আসসালামু আলাইকুম, আশাকরি আপনারা সবাই ভালো আছেন। বর্তমানে আমরা বেশিরভাগ ইউটিউব চ্যানেল নিয়ে কাজ করে থাকি।
বেশিরভাগই আমরা এডসেন্স এর উপর নির্ভর হয়ে থাকি। এডসেন্স থেকে আমরা প্রতিমাসে মোটামুটি একটা ভালো এমাউন্ট পেয়ে থাকি। কিন্তু যাদের অ্যাডসেন্স নেই এক কথায় বলতে গেলে এডসেন্স ডিজেবল হয়ে গেছে তারা বেকার বসে থাকি। বিশেষ করে তাদের ইনকামের মাধ্যম টায় হারিয়ে যায়।
তাই আমি আজ সবার উদ্দেশ্যে একটি পোস্ট শেয়ার করতে যাচ্ছি যেখানে আমরা এডসেন্স ছাড়াও বিভিন্ন মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবো।
🔉🔉🔉🔉🔉

=> মূলত আমরা অ্যাডসেন্স ছাড়া যেগুলোর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারব তা নিম্নে দেয়া হলঃ
১) প্রোডাক্ট রিভিউ করে (স্পন্সর)।
২) প্রোডাক্ট সেল দিয়ে (আফিলিয়েট)।
৩) পিপিএল করে (কাস্টমার ধরিয়ে দেওয়া)

=> ১ ও ২ নাম্বারগুলো আমাদের মোটামুটি সকলের কাছে পরিচিত।

অনলাইনে বিভিন্ন কোম্পানি আছে যারা স্পনসর হয়ে থাকে এবং বিভিন্ন কোম্পানির অ্যাফিলিয়েট সিস্টেম রয়েছে। আমরা মূলত বেশিরভাগ ইউটিউবার এগুলো নিয়ে কাজ করে থাকি। এগুলো থেকে মোটামুটি আমরা ভালো ইনকাম করে থাকি। তবে দেখা যায় স্পনসর সব চ্যানেলে পাওয়া যায় না এবং স্পনসর প্রতিমাসে এক থেকে দুই টার উপর পাওয়া যায় না। বর্তমানে এফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের সিস্টেমটাও তেমন। লক্ষ্য করলে দেখা যায় প্রতিমাসে একরকম বড় বড় ইউটিউবাররা মোটামুটি ইনকাম করে থাকে এফিলিয়েট মার্কেটিং করে। কিন্তু ছোট ছোট ইউটিউবাররা এই দুইটির ভিতর কোনটির ভিতরে সফল হতে পারে না। তাই তারা হতাশ হয়ে পড়ে।

৩) বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং সব থেকে সহজ হলো ৩ নম্বর মাধ্যমটি। আর এ মাধ্যম খুব কম ইউটিউবাররা তাদের চ্যানেলে করা থাকে। কারণ বিষয়টি এখনো ভাইরাল হয়নি। আশা করা যায় খুবই দ্রুত ভাইরাল হয়ে যাবে। বর্তমানে কিছু ইউটিউবারদের জন্য সবকিছু নষ্ট হয়ে যাচ্ছে কারণ তারা পরিশ্রম করে ইনকাম করতে চায় না। সবকিছুই ফেইক ভাবে কাজ করে থাকে। তারা মনে করে যদি একদিন এই কোটিপতি হয়ে যেতাম।
আচ্ছা থাক সেসব কথা।
এখন আমরা জানবো ৩ নম্বর কাজটি আসলে কি।
পিপিএল এর পূর্ণরূপ হল: ( পে-পার লিড)।
একটিকে আমরা অন্যভাবে বলতে পারি: পিপিএস। যার পূর্ণরূপ হল: (পে-পার সাইনআপ।)
মূলত দুইটি একই নাম এবং একই কাজ যেহেতু নাম একটি কাজো একটি।

=> পরিচিতি:

