ফ্যান আস্তে ঘুরলে বিদ্যুৎ খরচ * কম হয় *
বেশী হয় * একই হয় * কোনটি নয় এই
প্রশ্নটি অনেক পরীক্ষাতে আসে আমরা
সবাই উত্তর দেই “একই হয়” আসলে কি
ঠিক? ঠিক না কারণ যদি আপনি
ইলেকট্রিক্যাল রেগুলেটর ( বড় সাইজের
অনেক ভারী রেগুলেটর) ব্যবহার করেন
তাহলে আস্তে বা জোরে ঘুরক না
কেন বিদ্যুৎ খরচ একই হবে, কিন্তু যদি
আপনি ইলেকট্রনিক্স ( ছোট হালকা
রেগুলেটর) ব্যবহার করেন তাহলে
আস্তে ঘুরলে বিদ্যুৎ খরচ কম হবে জোরে
ঘুরলে খরচ বেশী হবে।

আবার ৪ ফুটের ফ্লুরোসেন্ট ল্যাম্প
(টিউব লাইট) এর গায়ে লেখা থাকে
৪০ ওয়াট। আসলে কি ৪০ ওয়াট না
আসলে ওটা ২০ ওয়াট, কারণ আপনি
বাল্বটির জালানোর জন্য যে ইন্ডাকটর
(ব্যালাস্ট) ব্যবহার করেন সেটা নেয় ২০
ওয়াট বাল্ব নেয় ২০ ওয়াট মোট ৪০
ওয়াট।

এ্যানাজী সেভিং ল্যাম্প নিয়ে এত
মাতামাতী আসলে দেখেছেন কি এর
আলো কতটা কর্কশ, চোখে লাগে কারন
এটা থেকে রেডিয়েশন হয় এবং আলো
ছোট জায়গা থেকে হয় বলে চোখে
লাগে বেশী। সমান ওয়াটের এনার্জী
বাল্বের চেয়ে টিউব লাইটের আলো
বেশী এবং এই আলো চেখে কম লাগে
রেডিয়েশন কম তাই টিউব লাইট
ব্যাবহার করা ভাল কিন্তু টিউব লাইট
লাগানো ঝামেলা তাই এনাজী
আমার প্রেফার করি।

কিন্তু যদি আপনি ৪০ ওয়াটের টিউব
লাইটের সাথে ইলেকট্রনিক্স (ওজনে
হালকা ৬ তার বিশিষ্ট ব্যালাষ্ট)
ব্যালাষ্ট ব্যবহার করেন তাহলে বিদ্যুৎ
খরচ হবে মাত্র ২২ ওয়াট কারন বাল্ব
নেবে ২০ ওয়াট ব্যালাষ্ট নেবে ২
ওয়াট মোট হবে ২২ ওয়াট । এখন বলুন
এনাজী না ইলেকট্রনিক্স ব্যালাষ্ট যুক্ত
টিউব লাইটই ভাল।

সহজে বৈদ্যুতিক এনাজি বা
ইউনিট নির্নয় করার পদ্ধতি

একজন জানতে
চেয়েছে ভোল্টেজ কম থাকলে কি
বিদ্যুৎ বিল বেশি আসার সম্ভবনা
থাকে?

ব্যাপারটা আমি একটু ঘুরিয়ে বলি যদি
আপনাকে বলা হয় ভো্ল্টেজ কমলে
কারেন্ট বাড়ে না কমে? আপনি বলবেন
বাড়ে কারণ পাওয়ার = ভোল্টেজ *
কারেন্ট । ভোল্টেজ কমলে অবশ্যই
কারেন্ট বাড়বে।
উধাহরন সরুপ ৫০০ ওয়াটের একটি বাল্ব
যদি ২৫০ ভোল্টে চলে তাহলে
কারেন্ট নেবে ২ অ্যাম্পিয়ার । যদি
ভোল্টেজ ১২৫ হয় তবে নেবে ৪
অ্যাম্পিয়ার। ( আমার মতে নেবে ১
অ্যাম্পিয়ার)
আমি বলি এটা থিউরিটিক্যালি
বাড়ে বাস্তবে কমে।
কারণ পাওয়ার = ভোল্টেজ*
কারেন্ট=ভোল্টেজ*ভোল্টেজ/
রেজিষ্টেন্স (রেজিষ্টেন্স হল
বাল্বের কন্সট্যান্ট মান যা স্থির
থাকবে আপনি বাড়াতে বা কমাতে
পারবেন না) তাহলে ৫০০ ওয়াটের
বাল্বের রেজিষ্ট্যান্স হবে ১২৫ ওহম ।
ভোল্টেজ যখন ২৫০ তখন সে ওয়াটেজ
দেবে ২৫০*২৫০/১২৫= ৫০০ আর ভোল্টেজ

যখন ১২৫ তখন সে ওয়াটেজ নেবে
১২৫*১২৫/১২৫ =১২৫ ওয়াট। এখন বলুন
পাওয়ার দেবে ১২৫ ওয়াট ভোল্টেজ
নেবে ১২৫ ভোল্ট তাহলে কারেন্ট কি
নেবে ৪ অ্যাম্পিয়ার। কারেন্ট =
১২৫/১২৫= ১ অ্যাম্পিয়ার । এ জন্যই
ভোল্টেজ কমলে আলো কম হয়।
অনেকেই বলে লো ভোল্টেজের
কারনে মটর পুড়ে যায় যদি পুড়ত তাহলে
আমরা কেউ ফ্যান চালাতে পারতাম
না ফ্যান একটা সিঙ্গেল ফেজ মটর
এটাকে আস্তে ঘোরার জন্য ভোল্টেজ
কম দেই তাহলেই বলেন ব্যাপারটা কি?
“তবে লো ভোল্টেজে মটর বা লোড
পুড়বে তখনই যখন আপনি আউটপুট নরমাল
ভোল্টেজ ও লো-ভোল্টেজ এ সমান
চাবেন তখন”

##এই মতামত সম্পুন্ন আমার ব্যাক্তিগত
বিদ্যুৎ সম্পর্কে ধারণা আমার খুবই
সামান্য তাই যদি কোন অসঙ্গতি হয়
তাহলে ক্ষমা প্রার্থী তবে পরীক্ষা
করে ফলাফল যাচাই করা দায়িত্ব
আপনাদের ## বিদ্যুৎ কে ভয় পাবেননা
বরং সতর্ক হোন ধন্যবাদ পোষ্টটি পড়ার
জন্য।

@আমার ব্লগ

@আমার ফেসবুক পেজ

6 thoughts on "বিদ্যুৎ সম্পর্কে যে ধারণাগুলো এখনি বদলে ফেলা উচিৎ !"

  1. Sajadul Islam Sajadul Islam Contributor says:
    nice


    1. Kazi Abdul Wakil Kazi Abdul Wakil Contributor Post Creator says:
      Thanks @Sajadul Islam
  2. Md Tawhid md tawhid Contributor says:
    jotil math, nice post.
    1. Kazi Abdul Wakil Kazi Abdul Wakil Contributor Post Creator says:
      Welcome @md tawhid
    1. Kazi Abdul Wakil Kazi Abdul Wakil Contributor Post Creator says:
      Thanks @Erad Hossain

Leave a Reply