বাজারে এসে গেছে অ্যাপলের নতুন চমক—আইফোন টেন। বিশ্বজুড়ে লাখো অ্যাপলপ্রেমীর অপেক্ষার শেষ হয়েছে। অ্যাপলের দশকপূর্তি উপলক্ষে বাজারে ছাড়া এ স্মার্টফোনটি কিনতে আগ্রহী অনেকেই।
২৭ অক্টোবর থেকে আইফোন টেনের জন্য আগাম ফরমাশ নিতে শুরু করে মার্কিন প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটি। আজ ৩ নভেম্বর থেকে আইফোন টেন হাতে পাচ্ছেন গ্রাহক। ৯৯৯ মার্কিন ডলার মূল্যের এই ফ্ল্যাগশিপ ফোনটি গত ১২ সেপ্টেম্বর ঘোষণা দেয় অ্যাপল। আলোচিত এই স্মার্টফোনটিতে রয়েছে বেশ কিছু আকর্ষণীয় ফিচার, যে কারণে এটি কিনতে অনেকেই আগ্রহী, আবার কিছু কারণে অনেকেই আইফোন টেন থেকে মুখ ফেরাতে পারেন। চলুন জেনে আসি কয়েকটি

কারণ সম্পর্কে:
সংগ্রহে রাখার জন্য
আইফোনের দশকপূর্তি উপলক্ষে আইফোন টেন বাজারে আনে অ্যাপল। তাই এটি বিশেষ স্মার্টফোন। যাঁদের বিভিন্ন জিনিস সংগ্রহের শখ আছে, তাঁরা আইফোনের নতুন সংস্করণটি সংগ্রহে রাখতে পারেন। সম্পূর্ণ নতুন নকশার একটি স্মার্টফোন নিশ্চয়ই অ্যাপলভক্তদের মন কাড়বে।

ফেস আইডি


আইফোন টেনে যুক্ত হয়েছে ফেস আইডি ফিচার, যা নতুন ট্রুডেপথ ক্যামেরার মাধ্যমে ব্যবহার করা হয়। ফিচারটি আইফোন ৮ ও ৮ প্লাসে নেই। টাচ আইডির বদলে আইফোন টেন আনলক করতে ফেস আইডি ব্যবহৃত হবে। অ্যাপল পের মতো ফিচার ব্যবহার করতে এটি কাজে লাগবে। আইফোন টেনে যে সেন্সর, ক্যামেরা, চিপ ও ডট প্রজেক্টর আছে, তা অন্য আইফোনে নেই। এতে ব্যবহারকারীর মুখের ওপর ৩০ হাজার অদৃশ্য ডটের মাধ্যমে মুখের মানচিত্র তৈরি করা হয়, যা বিশেষ ইনফ্রারেড রশ্মির মাধ্যমে অন্ধকারের চেহারা চিনতে সাহায্য করে।

ওএলইডি স্ক্রিন


এজটুএজ পাঁচ দশমিক আট ইঞ্চি মাপের ওএলইডি ডিসপ্লে থাকায় এটি চমকপ্রদ। এটাই ওএলইডি ডিসপ্লেযুক্ত একমাত্র আইফোন। আইফোন টেনে পিক্সেল ঘনত্ব অন্যান্য সব আইফোনের চেয়ে বেশি। ২৪৩৬ বাই ১১২৫ পিক্সেল রেজুলেশনের ডিসপ্লেতে প্রতি ইঞ্চিতে পিক্সেল ঘনত্ব ৪৫৮ পিপিআই। আইফোন ৮ প্লাসে পিক্সেল ঘনত্ব ৪০১ পিপিআই। এটি অ্যাপলের প্রথম এইচডিআর-রেডি স্মার্টফোন। এটি ডলবিভিশন সমর্থন করে।

