আসসালামু আলাইকুম। সুপ্রিয় ট্রিকবিডি সাইটের সকলকে সালাম ও শুভেচ্ছা। আমার আজকের টিউনের উদ্দেশ্য যারা বিটকয়েন আয় করছেন তারা তাদের আয়কে বাড়ানো আর যারা এখনও চেষ্টা করেননি তারা একবার চেষ্টা করে প্রমাণ নিজের চোখে দেখতে পারেন।
বিট কয়েন বর্তমান কারেন্সি এর একটি আলচিত বিষয়। পৃথিবীতে সবচেয়ে দামী কারেন্সি হচ্ছে এই বিট কয়েন। বিট কয়েন নিয়ে কিছু ধারনা নিচে দেয়া হল।
বিট কয়েন কি?
বিট কয়েন হল একটি অনলাইনকারেন্সি সিস্টেমের মুদ্রা। এই কারেন্সি সিস্টেম কে ক্রিপ্টোকারেন্সি বলে।একে দেখা অথবা ছোঁয়া যায় না। এটি তৈরি হয় অনলাইন এ , এবং ব্যবহারিতও হয়অনলাইন এ ডিজিটাল মাধ্যমে। বিটকয়েন পুরোপুরি আমাদের দ্বারাই নিয়ন্ত্রিত, এটি কোন প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তি দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয় না। আপনি নিজেই অনলাইনথেকে এটি রোজগার করতে পারবেন।
বিটকয়েন সম্পর্কিত কিছু এককঃ
1 uBTC = 0.000001 BTC
1 mBTC = 0.001 BTC
1 satoshi = 0.00000001 BTC
বিটকয়েন কি এবং শুরু তা কিভাবে করবেন এই নিয়ে ট্রিকবিডিতে আগে অনেকগুলো টিউন করেছি তাই আই নিয়ে আর নতুন করে কিছু লিখলাম না। যারা একদম নতুন তারা আগের টিউন দেখে শুরুটা করে নিবেন।

শুরুতে আপনার কয়েনবেইজ একাউন্টের ৩৪ বর্ণের ঠিকানা একাউন্টে লগইন করে Wallet address এ ক্লিক করে নিয়ে নিবেন।

বিটকয়েন আর্নিং
বিটকয়েন আর্নিং এর কয়টি মাধ্যম আমি জানি তা হল, মাইনিং (mining) এবং কল (faucets)
মাইনিং এ আপনার নির্দিষ্ট একটি বিটকয়েনের অংশ আপনাকে ইউজ করতে হবে। বর্তমানে এটি অনেক হার্ড একটি প্রসেস বিটকয়েন আর্ন করার জন্য।

আরদ্বিতীয় টি হল সবচেয়ে সহজলভ্য উপায় যা বর্তমানে আমাদের মত ইউজার কেবিনামুল্যে বিটকয়েন আর্ন করার সুযোগ দেয়। তবে এটি কতদিন থাকবে তা বলামুশকিল।

এইবার আসি কিভাবে ফ্রীতে বিটকয়েন আয় করবেন। বিটকয়েন ফ্রীতে আয় করার জন্য প্রায় ২০০০ এর উপর সাইট রয়েছে। যারা তাদের ওয়েবসাইটএ ভিসিট করে কেপচা পূরণ করার জন্য বিটকয়েন প্রদান করে থাকে। এটা সাধারণত ১০০-১০০০০০ সাতোশি প্রদান করে থাকে। এখানে বলে রাখা প্রয়োজন যে বিটকয়েনের একক সাতোশি নামে পরিচিত। একটি ওয়েবসাইট এ কেপচা পূরণ করে অল্প কিছু আয় করা যায়। আর তাই যত বেশি ওয়েবসাইট এ কাজ করবেন আয় তত বাড়বে। আজ আমি আপনাদের আইরকম কয়েকটি সাইট এর সাথে পরিচয় করিয়ে দিব যারা নিয়মিত payment করে থাকে।

১. FastBTC

এই ওয়েবসাইটি প্রতি ৪ মিনিট পর পর কেপচা পূরণ করার জন্য সর্বনিম্ন ৫০০ সাতোশি ইনস্ট্যান্ট faucetbox এ প্রদান করে।

২. Rolling Faucet

এই ওয়েবসাইটি প্রতি ৫ মিনিট পর পর কেপচা পূরণ করার জন্য সর্বনিম্ন ১০০ থেকে ১২০০০ সাতোশি পর্যন্ত ইনস্ট্যান্ট faucetbox এ প্রদান করে।

