আসসালামু আলাইকুম সবাই কেমন আছেন…..? আশা করি সবাই ভালো আছেন । আমি আল্লাহর রহমতে ভালোই আছি ।আসলে কেউ ভালো না থাকলে TrickBD তে ভিজিট করেনা ।তাই আপনাকে TrickBD তে আসার জন্য ধন্যবাদ ।ভালো কিছু জানতে সবাই TrickBD এর সাথেই থাকুন ।

খারাপ হও তবেই সফল হবে

You are a Badasa Jen sincero বইটা থেকে আজকে আমি আপনার সাথে কয়েকটি এরকম স্মার্ট আইডিয়া শেয়ার করতে চলেছি যাতে আপনি নিজের প্রতি সেলস ডাউট গুলোকে ওভারকাম করে আপনার ড্রীম লাইফ লিড করতে শুরু করতে পারেন।

১. লোকে কি ভাবল না ভেবে নিজেকে নিজে কি ভাবলেন সেটাকে বেশি গুরুত্ব দিনঃ বন্ধুরা সবাই মিলে ড্রিঙ্ক করছে সেখানে আপনি একা যদি বলেন নারে ভাই আমি এসব খাইনা। তাহলে বন্ধুরা যদি আপনাকে দুধের শিশু বা ঔই জাতীয় কিছু বলে হেটা করতে শুরু করে। এই ভেবে আপনিও হয়তো ইচ্ছা না থাকা সত্ত্বেও তাদের সাথে যোগ দিয়ে বসলেন। এতে ওদের চোখে হয়তো আপনি বিশাল বড় হনু হয়ে উঠতে পারলেন কিন্তু নিজের চোখে আপনি নিচে নেমে গেলেন। কারণ আপনি খুব ভালো করে জানেন এগুলো আপনার শরীরের পক্ষে ক্ষতিকারক আর আপনার কোন ইচ্ছাও নেই।

কিন্তু শুধুমাত্র অন্যের চোখে নিজেকে হনু দেখানোর জন্য আপনি নিজের চোখে নিজেকে খারাপ করে তুললেন। এখানেই অথর Jen sincero বলেছেন এটা মাথায় রাখতে You are a Badass. Badass সেই যে কোন কিছুর জন্য নিজের টু সেলফি সঙ্গে কখনো কম্প্রোমাইজ করে না। একজন Badass কাছে লোকে তাকে কি ভাবল তাতে কিছু যায় আসে না ।বরং সে নিজেকে নিজে কি ভাবলো সেটা তার কাছে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

২.আপনি কেমন অনুভব করছেন সেটার জন্য অন্যকে দোষারোপ করা বন্ধ করুনঃ ভাবুন আপনি আসলে লম্বা কিন্তু কেউ আপনাকে নাটা নাটা বলে রাগানোর চেষ্টা করতে শুরু করল। আপনি কি তাতে রাখবেন কখনোই রাখবেন না। কিন্তু যদি ধরুন হয়তো আপনার স্বপ্ন ছিল আর্মিতে জয়েন করার কিন্তু পর্যাপ্ত হাইট না থাকার কারণে আপনি হয়তো চান্স পাননি। এবার যদি কেউ আপনাকে নাটা নাটা বলে রাগানোর চেষ্টা করে তবে সম্ভবত আপনি রেগে যাবেন এবং তখন যদি আপনাকে জিজ্ঞেস করা হয় আপনি রেগে কেন যাচ্ছেন আপনি হয়তো বলবেন।

ওই লোকটা আমাকে বারবার নাটা বলছে তাই জন্য। কিন্তু আসলে আপনি যে আপনার স্বপ্নটা পূরণ করতে পারেনি সেখান থেকে আপনার মনে যে এটা বসে গেছে যে আপনি নাটা আর সেটা খারাপ সেই জন্যই কিন্তু আপনি আসলে রেগে উঠছে। অন্য কেউ আপনার সাথে কেমন ব্যবহার করবে সেটা তার চেয়েছ। সেটা কি আপনি চাইলেও বদলাতে পারবেন না। কিন্তু আপনি নিজের মনের মধ্যে কোনটাকে সত্যি বলে মেনে নেবেন যে আপনি না টানা লম্বা বা নাটা হওয়া ভালো নাকি খারাপ সেটা অবশ্যই আপনি চাইলে কন্ট্রোল করতে পারেন।

