ব্যবসা হলো এমন একটি ইনকামের জায়গা, যেখানে আপনি যদি সঠিকভাবে কাজ করেন তাহলে কম সময়ে আপনি ভালো আয় করতে পারবেন। আপনি যদি সঠিক নিয়ম মেনে ব্যবসা শুরু করেন, তাহলে অবশ্যই আপনি সেটাতে সফল হবেন, ইনশাআল্লাহ।

তবে আমাদের অনেকেরই যেহেতু প্রথম অবস্থায় ব্যাবসায়িক পুঁজি কম থাকে, তাই আজকের পোস্ট এর মাধ্যমে আপনাদের মাঝে কম টাকার (আনুমানিক ৫ থেকে ১০ হাজার টাকা) মধ্যে কিছু ব্যবসায়িক আইডিয়া শেয়ার করব। চলুন শুরু করি…

• হোম-গ্রোন বেকারি:
আমাদের দেশে জনপ্রিয় একটি সকালের নাস্তা হলো পাউরুটি, কুকি অথবা স্ন্যাকস। আপনি চাইলে কম খরচে আপনার নিজের বাসার মধ্যে থেকে, পাউরুটি এবং কুকি তৈরি করে সেগুলো সেল দিতে পারবেন।

এছাড়া আমাদের দেশে প্রতিটি গলি গলিতে চায়ের দোকান আছে, আপনি চাইলে সেখানেও আপনার তৈরীকৃত পাউরুটি কিংবা কুকি বিক্রি করতে পারবেন। এগুলো বিক্রি করে আপনি আপনার ব্যবসাকে আরো প্রসারিত করতে পারবেন।

• সুগন্ধি তৈরির ব্যবসা:
বর্তমান বাজারে অনেক কেমিক্যালযুক্ত সুগন্ধি পাওয়া যায়, যেগুলো মানুষের শরীরের জন্য ক্ষতিকর। আপনি চাইলে আপনার বাসার মধ্যে কম খরচে বিভিন্ন গাছের ফুল, ডালপালা ইত্যাদি ব্যবহার করে সুগন্ধি তৈরি করতে পারেন।

বর্তমানে অর্গানিক সুগন্ধির চাহিদা দিন দিন বেড়েই চলেছে। আপনি চাইলে সেগুলো আপনার বাসায় তৈরি করে আপনার এলাকার মধ্যে ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

• আয়রনিং বা ইস্ত্রির ব্যবসা:
বর্তমানে বেশিরভাগ মানুষের কাছে সময় হয় না, যার কারণে তারা নিজের পোষাক নিজেই ইস্ত্রি করতে পারে না। যার ফলে তারা বিভিন্ন দোকানে তাদের পোশাক ইস্ত্রির জন্য দেয়।

আপনি চাইলে কম খরচে একটি আয়রনিং বা ইস্ত্রির ব্যবসা করতে পারেন। এই ব্যবসায় খরচ অনেকটাই কম। আপনি আপনার এলাকার মধ্যে থেকেই এই ব্যবসা করতে পারবেন।

• পরিবেশবান্ধব কাগজের ব্যাগ তৈরি:
বর্তমানে আগের তুলনায় পলিথিনের ব্যবহার অনেকটাই কমে গেছে। আপনি চাইলে আপনার বাসায় খুব কম খরচে পরিবেশবান্ধব ব্যাগ তৈরি বিক্রি করে,‌ সেটা বিভিন্ন দোকানে হোলসেলে বিক্রি করতে পারবেন।

এছাড়া আপনি যদি পরিবেশবান্ধব ব্যাগ তৈরি করার একটি মেশিন কিনেন, তাহলে আপনি একদিনে প্রচুর পরিমাণে ব্যাগ তৈরি করতে পারবেন। এতে করে আপনার ব্যবসার প্রসার আরো বৃদ্ধি পাবে। আপনি চাইলে অনলাইনের মাধ্যমে হোলসেল এর অর্ডার নিয়ে এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

• সেলাইয়ের ব্যবসা:
আপনি চাইলে কম খরচে শুধুমাত্র একটি সেলাই মেশিন কিনে, বিভিন্ন ধরনের মানুষের পোশাক সেলাই অথবা বাসার পর্দা সেলাই এর মাধ্যমে ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

পরে যখন আপনার মূলধন বাড়বে, তখন আপনি চাইলে আপনার ব্যবসাকে বড় পরিসরে গার্মেন্টস সেক্টরে ও নিয়ে যেতে পারবেন।

• ঘর সাজ-সজ্জার ব্যবসা:
বর্তমানে বেশিরভাগ মানুষ তাদের ঘরকে সাজিয়ে রাখতে ভালবাসে। আপনি চাইলে মোটামুটি কম পুঁজিতে স্বল্প পরিসরে ঘরের সাজসজ্জা সরঞ্জামের ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

পরবর্তীতে যখন আপনার মূলধন পারবে তখন আপনি এই ব্যবসা বড় পরিসরে বাড়াতে পারবেন। আপনি চাইলে আপনার এলাকার মধ্যেও এ ব্যবসা করতে পারেন, অথবা বর্তমানে অনলাইনের মাধ্যমেও এ ব্যবসা করা সম্ভব।

• আয়ুর্বেদিক ওষুধের ব্যবসা:
আপনি চাইলে বিভিন্ন দেশ থেকে আয়ুর্বেদিক ওষুধ আমিয়ে অথবা বিভিন্ন ব্যক্তির সাথে যোগাযোগ করে সেগুলো বিক্রি করে ব্যবসা করতে পারেন।

তবে মনে রাখবেন, আপনার বিক্রিকৃত আয়ুর্বেদিক ওষুধ গুলো যেন সঠিক হয়।

• হ্যান্ডিক্রাফট এর দোকান:
অনেক মানুষ হাতে তৈরি জিনিসপত্র বেশি পছন্দ করে। আপনি চাইলে হাতের তৈরি জিনিসপত্র নিয়ে ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

আপনার মূলধন যদি কম থাকে সেক্ষেত্রে স্বল্প পরিসরের প্রথমে সে ব্যবসা শুরু করুন, পরে যখন মূলধন বাড়বে তখন আপনার ব্যবসা ও বাড়াতে পারবেন।

আমি আজকের পোস্টের মাধ্যমে আপনাদের কম টাকায় ব্যবসা শুরু করার জন্য কিছু আইডিয়া শেয়ার করলাম। আশা করি পোস্টটি আপনাদের কাজে আসবে।

সবাই ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন। আল্লাহ হাফেজ।

 

অনলাইন ইনকাম কি? কিভাবে অনলাইন ইনকাম করা যায়

ভার্চুয়াল Ram (Virtual Ram) কি? ভার্চুয়াল Ram এর সুবিধা এবং অসুবিধা What is virtual Ram in Bangla

Leave a Reply