স্ক্রিনের কাছাকাছি আঙুল নিলেই স্ক্রিনটি চালু হয়ে যাবে। ছবি : বিজনেস ইনসাইডার

মানুষের হাতকে কিবোর্ড থেকে টাচস্ক্রিনে নিয়ে গিয়েছিলেন স্টিভ জবস। তারপর এলো স্মার্টফোন প্রযুক্তি আর ব্যবহারকারীরা অভ্যস্ত হয়ে গেলেন টাচস্ক্রিনের সাথে। এবার এই প্রযুক্তিকে আরো এক ধাপ এগিয়ে নিয়েছে মাইক্রোসফট।

প্রতিষ্ঠানটি নিয়ে এসেছে নতুন এক প্রযুক্তি, যার নাম ‘প্রি-টাচ’। অর্থাৎ স্মার্টফোনে স্ক্রিনে হাত না দিয়েই কাজ করা যাবে এই প্রযুক্তির মাধ্যমে। এ খবর জানিয়েছে বিজনেস ইনসাইডার ডটকম।

স্ক্রিনের কাছাকাছি আঙুল নিলেই স্ক্রিনটি চালু হয়ে যাবে। স্ক্রিনে হাত না দিয়েই তা নিয়ন্ত্রণ করা যাবে। ব্যবহারকারীর হাতের ইশারায় কাজ করবে স্ক্রিন। আবার স্ক্রিনের ওপর থেকে হাত সরিয়ে নিলে মেন্যুও সরে যাবে।

ভিডিও দেখা বা গেম খেলার ক্ষেত্রে ব্যবহারকারী দুই হাতে না, এক হাতে ফোনটি ব্যবহার করছেন তা বুঝে কাজ করবে স্মার্টফোন। মাইক্রোসফটের প্রি-টাচ প্রকল্পের প্রধান গবেষক ক্যান হিংকলে নিজের ব্লগে লিখেছেন, ‘আমার মনে হয় স্মার্টফোনের দুনিয়ায় এই প্রযুক্তি দারুণ সম্ভাবনাময়। মোবাইল ফোনের স্ক্রিনে সেন্সরের ব্যবহারের প্রথম দিককার প্রযুক্তি এটি। সামনে এই প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে মোবাইল প্রযুক্তিকে বদলে দেওয়া সম্ভব হবে।

স্মার্টফোনের জগতে মাইক্রোসফটের উইন্ডোজ ফোন এখনো খুব একটা সুবিধাজনক অবস্থানে নেই। হয়তো প্রি-টাচ প্রযুক্তি উইন্ডোজকে বাকিদের চেয়ে এগিয়ে রাখবে।
এই প্রযুক্তিতে স্ক্রিনটিকে বলা হচ্ছে ‘সেলফ-ক্যাপাসিটিভি টাচ স্ক্রিন’। গুগলও এ ধরনের প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছে। গুগলের এই প্রকল্পের নাম দেওয়া হয়েছে ‘প্রজেক্ট সলি টেকনোলজি’।
তবে মাইক্রোসফট যে গুগলের চেয়ে এগিয়ে রয়েছে সেটা বোঝা যাবে মাইক্রোসফটের একটি ভিডিওতে। সেখানে প্রি-টাচ প্রযুক্তি কীভাবে কাজ করবে তা দেখানো হয়েছে।

One thought on "মাইক্রোসফট নিয়ে আসছে ‘প্রি-টাচ’ প্রযুক্তি"

  1. myhmasum myhmasum Contributor says:
    খুব ভাল হবে, touch ও করতে দেবে না ?

Leave a Reply