আসসালামু আলাইকুম সবাই কেমন আছেন…..? আশা করি সবাই ভালো আছেন । আমি আল্লাহর রহমতে ভালোই আছি ।আসলে কেউ ভালো না থাকলে TrickBD তে ভিজিট করেনা ।তাই আপনাকে TrickBD তে আসার জন্য ধন্যবাদ ।ভালো কিছু জানতে সবাই TrickBD এর সাথেই থাকুন ।

আপনি কি জীবন নিয়ে অতিষ্ঠ।আত্নহত্যা করার চিন্তা করছেন তাহলে আপনার জন্য এই আর্টিকেল।


আমরা জীবনে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হই। মাঝে মাঝে আমাদের সামনে এমন সমস্যা আসে যেটার সমাধান আমরা চিন্তা করে পাইনা। তখন আমাদের মনে হয় এর থেকে উত্তরণের একমাত্র রাস্তা হচ্ছে আত্মহত্যা। আসলে আত্মহত্যা করলে কোন সমস্যার সমাধান হয় না আরো সমস্যা বেশি হয়। আপনি যদি আত্মহত্যা করেন তাহলে সারাজীবনের জন্য জাহান্নামে যাবেন। আর যেভাবে আত্মহত্যা করবেন জাহান্নামেও সেভাবে শাস্তি পাবেন।

এখন বর্তমানে আমাদের সমাজে দিকে তাকিয়ে দেখেন আসংখ্যা জনক হারে আত্মহত্যা বাড়ছে। দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে আত্মঘাতী লাশের মিছিল। বেড়ে চলছে কান্নার শব্দ। পরিসংখ্যানে দেখা গেছে বাংলাদেশে প্রতিদিন গড়ে ২৮ জন মানুষ আত্মহত্যা করে। বছরে ১০ হাজার মানুষ আত্মঘাতী হয়। আল্লাহ সুবহানাহুওয়া তা’আলার দেওয়া সবচেয়ে বড় নেয়ামত হল জীবন অথচ বছরে আমাদের মাঝ থেকে ১০ হাজার মানুষ নিজের জীবনকে নষ্ট করে দিচ্ছে। কিন্তু কেন।

মিডিয়া এবং সমাজের প্রগতিশীল সুশীলরা ক্রমাগত আমাদের বোঝাচ্ছে পশ্চিমের অনুকরণ এর মাঝেই আছে সফলতা। যদি সব দিক দিয়েই আমরা নিজেদের পশ্চিমা বিশ্বের অনুসারী বানিয়ে তুলতে পারি তাহলেই আমরা উন্নত হব, সফল হব, জীবনের সুখ খুঁজে পাবো। আর আমরা বিশ্বাস করে নিয়ে চোখ বন্ধ করে পশ্চিমাদের অনুকরণে ঝাঁপিয়ে পড়েছি। একবারও চিন্তা করছিনা আসলেই আমরা কি পাচ্ছি।

কিসের পেছনে ছুটছি হাঁ এ কথা সত্য যে পশ্চিমা বিশ্ব অনেক দিক দিয়ে আমাদের চেয়ে অনেক বেশি উন্নত। কিন্তু পাশাপাশি এটাও সত্য যে পৃথিবীতে আত্মহত্যার হার সবচেয়ে বেশি এই পশ্চিমা বিশ্বে। কারণ পশ্চিমা বিশ্ব মানুষের জীবনকে সহজ করেছে, জাঁকজমকপূর্ণ করেছে, চাকচিক্যময় করেছে কিন্তু জীবনের অর্থ কি এই প্রশ্নের জবাব দিতে পারেনি। পশ্চিমা সভ্যতা সবকিছুর উপরে স্থান দিয়েছে ভোগকে, অর্থকে, শারীরিক সুখকে আজ তাদের মিডিয়ার মাধ্যমে তারা এই মন্তকে আমাদের মাথায় ঢুকিয়ে দিচ্ছে।

অর্থ-সম্পদ, খ্যাতি, যৌনতার মধ্যে সাফল্য। কিন্তু এই ভোগবাদী সভ্যতা জীবনকে অর্থ দিতে পারছে না। এসব কিছু পাবার পরও তাই পশ্চিমের মানুষ হতাশায় ভুগছে। জীবন তাদের কাছে অসহনীয় মনে হচ্ছে। তারা আত্মঘাতী হচ্ছে আর যেহেতু আমরা পশ্চিমের অন্ধ অনুকরণে মেতে উঠেছি। তাই এর প্রভাব আমাদের উপরে পড়েছে। চিন্তা করে দেখুন আমাদের তরুণ সমাজের কাছে জীবনের অর্থ কি প্রেম,আড্ডা, গান, ক্যারিয়ার, সিনেমা পশ্চিমা মিডিয়ার মতো আমাদের ভিডিও গুলো আমাদের এই মেসেজ দিচ্ছে।