৩. Green Bitco

এই ওয়েবসাইটি প্রতি ১৫ মিনিট পর পর কেপচা পূরণ করার জন্য সর্বনিম্ন ৪০০ থেকে ২০০০০ সাতোশি পর্যন্ত ইনস্ট্যান্ট faucetbox এ প্রদান করে।

৪. Bitcoinker

এই ওয়েবসাইটি প্রতি ১৫ মিনিট পর পর কেপচা পূরণ করার জন্য ২৫০ সাতোশি ইনস্ট্যান্ট faucetbox এ প্রদান করে।

৫. Destiny BTC

এই ওয়েবসাইটি প্রতি ৬০ মিনিট পর পর কেপচা পূরণ করার জন্য সর্বনিম্ন ৪০০ থেকে ২০০০০ সাতোশি পর্যন্ত ইনস্ট্যান্ট faucetbox এ প্রদান করে। এই ওয়েবসাইটতির আর একটি বিশেষ আকর্ষণ হল প্রত্যেকবার এ এরা বোনাস প্রদান করে থাকে।

৬. We Love Bitcoin

এই ওয়েবসাইটি প্রতি ৬০ মিনিট পর পর কেপচা পূরণ করার জন্য সর্বনিম্ন ৫০০ থেকে ১০০০০ সাতোশি পর্যন্ত ইনস্ট্যান্ট faucetbox এ প্রদান করে।
৭. http://freebitco.inএইসাইট সম্পর্কে আগে ট্রিক বিডি তে টিউন দেওয়া হয়েছে। এটি একটি Faucet জাতীয় সাইট। এখান থেকে আপনাকে প্রতি ঘন্টায় একটি করে ক্যাপচা দেওয়াহবে। ক্যাপচা ঠিকঠাক মত পুরন করলে আপনি সাইটে রেজিস্ট্রেশন এর সময় স্রেফআপনার বিটকয়েন অ্যাড্রেস লাগবে। এখানে আপনি প্রতিবার ক্যাপচা পুরন করলেফ্রি প্লে তে বিটকয়েন আর্ন করতে পারবেন।
এছাড়া অন্যান্য উপায়ে কয়েন বৃদ্ধি করতে পারবেন, তবে এখন সুধুমাত্র ফ্রিপ্লে করাই ভাল এখান থেকে আপনি 54.6 ubtc হলে কয়েন উইথড্র করতে পারবেন।আর কয়েন উইথড্র করলে কয়েন সরাসরি আপনার coinbase অ্যাকাউন্ট এ যুক্ত হবে।

৮. FAUCET.BITCOINZEBRA.COM


এইসাইট টি আর একটি FAUCET ভিত্তিক সাইট ।এখান থেকেও আপনি কোন পরিশ্রম ছাড়াপ্রতি ঘণ্টায় ক্যাপচা পুরন করে বিটকয়েন আর্ন করতে পারবেন। তবে এই সাইট টিএকটু মজার। এখানে রেজিস্ট্রেশন বলতে কিছু নেই। আপনাকে স্রেফ আপনার বিটকয়েনঅ্যাড্রেস দিয়ে জেব্রা কে খাবার খাওয়াতে হবে। হে হে, অবাক হলেন ? কিন্তুব্যপারটা আসলে ওরকম ই। স্ক্রিনশট দেখলে ব্যাপারটা ক্লিয়ার হবে। আর এখানেবিটকয়েন SATOSHI তে আর্ন হবে। একবার জেব্রা কে খাওয়ালে 100-1000 SATOSHI আর্ন করতে পারবেন।মানে প্রতি দিনে সর্বোচ্চ 24000 SATOSHI আর্ন করা সম্ভব।আর এখান থেকে সপ্তাহের প্রতি রবিবার বিটকয়েন আপনার COINBASE অ্যাকাউন্ট এযুক্ত হবে, যদি আপনার বিটকয়েন 5500 SATOSHI হয়।এটি একটি প্রুভড সাইট।

৯. http://www.bitcoinaliens.com/


এই সাইট টা সবচেয়ে বেশি পে করে। এইটা একটি FAUCET সাইট। এখানে এলিয়েন মারতে হয়। প্রতি ৫ মিনিট এ একটা করে কেপচা আসে। ২০০০০ সিতসি হলে আপনি কয়েন তুলতে পারবেন।