পোর্ট্রেট মোড


আইফোন টেনে নতুন লাইটিং ইফেক্ট পাওয়া যাবে। এ ছাড়া আছে বিশেষ পোর্ট্রেট মোড। আইফোন টেনের পেছনে যে ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে, তা আইফোন ৮ ও ৮ প্লাসের চেয়ে উন্নত। আইফোন ৮ ও ৮ প্লাসের ক্যামেরা বিভিন্ন পরীক্ষায় অন্যান্য ক্যামেরাকে পেছনে ফেলেছে। প্রযুক্তি বিশ্লেষকেরা জানান, আইফোন টেনের ক্যামেরা আইফোন ৮ ও ৮ প্লাসের ক্যামেরাকেও ছাড়িয়ে যাবে। আইফোন টেন ও ৮ প্লাসে ১২ মেগাপিক্সেল ওয়াইড-অ্যাঙ্গেল ও টেলিফটো ক্যামেরা, অপটিক্যাল জুম, ওয়াইড অ্যাঙ্গেল অ্যাপারচার এফ/ ১.৮ আছে। তবে আইফোন টেনে টেলিফটোতে অ্যাপারচার এফ/ ২.৪ থাকায় এটি আইফোন ৮ প্লাসের চেয়ে উন্নত। আইফোন ৮ প্লাসের টেলিফটোতে অ্যাপারচার এফ/ ২.৮। অ্যাপারচার কম থাকায় কম আলোতে উন্নত ছবি তুলতে পারবে আইফোন টেন। এ ছাড়া আইফোন টেনের ডুয়াল অপটিক্যাল ইমেজ স্ট্যাবিলাইজেশন থাকায় ছবি হবে ঝকঝকে।

অ্যানিমোজি


শুধু আইফোন টেনের জন্য অ্যানিমোজি নামের ফিচার উন্মুক্ত করেছে অ্যাপল। এর মাধ্যমে অ্যাপলের নতুন ফেসিয়াল রিকগনিশন (চেহারা শণাক্তকরণ) সফটওয়্যার ব্যবহার করে যেকোনো চেহারাকে অ্যানিমেটেড ইমোজিতে রূপান্তর করা যাবে। যা মুখের অভিব্যক্তি প্রকাশ এবং কথা বলতে পারে। ১২ ধরনের অ্যানিমোজি প্রকাশ করা হয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে বানর, পান্ডা, এলিয়েন ও শিয়াল।

কেন কিনবেন না


আইফোন টেন কেনার জন্য যেমন বেশ কিছু আকর্ষণীয় ফিচার আছে, তেমনি এটি না কেনার অনেক কারণ আছে। দেখে নিন এসব:

দাম


আইফোন টেন না কেনার অন্যতম কারণ হচ্ছে এর দাম। ৯৯৯ মার্কিন ডলার দাম তুলনামূলকভাবে বেশি। এটি আইফোনের মধ্যে সবচেয়ে দামি। বাজারে ফ্ল্যাগশিপ অন্যান্য স্মার্টফোনগুলোর মধ্যে এর দাম বেশি।

প্রসেসর


আইফোন ৮ ও আইফোন ৮ প্লাসে ও আইফোন টেনে একই প্রসেসর ব্যবহার করেছে অ্যাপল। এ ১১ প্রসেসরটি অ্যাপলের সর্বশেষ ১০ ন্যানোমিটার প্রযুক্তি ও ছয় কোর সিপিইউ নকশা ব্যবহার করা হয়েছে। অ্যাপলের দাবি, এ ১১ প্রসেসরটি আগের আইফোন ৭ ও ৭ প্লাসে থাকা এ ১০ প্রসেসরের চেয়ে ২৫ শতাংশ দ্রুতগতির।