এসবের মধ্যেই জীবনের সাফল্য নিহিত। মোবাইল কোম্পানিগুলো সুরে সুরে আমাদের শিখিয়ে দিয়েছে বন্ধু ছাড়া লাইফ ইম্পসিবল। বাঁধভাঙ্গা আর সীমানা পেরিয়ে হারিয়ে যাবার সবক দিচ্ছে। এগুলোর ফলাফল কি আমাদের সমাজে বাড়ছে অনৈতিক সম্পর্ক, বাড়ছে ডিভোর্স, হতাশা, মাদকাসক্তি গর্ভের সন্তান হত্যা ও নানা অপরাধ। যাদেরকে এই ভাবেই সভ্যতা সাফল্যের দৃষ্টান্ত হিসেবে তুলে ধরে তাদের মধ্যেই এগুলো সবচেয়ে বেশি হচ্ছে। নিয়ম করে কয়েক মাস পর পর নানা মডেলের আত্মহত্যার খবর আসছে।

আত্মহত্যা করছে উঠতি বয়সের তরুণরা। কারণ এই সমাজ তাদেরকে জীবনের মূল্য বোঝাতে পারছে না। আমাদের সমাজ তাদেরকে জীবনের লক্ষ্য কি তা বলতে পারছেনা। একজন মানুষ তার জীবন যে কতটা মূল্যবান কত বড় নেয়ামত এই সমাজ সেটা ভুলিয়ে দিয়েছে। কারণ জীবনের অর্থ এখন বস্তুকেন্দ্রিক, ভোগকেন্দ্রিক আর শরীরকেন্দ্রিক হয়ে গেছে। এই সমাজ এই পশ্চিমা কালচার আমাদের জীবনের মূল লক্ষ্যকে ভুলিয়ে দিয়েছে আর তাই হতাশা, গ্লানি, বিষন্নতা চেপে বসেছে।

অথচ মানুষের জীবনের লক্ষ্য এগুলো না। আমার প্রিয় ভাই ও বোনেরা আল্লাহ সুবহানু ওয়া তা’আলা আমাদের এসবের জন্য সৃষ্টি করেননি। দুনিয়ার জীবন তো আমাদের মূল জীবনী না। দুনিয়ার এই জীবন হলো গন্তব্যে পৌঁছানোর আগে সফর মাত্র। আল্লাহ তো আমাদের বানিয়েছেন আখেরাতের জন্য। আমাদের মূল জীবন আমাদের জন্য অপেক্ষা করছে। কিন্তু সেই চিরস্থায়ী জীবনকে ভুলে গিয়ে আজ আমরা মেতে আছি ক্ষণিকের মোহ ক্ষণস্থায়ী জীবনে লোভে পড়ে আসীম জীবন উপেক্ষা করছি।

আমার প্রিয় ভাই ও বোনেরা আল্লাহর কালাম স্মরণ করুন। আল্লাহ তায়ালা বলছেন→ তোমরা কি মনে করেছো যে আমি তোমাদেরকে অনর্থক সৃষ্টি করেছি এবং তোমরা আমার দিকে প্রত্যাবর্তিত হবে না। স্মরণ করুন তিনি আমাদের কেন সৃষ্টি করেছেন। তিনি বলছেন →আর আমি মানব জাতি ও জিন জাতিকে শুধুমাত্র আমার ইবাদতের জন্যই সৃষ্টি করেছি।

আর সর্বোপরি স্মরণ করুন আপনার রব কে আপনার মালিক কে। কারণ এই যান্ত্রিক জীবন এই নিরন্তর ছুটে চলা। এই ক্ষণিকের মজ মাস্তি, আনন্দ ফুর্তি আপনার হৃদয়কে প্রশান্ত করবে না। আপনার প্রতিপালককে স্মরণ করুন কারণ একমাত্র তাঁর স্মরণে অন্তর সমূহ প্রশান্তি হয় তার স্মরণে অন্তরসমূহ পরিতৃপ্ত হয়। আজকে এ পর্যন্তই সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবে আল্লাহ হাফেজ।

আপনার ওয়েবসাইটের জন্য আর্টিকেল প্রয়োজন হলে আমার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন ফেসবুকে আমি

How To Create Textnow Account

ফেসবুক রিল মনিটাইজেশন করে উপার্জনের উপায় সমূহ!

8 thoughts on "আপনি কি জীবন নিয়ে অতিষ্ঠ।আত্নহত্যা করার চিন্তা করছেন তাহলে আপনার জন্য এই আর্টিকেল।"

  1. MD Musabbir Kabir Ovi Author says:
    সুন্দর আর্টিকেল
    1. MD Shakib Hasan Author Post Creator says:
      ধন্যবাদ।
    2. MD Musabbir Kabir Ovi Author says:
      আপনাকেও ধন্যবাদ
  2. Levi Author says:
    Suicide isn’t a permanent solution.
    1. MD Shakib Hasan Author Post Creator says:
      হুম।
    1. MD Shakib Hasan Author Post Creator says:
      ধন্যবাদ।
    2. TAHER Author says:
      Welcome 🙂

Leave a Reply