reply