১০. http://moonbit.co.in/

এটি একটি Faucet জাতীয় সাইট। এককথায় এই সাইট এ কোন কষ্ট ছারা ই ইনকাম করা যায় প্রতি ১৫ সেকেন্ড এ ১ সিতসি 1 satoshi দেয়। শুধু আপনার বিট কয়েন এড্রেস দিয়ে অ্যাকাউন্ট করতে হবে। ৫৫০০ সিতসি হলে আপনি কয়েন তুলতে পারবেন।

১১. http://www.clixkid.com/


এটি একটি পিটিসি সাইট। এখানে বিট কয়েন এর মাধ্যমে টাকা তুলতে পারবেন। সবচে বেশি পেমেন্ট পাবেন। রেফারেল রেন্ট এবং কেনা যায়।

১২.Coinad.com


এটিএকটি বিটকয়েন ভিত্তিক পিটিসি সাইট।অন্যান্য পিটিসি সাইটের মত এখানেও আপনিঅ্যাড ক্লিক করে বিটকয়েন আর্ন করতে পারবেন। রেজিস্ট্রেসনের জন্য আপনাকেআপনার বিটকয়েন অ্যাড্রেস দিতে হবে। এর জন্য মিনিমাম ক্যাশ আউট লিমিট 0.15 mBTC.

১৩. http://btcclicks.com


এটিওএকটি পিটিসি সাইট বিটকয়েনের জন্য। এখানকার উইথড্র লিমিট 0.001 BTC. এখানেপ্রচুর পরিমানে অ্যাড থাকে। আর আপনি রেফারাল রেন্ট করতে পারবেন।

১৪. Get Free Bitcoin

এই ওয়েবসাইটি প্রতি ৯০ মিনিট পর পর কেপচা পূরণ করার জন্য সর্বনিম্ন ৯০০ সাতোশি ইনস্ট্যান্ট faucetbox এ প্রদান করে।

১৫. Claim Bit

এই ওয়েবসাইটি প্রতি ১২০ মিনিট পর পর কেপচা পূরণ করার জন্য সর্বনিম্ন ৭৫০ সাতোশি ইনস্ট্যান্ট faucetbox এ প্রদান করে।

১৬. Love Bitcoin

এই ওয়েবসাইটি প্রতি ১২০ মিনিট পর পর কেপচা পূরণ করার জন্য সর্বনিম্ন ৭৫০ সাতোশি ইনস্ট্যান্ট faucetbox এ প্রদান করে।

Faucetbox থেকে কয়েন আপনার coinbase অ্যাকাউন্ট এ ১৩০০০ সাতসি হলে ২৪ ঘণ্টা এর মধ্যে অটো চলে যাবে।

এবার আসি কিভাবে কাজ না করে ইনকাম করবেন।
আপনি যদি মনে করেন বিট কয়েন দিয়ে ইনকাম করে আপনার অনেক টাকা ইনকাম হবে সেটা কিন্তু ভুল এটা শুধু কিছু পার্ট টাইম ইনকাম মাত্র।

বিট কয়েন ইনভেস্টমেন্ট সাইট কি?
বিট কয়েন ইনভেস্টমেন্ট সাইট হলো বিট কয়েন আয় বৃদ্ধি করার অন্যতম কৌশল। অর্থাত এখানে আপনাকে যে কোন পরিমান বিট কয়েন জমা রাখতে হবে যেখানে ঐ সকল সাইট গুলো নিদিষ্ট পরিমান পার ডে হিসাবে লভ্যাংশ দিবে। এই লাভের পরিমান প্রায় ০.৫% হইতে ৩.৫০% পর্যন্ত হতে পারে। এখানে এমন কিছু সাইট আছে যেখানে আপনি প্রতিদিনের লাভ প্রতিদিনে উইথড্র করতে পারবেন।

কত পরিমান বিট কয়েন ইনভেস্টমেন্ট করবেন?

আসলে যে সকল সাইটে এরুপ ধরা বাধা নিয়ম নাই সেখানে আপনি যে কোন পরিমাণ বিট কয়েন ডিপোজিত করতে পারবেন। তবে আমার পরামর্শ হল এখানে আপনি প্রতিবার ২ ডলার করে করে ডিপোজিত করতে পারেন। যাতে লাভের পরিমনটা উইথড্র করে পূনরায় ২ ডলার যোগ করতে পারেন। তবে যতবেশী ডিপোজিত করা যায় ততই লাভ। আমার মনে হয় অত লাভের হিসাব না করে মামুলি লাভ করাটাই ভাল। কথায় আছে না “অতি লোভে তাতিঁ নষ্ট!” সত্যিকার কথা বলতে কি আপনি আজকে যে ইনভেস্টমেন্ট সাইটে বিটিসি ইনভেস্ট করছেন সেটি যদি কোন কারনে তাদের সাইট বন্ধ করে দেই তাহলে যারা বেশী ডিপোজিত করেছেন তাদের কি হবে…!! সুতরাং বুঝতেই পারছেন প্রথমত ২/১ ডলার ডিপোজিত করাটাই বুদিধমানের কাজ। তারপরেও যারা বেশী ডিপোজিত রাখতে চাইবেন সেটি তাদের ব্যক্তিগত ব্যপার।

