অনেক দেরি হয়ে গিয়েছে, ক্লাস ধরতে পারবো কিনা এজন্য অনেক অস্থির ছিলাম। attendance চলে গেলে ক্লাসে যাওয়া আমার কাছেও অর্থহীন মনেহয়। তাড়াতাড়ি বের হয়ে রাস্তার পাশে লেগুনার জন্য দাঁড়ালাম। লেগুনায় কোন জায়গা ছিলনা। সকাল বেলা হওয়ায় লেগুনা চলাচলের সংখ্যাও কম ছিল। বাধ্য হয়েই রিক্সা দেখা শুরু করলাম। কম বয়সি এক রিক্সাওয়ালা আমার সামনে এসে জিজ্ঞেস করল “ভাই কই যাবেন?” আমি বললাম, নীলক্ষেত মোড়, চিন নাকি? বলল, ভাই আমি চিনি না তবে আপনি বলে দিলে যেতে পারবো।

তো যাওয়ার পথে জিজ্ঞেস করলাম, আপনার বাড়ী কই? দীর্ঘ উত্তর বের হয়ে আসল যে কথাটি-ভাই, আমার বাড়ি বগুড়া; ৪ দিনের জন্য ঢাকায় আসছি। আবার চলে যাবো।

আমি আবার প্রশ্ন করলাম, এত অল্প সময়ের জন্য আসার অর্থ কি?
বলল, ভাই আমি বগুরা শাহ সুলতান কলেজের একাউন্টিং ১ম বর্ষের ছাত্র। টাকার অভাবে বই-পত্র কিনতে পারতেছিনা। এইচ,এস,সি দিয়েছি অনলাইনে পরাশুনা করে। তাছাড়া আমার পরিবারে দুই ছোট ভাই-বোন রয়েছে তাদের পরাশুনার খরচ আমি কষ্ট করে উপার্জন করে দেই। ঢাকা শহরে ৪-৫ দিন রিক্সা টেনে যা টাকা হবে তা নিয়ে বই-পত্র কিনবো।

আসলেই জীবনের আরেক নাম সংগ্রাম। সোনার চামচ নিয়ে যারা জন্মেছে তারা ছাড়া সবাই সংগ্রাম করে বাচতে হয় এই পুঁজিবাদী দুনিয়ায়।

7 thoughts on "শিক্ষিত রিকসাওয়ালা!!"

  1. AR mahmud812150 Contributor says:
    good. thanks for share
  2. Hasib Contributor says:
    এটাই মূলত সংগ্রাম

Leave a Reply