নতুন ইন্টারফেস


আইফোনের বড় সুবিধা হচ্ছে এর ব্যবহারবান্ধব ইউজার ইন্টারফেস। সহজে ব্যবহারযোগ্য ইন্টারফেসের কারণে অনেকেই আইফোন পছন্দ করেন। কিন্তু আইফোন টেনে তা বদলে গেছে। এতে ফেসআইডি যুক্ত হওয়ার পাশাপাশি হোম বাটন বিদায় নিয়েছে। এতে আইওএস ১১ থাকলেও নতুন ইন্টারফেস যুক্ত হয়েছে। আগের সোয়াইপ ও জেশ্চার আইফোন টেনে কাজ করবে না। অ্যাপ খোলা, কন্ট্রোল সেন্টার ব্যবহারে পরিবর্তন এসেছে। অর্থাৎ, নতুন আইফোন ব্যবহার জটিল।

ফিচার


আইফোন ৮ ও ৮ প্লাসের অনেক ফিচার রয়েছে আইফোন টেনে। এর মধ্যে একটি হচ্ছে ওয়্যারলেস চার্জিং। আইফোন টেনের জন্য বিশেষ আলাদা কোনা ফিচার নেই। একই চিপসেট, পানি ও ধূলা প্রতিরোধী ফিচার, স্টোরেজে দিক থেকেই বিশেষ কিছু নয় আইফোন টেন।

ঝুঁকি


আইফোন টেনের অল-গ্লাস নকশা দেখতে সুন্দর হলেও এটি ব্যবহারে বেশি সতর্ক থাকতে হয়। দুই দিকেই কাচ থাকায় ব্যবহারকারীকে এখন দুই পৃষ্ঠ নিয়ে সচেতন থাকতে হয়। কোনোভাবে হাত থেকে পড়ে যদি কোনো পৃষ্ঠ ক্ষতিগ্রস্ত হয় তবে তা বদলানোর খরচ কম নয়।
FACEBOOK.COM

17 thoughts on "আইফোন টেন কেন কিনবেন, কেন কিনবেন না ★★জরুরি কিছু তথ্য জেনে নিন★★"

  1. TB Towhid TB Towhid Contributor says:
    পাগলা পষ্ট এবং পুরাটা Google থেকে কপি
    1. Md Liton Shakh Md Liton Shakh Author says:
      পষ্ট না পোষ্ট। কোথায় টিউনারদের ভাল কমেন্ট করে উৎসাহিত করবে, তা না শুধু খারাপ মন্তব্য।
  2. Dazzling King Author Post Creator says:
    যে ব্যক্তি যেমন,
    তার কথা বার্তা ও তেমন।
  3. Android Master Contributor says:
    পুরাই কপি পোস্ট —–
    প্রথম আলো থেকে একটুও নিজে লিখেন নাই।
  4. Android Master Contributor says:
    m.prothom-alo.com/technology/article/1357406/আইফোন-টেন-কেন-কিনবেন-কেন-কিনবেন-না?
  5. ѕнα∂нιи ѕнα∂нιи Author says:
    পূর্বের পোস্ট আর এই পোস্টের মতো পোস্ট করলে’ বেশিদিন author থাকতে পারবেননা 🙂 (কপি পোস্ট পরিহার করুন)
    1. ѕнα∂нιи ѕнα∂нιи Author says:
      Copy From m.prothom-alo.com/technology/article/1357406/আইফোন-টেন-কেন-কিনবেন-কেন-কিনবেন-না?
  6. Trickbd Support Trickbd Support Moderator says:
    ট্রেইনার করার সাথে সাথেই কপি পেস্ট করা শুরু করে দিলেন?
    এরকম করলে তো আপনাকে ডিমোট করা হবে।
    আবার কন্ট্রিবিউটর!
    1. Salman Abir Munna darkspider Author says:
      vai plss amak trainer koren
  7. Dazzling King Author Post Creator says:
    ঠিক আছে।
    Next time valo kicu deo ar
    try korbo…..
    sryyy
  8. sarderrasel sarderrasel Contributor says:
    Prothom alo freebasic dia pora jai.
    Tai copy ta o hiseb kora korben
  9. Farukafnan Contributor says:
    Ami iPhone 4s use kori ata r boyosh 12 years
    1. Dazzling King Author Post Creator says:
      GOOD
    2. MH MAHIN Contributor says:
      He he ata to apner moto e bura……

Leave a Reply