আপনি কি আপনার ফেসবুক আইডিকে সুরক্ষিত করতে চান?–তাহলে আমার লেখা আজকের আটিকেলটি আপনার জন্য । আপনারা এই আটিকেলটি পড়ে এবং অনুসরণ করে আপনার ফেসবুক আইডিকে অনেকটা সুরক্ষিত করতে পারবেন । আশা করছি আপনারা সম্পূণ আটিকেলটি পড়বেন । ভালো লাগলে লাইক দিবেন ও কমেন্ট করে আপনার মতামত ব্যক্ত করবেন । তো চলুন জেনে নেওয়া যাক ।

বতমানে ফেসবুক আইডিকে হ্যাকারদের থেকে নিরাপদ রাখতে হলে অবশ্যয় আপনাকে নিজ দায়িত্বে কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে । বতমানে হ্যাকারের সংখ্যাও বেড়ে গেছে । তারা অনেক কৌশলে আইডিকে Access করে নিচ্ছে । তারপর তারা কিছু সাধারণ পদক্ষেপ গ্রহণ করছে যার ফলে আপনি আর আইডিকে নিজের দখলে করতে পারছে না । আগে কিছু ফেসবুক বন্ধুদের সাহায্যে এরুপ আইডি ফিরিয়ে আনা যেত । এখন সেটিও বন্ধ করে দিয়েছে ফেসবুক কতৃপক্ষ । তাই এখন আমাদেরকেই ফেসবুক আইডির সুরক্ষা নিশ্চিত করতে হবে ।

আপনার ফেসবুক আইডিকে সুরক্ষিত করতে যে সকল পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন তা নিম্নরুপ ::

১। ফেসবুক আইডিতে জিমেইল যুক্তকরণ ;
২। কঠিন পাসওয়াড দেওয়া;
৩। ২ স্টেপ ভেরিফিকেশন চালু করা;
৪। প্রোফাইল লক করা ;

৫। প্রতিটি লগইনে ইমেইল সিস্টেম ।

এই ৫টি উপায়ে আপনি আপনার ফেসবুক আইডিকে ৯০% সুরক্ষিত রাখতে পারবেন । আর বাকি ১০% ফেসবুক প্রশাসকের হাতে । কারণ তারা চাইলে আপনার কাজকে পযালোচনা করে আপনার ফেসবুক আইডি লক ও ডিলেট করে দিতে পারে । বেশিরভাগ সময় অন্যদের দ্বারা রিপোট খাইলে এরকম হয় । উপরে উল্লিখিত ৫টি পদক্ষেপ সম্পকে যৌক্তিক আলোচনা করা হলো ।

১। ফেসবুক আইডিতে জিমেইল যুক্তকরণ ::

আমাদের বেশিরভাগ মানুষের ফেসবুক আইডিতে জিমেল যুক্ত করা থাকে না । ফলে হ্যাকাররা সহজেই নিজেদের দখলে নিতে পারে । জিমেইল আইডি যুক্ত করার মাধ্যমে আপনার আইডি শতকরা ৫০% সুরক্ষিত হলো । তাই আমাদের যাদের আইডিতে জিমেইল যুক্ত নেই তারা জিমেইল যুক্ত করে ফেলুন । তবে যেকোন জিমেইল যুক্ত করবেন না । চালু আছে ও আপনার ফোনে লগ ইন করা আছে এরুপ জিমেইল যুক্ত করুন । আর যুক্ত করার পর অবশ্যই তা ভেরিফাই করে নিবেন ।

২। কঠিন পাসওয়াড দেওয়া ::

আমাদের বেশিরভাগ মানুষের ফেসবুক আইডিতে সহজ পাসওয়াড দেওয়া থাকে । এই অভ্যাস পরিহার করতে হবে । তবে এমন পাসওয়াডও দেওয়া যাবে না যা মনে রাখা কঠিন । পাসওয়াডের ভিতরে বিরামচিহ্ন ব্যবহার করুন । একটি আদশ পাসওয়াডের উদাহরণ নিচে দেওয়া হলো :
[email protected],is%Muhit

৩। ২-স্টেপ ভেরিফিকেশন চালু করা ::

~~ হ্যাকাররা যদি আপনার একাউন্টে প্রবেশ করে এবং আইডিতে ২-স্টেপ ভেরিফিকেশন চালু থাকে তবে হ্যাকারদের আইডি Access করতে প্রচুর সময় লাগে । আর এই প্রচুর সময়ের মধ্যে আপনার ফেসবুক আইডির পাসওয়াড পরিবতন করা এবং অন্য সকল ডিভাইস থেকে আইডি লগ আউট করা সহ অন্যান্য পদক্ষেপ গ্রহণ করে আইডিকে রক্ষা করতে পারবেন ।

৪। প্রোফাইল লক করা ::

প্রোফাইল লক করার অনেক সুবিধা রয়েছে । হ্যাকাররা আপনার প্রোফাইল থেকে অনেক গুরুত্বপূণ তথ্য পেয়ে থাকে । প্রোফাইল লক করার ফলে অন্য কেউ সে সকল তথ্য আর পায় না । ফলে আইডি Access করতে পারে না । প্রোফাইল লক না করেও আপনার কিছু তথ্যকে Privacy কে Only me হিসেবে লুকিয়ে রাখতে পারেন যার ফলে তথ্যগুলো আপনি ব্যতিত অন্য কেউ দেখতে পারবে না । যে সকল তথ্য আপনি লুকিয়ে রাখবেন সেগুলো হলো :: মোবাইল নম্বর, জন্মদিন, ইমেইল ইত্যাদি ।

৫। প্রতিটি লগইনে ইমেইল সিস্টেম ::

এই পদ্ধতিতে আপনার আইডি লগইনের চেষ্টা করলেই আপনার যুক্ত করা জিমেইল একাউন্টে ইমেইল চলে যাবে । আইডিকে রক্ষা করার এটি একটি উৎকৃষ্ট উপায় ।

আজ আমার পক্ষ থেকে এগুলোই ছিল । সবাইকে ধন্যবাদ ।

Leave a Reply