দামি ঘড়ির বিষয়টি আসলেই মানুষ এমনিতেই রোলেক্স বা অন্য কোনো পরিচিত ব্র্যান্ডের হাতঘড়ির কথা ভাবেন। হাজার হাজার ডলার মূল্যের ঘড়িগুলো বিশ্বের নামী ব্র্যান্ডের ঘড়ি হিসাবেই সুপরিচিত। কিন্তু এগুলো বিশাল একটি বরফখণ্ডের উপরের অংশমাত্র। এখানে দেখে নিন এই বিশ্বের সবচেয়ে দামি কিছু ঘড়ির অনন্য সংগ্রহ।

১. গ্রিউবেল ফোরসে ডাবল ব্যালান্সিয়ার : ২০১৪ সালে দু্ই মিলিয়ন ডলারের এক অনন্য ঘড়ি প্রস্তুত করেন গ্রিউবেল ফোরস। তবে তার নতুন সংস্করণের দাম কমিয়ে এনেছেন। ডাবল ব্যালান্সিয়ার আ ডিফারেন্সিয়াল কনস্ট্যান্ট-এর মূল্য ৩৫০০০০ ডলার।

২. এমবিঅ্যান্ডএফ স্যাফায়ার ভিশন : এটি একটি হরোলজিক্যাল মেশিন যার দাম ৪ লাখ ডলার। ঘড়িটি একটি উড়ন্ত টার্বিলনসহ ৪৭৫টি যন্ত্রাংশ দিয়ে বানানো হয়েছে।

৩. হ্যারি উইনস্টন হিস্টোরি ডি টার্বিলন ৭ : গুনে গুনে ৬ লাখ ডলার খরচ পড়বে এটি হাতে পেতে। কিছুটা স্পোর্টি লুকিং। ১৮ ক্যারেট গোল্ড. ৮৪টি রত্ন এবং ৫০০টি যন্ত্রাংশ সহযোগে বানানো হয়েছে এই অনন্য ঘড়িটি।

৪. জ্যাকোব অ্যান্ড কোং অ্যাস্ট্রোনমিয়া ক্লারিটি বাগুয়েটে : দামি অলংকার প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান হিসাবে বিখ্যাত জ্যাকোব অ্যান্ড কোং। এদের এই মাস্টারপিস কালেকশনটির মূল্য ৮ লাখ ৪০ হাজার ডলার। স্যাফায়ার কোটেড ক্রিস্টালের মতো স্বচ্ছ এর কেস। এতে আছে সিঙ্গেল ক্যারেটের ২৮৮-ফেসেট ব্লু ডায়মন্ড।


৫. ব্রিগুয়েট ডাবল টার্বিলন বাগুয়েটে ডায়ামন্ডস : হীরকখচিত ঘড়িটি পেতে ৮ লাখ ৪২ হাজার ১৪২ ডলার খরচ করতে হবে। এতে ১০৭টি বাগুয়েতে-কাট ডায়মন্ড জুড়ে দেওয়া হয়েছে। সব মিলিয়ে ৩০ ক্যারেটের হীরা রয়েছে এতে।

৬. হাবলট বিগ ব্যাং : হাবলট তাদের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ১০টি ঘড়ি বানিয়েছে। প্রতিটির মূল্য ১০ লাখ ডলার করে। এগুলো সবগুলো হোয়াইট ডায়মন্ড সংস্করণ। আছে ৪০.০২ ক্যারেটের ৬৫৩টি হীরা।

৭. জায়েগার-লিকাল্ট্রি হাইব্রিস মেকানিকা এ গ্রান্ডি সোনেরি : জায়েগার-লিকাল্ট্রির এই মাস্টারপিস কিনতে ১১ লাখ ৬৫ হাজার ২৬৮ ডলার খরচ করতে হবে। এর ডিজাইনে ১০টি প্যাটেন্ট করা রয়েছে। প্রতি ১৫ মিনিট অন্তর এটি ওয়েস্টমিনিস্টার চাইমস শোনায়।

৮. রিচার্ড মিলে টার্বিলন আরএম ৫৬-০২ : রিচার্ড মিলের স্পেশাল এডিশন ঘড়িটি ২০ লাখ ডলার মূল্যের। মাত্র ১০টি বানানো হয়েছে। স্যাফায়ার কেসিংয়ের ভেতরটা পরিষ্কার দেখা যায়। বেজপ্লেটটি টাইটানিয়ামের।

৯. আ ল্যাঙ্গে অ্যান্ড সোহনে গ্রান্ড কমপ্লিকেশন : ২১ লাখ ৫০ হাজার ৪৯৬ ডলার খরচ করতে হবে। ঘড়িতে আছে ৮৭৬টি যন্ত্রাংশ। এদের জুড়তে একজন মাস্টার টেকনিশিয়ানের কমপক্ষে ১ বছর সময় লেগে যায়। হরোলজিক্যাল ঘড়িটি এ যাবতকালের সবচেয়ে জটিল মডেল এটি। ২০১৩ সালে প্রথম বানানো হয়। প্রতিবছর এক পিস করে তৈরি হয় এটি।

১০. প্যাটেক ফিলিপ গ্র্যান্ডমাস্টার চাইম রেফারেন্স ৬৩০০ : ২২ লাখ ডলার মূল্যের ঘড়ি এটি। আইকনিক গ্র্যান্ডমাস্টার চাইম লাইনের সর্বসাম্প্রতিক ঘড়ি এটি। প্যাটেক ফিলিপের জটিলতম ডিজাইন এটি। আছে দুটো ডায়াল, ৫টি স্ট্রাইকিং চাইম আর ১৫৮০টি যন্ত্রাংশ। এ পর্যন্ত মাত্র ৭টি তৈরি হয়েছে।

১১. গ্রাফট ডায়মন্ডস স্নোফল : এর দাম জানতে নির্মাতার সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে। এই ঘড়ির মূল্য রেকর্ড সৃষ্টি করেন। বিগত কয়েক বছর ধরে এর দাম ৪০ মিলিয়ন বা ৫৫ মিলিয়ন ডলার পর্যন্ত ওঠে। যান্ত্রিকভাবেও এর ডিজাইন অনেক কঠিন। ১৭৮টি হীরকখণ্ড থ্রি-ডি প্রিন্টিং প্রযুক্তির মাধ্যমে ডিজাইন করা হয়।

সূত্র : বিজনেস ইনসাইডার

8 thoughts on "পৃথিবীর সবচেয়ে দামি ১১টি হাতঘড়ি [+Picture]"

  1. Dèv Fáñ Sàgör ( Dévìáñ ) Smart boy Rakibul Author says:
    আমি একটা পোষ্ট করতে চাই কেউ করে দিবেন?
    1. ⓂⒶⒽⒷⓊⒷ Mahbub Author Post Creator says:
      fb te asun
      1. N Y NAIM N Y NAIM Author says:
        Vai…ami o korbo…robi r kicu offer ase …plz aktu help koren
        1. ⓂⒶⒽⒷⓊⒷ Mahbub Author Post Creator says:
          amar sit a post koren ami copy kore trickbd te post korbi
  2. Mahim08 Mahim08 Contributor says:
    hmmm nice man
    1. ⓂⒶⒽⒷⓊⒷ Mahbub Author Post Creator says:
      Profile pic change koren & name..

Leave a Reply