এরকমই জীবনের প্রতিটা ক্ষেত্রে কেউ যদি আপনাকে গরিব বলে আপনি রেগে ওঠেন তার মানে মনে মনে কোথাও না কোথাও আপনি জীবনে যতটা ধনী হতে চেয়ে ছিলেন ততটা ধনী হয়তো হতে পারেনি। আর সেই কারণেই কেউ আপনাকে গরিব বলাতে আপনি হয়তো রেগে উঠছেন। তাই অথার বলেছেন কারোর কোনো কথা বা ব্যবহারে যদি আপনি খারাপ অনুভব করেন তবে অন্য কাউকে দোষারোপ না করে আপনার খারাপ লাগার পিছনে লুকিয়ে থাকা আপনার নিজস্ব নেগেটিভ বিলিভটাকে আইডেন্টিফাই করে সেটাকে বরং বদলানোর চেষ্টা করুন। কারণ সেটাই একমাত্র পার্মানেন্ট সমাধান।

৩. আগে নিজেকে ভালোবাসুন তারপর অন্য কাউকেঃ লাইফের বড় ডিসিসন গুলো যখন Career, Job, Marriage এগুলোর ক্ষেত্রেও নিজের কথা না ভেবে অন্য কাউকে খুশি করার কথা ভেবে আমরা এমন সিদ্ধান্ত নিয়ে বসি যে তারপর সারা জীবন সেটার জন্য আমাদের আফসোস করে কাটাতে হয়। অন্য লোকেদের আমাদের প্রতিটি করা নেগেটিভ মন্তব্যগুলোকে আমরা এত সিরিয়াসলি নিয়ে নিবে সেখান থেকে নিজেদের মধ্যেই সেল্ফ ডাউট জন্ম নিতে শুরু হয়।

অন্যের শরীরের খেয়াল রাখার কথা বলার সময় থাকলেও নিজের শরীর ভালো রাখার কথা আমাদের খেয়াল থাকে না। তো ভাই আপনার নিজের কাপটাই যদি খালি থাকে সেটা দিয়ে আপনি অন্য কারোর কাপ ভর্তি করবেন কিভাবে। তাই একজন Badass এর মত নিজের প্রতি সমস্ত সেল্ফডাউট গুলোতে তাড়িয়ে আত্মবিশ্বাস গড়ে তুলে Dream Life লিড করতে পারার জন্য অথার Jen sincero তার বইতে বারবার এই বিষয়টির ওপর জোর দিয়েছেন আগে নিজেকে ভালোবাসুন তারপর অন্য কাউকে।

৪. আপনার নেগেটিভ Believe গুলো আপনার এবং আপনার স্বপ্ন পূরণের পথে সব থেকে বড় বাধাঃ ছোটবেলা থেকে যদি আপনি আপনার মা-বাবাকে টাকা রোজগার করতে গিয়ে হিমশিম খেতে দেখে বড় হয়ে উঠেন। তবে খুব সম্ভবত আপনার মধ্যেই নেগেটিভ Believe টা রয়েছে যে টাকা রোজগার করা ভীষণ কঠিন। এটাই আপনার ধনী হওয়ার পথে সবথেকে বড় বাধা। এ নেগেটিভ Believeটা থাকার জন্যই হয়তো আপনি কোন বিজনেস সুযোগ আসলেও সেটাতে পা বাড়ানোর সাহস করে উঠতে পারবেননা।