বর্তমানে অনলাইনে বিভিন্ন কোম্পানি আছে যারা বিভিন্ন ধরনের প্রডাক্টের বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকে তাদের সেল বৃদ্ধি করার জন্য। কিন্তু এই বিজ্ঞাপনটি একটু ভিন্নরূপে তারা দিয়ে থাকে। এই বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে কোম্পানি টার্গেটিং ট্রাফিক কে নিয়ে আসে যা ১০০% এর ভিতরে ৮০% এর উপরে প্রডাক্ট সেল হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এই বিজ্ঞাপনটি মূলত একজন ওয়ার্কার বিভিন্নভাবে মার্কেটিং করতে পারবে। যেমন ইউটিউব, ওয়েবসাইট এবং কি বিভিন্ন ধরনের ফ্রী এবং পেইড টুলস ব্যবহার করে মার্কেটিং করতে পারবে। এই বিজ্ঞাপনটি একজন ওয়ার্কার চাইলে ব্যানারের হিসেবেও ব্যবহার করতে পারবে। আর একজন ইউটিউবার এ বিজ্ঞাপনটি লিংক ভিডিও ডেসক্রিপশনে দিয়ে অফারটি প্রমোট করতে পারবে। সবথেকে ভালো হয় একজন ইউটিউবার যে প্রোডাক্ট নিয়ে বা যেই অফারটি নিয়ে কাজ করবে সেই প্রোডাক্ট নিয়ে একটি ৩০-৪০ সেকেন্ডের বা ১ মিনিটের একটি ভিডিও তৈরি করে ইউটিউবে আপলোড করবে আর ট্রাফিক রা যখন ভিডিওটি দেখবে তখন তারা আগ্রহের সাথে ডিসক্রিপশন এ থাকা লিঙ্কটিতে ক্লিক করবে। সবথেকে ভালো হয় বুষ্টের মাধ্যমে অফারটি প্রমোট করা।
সব থেকে মজার বিষয় হলো কিছু কিছু অফার আছে যেগুলো যে কোন দেশে সাপোর্ট করবে। আর সেগুলো অফার নিয়ে কাজ করাটাই উত্তম। আর হ্যাঁ অবশ্যই অর্গানিক চ্যানেল বা সাইট লাগবে। তা না হলে ট্রাফিক আমরা পাব কোথায়। আর যারা বুষ্ট এর মাধ্যমে কাজ করবে তাদের তো কোন কথাই নেই।
একজন ট্রাফিক যখন এই বিজ্ঞাপনটিতে ক্লিক করবে তখন তখন রি ডাইরেক্ট হয়ে একটি পেজ ওপেন হবে এবং সেই পেইজে একটি ফর্ম সিস্টেম বা সাইনআপ অথবা সার্ভে সিস্টেমে ওপেন হবে। আর সেই ট্রাফিক যদি সাইনআপ বা ফর্মটি পূরণ করে তাহলে একটা অফার প্রমোট হয়ে গেল বা কনভার্শন হয়ে গেল। আর একটা কনভার্শন হলে ০.৫০ ডলার থেকে ৮ ডলার এর উপরে তারা দিয়ে থাকে।
আর এখানে খুব সহজে ট্রাফিক পাওয়া যায়। প্রতিমাসে সর্বনিম্ন ৫০ টি কনভার্শন হলেও আমাদের ইনকাম হয় ২ ডলার করে ধরলেও ২০০ ডলার। যা একজন ছোট ইউটিউবারের ক্ষেত্রে অনেক কিছু হয়ে দাঁড়ায়।
আর তাদের পেমেন্ট দেওয়ার সিস্টেম টি হল সাপ্তাহিক বা 15 দিন বা একমাস।

আর যেসব মাধ্যমে পেমেন্ট নেওয়া যাবে তা হল ব্যাংক, পেপাল, ওয়েব মানি, বিটকয়েন ইত্যাদি।
সর্বনিম্ন পেমেন্ট ১০ ডলার থেকে কোন কোনটাই ৫০ ডলার এবং ১০০ ডলারো হয়ে থাকে।
তো বন্ধুরা আজ এ পর্যন্তই। আশা করি পোস্টটি সবারই ভালো লাগবে। পরবর্তীতে আমরা জানবো কোন কোন মার্কেটপ্লেস থেকে আমরা একাউন্ট করব। আপনাদের সাপোর্ট পেলে পরবর্তী পোস্টটি অবশ্যই করবো। আজ শুধু আপনাদের একটা ধারণা দিলাম। সবাই ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন এবং আমার জন্য দোয়া করুন। ধন্যবাদ সবাইকে।

12 thoughts on "অ্যাডসেন্স ডিজেবল চ্যানেল দিয়ে যেভাবে আমরা অন্য উপায়ে ইনকাম করতে পারি।"

  1. Md Mahabub Khan Author says:
    এগিয়ে যান
    1. Riad Mahmud Contributor Post Creator says:
      Thank you so much vaia😍
  2. Levi Author says:
    সুন্দর পোস্ট।তবে অ্যাডসেন্স না থাকলে সেই চ্যানেল কেউ শুধু ১) প্রোডাক্ট রিভিউ করে (স্পন্সর)।
    ২) প্রোডাক্ট সেল দিয়ে (আফিলিয়েট)।
    ৩) পিপিএল করে (কাস্টমার ধরিয়ে দেওয়া) করে চ্যানেল চালাতে চাইবে না।
    1. Riad Mahmud Contributor Post Creator says:
      আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ ভাইয়া 😍 বর্তমানে অনেকে এভাবে কাজ করে সফল হচ্ছে।
    2. Levi Author says:
      তার চেয়ে অন্য চ্যানেলে কাজ করে অ্যাডসেন্স এপ্রুভাল নিয়ে সেখানে এই কাজ গুলো করলে আরো ভালো হবে।
  3. TAHER Author says:
    But Adsense is Adsense bro 🤩
    1. Riad Mahmud Contributor Post Creator says:
      অবশ্যই অ্যাডসেন্স সব থেকে বেস্ট 😍
    2. TAHER Author says:
      এছাড়া অন্য কিছু এডস সাইট আছে, যেগুলো এডসেন্স এর বিকল্প হিসেবে রাখা যায়।
      তবে ইউটিউব চ্যানেল এর জন্য আপনার পয়েন্ট গুলো ঠিক আছে
    1. Riad Mahmud Contributor Post Creator says:
      অসংখ্য ধন্যবাদ ভাইয়া 😍
  4. Riad Alvin Contributor Post Creator says:
    অসংখ্য ধন্যবাদ ট্রিকবিডি কে আমার পোস্টটি অ্যাপ্রুভ করার জন্য 😍 আশা করি এখন থেকে নিয়মিত ভালো কিছু সবার সাথে শেয়ার করব 😍
  5. Shakib Author says:
    disable channel e kaj korar manosikota kome jay etai main reason of channel dead

Leave a Reply