বিটিসি ইনভেস্টমেন্ট সাইটের কাজের সুবিধাবলী
এখানে একাউন্ট ওপেন/লগইন ব্যতিত তেমন কোন কাজ নাই বললেই চলে।তাছাড়া বিট কয়েন সাইটের মত ঘন্টা/মিনিটে ক্যাপচা পূরন করতে হয়না। তবে বিট কয়েন আয় বৃদ্ধি করতে হলে মূল সাইটের ক্যাপচা পূরন ব্যতিত কোন পন্থা নাই। এখানে যা ইনভেস্ট করবেন তার লাভ প্রতিদিনে/নিদিষ্ট সময়ে পাবেন, ফলে বিনাশ্রমে বিটকয়েন আয় আরেকটু বৃ্দ্ধি করতে পারছেন। তাছাড়া এখানে নিজের পকেটের কোন অর্থ খরচ করতে হচ্ছে না।
কিছু বিটিসি ইনভেস্টমেন্ট সাইটের সাথে পরিচয়
বিট কয়েন সাইটের যে রকম ভূয়া সাইট অাছে, ঠিক তেমনি ইনভেস্টমেন্ট সাইটও ভূয়া থাকে। তাই ভূইফোড় সাইট বাদ দিয়ে এলিট সাইটে কাজ করতে হবে। আমি বেশ কয়েকটি সাইটের ঠিকানা পেয়েছি এবং পরীক্ষা করে ফলাফল পেয়েছি। নিম্নে সাইট গুলোর ঠিকানা

হ্যা এর মধ্যে হয়ত অনেকেই বুঝতে পেরেছেন বিট কয়েন হতে অল্প কিছু হলেও সত্যিকারভাবে আয় করা যায়। কিন্তু এই আয় খুব মামুলি। আসলে বিট কয়েন আয় বৃদ্ধি করার বেশ কয়েকটি পদ্ধতি রয়েছে তাহলো-

১। নিয়মিতভাবে একটু হলেও সেই সব সাইটে কাজ করা করা যেমন প্রতিদিনে ২৪ ঘন্টার মধ্যে অন্তত ৭-৮ বার ক্যাপচা পূরন।

২। একটি বিট কয়েন সাইটের পাশাপাশি আরো কয়কেটি লিগ্যাল বিট কয়েন সাইটে কাজ করা।

৩। বিট কয়েন সাইটে ইনভেস্ট করা। থুক্কু ডোল্যান্সার কিংবা পিটিসি নই যে, আপনার পকেটের টাকা খরচ করতে হবে। এখানে আপনার বিট কয়েন আয়কে অন্য কোন সাইটে ইনভস্টে করবেন যেখানে প্রতিদিনে ১-২.৫ পর্যন্ত লাভ পাবেন। তবে এখানেও স্মরন রাখতে হবে বিট কয়েন সাইটের মত ইনভেস্ট সাইটিও বৈধ হতে হবে।

জ্ঞাতব্য বিষয়
অনেকেরই ব্লগে বিট কয়েন আয়ের প্রায় ডজনখানেক ঠিকানা শেয়ার করতে দেখছি। আমি নিজেও পরীক্ষা করে দেখেছি সেইগুলোর ২/১ টি ব্যতিত সবই ভূয়া। অবশ্য এখানো পর্যবেক্ষনে আছি। যাইহোক লিংক শেয়ার করতে দোষ নাই। কিন্তু ভূয়া ভাবে কাজ করে সবই হবে পন্ডশ্রম। তাই যে কোন সাইটে কাজ করার পূর্বে নিশ্চিত হওয়া কিংবা রিভিউ জেনে নেওয়া ভাল।

বিট কয়েন সাইট হতে বিটিসি ইনভেস্ট করে বিট-কয়েন আয় বৃদ্ধি করুন
উপরের পয়েন্ট অনুযায়ী এটিও একটি অন্যতম পদ্ধতি। মানে আপনি যে বিট কয়েন আয় করছেন সেই বিট কয়েন আয়ের কিছু অংশ বিট কয়েন সাইটে ইনভেস্ট করে আয়কে আরেকটু ধাপে বৃদ্ধি করতে পারবেন। বিট কয়েন আয়ে ইনভেস্টের প্রায় অনেক গুলো সাইট রয়েছে। তবে সকল সাইটের সুবিধা সমান নই, কম-বেশী অসুবিধা আছে।

