সবাই কেমন আছেন??
আশা করি ভাল আছেন।
ট্রিককবিডির সাথে থাকলে।
ভাল থাকারই কথা।
যাই হোক,
এবার শুরু করা যাক।
আজকে আমরা রুপচর্চা নিয়ে আলোচনা
করব।
রূপচর্চা কেবল মেয়েদেরই বিষয় নয়।
আপনি নারী হোন বা পুরুষ,
একটি সুন্দর
মুখের কদর কিন্তু সর্বত্রই।
আসুন জেনে নিই ত্বক স্থায়ীভাবে ফর্সা হওয়ার।

উপায় রোদে পুড়ে, বৃষ্টিতে ভিজে,শারীরিক অসুস্থতা ইত্যাদি নানান কারণে ত্বক হারিয়ে ফেলে স্বাভাবিক উজ্জ্বলতা।
হয়ে যায় কালচে ও বিবর্ণ।
রং ফর্সাকারী ক্রিমের কদর তাই কমে না কখনোই।
এসব রাসায়নিক পদার্থের মিশ্রণে তৈরি
প্রোডাক্টগুলো ত্বকের নানা ক্ষতি করে থাকে।
আসুন জেনে নিই।প্রাকৃতিক কিছু উপায়ে কীভাবে গায়ের কালো রংকে উজ্জ্বল করা যায়,কীভাবে ফর্সা হওয়া যায়।

♦ ১ টেবিল চামচ গুঁড়ো দুধ, ১ টেবিল
চামচ মধু, ১টেবিল চামচ লেবুর রস এবং আধা টেবিল চামচ বাদামের তেল ভালো ভাবে মিশিয়ে মুখে ১০-১৫ মিনিট লাগিয়ে রাখুন।
তারপর পরিষ্কার করুন। এই প্যাকটি মুখে উজ্জ্বলতা আনবে আর রোদে পোড়া ভাব দূর করবে।

♦ বেসন, দুধ ২ চা চামচ এবং লেবুর রসের মিশ্রণ মুখে,গলায় লাগিয়ে ১৫ মিনিট পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
সপ্তাহে ২ বার এটা লাগান, আপনার গায়ের রঙ অবশ্যই উজ্জ্বল হবে।

♦ আপনার যদি টমেটোতে অ্যালার্জি না থেকে থাকে তাহলে কয়েক ফোঁটা লেবুর রসের সাথে টমেটোর ক্বাথ মিশিয়ে মুখে এবং গলায় ব্যবহার করুন।
ফর্সা ত্বকের জন্য আর ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

♦ আধা কাপ চায়ের লিকার(ঠাণ্ডা),২ চামচ চালের গুঁড়ো, আধা চামচ মধু মিশিয়ে মুখে লাগান।
চালের গুঁড়ো স্ক্রাবার হিসেবে কাজ করবে আর মধু মুখের আর্দ্রতা বজায় রাখবে।

♦ শশার রস আর মধু সমান পরিমাণ নিয়ে ১৫ মিনিট মুখে লাগিয়ে রাখুন।
এটি শুষ্ক ত্বকের জন্য অনেক উপকারী।

তৈলাক্ত ত্বকে মধুর বদলে লেবু ব্যবহার করতে হবে।

♦ সপ্তাহে একবার পাকা কলা চটকিয়ে মুখে লাগান আর ৩/৪ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।
মুখে লুকিয়ে থাকা সব ময়লা দূর হবে।

আজ এ পর্যন্তই।
সবাই ভাল থাকবেন।সুস্থ থাকবেন। 🙂

One thought on "জেনে নিন স্থায়ীভাবে ফর্সা হওয়ার সেরা ৬টি টিপস!"

  1. Sajadul Islam Sajadul Islam Contributor says:
    Vai modhu to sonar horin.
    Pawao jay na abar pele dam o onek.


Leave a Reply