আপনার ভিতর থেকে আপনার নেগেটিভ Believe যেটাকে অথার ডিক্সনোজ বলেছেন সেটা আপনাকে ভয় দেখিয়ে আটকে রাখেবে এর হাত থেকে বাচতে হলে আপনাকে নিজের ভিতরেই নেগেটিভ believe গুলোকে এক এক করে চিহ্নিত করে সেগুলো কে তার বিপরীত পজিটিভ believe গুলো দিয়ে রিপ্লেস করতে হবে। আর এজন্য অথার পজিটিভ এফারমেশন অর্থাৎ যেমন ধনী হওয়া খুবই সহজ এবং আমিও পারবো ধ্বনি হতে। এই ধরনের কথাগুলো কে বারবার মনের ভিতর রিপিট করার উপদেশ দিয়েছেন। যাতে আপনার সাবকনশাস মাইন্ড যেটাই আপনার লাইফে সমস্ত কিছুকে কন্ট্রোল করছে সেটার মধ্যে স্টোর হয়ে থাকার নেগেটিভ believe গুলো পজেটিভ believe গুলো দিয়ে রিপ্লেস হয়ে যায়।

৫. সব সময় একজন খেলোয়াড়ের মত মানসিকতা বজায় রাখার চেষ্টা করুনঃ ছোটবেলায় আমাদের সবারই অনেক ধরনের স্বপ্ন থাকে। কিন্তু বড় হতে হতে আমরা জীবনের যত বেশি ব্যর্থতার সম্মুখীন হতে শুরু করি ততো বেশি একটা একটা করে স্বপ্ন গুলো মলিন হয়ে যেতে থাকে। তার সাথে আশেপাশের মানুষরা যদি সাপোর্ট না হয় তাহলে সেই স্বপ্নগুলো মুলিন হওয়ার গতি আরও বৃদ্ধি পায়। এই সমস্যার সমাধান হিসেবে অথর বলেছেন একজন Badass খেলোয়াড়ের মত মনোভাব রাখবো একজন খেলোয়াড় যেমন একটা গেমে হেরে যাওয়ার পর সম্পূর্ণ খেলায় ছেড়ে দেয় না।

বরং সেই গেমটা দেশে কী কী ভুল করেছে সেগুলো কে চিহ্নিত করে নেক্সট পার নিজেকে কিছুটা হলেও শোধরানোর চেষ্টা করে। সেরকমই আমাদের জীবনের স্বপ্ন পূরণের পথে বাধার সম্মুখীন হতে হলে হাল ছেড়ে দিলে চলবে না। নিজের কোন ভুলগুলো থেকে শিক্ষা নিয়ে নিজেকে ক্ষমা করে একজন Badass এর মতো নিজের প্রতি ফুল কনফিডেন্স হিসেবে এগিয়ে যেতে হবে।

Trickbd তে অনেকেই পোস্ট কতে চান কিন্তু করতে পারছেন না। আপনারা Ictbn.Com ওয়েবসাইটে পোস্ট করতে পারেন।এখানে একাউন্ট করলেই author।এখানে প্রতি পোস্টের জন্য ৫-৫০ টাকা পর্যন্ত দেওয়া হয়।পোস্টের মানের উপর ভিত্তি করে। ICTBN.Com

আশা করি সবাই সবকিছু বুঝতে পেরেছেন। কোথাও সমস্যা হলে কমেন্ট করে জানাবেন অথবা ফেসবুকে জানাতে পারেন ফেসবুকে আমি

6 thoughts on "আপনি যদি সফল হতে চান তাহলে এই বিষয়গুলো এড়িয়ে চলেন। খারাপ হও তবেই সফল হবে"

  1. (Mr. Merciless) Dark_Superman (Mr. Merciless) Contributor says:
    ভাই, আপনি তো দেখি আমার টেকনিকগুলা এখানে পোস্ট করে দিলেন।
    আমার Mind hack করেছিলেন নাকি?
    1. MD Shakib Hasan MD Shakib Hasan Author Post Creator says:
      চিন্তা করবেন না। আপনার Mind Hack করিনি 😄
  2. ashiq khan ashiq khan Contributor says:
    লেখায় প্রচন্ড বানান ভুল। এত ভুল হলে বিরক্ত লাগে।
    1. MD Shakib Hasan MD Shakib Hasan Author Post Creator says:
      🤔
    1. MD Shakib Hasan MD Shakib Hasan Author Post Creator says:
      🥰

Leave a Reply