আমি প্রায় ৩ মাস যাবত বেশ কয়েকটি সাইট পর্যবেক্ষণ করে এমন একটি সাইট পেয়েছি যেখানে আপনি যে কোন পরিমান বিট কয়েন ইনভেস্ট করতে পারবেন। এই সাইটটি খুব অল্প সময়েই জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। কোন ফেক সাইচ নই ১০০% লিগ্যাল।

বিট কয়েন সাইটের যে রকম ভূয়া সাইট অাছে, ঠিক তেমনি ইনভেস্টমেন্ট সাইটও ভূয়া থাকে। তাই ভূইফোড় সাইট বাদ দিয়ে এলিট সাইটে কাজ করতে হবে।

বিটিসি ফেলেক্স:

এই সাইটটি প্রতি ঘন্টাতে ০.১৫% রেটে প্রতিদিনে ৩.৬% পর্যন্ত প্রফিট দিয়ে থাকে। যদিও অন্য সাইট হতে এর রেট অত্যন্ত বেশী যা ভাবনা সৃষ্টি করে। যদিও এখানো সাইটটি সম্পর্কে স্ক্যাম পাওয়া যায়নি। এখানে মিনিমাম ฿0.001 ইনভেস্টমেন্ট করতে পারবেন। আরেকটি ব্যাপার এখানের ডিপোজিতের লাভ উত্তোলন করতে হলে আপনাকে ডিপোজিতের সম পরিমান বিটিসি অর্জন করতে হবে।

এই সাইটে কাজ করতে হলে ফলো করুন এখানে। >রেজি: এ-ক্লিক করুন>

নিম্নরুপ চিত্র আসবে- সেখানে নিজেই যাবতীয় তথ্যাদি পুরন করতে পারবেন।

বি:দ্র: Wallet Address এর স্থানে কয়েন বেইজ সাইটের একাউন্টের ঠিকানা দিবেন। এবং পরিশেষে আপনার ইমেইলটির প্রেরিত লিংকটি ভেরিফাই করবেন।

সারকথা

আলোচনা করতে করতে একদম টিউনের শেষ পর্যায়ে। আশা করি টিউনের আলোচনা অনুযায়ী নিজেই কাজগুলো করতে পারবেন এবং একটু হলেও বিট কয়েন আয়ের পরিমান আরেকটু ধাপে বৃদ্ধি করতে পারবেন। তবে উপরোক্ত সাইটের মধ্য আলোচনা অংশের ১নং সাইটটি ভাল লেগেছে ও কাজ করছি। এই সাইটয়ের অন্যতম বৈশিষ্ট হল এখানে ডিপোজিত করার পর অন্য কোন কাজ করা লাগে না কিংবা একাউন্ট কখনোই ডিজাবল হবে না। তবে কখনোই একের অধিক একাউন্ট ক্রিয়েট না করাটাই শ্রেয়। পরিশেষে আরেকটি নিবেদন, আমি বিট কয়েন আয় নিয়ে যতগুলো টিউন করেছি তা কখনোই ফ্রিল্যান্স আয়ের সমকক্ষ বলে মনে করবেন না! কারন আপনাকে অনলাইনে ভাল আয়ের পথ হিসাবে অবশ্যই ফ্রিল্যান্স (ইল্যান্স, ওডেস্ক, গুরু, ফাইভার) শিখতে হবে ও জানতে হবে। তাই ফ্রিল্যান্স বিষয়ে সত্যিকার অর্থে কাজ করার প্রবল আগ্রহ থাকলে অন্য সকল কাজের পাশাপাশি ফ্রিল্যান্স বিষয়ে জানা ও শেখার পরামর্শ রইল।

3 thoughts on "বিট কয়েন কি এবং কিভাবে বিট কয়েন ইনকাম করবেন (প্রথম ১ সাপ্তাহ কাজ করে পরে কাজ না করে A টু Z প্রচেসস)"

  1. Jackarya Jackarya Contributor says:
    assa vai android phone diye eta kora jabe na ?????


    1. আকরাম রনি Akram Contributor Post Creator says:
      hum jabe android er default browser dia… but pc is the best
  2. Dipta Dash Dipta Dash Contributor says:
    ভাই faucetbox এটা আসলে কি?

Leave a Reply